Author Topic: ১০ প্রযুক্তি উদ্যোক্তার প্রথম চাকরি  (Read 22 times)

Offline Rubaiya Hafiz

  • Jr. Member
  • **
  • Posts: 82
    • View Profile
জীবনের লক্ষ্য অর্জনে অনেক বড় স্বপ্ন দেখতে হবে—এমন পরামর্শ প্রায়ই শুনবেন। তবে এই বড় স্বপ্ন দেখার শুরুটা কিন্তু হতে পারে ছোটখাটো কোনো কাজ বা চাকরির মাধ্যমে। এখনকার যুগের অনেক কোটিপতির শুরুটাও কিন্তু এভাবেই হয়েছিল। অনেকেই শুরু করেছিলেন সামান্য বেতনের কাজ। কেউ কেউ বেতন ছাড়াই কাজ করে তা শিখেছেন ভালোমতো। কয়েকজন প্রযুক্তি উদ্যোক্তার প্রথম চাকরির তথ্যটি জেনে নিন:
জেফ বেজোস
বর্তমানে বিশ্বের শীর্ষ ধনী আমাজনের প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজোস প্রথমে ম্যাকডোনাল্ডে বার্গার তৈরির রান্নাঘরে কাজ করেছিলেন। তাঁর ওই সময় ঘণ্টাপ্রতি বেতন ছিল মাত্র ২.৬৯ মার্কিন ডলার। তরুণ বয়সে ম্যাকডোনাল্ডে কাজের ওই অভিজ্ঞতা তাঁকে সামনে এগিয়ে যেতে সাহায্য করেছে।
মাইকেল ডেল
বিশ্বের অন্যতম কম্পিউটার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ডেলের প্রতিষ্ঠাতা মাইকেল ডেল। ১২ বছর বয়সেই তিনি কাজ শুরু করেছিলেন এক চীনা রেস্তোরাঁয়। তিনি সেখানে থালাবাসন ধোয়ার কাজ করতেন।রিচার্ড ব্র্যানসন
ভার্জিন গ্রুপ অব কোম্পানিজের মালিক রিচার্ড ব্র্যানসন মাত্র ১৬ বছর বয়সেই একটি ম্যাগাজিন প্রকাশ করেন। ওই ম্যাগাজিনের নাম ছিল ‘স্টুডেন্ট ম্যাগাজিন’। মাত্র ১০০ পাউন্ড মূলধন নিয়ে ১৯৬৬ সালে তিনি উদ্যোক্তা হিসেবে কাজ শুরু করে দেন।
ইভান স্পিগেল
স্ন্যাপচ্যাটের উদ্যোক্তা হিসেবে ইভান স্পিগেলকে চেনেন সবাই। তাঁকে বিনা বেতনেই বেভারেজ ব্র্যান্ড রেড বুলে কাজ করতে হয়। তিনি বিনা বেতনের ইন্টার্ন হিসেবে রেড বুলে কাজ শুরু করেছিলেন।
ট্রাভিস কালানিক
উবারের প্রতিষ্ঠাতা ট্রাভিস কালানিকের শুরুটা ছিল আরও কষ্টের। উবার প্রতিষ্ঠার বহু আগে তিনি সেলসম্যান বা বিক্রয়কর্মী হিসেবে কাজ শুরু করেছিলেন। মানুষের দরজায় দরজায় গিয়ে পণ্য বিক্রি করতে হতো তাঁকে।
এলন মাস্ক
টেসলার প্রতিষ্ঠাতা এলন মাস্কের শুরুটাও কিন্তু ছোটোখাটো কাজ দিয়েই। তিনি ১২ বছর বয়স থেকেই ভিডিও গেমের কোড বিক্রি শুরু করেন। ওই ভিডিও গেমের নাম ছিল ব্লাসটার্ড।
জ্যাক ডরসি
টুইটারের প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক ডরসি হ্যাকার হিসেবে কাজ শুরু করেছিলেন। এক সাক্ষাৎকারে তিনি স্বীকার করেন, একটি ডিসপ্যাচ কোম্পানির সার্ভার হ্যাক করে তিনি পেশাদার সফটওয়্যার প্রকৌশলী হিসেবে কাজ শুরু করেন।
ল্যারি অ্যালিসন
ওরাকল সফটওয়্যারের প্রতিষ্ঠাতা ল্যারি অ্যালিসন কম্পিউটার প্রোগ্রামার হিসেবে তাঁর প্রথম কাজ শুরু করেন। তিনি আমঢাল করপোরেশন ও অ্যামেক্স করপোরেশনের ডেটাবেইস তৈরির কাজ করেন।
কেভিন সিসট্রোম
ইনস্টাগ্রাম তৈরির আগে এবং প্রযুক্তি দুনিয়ায় কাজ শুরুর আগে তিনি একটি রেকর্ড স্টোরে ক্লার্কের পোস্টে চাকরি করেছেন। পরে তিনি নিজে প্রযুক্তি উদ্যোক্তা হয়ে ইনস্টাগ্রামের মতো জনপ্রিয় সেবা চালু করেন।
এরিক স্মিড
গুগলের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি হিসেবে নিজের প্রতিষ্ঠিত করার আগে জিলগ নামের একটি প্রতিষ্ঠানে কাজ করেছিলেন এরিক স্মিড। নিনটেনডো ও সেগার কনসোলের জন্য চিপ তৈরি করতো জিলগ। সেখানেই চিপনির্মাতা হিসেবে চাকরি শুরু করেন স্মিড।