Author Topic: ২১ বছরের তরুণের মাসিক আয় ২৭ কোটি টাকা  (Read 233 times)

Offline bbasujon

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 2360
  • Sultan Mahmud Sujon,Department of Entrepreneurship
    • View Profile
    • Higher Education




তিন বছর আগে এক রাতে নিজের অ্যাপার্টমেন্ট ভবনে ঢুকতে না পেরে বাইরে রাত কাটান রিতেশ আগরওয়াল। ওই রাতে জোর করে এক হোটেলে ঢুকে তিনি যে অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হন, আগেও বেশ কয়েকবার এ রকম ঘটনার মুখোমুখি হয়েছিলেন। আর এই সামান্য বাস্তব ঘটনাই বদলে দিয়েছে তার পুরো জীবন।   ২১ বছরের রিতেশ বলেন, ‘হোটেলে ঢুকে দেখি রিসিপশনিস্ট ঘুমাচ্ছে। রুমের সকেটগুলো কাজ করছে না। তোশক ছেড়া। বাথরুমের কল থেকে পানি পড়ছে। শেষে দেখলাম তারা ক্রেডিট কার্ডও নিচ্ছেন না। আমি ভাবলাম, এগুলো যদি আমার সমস্যা হয় তাহলে আমার মতো অন্যরাও একই সমস্যায় পড়ছেন। ভারতে অল্প খরচে কেন ভালো হোটেল পাওয়া যাবে না?’ হোটেল ব্যবস্থার এ রকম অব্যবস্থাপনা দেখে তিন বছর পর আগরওয়াল প্রতিষ্ঠা করেন সংশ্লিষ্ট কাজের একটি প্রতিষ্ঠান। ‘অয়ো রুমস’ নামের ওই প্রতিষ্ঠানের তিনি এখন প্রধান নির্বাহী। প্রতিষ্ঠানটির কাজ হচ্ছে ভারতের হোটেল ব্যবস্থার মানোন্নয়ন করা। একজন ব্যক্তি যাতে বিনা ঝামেলায় হোটেলে থাকতে পারবেন সেই ব্যবস্থা করা। ভারতের ৩৫টি শহরের ১ হাজারের বেশি হোটেল তার নেটওয়ার্কের আওতায়। তার অধীনে প্রায় ১ হাজার কর্মী কাজ করছে। ছোটখাট হোটেলের সেবার মান উন্নত করায় প্রতিষ্ঠানের একমাত্র কাজ নয়, হোটেল কর্মীদের প্রশিক্ষণ দেওয়া এবং প্রযুক্তিগত সেবাও দিয়ে থাকে প্রতিষ্ঠানটি। ‘অয়ো’র নাম ব্যবহার করতে দেওয়ায় অয়ো্ হোটেলগুলোর আয়ের অংশীদার হয়। ওই ব্যবসার অংশ হিসেবে আগরওয়াল একটি অ্যাপ তৈরি করেছেন যেটি ব্যবহার করে অতিথিরা হোটেলের কামরা বরাদ্দ দিতে পারবেন, হোটেলে যাওয়ার পথ নির্দেশনা পাবেন। হোটেলে পৌঁছে রুম সার্ভিসের মতো সেবাগুলোও এই অ্যাপের মাধ্যমে পাবেন। এ সব কাজের জন্য প্রতি মাসে তার প্রায় আয় ২৭ কোটি ২২ লাখ (৩৫ লাখ ডলার) টাকা।   তিনি বলেন, শুরুটা কঠিন ছিল। ২০১৩ সালে দিল্লিতে মাত্র ৯০০ ডলার নিয়ে তিনি যাত্রা শুরু করেন।এখন বিদেশেও অয়ো রুমস এর সেবা পৌঁছে দিতে চাই।