Show Posts

This section allows you to view all posts made by this member. Note that you can only see posts made in areas you currently have access to.


Topics - Samsul Alam

Pages: [1] 2
1
Share Your Change Story / Quizzes taken online
« on: May 17, 2018, 11:14:54 AM »
When I joined DIU on September 2016, I took online assessment test using google form in all of the courses assigned to me. The response was good.
Then in Summer 2017 semester, took online quiz in a course using google form. Although students were reluctant to attend that quiz, finally succeeded and they were satisfied.
In the Spring 2018 semester, took 6 online quizzes using Moodle successfully. But some problems arose such as slow internet facility in the campus, students not having appropriate device to attend the exam and mindset up.
Overall the system of bringing something new to students is inspiring.

2
Internet / E-commerce sites in Bangladesh
« on: April 08, 2018, 03:11:18 AM »
The following is the list of e-commerce sites in Bangladesh:
Bangladshbrands.Com
Ajkerdeal.Com
Priyoshop.Com
Rokomari.Com
Hatbazar.Com
Bdshop.Com
Kaymu.Com.Bd
Addressbazar.Com
Hungrynaki.Com
Shoppersbd.Com
Cellbazaar.Com/Olx.Com
Clickbd.Com
Jobsbd.Com
Bdshops.Com
Boimela.Com
Upohardbd.Com
Ekhoni.Com
Seiboi.Com
Bizbangladesh.Com
Foodpanda.Com.Bd
Shoptobd.Com
Bagdoom.Com    
Bdjobs.Com
Prothom-alojobs.com
Jobsa1.Com
Kiksha.Com
Pickaboo.Com
Chaldal.Com
Daraz.Com
Othoba.Com
Gozayaan.Com
Pathao.Com
Uber.Com
Bahon.Com
Banglamart.Com
Sohojshop.Com
Clickbd.Com
Shadmart.Com
Princebazar.com
Amikinee.com
Babyneedsbd.com
Bdshop.com
Fortunabangladdesh.com
Goponjinish.com
Grameencheck.com
Leisfita.com
Stylinecollection.com
Trendytracker.com
Biyeta.com
Borbodhu.com
Etsy.com
Shaadi.com
Benglaishaadi.com
Bdmerriage.com
Bibahabd.com
Patropatri.com
Patropatribd.com

3
Cyber Security / Cyber Security
« on: April 08, 2018, 01:49:11 AM »
What are the Common Security Leak ?

1. Administrative User name Change,  use uncommon word as user, disable default user.
2. Logout, If not working.  Don’t leave PC with login.
3. Power of user reduce. Don’t give Password Changing Power to every body.
4. User name should be IP binding.
5. IP should be MAC binding.
6. Allow WAN-LAN-dns  IP , then deny all IP.
7. Configure your server with Private IP, use port forwarding from router with Real IP.
8. Router Access(login) Port number Change.
9. Risky services(ssh, telnet, ftp etc) must be disabled.
10. Log (login, change history) store in remote PC.
11. Unused Physical ports including console port should be disabled.
12. Auto backup script. (password protected).
13. Server room entrance restricted with  card punch or finger print, use DVR.
14. VPN user for remote access  with encryption.
15. Real IP redundancy with backup ISP.
16. WAN IP must not larger than /30 or no idle IP at WAN side.
17. Dns security= no open dns (allow remote request=disabled).
18. Don’t save password.
19. Long and critical password.
20. Password typing speed high.
21. Don’t write password anywhere.
22. Use Vlan to separate clients, servers.
23. Neighbor Discovery protocol disabled.
24. WiFi should be password protected, allowed MAC list, deny all.
25. DHCP Server IP pool Off.
26. Static ARP and Interface > ARP=reply-only.
27. Virus ports, Remote Desktop, Team viewer, Ammy admin, VNC etc ports must not opened.
28. Windows firewall active and Antivirus must be updated.
29. Don’t click unknown attachment files and unknown .exe/.bat/.ini  files or games.
30. Don’t accept (If not sure) firewall / antivirus asked to allow.
31. Enable facebook security options from setting.

- A.K.M. Jahangir

4

বাংলার মুক্তির সশস্ত্র সংগ্রামের প্রথম শহীদ - সার্জেন্ট জহুরুল হক। নোয়াখালির সুধারাম থেকে জগন্নাথ কলেজ, বেঙ্গল লিবারেশন আর্মি থেকে আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা- প্রতিটা ক্ষেত্রে তিনি উদ্ভাসিত আপন আলোকে। মুক্তি সংগ্রামের আপোষহীন এই জাতীয় বীরের জীবনের পুরোটা সংক্ষেপে তুলে ধরার প্রয়াস।
জহুরুল হক ছিলেন তার বাবা-মা'র তিন সন্তানের মধ্যে সবচেয়ে ছোট। আমরা শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক নামে জানলেও তাঁর পারিবারিক নাম ছিল 'সেরাজ জহুরুল হক', ডাকনাম ''রুনু''! ইংলিশ বানান লিখতেন Zahoorul Haq, আমরা লিখি Zahurul huq/Haque!
জহুরুল হক ছিলেন জন্মশিল্পী। দারুণ ছবি আঁকতেন। তার একটি ছবি 'ভাঙাচোরা একটা সুর্যকে টেনে নিয়ে যাচ্ছে এক যুবক' যেন ইদানীংকালের 'গ্রাফিতি সুবোধ তুই পালিয়ে যা' এর থিম। তাদের বাসা ছিল ২৫ এলিফেন্ট রোডে, বাসার নাম চিত্রা।
জগন্নাথ কলেজে পড়া অবস্থায়ই যোগ দেন বিমান বাহিনীতে, ট্রেইনিং অফিসার হিসেবে কর্মরত ছিলেন আগরতলা মামলায় গ্রেফতার হওয়ার আগে পর্যন্ত।
সেনাবাহিনীতে কর্মরত কিছু বাঙালি সৈনিক গোপনে গঠন করেছিল বেঙ্গল লিবারেশন আর্মি। লক্ষ্য ছিল পূর্ব-পাকিস্তানের সব সেনানিবাসে একযোগে বিদ্রোহ করে স্বাধীনতা আনয়ন। জহুরুল হক শুরু থেকে জড়িত ছিলেন এর সাথে। নৌবাহিনীর ল্যাফটেন্যান্ট কমান্ডার মোয়াজ্জেম হোসেন ছিলেন বিপ্লবী এই সংস্থার প্রধান। এক পর্যায়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবও এর সাথে জড়িত হন। হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর কন্যা আখতার সোলায়মান এর করাচীর বাসায় নিয়মিত বঙ্গবন্ধু ও সেনাকর্তাদের মিটিং হত।
১৯৬৮ সালের ৬ জানুয়ারি সরকারি (আইয়ুব আমল) প্রেসনোটে জানানো হয় সরকার পাকিস্তানের স্বার্থবিরোধী একটি চক্রান্ত ধরে ফেলেছে। সারা পাকিস্তানে প্রায় ১৫০০ জন বাঙালিকে গ্রেফতার করা হয়। ১৮ই জানুয়ারি এই অভিযোগেই গ্রেফতার করা হয় বঙ্গবন্ধুকে। সর্বমোট ৩৫ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করা হয়, এর একজন সার্জেন্ট জহুরুল।
মামলার নাম দেয়া হয় ''রাষ্ট্র বনাম শেখ মুজিব ও অন্যান্য'', তবে ভারতীয় ফ্লেভার এড করার নিমিত্তে সরকারি নির্দেশে এটিকে ''আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা'' হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়। উদ্দেশ্য ছিল এদের ভারতীয় চর আখ্যায়িত করে শাস্তি দেয়া, নির্বাচনে (৭০-এর) প্রভাব ফেলা।
বিচার চলাকালীন সার্জেন্ট জহুরুল বাংলা ভাষার সরলীকরণ ও এ সংক্রান্ত একটি অভিধান রচনার কাজ করেছিলেন।
তিনি ছাড়া পেলে কী করবেন, সহবন্দীর এরকম প্রশ্নের জবাবে বলেছিলেন, 'আমরা আমাদের লক্ষ্যে পৌছার পথে কিছুটা বাধা পেয়েছি, সুযোগ পেলে আবার লক্ষ্যস্থলে পৌঁছার চেষ্টা করব।''
১৫ই ফেব্রুয়ারি ভোর পাঁচটার দিকে তাকে গুলি করা হয়, সেনা হেফাযতে থাকা অবস্থায়। তাকে গুলি করেছিল পাঞ্জাবী হাবিলদার মঞ্জুর শাহ। জহুরুল হকের সাথে সেদিন আহত হয়েছিলেন ফ্লাইট সার্জেন্ট ফজলুল হক। জহুরুল হককে গুলি করার পর বেয়নেট চার্জ করা হয়, পেটানো হয়। তার দোষ ছিল তিনি একটা পথশিশুকে পেটানোর প্রতিবাদ করেছিলেন।
আঘাতে জহুরুল হকের কলার বোন ভেঙে যায়। অগ্নাশয় ছিড়ে যায়। তার রক্তের গ্রুপ ছিল ও-নেগেটিভ, দুষ্প্রাপ্য।
ঘন্টা দুয়েক পরে তাকে সিএমএইচে নেয়া হলেও অপারেশন করানো হয়নি। রাত সোয়া নয়টায় তার মৃত্যু হয়।
দুপুরে রেডিও পাকিস্তানে জানানো হয় তিনি পালানোর চেষ্টা করেছিলেন। অথচ তার বিরুদ্ধে কোনো অপরাধ তারা প্রমাণ করতে পারেনি, ১৯ জন সাক্ষীর মধ্যে কেউ তার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেয়নি। কয়েকদিনের মধ্যে তার মুক্তির সম্ভাবনা ছিল। আর তার বুকে গুলি করা হয়েছিল, পিঠে নয়।
শহীদ সার্জেন্ট এর মৃতদেহ তার ভাইয়ের হাতে তুলে দেন পাকসেনাকর্তা রাও ফরমান আলি খান। জহুরুল হকের লাশ নিয়ে শোক মিছিল হয় আওয়ামীলীগ এর নেতৃত্বে। সেসময়ের আওয়ামীলীগ প্রধান আমেনা বেগমের নেতৃত্বে শোক মিছিলে সাদা কাপড়ের ব্যানারে লেখা ছিল 'শহীদের রক্ত বৃথা যেতে দেবো না।'
শোক মিছিল এলিফ্যান্ট রোড, নিউমার্কেট, শহীদ মিনার, নাজিম উদ্দিন রোড, চকবাজার, মোগলটুলি হয়ে সদরঘাট ও জিন্নাহ এভিনিউ(বঙ্গবন্ধু এভিনিউ) হয়ে স্টেডিয়ামে যায়।
জানাজা শেষে সেক্রেটারিয়েট এর সামনে দিয়ে আসার সময় উত্তেজিত জনতার দিকে পুলিশ গুলি ছোড়ে। ঘটনাস্থলেই ইসহাক খান নামে একজন মারা যান। বিক্ষুব্ধ জনতা পূর্তমন্ত্রী, মুসলীম লীগ সভাপতি, তথ্যমন্ত্রীর বাসভবন ও দুটো দমকল গাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে।
সার্জেন্ট জহুরুলের অন্তিম শয্যা হয় আজিমপুর করবস্থানে।
সেদিনই কারফিউ জারি করে আইয়ুব, এছাড়া ১৪৪ ধারা জারি করা হয় বড় শহরগুলোতে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সর্বদলীয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ধর্মঘট আহবান করে, বটতলায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে।
১৫ই ফেব্রুয়ারির সেই নির্মম হত্যাকান্ডই গণ-অভ্যুত্থানের আগুনে আহুতি দেয়। মাওলানা ভাসানী জনসভা করেন। বঙ্গবন্ধুর মুক্তি চাওয়া হয়। ১৮ই ফেব্রুয়ারি শহীদ হন রাবির প্রোক্টর ড. শামসুজ্জোহা। তীব্র আন্দোলনের মুখে আইয়ুব শাহী পদত্যাগের ঘোষণা দেয় ২১শে ফেব্রুয়ারি। ২২ ফেব্রুয়ারি নি:শর্ত মুক্তি দেয়া হয় সব আসামীকে, আগরতলা মামলা প্রত্যাহার করা হয়। ২৩ ফেব্রুয়ারি যখন শেখ মুজিব ''বঙ্গবন্ধু''তে রুপান্তরিত হন, সেদিন ইত্তেফাকের শিরোনাম ছিল ''ফিরিলো না শুধু একজন''- এই একজন শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক, বাংলার এক সুর্যসন্তান।
৭০-এ বঙ্গবন্ধু জহুরুল স্মরণ দিবসে বলেছিলেন, ''জহরুল মরে নাই, মরণেরে শুধু করিয়াছে উপহাস।''
১৫ই ফেব্রুয়ারি পালনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইকবাল হল কেন্দ্রীক একটি ছাত্রসেনাবাহিনী গঠন করা হয়, নাম দেয়া হয় ''১৫ই ফেব্রুয়ারি বাহিনী' পরে 'জহুর-১৫'। পরে যে বাহিনী রুপ নিয়েছিল ''জয় বাংলা'' বাহিনীতে, যারাই প্রথম স্বাধীনতা পূর্ববর্তী সময়ে মাস্টারপ্ল্যান করেছিল দেশমুক্তির। নেতৃত্বে ছিল ছাত্রলীগ।
জহুরের শাহাদতের পরই ইকবাল হলের নাম বদলে জহুরুল হক হল করার দাবী পেশ করে ছাত্রলীগ ও ডাকসুর সেসময়ের নেতারা। ডাকসু ভিপি তোফায়েল আহমেদ বলেন, ''সার্জেন্ট জহুরুল হকের মৃত্যু, তার শাহাদাত, তার রক্ত আমাদের আন্দোলনকে গতিশীল করলো, সমস্ত মানুষ বিক্ষোভে ফেটে পড়েছিল। সরকার সান্ধ্য আইনইন দিল। আমরা আইন ভেঙে মিছিল করলাম। সেই এলিফ্যান্ট রোডের বাসা চিত্রায় আমরা ইকবাল হলের হাজারো ছাত্র জমায়েত হলাম। সর্বদলীয় ছাত্রসংগ্রাম পরিষদের পক্ষে আমি ঘোষণা করলাম আজ থেকে ইকবাল হলের নাম পরিবর্তন করে জহুরুল হকের নামে রাখা হবে। সেই থেকেই ইকবাল হল হয়ে গেল জহুরুল হক হল।''
অফিসিয়ালি এই নাম কার্যকর হয় ১৯৭২ সালে। তখন নাম ছিল 'জহুরুল হক হল'। ২০১১ সালে প্রধান ফটকে জহুরুল হকের মুরাল স্থাপন করে এর নাম পরিবর্তন করা হয় ''শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল''।
সেনানিবাসে যেখানে বঙ্গবন্ধু, জহুরুল হক ও অন্যান্যদের বিচার হয় সেখানে জাদুঘর স্থাপন করা হয়েছে বিজয় কেতন মানে। জহুরুল হক যে হ্যান্ড গ্রেনেড দিয়ে বিপ্লবীদের গোপনে প্রশিক্ষণ দিতেন, সেটি এখানে রাখা হয়েছে ''রক্তঋণ'' স্মারক হিসেবে।
২০১১ সালে শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হলের আয়োজনে আগরতলা মামলার অভিযুক্ত ও তাদের পরিবারকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। প্রধান ভূমিকা রাখেন হল প্রাধ্যক্ষ ড. আবু মো: দেলোয়ার হোসেন। সার্জেন্ট জহুরলসহ অভিযুক্ত ৩৫ জনকে ''জাতীয় বীর'' ঘোষণা করা হয় এবং রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতির দাবী ওঠে।
জহুরুলকে নিয়ে পল্লীকবি জসীম উদ্দিন লেখেন,
''মতিউর গেছে, আসাদ গিয়াছে
জহিরুল গেছে আর,
রক্ত জবায় সাজায়েছে তারা
চরণ যে দেশ মা-র।''
জহুরুল ১ম স্মরণ দিবসের স্লোগান ছিল,
''জয় ১৫ই ফেব্রুয়ারি, জয় জহুর, জয় বাংলা''।
- সংগৃহিত

5
১. এক্স-রে আবিষ্কার করেন কে?
উত্তর : রনজেন।
২. বেতার যন্ত্র আবিষ্কার করেন কে?
উত্তর : মার্কিনী।
৩. ক্যালকুলেটর আবিষ্কার করেন কে?
উত্তর : আইকেন ।
৪. কম্পিউটার আবিষ্কার করেন কে?
উত্তর : চার্লস ব্যাবেজ ।
৫. অণুবীক্ষণ যন্ত্র আবিষ্কার করেন কে?
উত্তর : লিউয়েন হুক।
৬. উড়োজাহাজ আবিষ্কার করেন কে?
উত্তর : রাইট ব্রাদারস।
৭. বৈদ্যুতিক বাতি আবিষ্কার করেন কে?
উত্তর : টমাস আলভা এডিসন।
৮. রকেট ইঞ্জিন আবিষ্কার করেন কে?
উত্তর : রবার্ট গডার্ড।
৯. সেফটি রেজার আবিষ্কার করেন কে?
উত্তর : কিংসি জিলেট।
১০. আপেক্ষিক তত্ত্ব আবিষ্কার করেন কে?
উত্তর : আলবার্ট আইনস্টাইন।
- সংগৃহিত

6
১৷ কম্পিউটার- হাওয়ার্ড এইকিন ৷
২৷ আধুনিক কম্পিউটার- চার্লস ব্যাবেজ ৷
৩৷ লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেম- ট্যাভেলড লিনাক্স ৷
৪৷ কম্পিউটার প্রোগ্রামিং- গ্রেস হুপার ৷
৫৷ লেজার প্রিন্টার- গেরি স্ট্রাকওয়েদার ৷
৬৷ ডেক্সটপ/পিসি- হেনরি এডওয়ার্ড রবার্টস ৷
৭৷ কম্পিউটার মাউস- ডগলাস এঙ্গেলবার্ট ৷
৮৷ ল্যাপটপ- বিল মেগারিজ ৷
৯৷ টেলিফোন- আলেকজান্ডার গ্রাহামবেল ৷
১০৷ সার্চ ইঞ্জিন- এলান এমটাজ ৷
১১৷ ইন্টারনেট- ভিনটন ডি কার্ফ ৷
১২৷ ই-মেইল- রে টমলিনসন ৷
১৩৷ উইকিপিডিয়া- জিমি ওয়ালস ৷
১৪৷ মাইক্রোপ্রসেসর- মার্সিয়ান টেড হফ ৷
১৫৷ গুগল- ল্যারি পেজ ও সার্জে ব্রিন ৷
১৬৷ জাভা প্রোগ্রামিং ভাষা- জেমস গজলিং ৷
১৭৷ ইউটিউব- চ্যাড হারলি, স্টিভ চ্যান ও জাভেদ করিম ৷
১৮৷ মাইক্রোসফট- বিল গেটস ও পল অ্যালেন ৷
১৯৷ টুইটার- জ্যাক ডোরসে, নোয়া গ্লাস, ইভান ইউলিয়ামস ও বিজ স্টোন ৷
২০৷ অপেরা ওয়েব ব্রাউজার- জন স্টিফেনসন ৷
২১৷ ব্লগিং- ইভান ইউলিয়ামস ৷
২২৷ এস এম এস- ম্যাট্রি ম্যাক্কোনেন ৷
২৩৷ পেন ড্রাইভ- পুয়া কেইন সেং ৷
২৪৷ ওয়ার্ডপ্রেস- ম্যাট মুলানভোগ ৷
২৫৷ ই-বুক- মাইকেল এস হার্ট ৷
২৬৷ লাইক বাটন- জোয়ানেস জোয়েফ ডিমার ৷
২৭৷ ইয়াহু- ডেভিড ফিলো ও জেরি ইয়াং ৷
২৮৷ www এর জনক- টিম বার্নাস লি ৷
২৯৷ মোবাইল ফোন- মার্টিন কুপার ৷
৩০৷ ফেসবুক- মার্ক জুকারবার্গ ৷
৩১৷ সিডি- নোরি ও ওগো ৷
৩২৷ ডিজিটাল ক্যামেরা— স্টিভেন জে সিসোন ৷
৩৩৷ ATM- এর জনক- জন শেফার্ড ব্যারন ৷
- সংগৃহিত

7
★★ ঢাকা→→→→জাহাঙ্গীরনগর
★★ চট্টগ্রাম→→→→ইসলামাবাদ
★★ খুলনা→→→→জাহানাবাদ
★★ সিলেট→→→→জালালাবাদ/শ্রীহট্ট
★★ যশোর→→→→খিলাফাতাবাদ
★★ বাগেরহাট→→→→খলিফাবাদ
★★ ময়মনসিংহ→→নাসিরাবাদ
★★ ফরিদপুর→→→→ফাতেহাবাদ
★★ বরিশাল→→→→ইসমাইলপুর/চন্দ্রদ্বীপ
★★ কুমিল্লা→→→→ত্রিপুরা
★★ কুষ্টিয়া→→→→নদীয়া
★★ ফেনী→→→→ শমসেরনগর
★★ কক্সবাজার→→→→ফালকিং
★★ জামালপুর→→→→সিংহজানী
★★দিনাজপুর→→গন্ডোয়ানাল্যান্ড
★★ ভোলা→→→→শাহবাজপুর
★★ মুন্সিগঞ্জ→→→→বিক্রমপুর
★★ গাইবান্ধা→→→→ভবানীগঞ্জ
★★ রাজবাড়ী→→→→গোয়ালান্দ
★★ সাতক্ষীরা→→→→সাতঘরিয়া
★★ মহাস্থানগড়→→→পুন্ড্রবর্ধন
★★ ময়নামতি→→→রোহিতগিরি
★★ সোনারগাঁও→→→→সুবর্ণগ্রাম
★★ পদ্মা→→→→কীর্তিনাশা
★★ যমুনা→→→→জোনাই নদী
★★ ব্রহ্মপুত্র→→→→লৌহিত্য
★★ বুড়িগঙ্গা→→দোলাইনদী/খাল
★★ ময়নামতি→→→রোহিতগিরি
★★বরিশাল→→→চন্দ্রদ্বীপ/বাকলা
★★ লালবাগদূর্গ→→তেহাবাগ দূর্গ
★★ নোয়াখালী →→→সুধারামপুর
★★ ময়মনসিংহ →→নাসিরাবাদ
★★ কুমিল্লা→→→→ত্রিপুরা
★★ কুষ্টিয়া→→→→নদীয়া
★★মুজিবনগর→→→বৈদ্যনাথতলা
★★ বাগেরহাট→→→খলিফাতাবাদ
★★ আসাদ গেট→→→আইয়ুব গেট
★★ সাতক্ষীরা→→→→সাতঘরিয়া
★★ শেরে বাংলা নগর→আইয়ুব নগর
★★ রাঙামাটি→→→→হরিকেল
★★সেন্টমার্টিন→→নারিকেলজিঞ্জিরা
★★ নিঝুম দ্বীপ→→→বাউলার চর
- সংগৃহিত

8
BCS Cadre / বাংলাদেশ সংবিধান
« on: April 08, 2018, 12:53:32 AM »
1) বাংলাদেশে কোন ধরনের রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থা প্রচলিত?
উঃ- সার্বভৌম প্রজাতন্ত্র।
2) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আইন কি?
উঃ- সংবিধান।
3) কোন দেশের কোন লিখিত সংবিধান নাই?
উঃ- বৃটেন, নিউজিল্যান্ড, স্পেন ও সৌদি আরব।
4) বিশ্বের সবচেয়ে বড় সংবিধান কোন দেশের?
উঃ- ভারত।
5) বিশ্বের সবচেয়ে ছোট সংবিধান কোন দেশের?
উঃ- আমেরিকা।
6) বাংলাদেশের সংবিধানের প্রনয়ণের প্রক্রিয়া শুরু হয় কবে?
উঃ- ২৩ মার্চ, ১৯৭২।
7) বাংলাদেশের সংবিধান কবে উত্থাপিত হয়?
উঃ- ১২ অক্টোবর, ১৯৭২।
8) গনপরিষদে কবে সংবিধান গৃহীত  হয়?
উঃ- ০৪ নভেম্বর,১৯৭২।
9) কোন তারিখে বাংলাদেশের সংবিধান বলবৎ হয়?
উঃ- ১৬ ডিসেম্বর, ১৯৭২।
10) বাংলাদেশে গনপরিষদের প্রথম অধিবেশন কবে অনুষ্ঠিত হয়?
উঃ- ১০ এপ্রিল, ১৯৭২।
11) সংবিধান প্রনয়ণ কমিটি কতজন সদস্য নিয়ে গঠন করা হয়?
উঃ- ৩৪ জন।
12) সংবিধান রচনা কমিটির প্রধান কে ছিলেন?
উঃ- ডঃ কামাল হোসেন।
13) সংবিধান রচনা কমিটির একমাত্র মহিলা সদস্য কে ছিলেন?
উঃ- বেগম রাজিয়া বেগম।
14) বাংলাদেশ সংবিধানের  কয়টি পাঠ কয়েছে?
উঃ- ২ টি। বাংলা ও ইংরেজি।
15) কি দিয়ে বাংলাদেশের সংবিধান শুরু ও শেষ হয়েছে?
উঃ- প্রস্তাবনা দিয়ে শুরু ও ৭টি তফসিল দিয়ে শেষ।
16) বাংলাদেশের সংবিধানে কয়টি ভাগ আছে?
উঃ- ১১ টি।
17) বাংলাদেশের সংবিধানের অনুচ্ছেদ/ধারা কতটি?
উঃ- ১৫৩ টি।
18) বাংলাদশের প্রথম হস্তলেখা সংবিধানের মূল লেখক কে?
উঃ- আবদুর রাউফ।
19) প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ ছাড়া কোন কাজ রাষ্ট্রপতি এককভাবে করতে সক্ষম?
উঃ- প্রধান বিচারপতির নিয়োগ দান।
20) রাষ্ট্রপতির মেয়াদকাল কত বছর?
উঃ- কার্যভার গ্রহনের কাল থেকে ৫ বছর।
21) একজন ব্যক্তি বাংলাদশের রাষ্ট্রপতি হতে পারবেন কত মেয়াদকাল?
উঃ- ২ মেয়াদকাল।
22) কার উপর আদালতের কোন এখতিয়ার নেই?
উঃ- রাষ্ট্রপতি।
23) জাতীয় সংসদের সভাপতি কে?
উঃ- স্পিকার।
24) রাষ্ট্রপতি পদত্যাগ করতে চাইলে কাকে উদ্দেশ্য করে পদত্যাগ পত্র লিখবেন?
উঃ- স্পিকারের উদ্দেশ্যে।

25) প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও উপ-মন্ত্রীদের নিয়োগ প্রদান করেন কে?
উঃ- রাষ্ট্রপতি।
26) এ্যার্টনি জেনারেল পদে নিয়োগ দান করেন কে?
উঃ- রাষ্ট্রপতি।
27) সংবিধানের প্রধান বৈশিষ্ট্য আছে কতটি?
উ:১২টি।
28) বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আদালত কোনটি?
উঃ- সুপ্রীম কোর্ট।
29) সুপ্রীম কোর্টের কয়টি বিভাগ আছে?
উঃ- ২টি । আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগ।
30) সুপ্রীম কোর্টের বিচারপতিদের মেয়াদকাল কত?
উঃ- ৬৭ বছর পর্যন্তু।
31) বাংলাদেশের সংবিধানের প্রথম মূলনীতি কি ছিল?
উঃ- ধর্মনিরপেক্ষতা, জাতীয়তাবাদ, গনতন্ত্র ও সমাজতন্ত্র।
32) কোন আদেশবলে সংবিধানের মূলনীতি “ধর্মনিরপেক্ষতা” বাদ দেয়া হয়?
উঃ- ১৯৭৮ সনে ২য় ঘোষনাপত্র আদেশ নং ৪ এর ২ তফসিল বলে।
33) কোন আদেশবলে সংবিধানের শুরুতে “বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম” সন্নিবেশিত হয়?
উঃ- ১৯৭৮ সনে ২য় ঘোষনাপত্র আদেশ নং ৪ এর ২ তফসিল বলে।
34) কোন আদেশবলে বাংলাদেশের নাগরিকগণ “বাংলাদেশী” বলে পরিচিত হন?
উঃ- ১৯৭৮ সনে ২য় ঘোষনাপত্র আদেশ নং ৪ এর ২ তফসিল বলে।
35) সংবিধানের কোন অনুচ্ছেদে “গনতন্ত্র ও মৌলিক মানবাধিকারের” নিশ্বয়তা দেয়া আছে?
উঃ- ১১ অনুচ্ছেদ।
36) সংবিধানের কোন অনুচ্ছেদে “কৃষক ও শ্রমিকের” মুক্তির কথা বলা আছে?
উঃ- ১৪ অনুচ্ছেদ।
37) সংবিধানের কোন অনুচ্ছেদে “নির্বাহী বিভাগ থেকে বিচার বিভাগ পৃথকীকরণ” এর কথা বলা হয়েছে?
উঃ- ২২ অনুচ্ছেদ।


38) “সকল নাগরিক আইনের চোখে সমান এবং আইনের সমান আশ্রয় লাভের অধিকারী” বর্ণিত কোন অনুচ্ছেদে?
উঃ- ২৭ অনুচ্ছেদে।
39) জীবন ও ব্যক্তি স্বাধীনতার অধিকার রক্ষিত রয়েছে কোন অনুছেদে?
উঃ- ৩য় ভাগে, ৩২ অনুচ্ছেদে।
40) গ্রেফতার ও আটক সম্পর্কিত রক্ষাকবচের কোন অনুচ্ছেদ?
উঃ- ৩য় ভাগে, ৩৩ অনুচ্ছেদে।
41) জবরদস্তি নিষিদ্ধ করা হয়েছে কোন অনুচ্ছেদে?
উঃ- ৩য় ভাগে, ৩৪ অনুচ্ছেদে।
42) চলাফেরার স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে কোন অনুচ্ছেদে?
উঃ- ৩য় ভাগে, ৩৬ অনুচ্ছেদে।
43) সমাবেশের স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে কোন অনুচ্ছেদে?
উঃ- ৩য় ভাগে, ৩৭ অনুচ্ছেদে।
44) সমিতি ও সংঘ গঠনের স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে কোন অনুচ্ছেদে?
উঃ- ৩য় ভাগে, ৩৮ অনুচ্ছেদে।
45) চিন্তা ও বিবেকের স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে কোন অনুচ্ছেদে?
উঃ- ৩য় ভাগে, ৩৯ (১) অনুচ্ছেদে।
46) বাক ও ভাব প্রকাশের স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে কোন অনুছেদে?
উঃ- ৩য় ভাগে, ৩৯(২) ক অনুচ্ছেদে।
47) সংবাদপত্রের স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে কোন অনুছেদে?
উঃ- ৩য় ভাগে, ৩৯ (২) খ অনুচ্ছেদে।
48) পেশা ও বৃত্তির স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে কোন অনুছেদে?
উঃ- ৩য় ভাগে, ৪০ অনুচ্ছেদে।
49) ধর্মীয় স্বাধীনতার কথা বলা হয়েছে কোন অনুছেদে?
উঃ- ৩য় ভাগে, ৪১ অনুচ্ছেদে।
50) সম্পত্তির অধিকারের কথা বর্ণিত হয়েছে কোন অনুছেদে?
উঃ- ৩য় ভাগে, ৪২ অনুচ্ছেদে।
- সংগৃহিত

9
বিবিসি বাংলা জরিপে সর্বকালের শ্রেষ্ঠ ২০ বাঙালির তালিকা প্রকাশ করেছিল।
১। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান
২। বিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
৩। কাজী নজরুল ইসলাম
৪। শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হক
৫।নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু
৬। বেগম রোকেয়া সাখাওয়াত হোসেন
৭। স্যার জগদীশ চন্দ্র বসু
৮। ঈশ্বর চন্দ্র বিদ্যাসাগর
৯। মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানি
১০। রাজা রামমোহন রায়
১১। শহীদ তিতুমির
১২। ফকির লালন শাহ
১৩।সত্যজিৎ রায়
১৪। অমর্ত্য সেন
১৫। ভাষা শহীদ
১৬। জ্ঞান তাপস ডঃ মোহাম্মদ শহিদুল্লাহ
১৭। স্বামী বিবেকানন্দ
১৮। অতিশ দীপঙ্কর শ্রীজ্ঞান
১৯। জিয়াউর রহমান
২০। হোসেন শহীদ সোহরাওয়াদি
- সংগৃহিত

10
১) শেখ মুজিবকে 'বঙ্গবন্ধু'
উপাধি দেয়া হয় কবে?
উ: ২৩ ফেব্রুয়ারী ১৯৬৯ সালে
২) শেখ মুজিবকে 'বঙ্গবন্ধু'
উপাধি কে দেন?
উ: তোফায়েল আহম্মেদ
৩) কোথায় 'বঙ্গবন্ধু উপাধি
দেওয়া হয়?
উ: রেসকোর্স ময়দানে
৪) ঐতিহাসিক 'ছয়দফা' কে
ষোষনা করেন?
উ: শেখ মুজিবুর রহমান
৫) ছয়দফা ১ম কবে ঘোষনা করেন?
উ: ৫ ফেব্রুয়ারী ১৯৬৬
৬) বিরোধীদলের সম্মেলনে মুজিব কবে ছয়দফা উথ্থাপন করেন?
উ: ১৩ ফেব্রুয়ারী ১৯৬৬
৭) শেখ মুজিব আনুষ্ঠানিকভাবে কবে ছয়দফা ঘোষনা করেন?
উ: ২৩ মার্চ ১৯৬৬
৮) কোন প্রস্তাবের ভিত্তিতে ছয়দফা রচিত হয়?
উ: লাহোর প্রস্তাব
৯) ছয়দফার প্রথম দফা কি ছিল?
উ: স্বায়ত্বশাসন
১০) 'বাঙ্গালী জাতির মুক্তির সনদ' হিসেবে পরিচিত কোনটি?
উ: ছয়দফা
১১) পূর্ব পাকিস্থানের নামকরণ "বাংলাদেশ" করা হয় কবে?
উ: ৫ ডিসেম্বর ১৯৬৯ সালে
১২) কে বাংলাদেশ নামকরন করেন?
উ: শেখ মুজিবুর রহমান
১৩) শেখ মুজিবুর রহমানকে 'জাতির জনক' ঘোষনা করা হয় কবে?
উ: ৩ মার্চ ১৯৭১
১৪) কে শেখ মুজিবকে জাতির জনক ঘোষনা করেন?
উ: আ.স.ম. আব্দুর রব
১৫) শেখ মুজিব কে জাতির জনক ঘোষনা করা হয় কোথায়?
উ: পল্টন ময়দানে
১৬) আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা দায়ের করা হয় কবে?
উ: ৩ জানুয়ারী ১৯৬৮
১৭) আগরতলা মামলার মোট আসামী কতজন ছিল?
উ: ৩৫ জন (শেখ মুজিব সহ)
১৮) আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার প্রধান আসামী কে ছিল?
উ: শেখ মুজিবুর রহমান
১৯) আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা কি নামে দায়ের করা হয়েছিল?
উ: "রাষ্ট্রদ্রোহীতা বনাম শেখ মুজিব ও অন্যান্য"
- সংগৃহিত

11
Science and Information / ITPEC certification holer
« on: April 07, 2018, 10:01:56 PM »
Why not have a ITPEC certification?

Information Technology Professionals Examination Council (hereinafter called "ITPEC") is the organization for a common IT examination in Asian countries, ITPEC Examination.
It was formed on November 2005 to co-ordinate all efforts of the member countries for ITPEC Examination in cooperation with IPA, Japan.
ITPEC includes members from 7 countries (Philippines, Thailand, Vietnam, Myanmar, Malaysia, Mongolia, and Bangladesh).
There are currently 4 exams being offered by ITPEC:
Level-1: IT Passport Exam (IP): [This examination is suitable for IT & non-IT professionals and graduates.] Registration for IP/FE Exam
Level-2: Fundamental Information Technology Engineer Examination (FE): [This examination is suitable for IT professionals and graduates and 4th years’ CSE/IT related students.] Registration for IP/FE Exam
Level-3: Applied Information Technology Engineer Examination (AP) [This examination is suitable for experienced IT professionals.]
Level-4: Advanced Examination (AE) [This examination is suitable for domain specific experienced IT professionals.]

ITEE in Bangladesh
Bangladesh government is conducting and implementing ITEE in Bangladesh by Bangladesh IT-engineers Examination Center (BD-ITEC) of Bangladesh Computer Council under the umbrella of ICT Division, Ministry of Posts, Telecommunications & IT. It will be the national level examination for IT professionals/graduates in Bangladesh. Non-IT Professionals/graduates also can achieve international recognition for their IT knowledge & skills. BD-ITEC is conducting ITEE in Bangladesh from October 2013 regularly. The following two exams are conducted in Bangladesh now:

Level-1: IT Passport Exam (IP): [This examination is suitable for non-IT professionals and graduates.]
Level-2: Fundamental Information Technology Engineer Examination (FE): [This examination is suitable for IT professionals and graduates and 4th years’ CSE/IT related students.]

For more details please visit:
http://bditec.gov.bd/
http://itpec.org/about/itpec.html

12
Students' Affairs / বই পড়, জীবন গড়
« on: April 07, 2018, 09:54:35 PM »
বই সম্পর্কিত অনুপ্রেরণাদায়ক, স্বরণীয় ও বিখ্যত ৫০ বাণী বা উক্তি !!!
🕮 বই মানুষকে জ্ঞানী করে, ভালো-মন্দের পার্থক্য করতে শেখায়।
🕮 বই একমাত্র বন্ধু যে মানুষকে শুধু দিয়েই যায় বিনিময়ে কিছু চায় না। বই হলো এমন একটি মাধ্যম যা আমাদের কল্পনা শক্তিকে আরো বিস্তৃত করে। আমাদের জানার আগ্রহকে বাড়ায়। বই পড়লে মানুষের মনুষ্যত্ব জেগে ওঠে।
🕮 ভালো বই আত্নশুদ্ধির শ্রেষ্ঠ উপায়। --রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।
🕮 বই জ্ঞানের প্রতীক, বই আনন্দের প্রতীক। --জসিম উদ্দিন।
🕮 ঘরের কোন আসবাবপত্র বইয়ের মতো সুন্দর নয়। --সিডনি স্মিথ।
🕮 একটি ভালো বই হচ্ছে সর্বশ্রেষ্ঠ বন্ধু। আজ এবং চিরকালের জন্য।--এফ টুপার।
🕮 ভালো খাদ্য বস্তু পেট ভরে কিন্ত ভাল বই মানুষের আত্মাকে পরিতৃপ্ত করে। - স্পিনোজা
🕮 ভালো বই পড়া মানে গত শতাব্দীর সেরা মানুষদের সাথে কথা বলা। - দেকার্তে
🕮 অন্তত ষাট হাজার বই সঙ্গে না থাকলে জীবন অচল। - নেপোলিয়ান
🕮 প্রচুর বই নিয়ে গরীব হয়ে চিলোকোঠায় বসবাস করব তবু এমন রাজা হতে চাই না যে বই পড়তে ভালবাসে না. - জন মেকলে
🕮 আমি চাই যে বই পাঠরত অবস্থায় যেন আমার মৃত্যু হয়। - নর্মান মেলর
🕮 একটি ভালো বইয়ের কখনোই শেষ বলতে কিছু থাকে না। - আর ডি কামিং
🕮 একটি বই পড়া মানে হলো একটি সবুজ বাগানকে পকেটে নিয়ে ঘোরা। - চীনা প্রবাদ
🕮 একজন মানুষ ভবিষ্যতে কী হবেন সেটি অন্য কিছু দিয়ে বোঝা না গেলেও তার পড়া বইয়ের ধরন দেখে তা অনেকাংশেই বোঝা যায়। - অস্কার ওয়াইল্ড
🕮 বই হলো এমন এক মৌমাছি যা অন্যদের সুন্দর মন থেকে মধু সংগ্রহ করে পাঠকের জন্য নিয়ে আসে। - জেমস রাসেল
🕮 আমাদের আত্মার মাঝে যে জমাট বাধা সমুদ্র সেই সমুদ্রের বরফ ভাঙার কুঠার হলো বই। - ফ্রাঞ্জ কাফকা
🕮 পড়, পড় এবং পড়। - মাও সেতুং
🕮 জীবনে তিনটি জিনিসের প্রয়োজন- বই, বই এবং বই। - ডক্টর মুহম্মদ শহীদুল্লাহ
🕮 বই হচ্ছে অতীত আর বর্তমানের মধ্যে বেঁধে দেয়া সাঁকো। - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
🕮 বই কিনে কেউ দেউলিয়া হয়না। - সৈয়দ মুজতবা আলী।
🕮 "বই হচ্ছে অতীত আর বর্তমানের মধ্যে বেঁধে দেয়া সাঁকো" ---রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
🕮 “ বাঙালির বই কেনার প্রতি বৈরাগ্য দেখে মনে হয়, সে যেন গল্পটা জানে, আর মরার ভয়ে বই কেনা, বই পড়া ছেড়ে দিয়েছে ” সৈয়দ মুজতবা আলী
🕮 পৃথিবীর আর সব সভ্যজাত যতই চোখের সংখ্যা বাড়াতে ব্যস্ত, আমরা ততই আরব্য উপন্যাসের একচোখা দৈত্যের মতো ঘোঁত্ ঘোঁত্ করি, আর চোখ বাড়াবার কথা তুলতেই চোখ রাঙাই। চোখ বাড়াবার পন্থাটা কি? প্রথমতঃ বই পড়া এবং তার জন্য দরকার বই পড়ার প্রবৃত্তি।— সৈয়দ মুজতবা আলী
🕮 সেদেশ কখনো নিজেকে সভ্য বলে প্রতীয়মান করতে পারবে না যতক্ষণ না তার বেশিরভাগ অর্থ চুইংগামের পরিবর্তে বই কেনার জন্য ব্যয় হবে।— ভলতেয়ার
🕮 বই বিশ্বাসের অঙ্গ, বই মানব সমাজকে টিকাইয়া রাখিবার জন্য জ্ঞান দান করে। অতএব, বই হইতেছে সভ্যতার রক্ষাকবচ।— ভিক্টর হুগো
🕮 বই লেখাটা নিষ্পাপ বৃত্তি এবং এতে করে দুষ্কর্ম থেকে নিজেকে রক্ষা করা যায়।— বার্ট্রান্ড রাসেল
🕮 একবার যার পড়ার নেশা লেগেছে, সেকি মৃত্যুর আগ মুহূর্ত পর্যন্তও তা ছাড়তে পারবে?—মুহম্মদ মনসুর উদ্দীন
🕮 ছাপাখানার কল্যাণে আজকাল ভাল বই খারাপ বই একইভাবে সজ্জিত হইয়া বাহির হয়। তৃতীয় শ্রেণির পুস্তকও সমালোচকদের প্রশংসা লাভ করে এবং বিজ্ঞাপনের কৌশলে প্রথম শ্রেণির পুস্তকের পাশে সমগৌরবে স্থান পায়।—বনফুল
🕮 কতকগুলো বই সৃষ্টি হয় আমাদের শিক্ষা দেবার জন্য নয়, বরং তাদের উদ্দেশ্য হলো আমাদের এই কথা জানানো যে, বইগুলোর স্রষ্টারা কিছু জানতেন।— গ্যেঁটে
🕮 যদি বইটা হয় পড়ার মতো তা কেনার মতো বই।— জন রাসকিন
🕮 বই কিনলেই যে পড়তে হবে, এটি হচ্ছে পাঠকের ভুল। বই লেখা জিনিসটা একটা শখমাত্র হওয়া উচিত নয়, কিন্তু বই কেনাটা শখ ছাড়া আর কিছু হওয়া উচিত নয়।— প্রমথ চৌধুরী
🕮 আমরা যখন বই সংগ্রহ করি, তখন আমরা আনন্দকেই সংগ্রহ করি।— ভিনসেন্ট স্টারেট
🕮 বই হচ্ছে শ্রেষ্ঠ আত্মীয়, যার সঙ্গে কোনদিন ঝগড়া হয় না, কোনদিন মনোমালিন্য হয় না।— প্রতিভা বসু
🕮 ‘সংসারে জ্বালা-যন্ত্রণা এড়াবার প্রধান উপায় হচ্ছে নিজ মনের ভেতরে আপন এক ভুবন তৈরি করা এবং বিপদকালে তার শরণাপন্ন হওয়া। আর আপন এই ভুবন তৈরি একমাত্র বই দ্বারাই সম্ভব।-- বারট্রা-রাসেল
🕮 বই জ্ঞানের প্রতীক, বই আনন্দের প্রতীক।--পল্লীকবি জসীম-উদদীন।
🕮 ‘You don’t have to burn books to destroy a culture. Just get people to stop reading them.’ Ray Bradbury
🕮 ভালো বই পড়িবার সময় মনেই থাকেনা, বই পড়িতেছি।--রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।
🕮 যে বই সম্পর্কে তোমার প্রকৃত ইচ্ছা ও কৌতূহল জাগে সেই বই পড়বে। --জনসন।
🕮 একটি বই ফুটন্ত ফুলের সংগে, দূরের পথেত সংগে এবং স্তম্ভের চূড়ার সংগে তুলনা করা চলে। -- আলেকজান্ডার স্মিথ।
🕮 ‘আমার মধ্যে উত্তম বলে যদি কিছু থাকে তার জন্য আমি বইয়ের কাছে ঋণী’। - সাহিত্যিক মাক্সিম গোর্কির
🕮 ‘নানা জ্ঞান-বিজ্ঞান যতই আমি আয়ত্ব করতে থাকি, ততই এক একটা করে আমার মনের চোখ ফুটতে থাকে’। -আনাতোল ফ্রাঁস
🕮 রুচিশীল সাহিত্যের বিস্তৃত পরিসরে বিচরণের মাধ্যমেই ব্যক্তি জীবনে মানুষ হয়ে উঠে জ্ঞান পিপাসু। যার ফলে ব্যক্তির প্রাত্যহিক আচরণে প্রকাশ পায় উত্তম গুণাবলী ও অর্জিত হয় সামাজিক মূল্যবোধ।

>>সংগৃহিত

13
Career Tips / Tips for the job seekers
« on: April 07, 2018, 09:41:58 PM »
It's very pathetic that many after being graduated can't find themselves in their desired place. Why shouldn't you be frustrated?
Start following these following things in mind:
1. Create an account in linkedin.com and decorate it by your qualifications and skills have your pdf copy from your profile.
2. Create an account in any popular B2E job site e.g., bdjobs.com or jobsbd.com
3. Prepare a good formatted resume.
4. Know the basic attributes of a good presenter.
5. Know the ins and outs that must be maintained before, during and after the interview.
Don't give up and go ahead.

14
Business Administration / Impact of Service Quality of 3G Services
« on: April 07, 2018, 09:28:47 PM »
Please cast your opinion. It will be used in a research article.

15
Articles and Write up / Impact of Blue Ocean Strategy
« on: March 15, 2017, 11:32:16 PM »
Impact of Blue Ocean Strategy on Organizational Performance: A literature review toward implementation logic
Samsul Alam1, Mohammad Tariqul Islam2
Abstract: This study is based on the pros and cons of the Blue Ocean Strategy (BOS) that offers users a framework for creating uncontested market space and diverts the views from the current competition to the creation of innovative value and demand. The main objective of the study is to show the overall scenario of BOS and its impact on organizational performance. The study includes the history of BOS, comparison with Red Ocean Strategy (ROS), relevance of applying BOS, Applications, Critics, Findings, Recommendations and Conclusion. The Findings of the study tries to show the ultimate results of applying the BOS and the recommendations urge some precautions to apply BOS. The result found that BOS positively affects the organization performance if applied in organizations. Overall, the study is effective to decide the adoption of BOS within the organization. The recommendation for the organization is to do an in-depth analysis on BOS before implementation to see the suitability considering the company size, industry condition, and adaptability.
Keywords – Blue Ocean Strategy, Organizational Performance, Red Ocean Strategy, Value Innovation, Creative Competition

Pages: [1] 2