Author Topic: অভিভাবক বিমা চালু করল ড্যাফোডিল  (Read 128 times)

Offline Md. Abul Bashar

  • Jr. Member
  • **
  • Posts: 77
  • Test
    • View Profile

অভিভাবক বিমা চালু করল ড্যাফোডিল

শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া নির্বিঘ্ন রাখতে ‘অভিভাবক বিমা’ চালু করেছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (ডিআইইউ)। আজ সোমবার বেলা ১১টার দিকে ধানমন্ডিতে এক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এই বিমা সুবিধা চালু করে। এতে পিতৃহারা তিন শিক্ষার্থীর হাতে বিমার দাবি পরিশোধ করা হয়।

ডিআইইউতে পড়াশোনা অবস্থায় কোনো শিক্ষার্থীর অভিভাবক মারা গেলে তাঁদের এই বিমা সুবিধা দেওয়া হবে। এ জন্য সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থী পাবেন তিন লাখ টাকা, যা ওই শিক্ষার্থীর টিউশন ফির সঙ্গে যুক্ত হবে।

ডিআইইউর ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. সবুর খান জানিয়েছেন, ইতিমধ্যে তাঁরা ‘শিক্ষার্থী বিমা’ চালু করেছেন। কোনো শিক্ষার্থী ডিআইইউতে পড়াশোনা অবস্থায় মারা গেলে তাঁর পরিবারকে পাঁচ লাখ টাকা দেওয়া হয়। এই দুটো বিমা প্রকল্পেই সহযোগিতা করছে প্রগতি লাইফ ইনস্যুরেন্স। পাশাপাশি শিক্ষকদের জন্যও বিমা সুবিধা চালু করতে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

সবুর খান আরও বলেন, ডিআইইউ দেশে প্রথমবারের মতো ‘অভিভাবক বিমা’ সুবিধা চালু করেছে। এখানে অভিভাবক বলতে সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থী ভর্তির সময়ে যাঁকে তাঁর পড়ালেখার ভার বহনকারী হিসেবে উল্লেখ করবেন, তাঁকে বোঝানো হয়েছে।

আজ যে তিন শিক্ষার্থীকে এই অভিভাবক বিমা সুবিধা দেওয়া হয় তাঁরা হলেন, ডিআইইউর কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী খাদিজা খালিদ খুশবু, ইলমা আক্তার স্বর্ণা ও ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিকস প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় সেমিস্টারের শিক্ষার্থী বোরহান উদ্দিন। সম্প্রতি এই তিন শিক্ষার্থী তাঁদের ব্যয় বহনকারী পিতাকে হারিয়েছেন। ডিআইইউর ধানমন্ডি ক্যাম্পাসের ৭১ মিলনায়তনে ‘অভিভাবক বিমা: চেক হস্তান্তর’ শীর্ষক এই অনুষ্ঠান হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে প্রগতি লাইফ ইনস্যুরেন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী মো. জালালুল আজিম, সম্মানিত অতিথি হিসেবে ডিআইইউর ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. সবুর খান উপস্থিত ছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ইউসুফ মাহবুবুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ডিআইইউর সহ-উপাচার্য এস এম মাহাবুব উল হক মজুমদার, কোষাধ্যক্ষ হামিদুল হক খান, নিবন্ধক এ কে এম ফজলুল হক, স্টুডেন্ট অ্যাফেয়ার্সের পরিচালক সৈয়দ মিজানুর রহমান প্রমুখ।