Author Topic: নতুন ব্র্যান্ডের নতুন ফোন ‘এস ২ ’  (Read 294 times)

Offline sourov777

  • Newbie
  • *
  • Posts: 6
  • Test
    • View Profile
‘হেলিও’ ব্র্যান্ডটিকে জনপ্রিয় করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশে মোবাইল ফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এডিসন গ্রুপ। এই ব্র্যান্ডটির দ্বিতীয় প্রজন্মের স্মার্টফোন সেট হিসেবে এ মাসের শুরুতে ‘হেলিও এস ২’ উন্মুক্ত করে প্রতিষ্ঠানটি। এর আগে প্রথম প্রজন্মের হেলিও এস ১ ও এস ২০ বাজারে এনে ব্র্যান্ডটিকে পরিচিত করার চেষ্টা করে প্রতিষ্ঠানটি। এবার বেশ কিছু উন্নত ফিচার আর নান্দনিক নকশায় দ্বিতীয় প্রজন্মের ফোনটিকে আরও উন্নত করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

হেলিও এস ২ স্মার্টফোনে ব্যবহার করা হয়েছে মেটালিক ইউনিবডি। এর ৮ দশমিক ১৫ মিলিমিটার বডির থিকনেসের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে ২ দশমিক ৫ডি ওয়াটার ড্রপ গ্লাস। এতে ফোনের গ্রিপ, টাচস্ক্রিন রেসপন্স সবকিছুই হয়েছে আরও আধুনিক।

এর আগে হেলিও এস ১ সংস্করণে ৬ দশমিক ৯৫ মিলিমিটার পুরু স্মার্টফোনটির দুই পাশেই ব্যবহার করা হয়েছিল গরিলা গ্লাস ৩। এতে ৫ ইঞ্চির ১২৮০ বাই ৭২০ পিক্সেলের এইচডি ডিসপ্লে ছিল। হেলিও এস ২ তে ব্যবহার করা হয়েছে ৫ দশমিক ৫ ইঞ্চি ফুল এইচডি আইপিএস ডিসপ্লে। ডিসপ্লের সুরক্ষার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে থার্ড জেনারেশন গরিলা গ্লাস।

হেলিও এস২-এর অন্যতম শক্তিশালী দিক হলো এর ক্যামেরা। এর পেছনের ক্যামেরায় ব্যবহার করা হয়েছে সনি আইএমএক্স ২৫৮ ক্যামেরা সেন্সর। যা ১৩ মেগাপিক্সেল এফ/ ২.০ অ্যাপারচারে ছবি তুলতে সক্ষম। রিয়ার ক্যামেরাতে রয়েছে ১৪টি ফিচার যার মধ্যে অত্যাধুনিক এলইডি ফ্ল্যাশ, আনন্দদায়ক জিআইএফ, মুড ফটো অন্যতম। এই স্মার্টফোনটির ফ্রন্ট ক্যামেরাতে রয়েছে ট্রু টোন ফ্রন্ট ফ্ল্যাশ। আট মেগাপিক্সেলের এই ক্যামেরায় রয়েছে এফ/ ২.২ অ্যাপারচার।

হেলিও এস ২ স্মার্টফোনে রয়েছে ৬৪-বিটের ১ দশমিক ৩ গিগাহার্জের অক্টার-কোর প্রসেসর, যার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে মালি-টি ৭২০ এমপিথ্রি জিপিইউ। আরও আছে ৩ জিবি ডিডিআর ৩ র‍্যাম ও ৩২ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ। মাইক্রোএসডি মেমোরি কার্ড ব্যবহার করে ১২৮ জিবি পর্যন্ত মেমোরি বাড়িয়ে নেওয়া যাবে।

ফোনটির অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড ৬.০. ১ মার্শম্যালো। কানেক্টিভিটির জন্য ফোনটিতে রয়েছে ফোরজি/এলটিই, ওয়াই-ফাই, পাওয়ার সেভিং ব্লুটুথ ৪.০, নিউ জেনারেশন জিপিএস। ওটিজি সুবিধাসহ মাইক্রোইউএসবি রয়েছে যার মাধ্যমে পেনড্রাইভে সরাসরি ফোনে ডাটা ট্রান্সফার করা যায়।

ফোনটিতে রয়েছে ডুয়াল সিম, ডুয়াল স্ট্যান্ডবাই টেকনোলোজি। ব্যাটারি রয়েছে ৩১৫০ এমএএইচের। বিশেষ ফিচার হিসেবে থাকছে নিউ জেনারেশন ফাস্ট ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। এতে ফোন যে খুব দ্রুত আনলক করা যাবে, শুধু তাই নয়, ব্যবহার করা যাবে ফিঙ্গার প্রিন্ট সেলফি শাটার খুব সহজেই।

হেলিও এস ২ ফোনটি ব্যবহারের সুবিধাজনক দিক হচ্ছে এটি সহজে ধরে রাখা বা বহন করা যায়। এর অত্যাধুনিক নকশার কারণে এটি দেখতে সুন্দর। ফোনটির সঙ্গে বক্সে রয়েছে হেডফোন, ওটিজি কেবল ও চার্জার। এতে দ্রুত চার্জ দেওয়া যায়।

গেম খেলা, মল্টিমিডিয়ার ব্যবহারসহ এই ফোনটির পারফরম্যান্স তুলনামূলকভাবে ভালো। তবে যেসব অ্যাপ দ্রুত চার্জ শেষ করে, যেমন-ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, ক্যান্ডি ক্রাশ প্রভৃতি ব্যবহারে এই ফোনে দ্রুত চার্জ শেষ হয়।

ফোনটির দাম ১৫ হাজার ৯৯০ টাকা। বাজারে ১৫ হাজার টাকা থেকে ১৬ হাজার টাকা সীমার মধ্যে যেসব ফোন পাওয়া যায় তার সঙ্গে অনায়াসে হেলিও এস ২ সেলফে জায়গা করে নিতে পারে। তবে নকশা, পারফরম্যান্স ও প্রয়োজন বিবেচনা করেই মিডরেঞ্জের ফোন দেখা উচিত।

এডিসন গ্রুপ কর্তৃপক্ষ বলছে, ইতিমধ্যে বাজারে হেলিওর নতুন ফোনটি বেশ সাড়া ফেলেছে। দ্বিতীয় প্রজন্মের এই ফোনটির উন্নত ফিচার সবার নজর কাড়ছে।
Sourov Mazumder
IT Officer
Daffodil International University