Author Topic: অনিদ্রা কাটানোর খাবার  (Read 95 times)

Offline Ishtiaque Ahmad

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 136
  • Test
    • View Profile
অনিদ্রা কাটানোর খাবার
« on: November 11, 2015, 10:19:31 AM »
সারাদিনের খাটুনির পরও ঘুম আসছে না! অনেকেই মনে করেন ‘ইনসমনিয়া’ বা অনিদ্রায় ভুগছেন। আর এ থেকে মুক্তি পেতে অনেকেই ঘুমের ওষুধের উপর আশ্রয় নেন।



ঘুমের ওষুধের অভ্যাসের কারণে নানান ধরনের সমস্যা হতে পারে। সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে যার ঘুমের ওষুধের উপর নির্ভরশীল তাদের ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে।

বেশ কিছু খাবার আছে যেগুলো অনিদ্রার সমস্যা কিছুটা কমাতে সাহায্য করে। স্বাস্থ্য বিষয়ক একটি সাইটে এই ধরনের কয়েকটি খাবারের বিষয়ে উল্লেখ করা হয়।

কলা

কলায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পটইশয়াম। আর মানুষের শরীরে পটাশিয়ামের উপস্থিতি, রাতে ঘুম কতটা গাঢ় হবে সেটি নিয়ন্ত্রণ করে। তাছাড়া কলার ট্রাইপটোফ্যান এবং ম্যাগনেসিয়াম রাতে ঘুম হতে সাহায্য করে। তাই ঘুমের ওষুধ বাদ দিয়ে রাতে কলা খেয়ে বিছানায় যেতে পারেন।


মধু

ঘুমাতে যাওয়ার আধা ঘন্টা আগে হার্বাল চা বা হালকা গরম দুধের সঙ্গে এক চামচ মধু মিশিয়ে খাওয়ার যেতে পারে। মধু স্নায়ু শীতল করতে সাহায্য করে। ফলে রাতে ঘুমে সাহায্য করে।

বাদাম

শরীরে সেরোটোনিন হরমোনের পরিমাণ বাড়াতে সাহায্য করে বাদাম। এই হরমোন মস্তিষ্ককে সুখের অনুভূতি সৃষ্টি করতে সাহায্য করে। বাদামেও রয়েছে ট্রাইপটোফ্যান এবং ম্যাগনেসিয়াম। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে ১০ থেকে ১৫টি বাদাম ভালো ঘুম হতে সাহায্য করবে।

দই

দুগ্ধজাত খাবার হিসেবে দইয়ে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম। এই উপাদান ঘুমে সাহায্যকারী ট্রাইটোফ্যান এবং মেলাটোনিন হরমোন বাড়াতে সাহায্য করে। তাই রাতে ঘুমানোর আগে দই খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুললে ভালো ঘুম হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ে।

ভেষজ চা

অনেকে মনে করেন লাল চা বা ‘গ্রিন টি’-এর মতো ক্যাফেইন সমৃদ্ধ ভেষজ চাগুলো রাতে ঘুমে ব্যঘাত ঘটাতে পারে। তবে গবেষণায় দেখা গেছে ক্যামোমাইল সমৃদ্ধ ভেষজ চা দুশ্চিন্তা কমায় এবং অনিদ্রার সমস্যা কমাতে সাহায্য করে।

 

আঙুর

এই ফল শরীরে প্রচুর পরিমাণে মেলাটোনিন হরমোন তৈরি করতে সাহায্য করে। আর এই হরমোন ঘুমে সাহায্য করে।

ডিম

রয়েছে ট্রাইটোফ্যান নামক এক ধরনের অ্যামাইনো অ্যাসিড। এই উপাদান ঘুম বাড়াতে সাহায্য করে। তাই ঘুমানোর আগে খাওয়ার জন্য আদর্শ একটি খাবার হল ডিম।