Author Topic: উবারের জোয়ারে ‘সিএনজি’তে ভাটার টান  (Read 245 times)

Offline Repon

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 178
  • Test
    • View Profile
উবারের জোয়ারে ‘সিএনজি’তে ভাটার টান   :)
সৈয়দ অদিত, ঢাকাটাইমস   | আপডেট : ০২ মে ২০১৭, ০৮:২১ | প্রকাশিত : ০২ মে ২০১৭, ০৮:২০
http://www.dhakatimes24.com/2017/05/02/30786/%E0%A6%89%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%9C%E0%A7%8B%E0%A7%9F%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%87-%E0%A6%B8%E0%A6%BF%E0%A6%8F%E0%A6%A8%E0%A6%9C%E0%A6%BF%E0%A6%A4%E0%A7%87-%E0%A6%AD%E0%A6%BE%E0%A6%9F%E0%A6%BE%E0%A6%B0-%E0%A6%9F%E0%A6%BE%E0%A6%A8

সালেহ উদ্দিন থাকেন নিউ ইস্কাটন রোডে। জরুরি প্রয়োজনে যেতে হবে মালিবাগ। মহিলা অধিদপ্তরের সামনে বেশ কিছু সিএনজিচালিত অটোরিকশার একটিকেও রাজি করাত পারলেন না। অসহায় ভঙ্গিতে তাকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে একজন সামাজিক যোগাযোগের অ্যাপস উবার ব্যবহার করে একটি প্রাইভেট কার ভাড়া করে দিলেন। ভাড়া সবে ৫০ টাকা।

সালেহ উদ্দিন অভিভূত, বিস্মিত। এও কি সম্ভব? জানলেন পুরো বিষয়টা। বললেন, এতদিন স্মার্টফোন ব্যবহার করতেন না তিনি এখন চলাচলের জন্য উবার ব্যবহারের জন্য কিনবেন একটি।

অটোরিক্সার চালকরা মালিবাগ যা যাওয়ার জন্য যেসব অযুহাত দিচ্ছিলেন, তার যেন কোনো শেষ ছিল না। এ সময় সেখানে দাঁড়িয়ে থাকা একজন এগিয়ে এলেন ত্রাতার ভূমিকায়। তিনি তার স্মার্টফোন বের করে গন্তব্যস্থল ঠিক করে উবারে রিকোয়েস্ট পাঠালেন। মিনিট দুয়েকের মধ্যে নতুন টয়োটা প্রিমিও মডেলের উবার এসে হাজির। সালেহ উদ্দন তাতে চাপলেন আর সিএনজি অটোচালকদের বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে গেলেন।
সালেহ উদ্দিনের মত ঢাকার এমন হাজারো নাগরিক রয়েছে। যারা অ্যাপসে ঢুকে কল করা মাত্রই উবার এসে হাজির হয়। আর সেখানে সিএনজিচালিত অটোরিকশা বা ট্যাক্সিক্যাব চালকরা বসে থাকলেও যেতে চায় না। দূরত্ব কম হলে তাঁরা যেতে মোটেও রাজি হয় না। আর সেখানে উবারে কল করা মাত্রই যেখানে যেতে প্রয়োজন সেখানে যেতেই রাজি হয়ে যায়। সেটা হোক কাছে কিংবা দূরে।

২০১৬ সালের ২২ নভেম্বর রাজধানী ঢাকাতে প্রথমবারের মত যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক কোম্পানি উবার নামে। খরচ কম ও দ্রুত সেবা দেয়ায় বেশ কয়েকদিনের মধ্যে এই অ্যাপসটি সবার কাছে জনপ্রিয় হয়ে পড়ে। এই অ্যাপসটি গুগল বা অ্যাপল স্টোর থেকে ডাউনলোড করলে অ্যাপসে পাওয়া যাচ্ছে ফ্রি রাইডও। অর্থাৎ ঢাকার যেকোন স্থানে ভ্রমণ করলে ভাড়াও দিতে হবে না। এছাড়াও উবারের নিয়মিত যাত্রী হলে তাঁর জন্য রয়েছে সর্বোচ্চ ৮০% পর্যন্ত ছাড়ের ব্যবস্থা। এর সাথে বিভিন্ন সময় ফ্রি রাইড তো রয়েছেই।

উবার নামার পর থেকেই জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে হু হু করে। ভোগান্তি নেই, আর অটোরিকশার চেয়ে কম বা সমান ভাড়ায় শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত গাড়িতে বসে যাওয়া, চালকের ভদ্র আচরণ-সবই মুগ্ধ করছে যাত্রীদের। এই পরিস্থিতিতে অটোরিকশার ট্রিপ কমে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন চালকরা।

একজন অটোচালক ঢাকাটাইমসকে বলেন, উবার আসার আগে তিনি দিনে ১২টিরও বেশি ভাড়া মারতেন। এখন ১০টি ট্রিপ মারতেই কষ্ট হয়ে যায়।

মগবাজার হলি ফ্যামিলি হাসপাতালের সামনে বিশ্রামরত সিএনজি চালক মোসলেহ উদ্দিন বলেন, ‘আগে আমাগো প্রতিদিন পনেরোটা ভাড়া মারতাম। অহন ১৩টাও দিবার পারি না। আমগো সিএনজিতে প্রতি কিলো ভাড়া ৪০ টেহা। আর ঐ গাড়িত ভাড়া প্রতি কিলো ২১ টেহা। ঐটায় এসি আসে। যাত্রীগো কষ্ট করণ লাগে না। আরামে যাইবো আর আইবো।’

তবে এই ‘দুর্দিন’ দ্রুত শেষ হবে বলে আশায় আছেন এই অটোরিকথা চালত। তিনি বলেন, ‘আমগো বিশ্বাস আছে, হেরা বেশিদিন এইহানে ব্যবসা করবার পারবো না। সরকার হেগোরে ব্যবসা করবার দিব না।’

রাজধানীর নিউ ইস্কাটন রোডে সিএনজি থামিয়ে চা পান করছিলেন আবু মিয়া। উবারের কথা জিজ্ঞেস করতেই তিনি ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘হেরা আমগোরে বাঁশ মাইরা দিসে। অহন কেউ ঠেলায় না পড়লে সিএনজি উঠবার চায় না। আমগো এইহানে ভাড়া বেশি দেইখা হেরা অহন ঐ গাড়ি (উবার) দিয়া কম টেহায় যায়।’
তবে বিপদের মধ্যেও অটোরিক্সা চালকদের মনোভাব বা আচরণের উন্নতি নেই। শাহবাগ মোড়ে অপেক্ষারত ব্যবসায়ী স্পদন চ্যাটার্জি ঢাকাটাইমকে বলেন, ‘এইখানে এতগুলো সিএনজি এর একটাও বনানী যেতে রাজি হচ্ছে না। না যাওয়ার কারণ দেখাচ্ছে রাস্তায় নাকি অনেক জ্যাম। এদেরকে বলে কয়ে কিছুই হয় না। এরা এখনো নিজেদের কে জমিদার মনে করে। বরং ঢাকায় উবার নামার পর এদের মাথা আরও বেশি খারাপ হয়ে যাচ্ছে।’

উবারের সাথে অটোরিক্সা ভাড়ার পার্থক্য-

চলতি বছরের ২০ জানুয়ারি থেকে উবারের ভাড়া বাড়ানোর ঘোষণা দেয় উবার কর্তৃপক্ষ। যেখানে আগে কিলোমিটার প্রতি ভাড়া দিতে হত ১৮ টাকা। সেখানে এখন দিতে হবে ২১ টাকা। ওয়েটিং চার্জ একটাকা বাড়িয়ে এখন করা হয়েছে তিন টাকা। এছাড়া আর কোন চার্জ বাড়েনি উবারের। চলছে পুরোদমেই। তবে সিএনজি অটোরিক্সার কিলোপ্রতি সরকার নির্ধারিত ভাড়া ১২ টাকা হলেও মিটারে তারা যায় না বললেই চলে। আর চুক্তিতে যে ভাড়া তারা চায় তাতে কিলোমিটার প্রতি ২০, ৩০ কখনও বা তার চেয়ে বেশি পড়ে যায়।

যেভাবে উবার ব্যবহার করবেন-

স্মার্টফোনের প্লে-স্টোর থেকে ‘উবার’ ডাউনলোড করে নিবন্ধন করতে হবে। অ্যাপসে নিবন্ধন হলেই যেখানে যেতে চান সেই গন্তব্য লিখে রিকোয়েস্ট পাঠালে চালকই কল করবে।

চালক তার গাড়ি নিয়ে আপনার অবস্থানে চলে আসবে। আর গন্তব্যে ভাড়া কত হবে, সেটা উবারের অ্যাপে আগেই উল্লেখ করে দেয়া হয়।

গন্তব্যে পৌঁছে চালক তার মোবাইল ফোনে কত ভাড়া উঠলো, তা যাত্রীকে দেখাবে এবং তা মিটিয়ে গাড়ি থেকে হাসিমুখে নেমে যেতে পারেন আপনি।

ঢাকাটাইমস/০২মে/এসও/ডব্লিউবি
Senior Lecturer in Accounting
Department of Business Administration
Faculty of Business & Economics
Daffodil International University