Author Topic: Polyurethane may be from chikungunya!  (Read 361 times)

Offline yousuf miah

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 169
    • View Profile
Polyurethane may be from chikungunya!
« on: July 03, 2017, 02:07:51 PM »
প্রায় প্রতিদিনই আত্মীয়, বন্ধু বা প্রতিবেশীদের চিকুনগুনিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার সংবাদ পাওয়া যাচ্ছে এখন এবং এর পাশাপাশি এটাও শোনা যাচ্ছে যে, যারাই আক্রান্ত হয়েছেন তাদের জয়েন্টের তীব্র ব্যথার কারণে তারা হাতের আঙ্গুল নাড়াতে পারছেন না বা সোজা হয়ে হাঁটতেও পারছেন না। এর কারণ হচ্ছে চিকুনগুনিয়ার সাথে সাথে আরেকটি নতুন রোগ তৈরি হয় শরীরে, আর তা হল পলিআরথ্রাইটিস! আজকের ফিচারে আমরা পলি আরথ্রাইটিস সম্পর্কে জানবো।

চিকুনগুনিয়া ভাইরাসজনিত রোগ। যা হয়ে থাকে আলফা ভাইরাস এর গণ সিঙ্গেল স্ট্রেন্ডেড আরএনএ ভাইরাস দ্বারা। মশার কামড়ের দ্বারা মানুষ এই (CHIKV) ভাইরাসে আক্রান্ত হয়। তানজানিয়ার দক্ষিণ প্রদেশে (মেকন্ডি প্লাটোতে) এই রোগের প্রাদুর্ভাবের সময় ১৯৫২-১৯৫৩ সালে  এই ভাইরাসটিকে প্রথম একজন রোগীর সিরাম থেকে পৃথক করা হয়। মেকন্ডির জনগণ এর ভাষা হচ্ছে বান্টু ভাষা। বান্টু ভাষায় চিকুনগুনিয়ার অর্থ ‘যা নুয়ে বা বাঁকা হয়ে আসে’। চিকুনগুনিয়া হলে জয়েন্টে ব্যথা হয় বলে মানুষকে বাঁকা হয়ে হাঁটতে দেখা যায়। দীর্ঘমেয়াদী জয়েন্টের ব্যথা ইনফ্লামেটরি আরথ্রাইটিসের লক্ষণ। যখন ৫ বা তার চেয়েও বেশি জয়েন্ট আরথ্রাইটিসে আক্রান্ত হয় তখন তাকে পলিআরথ্রাইটিস বলে। যেহেতু পলি আরথ্রাইটিস হওয়ার বিভিন্ন কারণ থাকে তাই ব্যক্তি থেকে ব্যক্তিতে লক্ষণেরও ভিন্নতা দেখা যায়।

পলিআরথ্রাইটিস তীব্রভাবে হয় বা দীর্ঘমেয়াদে থাকতে পারে, ৬ মাসের বেশি সময় এটি থাকতে  পারে। অনেক ভাইরাসজনিত সংক্রমণের কারণেই হতে পারে পলিআরথ্রাইটিস। নির্দিষ্ট ধরণের অটোইমিউন ডিজিজ যেমন- রিউমাটয়েড আরথ্রাইটিস, লুপাস বা সিজোগ্রিন সিন্ড্রোমকে প্রকাশ করে এটি।  সাধারণত এটি ভালো হয়ে যায় এবং পুনরায় হয় না। পলি আরথ্রাইটিস হওয়ার কারণগুলো হচ্ছে – ক্যান্সার, স্টিলস ডিজিজ, গেটে বাত, সারকয়ডোসিস, হুইপলস ডিজিজ, লুপাস, চিকুনগুনিয়া, রিউমাটয়েড আরথ্রাইটিস, রোজ রিভার ভাইরাস, পারভোভাইরাস ইত্যাদি।

পলিআরথ্রাইটিস শনাক্ত করার উপায়

যদি আপনার জয়েন্টে ব্যথা হওয়ার পাশাপাশি ফুলেও যায় তাহলে চিকিৎসকের সাথে কথা বলুন। যদি আপনার শরীরের অন্তত ৫ টি জয়েন্টে আরথ্রাইটিসের লক্ষণ দেখা যায় তাহলে চিকিৎসক একে পলিআরথ্রাইটিস হিসেবেই চিহ্নিত করবেন। তিনি আপনার শারীরিক পরীক্ষা করে দেখবেন এবং আপনার চিকিৎসার ইতিহাসও জানতে চাইবেন। তিনি রক্ত পরীক্ষা করতে বলবেন এবং জয়েন্টের এক্সরে বা আল্ট্রাসাউন্ড ও করতে দিতে পারেন। তিনি আপনার প্রতিসম ও অপ্রতিসম ব্যথার ধরন জানতে চাইবেন ও লক্ষ্য করবেন। যদি শরীরের উভয় পাশেই আরথ্রাইটিসের লক্ষণ দেখা যায় তাহলে তাকে প্রতিসম ব্যথা বলে যেমন- রিউমাটয়েড আরথ্রাইটিসের ক্ষেত্রে উভয় হাতে ব্যথা হতে পারে। সোরিয়াটিক আরথ্রাইটিসের ক্ষেত্রে অপ্রতিসম লক্ষণ প্রকাশ পায় যেমন – তাদের এক হাঁটুতে ব্যথা হতে দেখা যায়। এছাড়াও আপনার শরীরে কোন র‍্যাশ আছে কিনা, ত্বকে কোন দানা আছে কিনা, গলা ব্যথা আছে কিনা, লিম্ফনোড ফুলে গেছে কিনা, শরীরের নীচের অংশে ফুলে গেছে কিনা এগুলো জিজ্ঞেস করবেন। এই লক্ষণগুলো চিকুনগুনিয়ার ক্ষেত্রে দেখা যায়।

কীভাবে নিরাময় লাভ করা যায় পলিআরথ্রাইটিস থেকে

ইনফ্লামেশন ও উপসর্গ কমানো পলিআরথ্রাইটিসের চিকিৎসার অন্তর্গত। ব্যথা কমানোর জন্য চিকিৎসক ননস্টেরয়ডাল অ্যান্টিইনফ্লামেটরি ড্রাগ, করটিকোস্টেরয়েড ঔষধ,  হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন, ডিজিজ মডিফাইং অ্যান্টিরিউমেটিক ড্রাগ, অ্যান্টি টিএনএফ ড্রাগ গ্রহণের নির্দেশনা দিতে পারেন।

ঘরোয়া প্রতিকার

পলিআরথ্রাইটিসের লক্ষণগুলোর নিরাময়ে সাহায্য করতে পারে স্ট্রেচিং, সাঁতার কাটা বা অন্য কোন ব্যায়াম। উষ্ণ জলে গোসল করা এবং উষ্ণ ভাপ নেয়া আরথ্রাইটিসের ব্যথা মোকাবেলা করতে সাহায্য করে।

সূত্র: দ্যা রিউমাটোলজিস্ট ও হেলথ লাইন