Show Posts

This section allows you to view all posts made by this member. Note that you can only see posts made in areas you currently have access to.


Messages - Anuz

Pages: 1 2 [3] 4 5 ... 116
31
এক সাংবাদিক কাল রসিকতা করেই বললেন, ‘রাসেল ডমিঙ্গোকে নিয়ে ভালোই লাভ হলো বিসিবির’। কোচের বাজারে হাই প্রোফাইলরা যে ‘দাম’ হাঁকছিলেন, দক্ষিণ আফ্রিকান কোচকে বেছে নিয়ে টাকার অঙ্কে একটু লাভই হয়েছে বিসিবির।
ট্যাক্স বা আয়কর বাদে ডমিঙ্গো মাসে পাবেন ১৫ হাজার ডলারের কাছাকাছি, টাকায় যেটি ১২ লাখ ৬৮ হাজার। আয়করসহ প্রোটিয়া কোচের বেতন দাঁড়াবে ১৮ হাজার ডলারের মতো। বাংলাদেশ ক্রিকেট ইতিহাসে কোচদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বেতন পেয়েছেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। শ্রীলঙ্কান কোচ মাসে পেতেন ২৫ হাজার ৮০০ ডলার, টাকায় যেটি ২১ লাখ ৭৩ হাজার। বছরে ২ কোটি ৬০ লাখ টাকা, আগেই বলা হলো বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে সর্বোচ্চ। সর্বশেষ কোচ স্টিভ রোডসকে বিসিবি দিত ২২ হাজার ডলার বা সাড়ে ১৮ লাখ টাকা। সে তুলনায় ডমিঙ্গোকে কমেই পেয়েছে বিসিবি।

অবশ্য আরও খরচ করতে নাকি আপত্তি ছিল না বিসিবির। সে কারণেই তারা পেতে চেয়েছিল মাইক হেসনকে। ভারতের কোচ হতে সাক্ষাৎকার দেওয়া হেসন বিসিবির কাছে পারিশ্রমিকটা অবশ্য একটু বেশিই চেয়ে ফেলেছিলেন, মাসে যেটি ৩০ হাজার ডলারেরও (২৫ লাখ টাকা) বেশি। তার শর্তও ছিল অনেক। আগামী ৩-৪ মাসের আগে কাজে যোগ দিতে পারবেন কি না, এটি নিয়েও ছিল সংশয়। বেতন চাচ্ছেন বেশি, কবে আসবেন সেটিও নির্দিষ্ট করে বলতে পারছেন না—বিসিবি কেন হেসনের জন্য বসে থাকবে! ডমিঙ্গোকে তাই দ্রুত নিয়ে নেওয়া যুক্তিযুক্ত মনে হয়েছে তাদের।

বাংলাদেশে আসা বিদেশি কোচিং স্টাফদের থাকার ব্যবস্থা দুই রকম। কেউ গুলশান-বনানীতে ফ্ল্যাট নিয়ে থাকেন, কেউ আবার হোটেলে থাকেন। তাঁরা যেখানেই থাকুন, ভাড়াটা বিসিবিই দিয়ে থাকে। ডমিঙ্গোর ক্ষেত্রেও ব্যতিক্রম হবে না। সাবেক এ দক্ষিণ আফ্রিকান কোচ বিশ্বমানের ইনস্যুরেন্স পাবেন, যেটি বিশ্বের বেশির ভাগ আন্তর্জাতিক খেলোয়াড় কিংবা কোচ পেয়ে থাকেন। চালকসহ ২৪ ঘণ্টা গাড়ি থাকবে তাঁর জন্য। শুধু নিজেই নন, কোচের পরিবারের জন্য থাকবে ভ্রমণভাতা। সঙ্গে যোগ হবে বোনাস। সাধারণত বোনাস তো আছেই, থাকবে সফর, ম্যাচ, পারফরম্যান্স বোনাসও। কখনো কখনো সার্বক্ষণিক নিরাপত্তাকর্মীও থাকবে, তবে সেটি নির্ভর করছে দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির ওপর। বাংলাদেশ ড্রেসিংরুমে পা রেখেই ডমিঙ্গো পরিচিত পরিবেশ পাবে, কোচিং স্টাফে যে আরও তিনজন দক্ষিণ আফ্রিকান কোচ আছেন—ব্যাটিং কোচ নিল ম্যাকেঞ্জি, পেস বোলিং কোচ চার্লস ল্যাঙ্গেভেল্ট আর ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুক। টাকার অঙ্কে লাভ-লোকসান কতটা হলো, সেটি নয়। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট বাংলাদেশ কতটা সাফল্য পায়, সেটির ওপর নির্ভর করবে ডমিঙ্গোকে এনে বিসিবির কতটা লাভ হলো।

32
পাকিস্তান দলে আপাতত কোচ নেই; কমান্ড্যান্ট আছেন! মিসবাহ-উল হককে দেওয়া হয়েছে ক্যাম্প কমান্ড্যান্টের দায়িত্ব। কোনো ক্রিকেট দলে এমন পদ এর আগে কখনো ছিল কি না কে জানে! বিশ্বকাপ ব্যর্থতার দায়ে কোচ মিকি আর্থার আর তাঁর সহকারীদের ছেঁটে ফেলেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। নতুন কোচ নিয়োগের আগে পিসিবি ধীরে চলো নীতি নিয়েছে। তবে এর মধ্যে পাকিস্তানের নতুন ক্রিকেট মৌসুম শুরু হয়ে যাচ্ছে। তারই প্রস্তুতি নিতে পাকিস্তান ১৭ দিনের প্রাক মৌসুম ক্যাম্প করবে। এই ক্যাম্পের দায়িত্বে থাকবেন মিসবাহ-উল হক। ২২ আগস্ট লাহোরে শুরু হবে ক্যাম্প।

সাবেক অধিনায়ক ও ব্যাটসম্যান মিসবাহ দীর্ঘ মেয়াদে পাকিস্তানের দায়িত্ব নিতে পারেন, এমন একটা গুঞ্জনও ছড়িয়ে পড়েছে। বিশ্বকাপ ব্যর্থতার পর স্বদেশি কোচের অধীনে দলের দায়িত্ব সঁপে দেওয়ার একটা দাবি উঠেছে। অবশ্য পাকিস্তানের সদ্য বিদায়ী ব্যাটিং কোচ গ্রান্ট ফ্লাওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন, সাবেক কিছু পাকিস্তানি ক্রিকেটারই নাকি তাঁদের পিঠে ছুরিটা মেরেছে। মিসবাহ দীর্ঘ মেয়াদে দায়িত্ব নেবেন কি না, তা বোঝা যাবে শিগগিরই। আপাতত তাঁর দায়িত্ব আসন্ন ঘরোয়া ও পরবর্তী আন্তর্জাতিক সূচির জন্য ক্রিকেটারদের প্রস্তুত করা। ১২ সেপ্টেম্বর শুরু হবে পাকিস্তানের ঘরোয়া ফার্স্ট ক্লাস টুর্নামেন্ট কায়েদ-এ আজম ট্রফি।

পাকিস্তানের ক্রিকেটে এমনিতেই বেশ কিছু বড় রদবদল এসেছে। কোচিং স্টাফদের ছাঁটাই ছাড়াও কেন্দ্রীয় চুক্তির খেলোয়াড় সংখ্যা ছেঁটে কমিয়ে আনা হয়েছে। যাঁদের মধ্যে শীর্ষ ‘এ’ ক্যাটাগরিতে মাত্র দুজন। সাফল্য পেলে পুরস্কৃত হওয়ার পাশাপাশি ব্যর্থ হলে তার প্রাপ্যও পেতে হবে, এই হলো পিসিবির বার্তা। কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকা ১৪ ক্রিকেটারের সঙ্গে আরও ৬ জনকে নিয়ে ক্যাম্প শুরু করবেন মিসবাহ।

কায়েদ-এ আজম ট্রফিতে ৩১টি ফার্স্ট ক্লাস ম্যাচ হবে এবার। এর পাশাপাশি হবে ঘরোয়া ওয়ানে পাকিস্তান কাপ। এ মৌসুমে পাকিস্তান ৬টি টেস্ট, তিনটি ওয়ানডে ও নয়টি টি-টোয়েন্টিও খেলবে। মিসবাহকে বিশেষ করে টেস্ট দলের দিকনির্দেশনার জন্য দীর্ঘ মেয়াদেও যে ভাবা হতে পারে সে ইঙ্গিত আছে পিসিবি পরিচালক জাকির খানের কথায়, 'পাকিস্তানের সবচেয়ে সফল কোচ ছিলেন মিসবাহ। বিশেষত তিনি জানেন এই যুগে টেস্ট ক্রিকেট কীভাবে খেলতে হয়। আইসিসির টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ যখন দুয়ারে, পিসিবি চায় পাকিস্তান দল যেন নিজেদের মাটিতে দুই টেস্টের হোম সিরিজে শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হওয়ার আগে লাল বলের ক্রিকেটে সেরা প্রস্তুতি নিতে পারে।'

33
বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের নতুন কোচ হিসেবে রাসেল ডমিঙ্গোকেই নির্বাচন করল বিসিবি। আজ সংবাদ সম্মেলনে নতুন কোচ হিসেবে ডমিঙ্গোর নাম জানান বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান। তাঁর সঙ্গে দুই বছরের চুক্তি করেছে বিসিবি। ২১ আগস্ট বাংলাদেশের কোচ হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে কাজে যোগ দেবেন ৪৪ বছর বয়সী ডমিঙ্গো। এর আগে বিসিবিতে সাক্ষাৎকার দিতে ঢাকায় এসেছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার এ কোচ।

সাক্ষাৎকারে ডমিঙ্গো দুই ভাবে তাঁর পরিকল্পনা তুলে ধরেছিলেন বিসিবির পরিচালকদের সামনে। একটি পরিকল্পনা ২০২০ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ সামনে রেখে। আরেকটি ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপকে লক্ষ্য রেখে। তাঁর পরিকল্পনা ভালোই লেগেছে বলে তখন জানিয়েছিলেন সাক্ষাৎকার বোর্ডে উপস্থিত বিসিবির এক পরিচালক। শুরুতে অনেকের নাম শোনা গেলেও শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশের কোচ হওয়ার দৌড়ে টিকে ছিলেন নিউজিল্যান্ডের সাবেক কোচ মাইক হেসন ও ডমিঙ্গো। দুজনের মধ্যে শুধু ডমিঙ্গোই ঢাকায় এসে সাক্ষাৎকার দিয়ে গেছেন।

বড় পর্যায়ে ক্রিকেট না খেললেও কোচিংয়ের ভালো অভিজ্ঞতা রয়েছে ডমিঙ্গোর। খেলা ছাড়ার পর অর্জন করেন স্পোর্টস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন এবং মার্কেটিংয়ের ওপর ডিগ্রি। এরপর মাত্র ২৫ বছর বয়সেই দক্ষিণ আফ্রিকার ইস্টার্ন প্রভিন্স যুব দলের কোচের দায়িত্ব পেয়ে যান তিনি। পরের ১২ বছরে দক্ষিণ আফ্রিকার অনূর্ধ্ব-১৩, অনূর্ধ্ব-১৯ , বি দল ও এ দলের দায়িত্ব পালন করেন ডমিঙ্গো। ২০০৫ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার ঘরোয়া দল ওয়ারিয়র্স কোচের দায়িত্বও পান তিনি। ২০১১ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার কোচ হন গ্যারি কারস্টেন। তখন ডমিঙ্গোকে নিজের সহকারী হিসেবে বেছে নিয়েছিলেন তিনি। এক বছরের মাথায় সহকারী কোচ থেকে টি-টোয়েন্টি দলের হেড কোচে উন্নীত হন ডমিঙ্গো। ২০১৩ সালে গ্যারি কারস্টেনের বিদায়ের পর তিন সংস্করণেই দক্ষিণ আফ্রিকার প্রধান কোচের দায়িত্ব পান ডমিঙ্গো। তাঁর অধীনে ১৩ টেস্ট সিরিজের ৮টিতে জয়ী হয় দক্ষিণ আফ্রিকা। টেস্ট র‍্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষস্থান থেকে সাতে নেমে যাওয়া দক্ষিণ আফ্রিকাকে দুইয়ে টেনে তুলেছিলেন ডমিঙ্গো।

ডমিঙ্গোর সময়ে ২২ ওয়ানডে সিরিজের ১৪টিতে জয়ী হয়ে ওয়ানডেতে শীর্ষ দল হিসেবে জায়গা করে নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। বিশ্বকাপের নকআউট ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার একমাত্র জয়টি আসে তাঁর সময়েই। টি-টোয়েন্টিতে ৪২ ম্যাচের মধ্যে ২৩ জয় এসেছে এ সময়। তাঁর অধীনে ২০১৫ বিশ্বকাপে সেমিফাইনাল খেলে দক্ষিণ আফ্রিকা। ২০১৭ সালে ওটিস গিবসনের হাতে দায়িত্ব দিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা দল ছাড়েন ডমিঙ্গো। উপমহাদেশের কোনো দলের সঙ্গে এর আগে কাজ করেননি ডমিঙ্গো। দক্ষিণ আফ্রিকার বাইরেও কোনো দলের সঙ্গে কাজ করেননি তিনি। তাঁর কোচিংয়ে বিশেষ ব্যাপার হলো, ক্রিকেটারদের সঙ্গে নিবিড়ভাবে মিশে যান, কিন্তু ক্রিকেটাররা যেন তাদের দায়িত্ব পালন করেন সেদিকেও সর্বদা খেয়াল রাখেন।

34
ন্যায্য দাম না পেয়ে প্রতিবাদ জানিয়ে কোরবানির পশুর ৯০০টি চামড়া মাটিতে পুঁতে ফেলা হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার সৈয়দপুর শাহারপাড়া ইউনিয়নের সৈয়দপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রতি বছরের মতো এবারও সৈয়দপুর হোসাইনিয়া হাফিজিয়া আরাবিয়া দারুল হাদিস মাদ্রাসার পক্ষে থেকে বিভিন্ন গ্রাম থেকে কোরবানির পশুর চামড়া সংগ্রহ করা হয়। মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ চামড়া বিক্রির জন্য দুই দিন ধরে চেষ্টা করেও ন্যায্য দামে তা বিক্রি করতে পারেনি। ফলে ক্ষুব্ধ হয়ে চামড়াগুলো মাটি চাপা দেয় তারা। ওই মাদ্রাসার মুহতামিম সৈয়দ ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘মাদ্রাসার উন্নয়নের জন্য এবারও আমাদের মাদ্রাসার পক্ষ থেকে বাড়ি বাড়ি গিয়ে কোরবানি দাতাদের কাছ থেকে কোরবানির পশুর ৯০০ চামড়া সংগ্রহ করা হয়। এর মধ্যে গরুর চামড়া রয়েছে ৮০০টি এবং ছাগলের চামড়া ১০০টি। এসব চামড়ার ন্যায্য দাম না পেয়ে বাধ্য হয়ে চামড়াগুলো মাটি চাপা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিই।’ তিনি অভিযোগ করেন, ‘চামড়াগুলো সংগ্রহ ও চামড়ায় লবণ ব্যবহারে জন্য প্রায় ৫০ হাজার টাকা ব্যয় হয়েছে।’

সৈয়দপুর শাহারপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তৈয়ব মিয়া বলেন, চামড়ার দামে এমন পতনে ক্ষুব্ধ হয়ে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ মাদ্রাসার উন্নয়নের জন্য সংগৃহীত চামড়াগুলো মাটি চাপা দিয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছে।

রাত ১০টার দিকে জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহফুজুল আলম প্রথম আলোকে বলেন, স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের সঙ্গে কথা বলে নয় শ চামড়া মাটি চাপা দেওয়ার বিষয়টি তিনি জেনেছেন। তিনি বলেন, ‘মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ আর্থিকভাবে এখন স্বাবলম্বী। ফলে সরকারকে বেকায়দায় ফেলার জন্য তারা এ ধরনের কাজ করেছে।’

35
কমনওয়েলথ গেমসের আগামী আসর অনুষ্ঠিত হবে ২০২২ সালে বার্মিংহামে। এ সংস্করণ দিয়ে ক্রিকেটকে আবারও ফেরানো হবে কমনওয়েলথ গেমসে। মেয়েদের শীর্ষ আট দল টি-টোয়েন্টি সংস্করণে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে কমনওয়েলথ গেমসের (সিডব্লিউজি) আগামী আসরে। সিডব্লিউজি ফেডারেশন সভাপতি ডেম লুই মার্টিন বলেন, ‘আজ একটি ঐতিহাসিক দিন। কমনওয়েলথ গেমসে ক্রিকেট ফিরিয়ে আনতে পেরে আমরা খুশি।’

২০২২ কমনওয়েলথ গেমসে মেয়েদের সব ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে এজবাস্টনে। ক্রিকেট সবশেষ অন্তর্ভুক্ত ছিল ১৯৯৮ কমনওয়েলথ গেমসে। সেবার ৫০ ওভার সংস্করণের ফাইনালে স্টিভ ওয়াহর অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে স্বর্ণ জিতেছিল শন পোলকের দক্ষিণ আফ্রিকা। এদিকে ২০২৮ লস অ্যাঞ্জেলস অলিম্পিকেও ফেরানো হতে পারে ক্রিকেট। এমসিসি বিশ্ব ক্রিকেট কমিটির সভাপতি মাইক গ্যাটিং জানিয়েছেন এ খবর। তাঁর কমিটিকে আইসিসির নতুন প্রধান নির্বাহী মানু স্বহনে বলেছেন, অলিম্পিকে ক্রিকেট অন্তর্ভুক্ত করার ব্যাপারে অনেকটা পথ অগ্রসর হওয়া গেছে। এমসিসির এই বিশ্ব ক্রিকেট কমিটির সদস্য বাংলাদেশের তারকা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

সংবাদমাধ্যমকে গ্যাটিং বলেন, ‘আইসিসির প্রধান নির্বাহী মানু স্বহনের সঙ্গে কথা হয়েছে। ২০২৮ অলিম্পিকে ক্রিকেট অন্তর্ভুক্ত করানোর ব্যাপারে তিনি খুব আশাবাদী। ক্রিকেটের জন্য এটি হবে দারুণ খবর।’ গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকে এর আগে একবারই ক্রিকেট খেলা হয়েছে—সেটি ১৯০০ সালে প্যারিস অলিম্পিকে। সেবার ফ্রান্সকে ১৫৮ রানে হারিয়ে স্বর্ণ জিতেছিল ব্রিটেন।

36
বিশ্বকাপ ক্রিকেটের পর্দা নেমেছে প্রায় এক মাস হতে চলল। অথচ ফাইনালের রেশ এখনো রয়ে গেছে। ফাইনালে মার্টিন গাপটিলের সেই ওভার থ্রো নিয়ে এখনো চলছে তর্ক-বিতর্ক। সেই বিতর্কিত ওভার থ্রো সেপ্টেম্বর মাসে পর্যালোচনা করা হবে বলে জানিয়েছে ক্রিকেটের নিয়ম নির্ধারণ সংস্থা মেরিলিবোন ক্রিকেট ক্লাব বা এমসিসি। ফাইনালে ইংল্যান্ডের ইনিংসে জয়ের জন্য শেষ ৩ বলে দরকার ছিল ৯ রান। এমন পরিস্থিতিতে মার্টিন গাপটিলের থ্রো বেন স্টোকসের ব্যাটে লেগে বাউন্ডারি সীমানা টপকে যায়। আর ব্যাটসম্যানরা দৌড়ে ২ রান নেওয়ায় আম্পায়ার মোট ৬ রান যোগ করতে বলেন স্কোরবোর্ডে। এটা নিয়েই যত বিতর্ক।

সুপার ওভারেও ম্যাচ টাই হওয়ায় শিরোপার নিষ্পত্তি হয়েছে বাউন্ডারি সংখ্যার ওপর ভিত্তি করে, যেখানে এগিয়ে থেকে শিরোপা জিতেছে ইংল্যান্ড। আর হৃদয় জিতেছে নিউজিল্যান্ড। তবে ভরপুর উত্তেজনার এ ম্যাচেও জন্ম নিয়েছে বিতর্ক আর সেটি ইংল্যান্ডের ইনিংসে শেষ ওভারে, ১ রান নিয়ে।

শেষ ৩ বলে ৯ রান দরকার ছিল ইংল্যান্ডের। ট্রেন্ট বোল্টের করা চতুর্থ বলটি ডিপ মিডউইকেটে পাঠিয়ে ২ রান নিতে চেয়েছিলেন বেন স্টোকস। মার্টিন গাপটিল বেশ ভালো থ্রো করেছিলেন। স্টাম্পে সরাসরি লাগলে হয়তো রানআউট হতে পারত। সে শঙ্কাতেই পড়িমরি করে ডাইভ দিয়েছিলেন স্টোকস। বল তাঁর ব্যাটে লেগে থার্ড ম্যান দিয়ে পার হয় সীমানা! পুরো ঘটনা এবং স্টোকসের ক্ষমা প্রার্থনাসুলভ চাহনি দেখে তখনই বোঝা গেছে, এ বাউন্ডারি হওয়ায় তাঁর ইচ্ছাকৃত কোনো হাত ছিল না। নিতান্ত অনিচ্ছাকৃতভাবেই ঘটে গেছে।

সে যা-ই হোক, মাঠের সহকর্মী আম্পায়ারের সঙ্গে আলোচনা করে স্কোরবোর্ডে ৬ রান (দৌড়ে ২ রান ও ওভার থ্রোতে ৪ রান) যোগ করার সিগন্যাল দেন আরেক আম্পায়ার কুমার ধর্মসেনা। কিন্তু আম্পায়ারের দেওয়া ৬ রান নিয়েই বিতর্ক। কারণ ওটা ৬ রান না, ৫ রান হবে। কারণ আইনের ১৯.৮ অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে ফিল্ডারের ওভার থ্রো কিংবা ইচ্ছাকৃতভাবে করা কোনো কিছু থেকে বাউন্ডারি হলে...বাউন্ডারি যোগ হবে এবং ব্যাটসম্যানরা একসঙ্গে যত রান নিয়েছেন সেটাও, যদি থ্রোয়ের সময় তাঁরা ইতিমধ্যেই একে অপরকে পার হয়ে যান। আইনের শেষের কথাটি নিয়েই প্যাঁচ লেগেছে। ওই ঘটনার ভিডিও রিপ্লে দেখে পরিষ্কার বোঝা গেছে, গাপটিল থ্রো করার সময় ইংল্যান্ডের দুই ব্যাটসম্যান বেন স্টোকস ও আদিল রশিদ দ্বিতীয় রান নেওয়ার জন্য একে অপরকে ক্রস (পার হওয়া) করেননি। অর্থাৎ গাপটিল যখন থ্রোয়ের জন্য বল তুলছিলেন, স্টোকস ননস্ট্রাইক প্রান্তে আর আদিল রশিদ স্ট্রাইকারের প্রান্তে ছিলেন। অর্থাৎ দৌড়ে ২ রান নয়, ১ রান হবে আর সঙ্গে বাউন্ডারি—মোট ৫ রান।

আইনটির অস্পষ্টতার কারণেই এ প্রশ্ন উঠেছে। কারণ, ফিল্ডারদের থ্রো নিয়ে যেমন পরিষ্কার করে কিছু বলা হয়নি, তেমনি গোটা প্রক্রিয়ায় ব্যাটসম্যানদের ভূমিকা নিয়েও স্পষ্ট করে কিছু বলা হয়নি। গাপটিলের থ্রো কিন্তু উইকেটরক্ষক বরাবরই ছিল। ব্যাটসম্যানের ব্যাটে লাগার কারণে তা ওভার থ্রো হয়েছে। ফলে ওভার থ্রো এর নিয়ম নিয়ে পর্যালোচনায় বসবে ক্রিকেটের নিয়ম নির্ধারণ সংস্থা এমসিসি। তাদের তরফ থেকে এক বিবৃতিতে জানানো হয়, ‘বিশ্বকাপের ফাইনালে ওভার থ্রো বিতর্কের দিকে নজর রেখে ওভার থ্রোর ১৯.৮ ধারা নিয়ে আলোচনা করা হবে। এই বিষয়ে আইনে যা আছে, তা স্পষ্ট হলেও ফাইনালের বিতর্কিত ওভার থ্রো নিয়ে সেপ্টেম্বরে পর্যালোচনায় বসবে সাব কমিটি।

37
Wow........ nice.
Thanks for sharing.......🙂

38
Life Science / Re: রোজ তিনটা করে খেজুর
« on: August 11, 2019, 09:20:05 AM »
Thanks........

39
Informative one. Nice to know......👍

40
Thanks.........🙂

43
Thanks for sharing..........

44
Very painful..........

45
Informative one............

Pages: 1 2 [3] 4 5 ... 116