Show Posts

This section allows you to view all posts made by this member. Note that you can only see posts made in areas you currently have access to.


Messages - Shamim Ansary

Pages: [1] 2 3 ... 234
1
You need to know / Re: Stop Bleeding
« on: May 26, 2018, 01:13:21 PM »
ঘরোয়া উপায়ে খুব সহজে বন্ধ করুন রক্তপাত

১। বরফ

সবার বাসার ফ্রিজে বরফ থাকে। আর এই বরফ রক্ত বন্ধ করার খুব ভাল একটা উপায়। কেটে যাওয়া স্থানে কয়েকটি বা একটি বরফের টুকরো চেপে ধরে রাখুন। কিছুক্ষণ পরেই দেখতে পারবেন রক্ত বন্ধ হয়ে গেছে।
২। হলুদ গুঁড়া

রান্নাঘরে সবচেয়ে সহজলভ্য উপাদান হল হলুদ। এই হলুদ গুঁড়ো দিয়ে খুব সহজে রক্ত বন্ধ করা যায়। হলুদ প্রাকৃতিক অ্যান্টিসেপটিক। কাটা স্থানে কিছু হলুদ গুঁড়ো লাগিয়ে নিন। দেখবেন রক্তপাত বন্ধ হয়ে গিয়েছে এবং ক্ষত দ্রুত সেরেও গিয়েছে।
৩। লবণ পানি

লবণ পানি খুব ভাল প্রাকৃতিক প্রতিষোধক। কিছু পানি নিন আর তার মধ্যে এক চিমটি লবণ দিয়ে দিন। এবার কাঁটা হাতটা পানিতে ডুবিয়ে রাখুন। প্রথমে একটু জ্বালাপোড়া করবে। কিন্তু কিছুক্ষণ পর রক্তপাত বন্ধ হয়ে যাবে।
৪। টি ব্যাগ

হঠাৎ করে হাত বা পা কেটে গেলে সেই জায়গায় ব্যবহৃত টি ব্যাগ অথবা নতুন টি ব্যাগ ঠান্ডা পানিতে ভিজিয়ে লাগিয়ে রাখুন। কিছুক্ষণের মধ্যে রক্তপাত বন্ধ হয়ে যাবে। এবং কাঁটা জায়গায় ঠান্ডা ধরণের অনুভূতি দেবে।
৫। কফি পাউডার

আপনার সকালের ঘুম ভাঙ্গে সে কফি খেয়ে সে কফির পাউডার রক্তপাত বন্ধ করতে সাহায্য করবে। যে জায়গা থেকে পড়ছে সেখানে খানিকটা কফি পাউডার ছিড়িয়ে দিন। দেখবেন রক্তপাত বন্ধ হয়ে গেছে।

Source: http://www.ruplabonno.com/archives/5493

2
General Knowledge / Re: 7 Bir Shrestho...
« on: May 03, 2018, 10:00:55 AM »

Samadhi of Birsresta Mohammad Ruhul Amin

3
General Knowledge / Re: 7 Bir Shrestho...
« on: May 03, 2018, 09:58:03 AM »

Shamadhi of Birsresta Lance Nayek Nur Mohammad Sheikh

4
General Knowledge / Re: 7 Bir Shrestho...
« on: May 03, 2018, 09:50:06 AM »

Shamadhi of Birsresta Sipahi Hamidur Rahman

5
General Knowledge / Re: 7 Bir Shrestho...
« on: May 03, 2018, 09:46:40 AM »

Shamadhi of Birsresta Flt Lft Motiur Rahman

6
General Knowledge / Re: 7 Bir Shrestho...
« on: May 03, 2018, 09:45:25 AM »

Shamadhi of Birsresta Munshi Abdur Rouf

7
General Knowledge / Re: 7 Bir Shrestho...
« on: May 03, 2018, 09:44:20 AM »

Shamadhi of Birsresta Mostafa Kamal

8
General Knowledge / Re: 7 Bir Shrestho...
« on: May 03, 2018, 09:42:48 AM »

Shamadhi of Birsresta Captain Mohi Uddin Jahangir

9
General Knowledge / Re: 14 ways to get rid of thunderstorms
« on: May 03, 2018, 09:36:37 AM »
১. বজ্রপাতের ও ঝড়ের সময় বাড়ির ধাতব কল, সিঁড়ির ধাতব রেলিং, পাইপ ইত্যাদি স্পর্শ করবেন না।
২. প্রতিটি বিল্ডিংয়ে বজ্র নিরোধক দণ্ড স্থাপন নিশ্চিত করুন।
৩. খোলাস্থানে অনেকে একত্রে থাকাকালীন বজ্রপাত শুরু হলে প্রত্যেকে ৫০ থেকে ১০০ ফুট দূরে দূরে সরে যান।
৪. কোনো বাড়িতে যদি পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা না থাকে তাহলে সবাই এক কক্ষে না থেকে আলাদা আলাদা কক্ষে যান।
৫. খোলা জায়গায় কোনো বড় গাছের নিচে আশ্রয় নেয়া যাবে না। গাছ থেকে চার মিটার দূরে থাকতে হবে।
৬. ছেঁড়া বৈদ্যুতিক তার থেকে দূরে থাকতে হবে। বৈদ্যুতিক তারের নিচ থেকে নিরাপদ দূতত্বে থাকতে হবে।
৭. ক্ষয়ক্ষতি কমানোর জন্য বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতির প্লাগগুলো লাইন থেকে বিচ্ছিন্ন রাখতে হবে।
৮. বজ্রপাতে আহতদের বৈদ্যুতিক শকে মতো করেই চিকিৎসা দিতে হবে।
৯. এপ্রিল-জুন মাসে বজ্রপাত বেশি হয়। এই সময়ে আকাশে মেঘ দেখা গেলে ঘরে অবস্থান করুন।
১০. যত দ্রুত সম্ভব দালান বা কক্রিটের ছাউনির নিচে আশ্রয় নিন।
১১. বজ্রপাতের সময় বাড়িতে থাকলে জানালার কাছাকাছি বা বারান্দায় থাকবেন না এবং ঘরের ভেতরে বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম থেকে দূরে থাকুন।
১২. ঘন-কালো মেঘ দেখা গেলে অতি জরুরি প্রয়োজনে রাবারের জুতা পরে বাইরে বের হতে পারেন।
১৩. উঁচু গাছপালা, বৈদ্যুতিক খুঁটি, তার, ধাতব খুঁটি ও মোবাইল টাওয়ার ইত্যাদি থেকে দূরে থাকুন।
১৪. বজ্রপাতের সময় জরুরি প্রয়োজনে প্লাস্টিক বা কাঠের হাতলযুক্ত ছাতা ব্যবহার করুন।
১৫. বজ্রপাতের সময় খোলা জায়গা, মাঠ বা উঁচু স্থানে থাকবেন না।
১৬. কালো মেঘ দেখা দিলে নদী, পুকুর, ডোবা, জলাশয় থেকে দূরে থাকুন।
১৭. বজ্রপাতের সময় শিশুদের খোলা মাঠে খেলাধুলা থেকে বিরত রাখুন এবং নিজেরাও বিরত থাকুন।
১৮. বজ্রপাতের সময় খোলা মাঠে থাকলে পায়ের আঙুলের ওপর ভর দিয়ে এবং কানে আঙুল দিয়ে মাথা নিচু করে বসে পড়ুন।
১৯. বজ্রপাতের সময় গাড়ির মধ্যে অবস্থান করলে, গাড়ির থাতব অংশের সঙ্গে শরীরের সংযোগ ঘটাবেন না। সম্ভব হলে গাড়িটিকে নিয়ে কোনো কংক্রিটের ছাউনির নিচে আশ্রয় নিন।
২০. বজ্রপাতের সময় মাছ ধরা বন্ধ রেখে নৌকার ছাউনির নিচে অবস্থান করুন।
(Internet)

10

গলায় মাছের কাঁটা বিঁধলে সবার মনে অসম্ভব অস্বস্তির সৃষ্টি হয়। যা খুবই পীড়াদায়ক। তাই গলায় আটকা মাছের কাঁটা নামানোর উপায় সম্পর্কে আমাদের জ্ঞাত থাকা দরকার।
গলায় আটকে যাওয়া কাঁটা নামানোর ৮টি সহজ উপায়…
আসুন জেনে নিই গলা থেকে মাছের কাঁটা সহজে নামানোর ৮টি উপায়ঃ
গলায় আটকা কাঁটা নামানোর আধুনিক পদ্ধতি হচ্ছে কোকাকোলা। গলায় কাঁটা আটকার সঙ্গে সঙ্গে এক গ্লাস কোক পান করলে তা নরম হয়ে নেমে যায়।
১. সাদা ভাতঃ
গলায় আটকা মাছের কাঁটা সাদা ভাত খেয়ে খুব সহজে নামানো যায়। এ জন্য আপনাকে ভাতকে ছোট ছোট বল বানিয়ে নিতে হবে। তারপর পানি দিয়ে গিলে ফেলতে হবে। এতে সহজে গলায় আটকা মাছের কাঁটা নেমে যাবে। মনে রাখবেন, শুধু ভাত খেলে কিন্তু কাঁটা নামবে না।
২. হোমিওপ্যাথি চিকিৎসাঃ
গলায় আটকা মাছের কাঁটা নামানোর সর্বাধিক কার্যকরী চিকিৎসা হচ্ছে হোমিওপ্যাথি। এ জন্য আপনাকে নিকটস্থ ডাক্তারের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে।
৩. পানি পান করুনঃ
গলায় মাছের কাঁটা আটকে গেলে পানি পান করুন। পারলে হালকা গরম পানির সঙ্গে সামান্য পরিমাণ লবণ মিশিয়ে পান করুন। এতে গলায় আটকা মাছের কাঁটা নরম হয়ে নেমে যায়।
৪. কলা খানঃ
গলায় মাছের কাঁটা বিঁধলে দেরি না করে পারলে চটজলদি একটি কলা খান। কলা খেতে খেতে কখন যে কাঁটা নেমে যাবে তা আপনি টেরও পাবেন না।
৫. লেবু খানঃ
গলায় মাছের কাঁটা আটকে গেলে এক টুকরা লেবু নিন। তাতে একটু লবণ মাখিয়ে চুষে চুষে এর রস খান। দেখবেন কাঁটা নরম হয়ে নিমিষেই নেমে গেছে।
৬. অলিভ ওয়েল খানঃ
গলায় কাঁটা বিঁধেছে? তাহলে মোটেই দেরি না করে একটু অলিভ অয়েল খান। এতে কাঁটা পিছলে গলা থেকে নেমে যাবে।
৭. ভিনেগার খানঃ
পানির সঙ্গে সামান্য পরিমাণ ভিনেগার মিশিয়ে পান করলে গলায় আটকা মাছের কাঁটা খুব সহজে নেমে যায়। এটি ঠিক লেবুর মতো কাজ করে।
৮. কোকাকোলা পান করুনঃ
গলায় আটকা কাঁটা নামানোর আধুনিক পদ্ধতি হচ্ছে কোকাকোলা। গলায় কাঁটা আটকার সঙ্গে সঙ্গে এক গ্লাস কোক পান করলে তা নরম হয়ে নেমে যায়। এ ছাড়া শুকনো মুড়ি খেলেও এর কার্যকরী সমাধান পাওয়া যায়।


Source: Internet

11
Software Engineering / Re: What do we do with all this big data?
« on: April 03, 2018, 06:26:15 PM »
Era of Big Data.
_____________________
```Hello! Is this Gordon's Pizza?

No sir, it's Google's Pizza.

Did I dial the wrong number?

No sir, Google bought the pizza store.

Oh, alright - then I’d like to place an order please.

Okay sir, do you want the usual?

The usual? You know what my usual is?

According to the caller ID, the last 15 times you’ve ordered a 12-slice with double-cheese, sausage, and thick crust.

Okay - that’s what I want this time too.

May I suggest that this time you order an 8-slice with ricotta, arugula, and tomato instead?

No, I hate vegetables.

But your cholesterol is not good.

How do you know?

Through the subscribers guide. We have the results of your blood tests for the last 7 years.

Maybe so, but I don’t want the pizza you suggest – I already take medicine for high cholesterol.

But you haven’t taken the medicine regularly. 4 months ago you purchased from Drugsale Network a box of only 30 tablets.

I bought more from another drugstore.

It's not showing on your credit card sir.

I paid in cash.

But according to your bank statement you did not withdraw that much cash.

I have another source of cash.

This is not showing on your last tax form, unless you got it from an undeclared income source.

To HELL With Ur Pizza..!!
ENOUGH!!
I'm sick of Google, Facebook, Twitter, and WhatsApp. I'm going to an island without internet, where there’s no cellphone line, and no one to spy on me ...

I understand sir, but you’ll need to renew your PASSPORT ... it expired 5 weeks ago.```

Source: Internet.

12
ICT / ICT exporters get 10pc cash incentive
« on: February 12, 2018, 10:21:33 AM »
The government has granted 10 percent cash incentive to the ICT industry against their exports – a move that could be a game-changer for the country's export scenario.

Bangladesh Bank issued a circular to this effect on Thursday, and the incentive will be retrospectively effective from July 2017.

The measure meets a long-time demand of the entire information communication technology sector of Bangladesh.

Industry people said this would help attain the target of export earnings of $5 billion from the ICT sector by 2021.

Mustafa Jabbar, minister of telecom and ICT, called the development a great achievement for the digital industry as a whole. He said it would help increase the export earnings from the technology-related industry.

“I am quite sure exporters will feel encouraged to export more and we will find more and more companies which will start exporting their products,” he said.

The minister said the incentive would boost Bangladesh's IT industry's competitiveness further.

Previously, the government had given cash benefit to exporters in the garments and food sector and they have utilized the support and got the industries to flourish.

Today, Bangladesh is the second largest garment exporter in the world and the labor-intensive sector accounts for more than 80 percent of the country's export earnings.

According to the circular, ITES products such as digital content development and management, both 2D and 3D animations, geographic information services, IT support and software maintenance services, website services, graphics design, search engine optimization, and web listing will get 10 percent cash back on export earnings.

Other beneficiaries include exporters of shipping document conversion, imaging and archiving, software or application customization, website development, website hosting, software test lab services, robotics process outsourcing, and cybersecurity services. Software, mobile device manufacturers, laptop, and other gadgets assemblers will receive the benefit even if they add only 20 percent value to their products. For software and other IT-enabled services, the value addition has to be at least 30 percent.

The entire device-related manufacturing segment with artificial intelligence, internet modem, display devices and other accessories are also eligible.

However, companies that are located inside export processing zones, economic zones or hi-tech parks will not be entitled to the benefit, according to the notice.

Exporters can calculate the benefit even if they have already shipped their products and services. To avail the benefit, they will have to file an application within 60 days of the issuance of the notice.

The incentive came after repeated demand from the Bangladesh Association of Software and Information Services (BASIS) in the last couple of years. The association, however, called for 20 to 40 percent cash incentive.

Syed Almas Kabir, president of the BASIS, said thanks to the incentive, export would definitely get a boost and new players will feel interested to export.

“Besides, exporters who are not bringing in their export earnings to the country at all or bringing it using alternative ways will change their mind. I think this will change the whole game,” said Kabir.

According to the Export Promotion Bureau, export earnings from the ICT sector stood at about $250 million in 2016-17. Industry people, however, said this figure would be more than $800 million.

The central bank has made trade bodies liable in this regard in order to ward off fraudulent activities. The BASIS will verify export documents for the ICT and e-commerce sectors, said Kabir.

If any official of the trade body is found guilty of any wrong declaration, he or she will face punishment, according to the circular. “We will try our best to perform well so that we can demand more incentives next year,” Kabir added.

In case of any wrong declaration and unlawful payment, the central bank will also hold the exporter's bank liable and deduct the amount from its account with the BB.

Rashad Kabir, managing director of Dream71, said 10 percent is definitely a big amount of money and this single decision can change the whole scenario of export trends.

He said even today Bangladesh is little known as a digital product importing country. “But thanks to the incentive, the situation will start changing. After a couple of years, the whole world will know us as a technology products and services exporting nation,” said Kabir. Dream71 exports application and games and other digital solutions to nine countries.

The circular also declared business process outsourcing and related activity as an ITES. Digital data analytics, data entry, data processing, call centre service, and overseas medical transcription have been included in the list.

E-commerce and online shopping, which are getting huge popularity, were included. Though the total market for online shopping is about Tk 1,500 crore, there are few exports using technology.

Welcoming the move, Md Abdul Wahed Tomal, general secretary of the e-Commerce Association of Bangladesh, said people would now be more enthusiastic to carry out cross-border e-commerce business following the circular.

Source: http://www.thedailystar.net/business/ict-exporters-get-10pc-cash-incentive-1532974

13
Pharmacy / Future Trend of Bangladeshi Pharmaceutical Industries
« on: February 03, 2018, 10:26:45 AM »
বাংলাদেশের ওষুধ শিল্পের ভবিষ্যৎ




আবু তাহের খান

কুইন্টিলস আইএমএস হোল্ডিংয়ের হিসাব অনুযায়ী, ২০১৬  সালে বিশ্বব্যাপী ওষুধ বিক্রির পরিমাণ ছিল প্রায় ৩৭০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। একই সময়ে বাংলাদেশে ওষুধ বিক্রির পরিমাণ ছিল ২ দশমিক ৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার, যা বিশ্ববাজারের মোট ওষুধ বিক্রির ১ শতাংশেরও কম
(০.৬৫ শতাংশ)। অন্যদিকে বিশ্বের মোট জনসংখ্যার তুলনায় বাংলাদেশের জনসংখ্যা প্রায় ২ দশমিক ২৭ শতাংশ। এ পরিসংখ্যান থেকে সহজেই প্রতীয়মান হয় যে, যে পরিমাণ ওষুধ বর্তমানে বাংলাদেশের বাজারে বিক্রি হচ্ছে, তা বিশ্বের এ-সংক্রান্ত বিক্রির তুলনায় অনেক পশ্চাত্বর্তী। অর্থাৎ বাংলাদেশে ওষুধ উৎপাদন ও চিকিৎসা খাতে অর্থ ব্যয়ের পরিমাণ দুই-ই অনেক কম। আপাতদৃষ্টে এ পরিস্থিতিকে হতাশাজনক বলে মনে হলেও এখানেই নিহিত বাংলাদেশের ওষুধ শিল্প এবং চিকিৎসা খাতের উন্নয়ন ও বিকাশের অন্তর্গত সম্ভাবনা।

বাংলাদেশে চিকিৎসা খাতে অর্থ ব্যয়ের পরিমাণ অনেক কম— এ কথার মানে হচ্ছে, সামর্থ্যের অভাবে বাংলাদেশের মানুষ এ খাতে আরো বেশি অর্থ ব্যয় করতে পারছে না। পাশাপাশি শিক্ষা সচেতনতার অভাবে এ খাতে কম অর্থ ব্যয় হচ্ছে। আশার কথা যে, এ দুই ক্ষেত্রেই পরিস্থিতি ক্রমে সামনের দিকে এগোচ্ছে, যা বাংলাদেশের ওষুধ শিল্পের বিকাশের সম্ভাবনাকেই তুলে ধরে। অর্থাৎ বাংলাদেশের মানুষের আয় ও সঞ্চয় দুই-ই যেহেতু বৃদ্ধি পাচ্ছে, তার মানে তাদের অর্থ ব্যয়ের সামর্থ্য বাড়ছে। আর এ সামর্থ্য বৃদ্ধির ফলে অন্যান্য পণ্য ক্রয়ের পাশাপাশি সামনের দিনগুলোয় মানুষ ওষুধ ক্রয়ের জন্যও বাড়তি অর্থ ব্যয় করবে বলে আশা করা যায়। এতে ওষুধের চাহিদা বাড়বে এবং সে সূত্র ধরে বাড়বে উৎপাদনও। অন্যদিকে শিক্ষা সচেতনতা বৃদ্ধির ফলে চিকিৎসা খাতে অর্থ ব্যয়ের ব্যাপারে মানুষের আগ্রহ বাড়বে এবং সেটিও ওষুধের চাহিদা ও উৎপাদন বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখবে। মোট কথা, আসন্ন দিনগুলোয় বাংলাদেশের অর্থনীতি ও সমাজের অভ্যন্তরীণ বিকাশের ধারা দেশের ওষুধ শিল্পকে ব্যাপকভাবে উৎসাহিত ও ত্বরান্বিত করবে বলে আশা করা যায়।

এবার আসা যাক ওষুধের আন্তর্জাতিক বাজার ও উৎপাদন পরিস্থিতির বিষয়ে। বিশ্বে চিকিৎসা সুবিধা ও চিকিৎসার জন্য অর্থ ব্যয়ের প্রবণতা যে হারে বাড়ছে, তাতে ধারণা করা যায় যে, বৈশ্বিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির গড় হারের তুলনায় সেটি অনেক দূর এগিয়ে থাকবে। আইএমএফের করা হিসাব অনুযায়ী, ২০১৬ সালে বিশ্ব অর্থনীতির গড় প্রবৃদ্ধির হার ছিল ৩ দশমিক ১ শতাংশ। অন্যদিকে এ সময়ে বিশ্ববাজারে ওষুধ বিক্রি খাতে প্রবৃদ্ধির হার ছিল ১১ দশমিক ১১ শতাংশ। এ সময়ে বাংলাদেশে অর্থনীতির গড় প্রবৃদ্ধির হার ছিল ৭ দশমিক ২৬ শতাংশ এবং এর বিপরীতে ওষুধ শিল্প খাতে উৎপাদন প্রবৃদ্ধির হার ছিল প্রায় ১২ শতাংশ। অর্থাৎ ওষুধের অভ্যন্তরীণ ও বৈশ্বিক চাহিদা ও উৎপাদনের প্রবণতা পর্যালোচনায় প্রতীয়মান হয় যে, অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক উভয় বাজারেই নিকট ভবিষ্যতে বাংলাদেশী ওষুধের ব্যাপক বাজার চাহিদা ও সুবিধা রয়েছে।

এখন কথা হচ্ছে, এ সুবিধাকে কীভাবে কাজে লাগানো যাবে? এর মধ্যে একটি সুবিধার কথা অনেকেই জানেন। ট্রিপস (Trade Related Aspects of Intellectual Property Right- TRIPS) চুক্তির আওতায় ওষুধ রফতানির ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে অনুন্নত দেশের জন্য প্রযোজ্য শুল্ক রেয়াত সুবিধা প্রদানের মেয়াদ ২০৩২ সাল পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। বস্তুত, এ সুবিধার আওতাতেই বাংলাদেশের ৩০টি ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান এখন ১১৩টি দেশে ওষুধ রফতানি করে চলেছে। এক্ষেত্রে দেশের সংখ্যা উৎসাহব্যঞ্জক হলেও এর মধ্যে অনেক দেশেই রফতানির পরিমাণ এখনো অত্যন্ত নগণ্য। কোম্পানিগুলোর উচিত হবে রফতানির পরিমাণ বৃদ্ধিতে উদ্যোগী হওয়া। অন্যদিকে বাংলাদেশে বর্তমানে উৎপাদনরত ওষুধ কারখানার সংখ্যা প্রায় ১৫০। তার মধ্যে মোট উৎপাদনের ৮৫ শতাংশ আসে মাত্র ২০টি কারখানা থেকে। এ অবস্থায় ছোট পরিসরের ১৩০টি কারখানার উৎপাদন ক্ষমতার পূর্ণাঙ্গ ব্যবহার কীভাবে নিশ্চিত করা যায় কিংবা তাদের উৎপাদন ক্ষমতা আরো বাড়ানো যায় কিনা, সে বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করা যেতে পারে। পাশাপাশি ক্রমবর্ধমান চাহিদা, বিশেষত আন্তর্জাতিক বাজারের চাহিদা বিবেচনা করে বড় কারখানাগুলো তাদের উৎপাদন ক্ষমতা বৃদ্ধির ব্যাপারে উদ্যোগী হতে পারে।

অনেক দিন ধরেই আলোচনা হচ্ছে যে, রফতানি বৃদ্ধির লক্ষ্যে বাংলাদেশকে পোশাক খাতের ওপর মূল নির্ভরতা কমিয়ে অন্যান্য খাত থেকেও রফতানি বৃদ্ধির প্রতি মনোযোগী হওয়া প্রয়োজন। অধিকাংশের মত হচ্ছে, পোশাক খাতের বাইরে ওষুধই হতে পারে বাংলাদেশে নিকট ভবিষ্যতের বৃহত্তম রফতানি খাত। পোশাক খাতের আরো একটি বহুল আলোচিত প্রসঙ্গ এই যে, এর কাঁচামাল (বস্ত্র ও অন্যান্য) আমদানির হিসাব বাদ দিলে এ খাতে মূল্য সংযোজন বা এ খাত থেকে প্রকৃত রফতানি আয়ের পরিমাণ খুবই কম। সে বিষয়টি বিবেচনায় রেখে ওষুধ শিল্প খাতের অনুরূপ ঘটনার পুনরাবৃত্তি পরিহারের একটি সুযোগ এখন বাংলাদেশের সামনে রয়েছে এবং সেটি হচ্ছে যে, ওষুধের কাঁচামাল উৎপাদনের জন্য সম্প্রতি একটি এপিআই (অ্যাক্টিভ ফার্মাসিউটিক্যাল ইনগ্রিডেন্টস) শিল্প পার্ক স্থাপন করা হয়েছে। কিন্তু এটি যাতে দ্রুত উৎপাদনে যায়, সে ব্যাপারে আনুষঙ্গিক তত্পরতা আরো জোরদার হওয়া প্রয়োজন। তবে ঘটনা হচ্ছে, এপিআই শিল্প পার্কে স্থাপিতব্য সব কারখানা উৎপাদনে যাওয়ার পরও বর্তমান উৎপাদন ক্ষমতার হিসাবেই আরো ৫০ শতাংশ কাঁচামাল বিদেশ থেকে আমদানি করতে হবে। ফলে এপিআই শিল্প পার্কে স্থাপিতব্য কারখানাগুলোর উৎপাদন ক্ষমতা যতটা বাড়িয়ে করা যাবে, উৎপাদনের জন্য কাঁচামালের আমদানি নির্ভরতাও ততটাই হ্রাস পাবে।

এবার ওষুধ কারখানাগুলোর পরিচালন বিষয়ে খানিকটা আলোকপাত করা যেতে পারে। বাংলাদেশের বিভিন্ন সরল প্রযুক্তির শিল্পেও বহুসংখ্যক বিদেশী কাজ করা সত্ত্বেও আশার কথা যে, দেশের ওষুধ শিল্প-কারখানাগুলো এখনো স্থানীয় জনবলের দক্ষতার ওপর ভিত্তি করেই পরিচালিত হচ্ছে এবং এটি নিঃসন্দেহে একটি গৌরবের বিষয়। তবে নিকট ভবিষ্যতের অধিকতর প্রযুক্তিঘন ও অতি উন্নত মানসম্পন্ন ওষুধ উৎপাদনের অপরিহার্যের কথা চিন্তা করে দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো ফার্মেসিসহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ের আওতাধীন পাঠ্যক্রমকে যতটা সম্ভব আধুনিক চাহিদার সঙ্গে ঢেলে সাজানোর ব্যাপারে উদ্যোগী হবে বলেই আশা রাখি।

বাংলাদেশ থেকে এখন রোগীরা চিকিৎসার জন্য বিদেশে যায়। কিন্তু দেশের হাসপাতালগুলোর চিকিৎসা পদ্ধতি ও ব্যবস্থাপনাকে সিঙ্গাপুরের মতো আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন করে তোলা গেলে বিদেশীরাও এখানে চিকিৎসা নিতে আসবে। আর সে বিষয়টি বাংলাদেশের দ্রুত বিকাশমান ওষুধ শিল্প খাতকে ব্যাপকভাবে সহায়তা করতে পারে। হাসপাতালের চিকিৎসাসেবার মান আন্তর্জাতিক পর্যায়ে উন্নীত করা গেলে তা শুধু হাসপাতালগুলোকেই বর্ধিত আয়ের সংস্থান করে দেবে না, এ সুবাদে বাংলাদেশে ওষুধের অভ্যন্তরীণ বাজারও ব্যাপকভাবে সম্প্রসারণ হবে বলে আশা করা যায়।

সব মিলিয়ে বলা যায় যে, বাংলাদেশের অর্থনীতি তথা শিল্প খাতের নিকট ভবিষ্যতের সবচেয়ে সম্ভাবনাময় খাত হচ্ছে ওষুধ শিল্প, যার রফতানি সম্ভাবনা বর্তমানের তৈরি পোশাক শিল্পকে অচিরেই ছাড়িয়ে যেতে সক্ষম হবে বলে আশা করা যায়। তবে সে যাত্রায় শুধু আয় ও মুনাফা বৃদ্ধিকে মূল বিবেচনায় না রেখে এটিকে একটি আন্তর্জাতিক মানের খাত হিসেবে গড়ে তোলার ব্যাপারে সচেষ্ট হওয়া প্রয়োজন, যেখানে পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণ, ওষুধের গুণগত মান, কার্যপরিবেশের সুরক্ষা ও সন্তোষজনক শিল্প-সম্পর্ক পরিস্থিতি বিরাজমান থাকবে।

লেখক: পরিচালক (সিডিসি)

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি


Source: http://gg.gg/pharmacy

14
Employability Skills / Fundamental Skills
« on: October 31, 2017, 09:57:01 AM »

The skills needed as a basis for further development

You will be better prepared to progress in the world of work when you can:
COMMUNICATE

    read and understand information presented in a variety of forms (e.g., words, graphs, charts, diagrams)
    write and speak so others pay attention and understand
    listen and ask questions to understand and appreciate the points of view of others
    share information using a range of information and communications technologies (e.g., voice, e-mail, computers)
    use relevant scientific, technological, and mathematical knowledge and skills to explain or clarify ideas

MANAGE INFORMATION

    locate, gather, and organize information using appropriate technology and information systems
    access, analyze, and apply knowledge and skills from various disciplines (e.g., the arts, languages, science, technology, mathematics, social sciences, and the humanities)

USE NUMBERS

    decide what needs to be measured or calculated
    observe and record data using appropriate methods, tools, and technology
    make estimates and verify calculations

THINK AND SOLVE PROBLEMS

    assess situations and identify problems
    seek different points of view and evaluate them based on facts
    recognize the human, interpersonal, technical, scientific, and mathematical dimensions of a problem
    identify the root cause of a problem
    be creative and innovative in exploring possible solutions
    readily use science, technology, and mathematics as ways to think, gain, and share knowledge, solve problems, and make decisions
    evaluate solutions to make recommendations or decisions
    implement solutions
    check to see if a solution works, and act on opportunities for improvement

Source: http://www.conferenceboard.ca/spse/employability-skills.aspx

15
Teamwork Skills / Teamwork Skills
« on: October 31, 2017, 09:54:13 AM »
The skills and attributes needed to contribute productively

You will be better prepared to add value to the outcomes of a task, project, or team when you can:
WORK WITH OTHERS

    understand and work within the dynamics of a group
    ensure that a team’s purpose and objectives are clear
    be flexible: respect, and be open to and supportive of the thoughts, opinions, and contributions of others in a group
    recognize and respect people’s diversity, individual differences, and perspectives
    accept and provide feedback in a constructive and considerate manner
    contribute to a team by sharing information and expertise
    lead or support when appropriate, motivating a group for high performance
    understand the role of conflict in a group to reach solutions
    manage and resolve conflict when appropriate

PARTICIPATE IN PROJECTS AND TASKS

    plan, design, or carry out a project or task from start to finish with well-defined objectives and outcomes
    develop a plan, seek feedback, test, revise, and implement
    work to agreed-upon quality standards and specifications
    select and use appropriate tools and technology for a task or project
    adapt to changing requirements and information
    continuously monitor the success of a project or task and identify ways to improve

Source: http://www.conferenceboard.ca/spse/employability-skills.aspx?AspxAutoDetectCookieSupport=1

Pages: [1] 2 3 ... 234