Author Topic: সুইসাইড মার্কেটিং  (Read 99 times)

Offline Maruf Reza Byron

  • Jr. Member
  • **
  • Posts: 62
  • Test
    • View Profile
সুইসাইড মার্কেটিং
« on: May 28, 2017, 11:46:50 AM »
[“...নিজের প্রতি যখন ঘৃণা ধরে যায়, তখন আর জীবনের প্রতি মায়া থাকে না; বাঁচতে ইচ্ছা করে না। মনে হয়, মরে যাই।...”]

আত্মহত্যা করা এখন ট্রেণ্ডে পরিণত হয়েছে। তারুণ্যের ক্রেজে পরিণত হয়েছে সুইসাইড। জীবনের প্রতি মায়া না থাকা মূহুর্ত এখন তাদের জীবনে ঘুরে ফিরে আসছে ষড়ঋতুর চেয়েও দ্রুত বেগে। ফলাফল - জীবনের নিদারূন অপচয়। উদ্দেশ্যহীন তারুণ্য এখন “ব্যক্তিগত সুখ” আর ‘আত্মসম্মান’ রক্ষায় মরিয়া হয়ে ছুটছে। এটাকেই মানছে জীবনের “মনজিলে মকসুদ” হিসেবে। আর এর করুণ পরিণতি হিসেবে আমরা পাচ্ছি কিছু শোক সংবাদঃ “প্রেমে ব্যর্থ হয়ে তরুণীর আত্মহত্যা”, পরীক্ষায় ফেল করায় ট্রেনের নীচে জীবন দিল তরুণ”, অথবা, “বাবা-মা’র বকুনিতে অকালে ঝরে গেল তাজা প্রাণ”। আবার কখনও কখনও দুঃখবিলাসী তারুণ্য আক্রমণাত্মক হয়ে উঠছে এবং কেড়ে নিচ্ছে বাবা-মা, নীতিবান শিক্ষক, অথবা প্রিয়তম মানুষের জীবন।

আমি মনোবিদ নই। আত্মহত্যার মনোবৈজ্ঞানিক বিষয় ব্যাখ্যা করা আমার উদ্দেশ্যও নয়। আমি ছা-পোষা মাস্টার। তাও আবার পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের এলিট অধ্যাপক নয়; প্রাইভেট (কিন্তু ব্যক্তিগত নয়) বিশ্ববিদ্যালয়ের নিতান্তই ঘানিটানা ক্ল্যারিক্যাল শ্রমিক-মাস্টার। পড়াই মার্কেটিং। লোভের বাণিজ্য আর লাভের বাণিজ্যের তত্ত্ব পড়াতে পড়াতে হঠাৎ শখ জাগে LOVE-এর বাণিজ্যের প্রতি। সেখান থেকে স্লিপ কেটে পড়ে যাই সুইসাইড মার্কেটিংয়ের মায়াময় জগতে এবং বিমুগ্ধ বিষ্ময় নিয়ে দেখি লাভের নেশায় মত্ত পুঁজিওয়ালারা কিভাবে LOVE-এর ফাঁদে ফেলে কচি তাজা প্রাণগুলোকে সুইসাইডের প্রতি উস্কে দিচ্ছে। ভেবে শিউরে উঠি আমাদের মুভি-নাটক-গান তথা পুরো শোবিজ ইণ্ডাস্ট্রি আমাদের সমাজের ভবিষ্যত কাণ্ডারীদের অকালেই মরে যাবার সব রকম ব্যবস্থাকে অত্যন্ত যত্নের সাথে গ্লোরিফাই করছে কখনও আশিকি টু’র ব্যর্থ প্রেমিক, তো কখনও  আনজানা আনজানি’র আত্মহত্যা  আত্মহত্যা খেলা, আবার কখনও হেমলক সোসাইটি’র হাতেকলমে সুইসাইডশিক্ষার মাধ্যমে। চেহারা যাই হোক, সব গল্পেরই একটাই অব্যর্থ মেসেজঃ যদি নিজেকে স্বার্থক করতে চাও তবে there's always a second chance and that's SUICIDE।

প্রকৃতই সুইসাইডজ্বরে কাঁপছে তারুণ্য। সে জ্বরের উত্তাপ আমাদের এই দেশেও এসে লেগেছে। তাইতো টিভি চ্যানেলের পবিত্র ঈদ উৎসবের আয়োজনেও দেখি সুইসাইডের ঢেউ। ‘উদ্দেশ্য’ শীর্ষক নাটকের মাধ্যমে যদিও সুইসাইডের বিপক্ষে মেসেজ পাঠানো হয় যে জীবন একটি পবিত্র উপহার; এটা নষ্ট করার কোন উদ্দেশ্যই নাই... ইত্যাদি ইত্যাদি... তারুণ্য কিন্তু ঠিকই মেসেজ পেয়ে যায় কিছু সহজলভ্য সুইসাইড টিপসের যার ফলাফল হয়তো শুরুর উক্তিটি।

সম্মানিত মনোবিদগণ, প্লিজ মাইণ্ড  করবেন না। আমি আপনাদের জগতে অনধিকার প্রবেশ করতে চাই না। বরং মার্কেটিংয়ের একজন শিক্ষার্থী-শিক্ষক হিসেবে শুধু LOVE-এর বাণিজ্যের এই নতুন ছকটাকেই একটু বুঝতে চাই যা আমার ছোট ভাই বা বোন বা প্রিয় কোন শিক্ষার্থীর জীবন কেড়ে নিচ্ছে প্রতিনিয়ত। কখনও তাকে একেবারেই শিকার করছে, আবার কখনও তাকে বানিয়ে তুলছে হাসি-কান্নার জগতের এক জীবন্ত পুতুল।

প্রিয় প্রজন্ম, তুমি কি সুইসাইড মার্কেটিংয়ের এই ট্র্যাপ নিয়ে একবারও ভাববে না? একবারও তোমার মায়ের মায়াবী মুখ, পিতার কোমল স্নেহ, আর দেশের প্রতি তোমার কর্তব্যের কথা ভাববে না? নাকি কড়িকাঠের পুতুল হিসেবে সুইসাইড মার্কেটিংয়ের পাতা ফাঁদে পা দিয়ে নিজেকে absurd hero প্রমাণ করবে?

প্রিয় পাঠক, ভাবার এখনই সময়।...