Show Posts

This section allows you to view all posts made by this member. Note that you can only see posts made in areas you currently have access to.


Messages - Zahir_ETE

Pages: 1 [2] 3 4 ... 7
16
আমি আজকে আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি লাইফটাইম লাইসেন্স সহ Tor Browser 4.5.3 . নিচে বিস্তারিত সহ ডাউনলোড লিংক দিলাম।
Why we need Tor
Using Tor protects you against a common form of Internet surveillance known as "traffic analysis." Traffic analysis can be used to infer who is talking to whom over a public network. Knowing the source and destination of your Internet traffic allows others to track your behavior and interests. This can impact your checkbook if, for example, an e-commerce site uses price discrimination based on your country or institution of origin. It can even threaten your job and physical safety by revealing who and where you are. For example, if you're travelling abroad and you connect to your employer's computers to check or send mail, you can inadvertently reveal your national origin and professional affiliation to anyone observing the network, even if the connection is encrypted.

Hidden services
Tor Browser also makes it possible for users to hide their locations while offering various kinds of services, such as web publishing or an instant messaging server. Using Tor "rendezvous points," other Tor users can connect to these hidden services, each without knowing the other's network identity. This hidden service functionality could allow Tor users to set up a website where people publish material without worrying about censorship. Nobody would be able to determine who was offering the site, and nobody who offered the site would know who was posting to it. Learn more about configuring hidden services and how the hidden service protocol works.

Staying anonymous
Tor can't solve all anonymity problems. It focuses only on protecting the transport of data. You need to use protocol-specific support software if you don't want the sites you visit to see your identifying information. For example, you can use Tor Browser while browsing the web to withhold some information about your computer's configuration.

ডাউনলোড করার জন্য নিচের লিঙ্কে যানঃ
http://tinyurl.com/pdsmwub

17
আজ আমি আপনাদের কাছে পিসির জন্য এমন একটি সফটওয়্যার নিয়ে এলাম যা দিয়ে আপনারা আপনাদের pc/laptop এ androoid গেম খেলা বা অন্যান্য অ্যাপ চালাতে পারবেন। আপনারা নিশ্চয় বিশ্বাস ই করতে পারছেন না

। কিন্তু এটাই সম্ভব করে দেখিয়েছে ১৩  mb এর এই সফটওয়্যার টি। আমি অনেকদিন থেকে এটা দিয়ে গেম খেলছি। আজ আপনাদের জন্য শেয়ার করছি।

ANDROID খুব জনপ্রিয় একটি মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম। অনেকেই এখনও সিম্বিয়ান  অথবা জাভা ANDROID কেনার আশা মনের মধ্যে পুষে রেখেছেন। আপনার ডেক্সটপ আর ল্যাপটপ এখন ANDROID অপারেটিং  সিস্টেম চলবে। কিন্তু এটা কোন অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে না, এমুলেটর এর মত করে চলবে। তবে আপনি পাবেন ANDROID এর সব মজা। আমি ব্যবহার করেছি তাই বলতে পারি সফটওয়্যার টি চলবে।
মোবাইল ব্যবহার করছেন। এবং একটি সফটওয়্যার টি একটি ফ্রী ওয়্যার। আপনাকে এটি রেজিস্টার করা নিয়ে টেনশন করতে হবে না। অনেক এ সফটওয়্যার টি সম্পর্কে জেনে থাকবেন। যারা জানেন না এখন জেনে নিন।
জানার বিষয়
নিন্মে ২ জিবি রেম লাগবে সফটওয়্যার টি চালাতে!
৮ এমবি এর ইন্সটলার টি ওপেন করার পর ইন্সটল সময়ে windows অনুযায়ি এর ডাটা ডাউনলোড করবে। তাই অবশ্যই ডাটা অন রাখবেন।
আপনার পিসি এর রেম যতই থাকুক এটি ৭০০-৮০০ এমবি রেম ব্যবহার করে।
যদি antivirus ভুলে একে adware ডিটেক করে তবে antivirus কিছু সময়ের জন্য অফ রাখবেন।

http://bit.ly/1MhXcom

18
আজ আপনি আপনাদের মাঝে একটি android app নিয়ে আলোচনা করবো যার গ্রাহক বিশ্ব জুড়ে। গ্রাফিং ক্যালকুলেটর একটি অসাধারন সফটওয়ার যার মাধ্যমে আপনি বিজগানিতিক অনেক সমস্যার সমাধান করতে পারবেন যেটা আপনার স্কুল, কলেজ বা আপনার যে কোন কঠির সমস্যাকে সহজে সমাধান করে দেবে। এই সফটওয়ারটি আপনি আপনার হাতে থাকা এনড্রোএইড বা এনড্রোএড সাপর্ট করে এমন ডিভাইসে ব্যবহার করতে পারেন এবং পেতে পারেন গানিতিক সমস্যা এবং তার চিত্র ভিত্তিক ফলাফল।

এটা কিভাবে কাজ করে?

এই এপলিকেশনটি অনেক ভাবে আপনার গানিতিক সমস্যাকে সমাধান করবে। এখানে বিভিন্ন ধরনের ফাংশন দ্বারা আপনি নিমিশেই অনেক জটিল সমস্যার সমাধান করে ফেলতে পারেন যেমন; চিত্রের সাহায্যে যে কোন ভ্যালু আপনি এড করতে পারেন, রুটের সমস্যা সমাধান করতে পারেন, ম্যাট্রিক্স নিমিশেই সমাধান করেত পারেন, আরো অনেক কিছুই করা যায় এই এপলিকেশন দিয়ে। যদি আপনি জ্যামিতিক সমস্যার সমাধান করতে চান তাও সম্ভব। এর মধ্যে এতো ফাংশন আছে যা আপনি আগে কোন গ্রাফিক ক্যলকুলেটরে পাননি; এটা হলফ করে বলতে পরি
কিভাবে পেতে পারেন?

আপনি গুগোল স্টোর থেকে এটা সংগ্রহ করতে পারেন যেটা ফ্রি ভার্সন কিন্তু আপগ্রেট করতে হলে আপনার পকেট থেকে $5.99 গুনতে হবে, এখানে আমার কিছুই করার নেই, শুধু ব্যবহার করে দেখতে পারের যে এটা কতটা কার্যকর। আপনি যদি টিচার হন বা ম্যাথের স্টুডেন তবে আপনি বুঝতে পারবেন যে কত জরুরী তবে আপনি চাইলে একই নাম দিয়ে অনেককে এই সফ্টওয়ারটি ব্যবহার আপগ্রেড করিয়ে দিতে পারেন। কিন্তু এর জন্য আপনার নেট কানেকশন থাকে হবে।

বিভিন্ন ফাংশন গুলো কি ভাবে কাজ করে?


আপনি যেকোন সাইন্টিফিক সমস্যার সমাধান করতে পারেন খুবই সহজে। এর মধ্যে সব ফাংশন আছে যা একটি সাইন্টিফিক ক্যালটুলেটরে থাকে যেমন: ফাংশন কি বা বিভিন্ন মান। আপনি নিমিশের মধ্যেই পার্সেন্টজ করতে পারেন এমনকি আপনি যদি সামান্য সময়ের জন্য কাজ থেকে অবসার নেয়ার প্রয়োজন মনে করেন তবে এটা অটোম্যটিক্যালি আপনার কাজকে সেভ করে আর আপনি যখন কাজে ফিরে আসবেন তখন ছোয়া মাত্রই চালু হয়ে যাবে।

এই গ্রাফিং ক্যালকুলেটরটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ ফাংশন যুক্ত করছে যার মধ্যে একটি হলো ডাটা এবং গ্রাফিক একই সাথে প্রদর্শন করবে। আপনি বুঝতে পারবেন ফলাফল দেখে যে অংক ঠিক আছে কি না। আপনি চাইলে জুম করেও দেখতে পরেন।আপনি চাইলে ফাংশন টেবিল, গ্রাফ এড করতে পারেন, আবার তাৎক্ষনিক বা পরে মুছেও ফেলতে পারেন সুবিধা মত খুবই সহজে।

আপনি এর মাধ্যমে ফ্রাকশন করতে পারেন, ছোট-খাটো ক্যালকুলেট করতে পারেন যেটা সাধারণ আমাদের মোবাইলে বিল্টইন ক্যালকুলেটরের চেয়ে সহজতম পদ্ধতিকে এবং অনেকে দ্রুত। আপনি জ্যামিতিক সমস্যাগুলো বিভিন্ন লাইনে করে দেখতে পারনে বা বীজ গনিতিক সমস্যা গুলোর একই পেজে এড করতে পারেন এবং দেখতে পারেন পুরো সংখ্যার ফলাফল যেটা সাধারন ক্যালকুলেটর করতে পারে না। Long division, quadratic এবং linear equations গুলো খুব সহজেই করতে পারেন আপনি যখন চান তখনই।

আপনি এই এ্যপটিকে পার্সোনালাইজ করতে পারেন

আপনি একটি সমস্যার সমাধান করে সেটাকে নিজস্ব পদ্ধতিকে সেভ বা অন্য কোন ফাংশনের সাথে চালু করতে পারেন এমন কি অনেকগুলো সমস্যার সমাধানও একই সাথে সেভ করতে পারেন।

কিভাবে ব্যাবাহার করবেন?

আপনি যে ধরনের সমস্যার সমাধান করতে চান সেটি চালু করে সাধারন ভাবেই সমাধারন করার চেস্ট করুন। যদি আপনার কার্সার সরাতে হয় তবে আপনি আপনার আঙ্গুলের সাহায্যে যেখানে নিতে হবে সেখানে নিয়ে যেতে পারেন। এটা খুবাই সহজেই আপনি করতে পারবেন এর জন্য আপনাকে বিশেষজ্ঞ হতে হবে না, সাধারণ ব্যাবাহারকারী হলেও সম্ভব।

ইন্টার বাটনের দ্বারা আপনি বিভিন্ন ধরনের এক্সপ্রেশন দেখতে পারবেন একই পেজে; আর এই ক্যালকুলেটর আপনাকে খু্ব সহজেই সেটা করতে দেবে এবং তা আপনি স্কৃনে দেখতে পারবেন বিভিন্ন লাইনে। যদি আপনি ক্লিয়ার বাটন চাপেন তাহলে আপনি ব্লক করে পুরো পেজটিকে ক্লিয়ার করতে পারেন এমন কি যদি আপনি চান শুধু লাইন ক্লিয়ার করতে সেটাও সম্ভব। শধু আপনাকে ১ বা ২ সেকেন্ড অপেক্ষা করতে হবে কাজ সম্পন্ন করার জন্য।

19
আমরা অনেকেই windows 8 অথবা windows 8.1 ব্যবহার করি। কেননাা windows 8 বা windows 8.1 নিসঃন্দেহে windows 7এর চেয়ে আরো স্টাইলিশ এবং আরো নতুন কিছু ফিচার যুক্ত হয়েছে। windows 8,8.1 সব ফিচার ই ভাল কিন্তু আমার কাছে windows 8,8.1 এর স্টার্ট মেনু এর চেয়ে windows 7 এর স্টার্ট মেনু বেশী ভাল লাগে। তো যারা আমার মতো মনের অধিকারী তারা ছোট্ট (মাত্র ৯ মেগা) একটি সফ্টওয়ার ইন্সটল করে আপনার স্টার্ট মেনু কে নিচের মত লুক দিতে পারেন।

সফ্টওয়ারটির নাম Orbit start menu 8। এবং এটি একটি freeware সফ্টওয়ার। তাই কোন licence বা crack file এর প্রয়োজন নেই। শুধু ইন্সটল করলেই হবে।ইন্সটল করতে কোন ঝামেলা নেই। আর এটি আপনার পিসিকে স্লো করবে না। আর এটি দিয়ে আপনি যে কোন সময় screenshot নিতে পারবেন।
তো আর বিরক্ত করব না। ভাল লাগলে থেকে ডাউনলোড করে নিন।


নির্দেশনা:
১.ডাউনলোড করে ইন্সটল করুন। তারপর আপনার পছন্দের icon সিলেক্ট করে দিন।ব্যাস অনেক কষ্ট করলেন আর আপনাকে কিছুই করতে হবে না।
২. যে কোন সময় screenshot নিতে শুধু alt+b চাপুন
৩. আগের স্টার্ট মেনু আনতে চাইলে স্টার্ট মেনু icon এ রাইট বাটনে ক্লিক করে Exit ক্লিক করুন
৪.যদি সফ্টওয়ার ভাল না লাগে আগের স্টার্ট মেনু চিরদিনের জন্য ফিরে পেতে চান সফ্টওয়ার ঝাটা মেরে আনইন্সটল করুন

20
IDM সম্পর্কে হয়ত সবার জানাই আছে।তাই এই ভার্সনটি ডাউনলোড করে সারাজীবন এর জন্য উপভোগ করেন লাইসেন্স এর সাথে।

ফেক সিরিয়াল মুক্ত তাই আর দেরি কেন ডাউনলোড করুন।

Download Link

↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓↓ ↓ ↓ ↓ ↓↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓↓ ↓ ↓ ↓ ↓ ↓

https://userscloud.com/vt7ihuhkr877

↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑ ↑

23
আজকে আমি আপনাদের পরিচিত করিয়ে দিচ্ছি এক অসাধারন এক এন্ড্রয়েড লান্চার।এই এন্ড্রয়েড লান্চার টি আমার অসাধারন লেগেছে আমি এটি প্রায় ২ বছর ধরে ব্যবহার করছি। আমার দেখা এটি সবচেয়ে ভাল লান্চার। লান্চার টির নাম হচ্ছে Smart Launcher এর সাথে অনেকে হয়তবা পরিচিত। তবে যারা এখন পর্যন্ত ব্যবহার করেননি তারা ব্যবহার করে দেখুন ভাল লাগবে।এতে রয়েছে একগাদা ফিচার যা আপনার ভাল লাগবেই।তাহলে চলুন এক নজরে দেখি কি আছে এতে

১.হোম মেনু থেকেই সকল দরকারী এপস এ প্রবেশ করা যায়।
২.ড্রয়ার গুলোতে বিভাগ অনুযায়ী এপস রাখা যায়।
৩.বিশেষ কোন কনফিগারেশন ছাড়াই এই লাণ্চার ব্যবহার করা যায়।
৪.লাইভ ওয়ালপেপার সমর্থন করে।
৫.পর্দায় দুইবার চাপলে স্ক্রিন বন্ধ হয়ে যায়।
৬.এই লাণ্চার খুব কম পরিমানে র্যাম খায়।

24
ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ার ভাইদেরকে আজকে পরিচয় করিয়ে দেব এক চমৎকার কাজের ও শিক্ষনীয় এনড্রয়েড এপস। আমি আমার আগের টিউনে বলেছিলাম যে আমি আবার আসব কাজের এপস নিয়ে ত আমি এসে গেছি।এই এপস টির নাম ElectroDroid হয় তবা অনেকে এটি ব্যবহার করেছেন যারা ব্যবহার করেননি তারা অবশ্যই এটি একবার দেখবেন।এটি হচ্ছে সুইজ আর্মি নাইফের মত এখানে একজন ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ার এর যা প্রয়োজন তা সবই পাবেন এই এপস টিতে। এই এপস এর মধ্যমে ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ার ছাড়াও যে কেউ বের করতে পারবেন রেজিষ্টর কালার কোড এর মান অথবা জেনে নিতে পারেন এসএমডি রেজিষ্টরের মান।এছাড়ও রয়েছে বিভিন্ন ক্যাবল কানেকশন ডায়াগ্রাম,Arduino,Raspberry Pi এর মত ট্রেইনার বোর্ডের পিন আউট ও ডায়াগ্রাম। এক কথায় ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং এর a2z। ত চলূন এক নজরে দেখে নেই কি আছে এপস টিতে:

এই এপস টির ভেতরকার অংশে চারটি ক্যাটগিরিতে সব টুলস্ ভাগ করা আছে। তা হল:

১.ক্যালকেলেটরস্

২.পিন আউট

৩.রিসোর্স

৪.প্লাগ ইনস্

25
আজ আমি আপনাদের সাথে সেয়ার করব এমন একটি Software যা দ্বারা খুভ সহজেই আপনার Windows Operating System কে Apple MAC Operating System করে নিতে পারবেন। আসলে এটা একটা থিম। আমি নিজে এই থিম ব্যবহার করি। তাই আপনাদের সাথে সেয়ার করলাম। Apple MAC এর আকাশ চুম্বি দাম এর জন্য আমরা অনেকেই MAC ব্যবহার করতে পারি না। কিন্তু এই 34.4 MB Software দিয়ে খুভ সহজেই আমরা MAC Operating System এর মজা Windows এ নিতে পারি।

Credits: cu88
RocketDock 1.3.5 by Punk Labs
Xwidget 1.5 & XLaunchPad 1.0.7 by Xwidgetsoft
MetroSidebar 1.0 by Amine Dries
http://www.metrosidebar.com

Changelog:

Version 1.0
-Initial release

System requirements:
Installed Microsoft.NET Framework 4.5
Processor: 1 GHz or higher
Memory: 512 Mb of RAM or higher

Software টি Install করার পূর্বে আগের কোন Skinpack থিম Install করা থাকে সেটা আগে রিমুভ করে তার পর Install দেন।

26
Google cardboard বানানোর আগে চলুন জেনে নেই,

*Google cardboard কি ?

Recently Invented Virtual reality-র একটি project হল Google cardboard. এই  কার্ড-বোর্ড এর মাধ্যমে  সহজেই  উপভোগ করে নিতে পারেন ভার্চুয়াল রিয়ালিটি এর অনন্য এক সেইরাম অভিজ্ঞতা . এটির মাধ্যমে আপনি virtual 3D-র সম্পূর্ণ স্বাদ নিতে পারবেন। এটি ব্যবহার করতে হলে আপনার একটি smart phone লাগবে যার মধ্যে accelerometer এবং gyroscope sensor  থাকতে হবে। আর কিছু android apps লাগবে।  Google cardboard এর price বাংলাদেশে ১২০০/১৫০০ টাকার মত 

27
ওয়েব সাইটে ডাইরেক্ট ট্রাফিক বিন্ডিং এর জন্য সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং খুব ইফেটিভ এবং জনপ্রিয় মেথড। পিন্টারেস্ট সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম  এর কথা আমরা সবাই কম বেশি জানি কিন্তু  একটি কথা মনে হয় অনেকেই জানি না যে কি পরিমান ভিজিটর পিন্টারেস্ট থেকে আসে যদি সঠিক প্লান এবং নিয়ম অনুসরন করা হয়। আমার এই টিউনটি তাদের জন্য যারা ব্লগিং করেন। আমি চেষ্টা করব পিন্টারেস্ট সহ আরো যে সব সোশ্যাল মিডিয়া সাইট আছে (যেমন : ফেসবুক, টুইটার, ইন্সটাগ্রাম, ভিকে, টুম্বলার, গুগল প্লাস, স্ট্যামবল আপন, মাইস্পেস, ইউটিউব ইত্যাদি) মিডিয়া নিয়ে ধারাবাহিক ভাবে লেখার। আমি আমি আজ দেখাব কিভাবে পিন্টারেস্ট উইজেট আপনার ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগে সেটাপ করবেন।

[youtube]https://www.youtube.com/watch?v=kIJkv6gTyuc[/youtube]

28
নতুন ওয়েব প্রোটোকল হিসেবে এইচটিটিপি/২ গ্রহন করেছে ইন্টারনেট ইঞ্জিনিয়ারিং স্টিয়ারিং গ্রুপ (আইইএসজি)।বিশেষজ্ঞদের মতে, নতুন এই প্রোটোকলে গতি বাড়বে ওয়েব ব্রাউজিংয়ের।


হাইপারটেক্সট ট্রান্সফার প্রোটোকল বা এইচটিটিপি-এর মাধ্যমে সার্ভারের সঙ্গে যোগাযোগ করে ওয়েব পেইজ প্রদর্শন করে কম্পিউটারের ব্রাউজার। এইচটিটিপি থেকে এইচটিটিপি/২ হবে দেড় দশকের মধ্যে এই অ্যাপ্লিকেশন প্রোটোকলের সবচেয়ে বড় উন্নয়ন।
বিবিসি জানিয়েছে, বুধবার এক ব্লগ পোস্টে নতুন ওয়েব প্রোটকল হিসেবে এইচটিটিপি/২ গ্রহন করার ঘোষণা দিয়েছেন আইইএসজি সদস্য মার্ক নটিংহ্যাম। বহুল ব্যবহার শুরুর আগে নতুন প্রোটোকল ঘষামাজা করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।
এইচটিটিপি/২ ডেভেলপারদের দাবি, নতুন ওয়েব প্রোটোকলে ওয়েব পেইজ লোড হওয়ার গতি বাড়বে, শক্ত হবে এনক্রিপশন ব্যবস্থা।
২০১৪ সালের জানুয়ারি মাসে এক ব্লগ পোস্টে এইচটিটিপি/২-এর ইতিবাচক দিকগুলো নিয়ে লিখেছিলেন ‘ইন্টারনেট ইঞ্জিনিয়ারিং টাস্ক ফোর্স (আইইটিএফ)’ প্রধান নটিংহ্যাম।
আইইটিএফ একেবারে নতুন ধরনের কোনো প্রোটাকল তৈরির বদলে পুরানো প্রোটোকলের সঙ্গে ব্যবহারের উপযোগী আরও উন্নত প্রোটোকল তৈরি চেষ্টা করছে বলে সে সময় জানিয়েছিলেন নটিংহ্যাম।
“এইচটিটিপি/২-এর সাফল্য নির্ভর করছে বর্তমান ওয়েবে এর কার্যকারিতার উপর।”-- লিখেছিলেন নটিংহ্যাম। নতুন সংস্করণটি ব্যবহারের ফলে ওয়েবের এনক্রিপশন প্রযুক্তি ব্যবহার সহজ হবে বলে জানান তিনি।
বিবিসি জানিয়েছে, গুগলের এসপিডিওয়াই প্রযুক্তির উপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছে নতুন এইচটিটিপি/২ প্রোটোকল। খুব শিগগিরই ক্রোম ব্রাউজারে এইচটিটিপি/২ প্রোটোকল ব্যবহার শুরু করবে ওয়েব জায়ান্ট প্রতিষ্ঠানটি।

29
উইন্ডোজ কম্পিউটার ব্যবহারের সময় প্রায়শই বিভিন্ন সফটওয়্যার জটিলতার মুখে পরতে হয় ব্যবহারকারীকে। টুলবার আর এক্সটেনশন ফাইলগুলো অনেক সময় ব্যবহারকারীর অজান্তেই নানা বিপত্তির সৃস্টি করে। উইন্ডোজ কম্পিউটারের ব্যবহৃত ক্রোম ব্রাউজারে এধরনের বিপত্তি এড়াতে নতুন সফটওয়্যার রিমুভাল টুল নিয়ে এসেছে গুগল।



কোনো ক্ষতিকারক প্রোগ্রাম ব্যবহারকারীর ব্রাউজার থেকে ডেটা সংগ্রহ করছে কি না, অপ্রয়োজনীয় অ্যাড দেখিয়ে ইন্টারনেটের গতি কমিয়ে দিচ্ছে কি না এই দুশ্চিন্তারগুলোর অনেকটাই সমাধান করতে পারবে গুগলের নতুন সফটওয়্যার রিমুভাল টুল।
এই সফটওয়্যার রিমুভাল টুলকে ক্রোম ব্রাউজারের ‘ফ্যাক্টরি রিসেট’ ফিচার হিসেবে বিবেচনা করা যেতে পারে বলে জানিয়েছে প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট সিনেট। টুলটি ক্রোম ব্রাউজারকে ‘অরিজিনাল সেটিংস’-এ ফিরিয়ে নিয়ে যাবে। রিমুভ করে দেবে ব্রাউজারের পারফর্মেন্সে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টিকারী প্রোগ্রামগুলোকে।
কম্পিউটার আইকন অথবা ‘স্টার্ট মেন্যু’-র অপশনে রাইট ক্লিক করে ‘প্রপার্টিজ’-এ যেতে হবে। ‘কন্ট্রোল প্যানেলে’ গিয়ে ‘সিস্টেম আইকন’-এ ক্লিক করেও এখানে যাওয়া যাবে।
নতুন উইন্ডোতে ‘সিস্টেম প্রটেকশন’-এ যেতে হবে। পরের পপ-আপ উইন্ডোর নিচে ‘ক্রিয়েট’ বাটনে ক্লিক করতে হবে। এতে আপনার সিস্টেম সেটিংস সেইভ হবে।
এরপর অনুসরণ করতে হবে নিচের পদক্ষেপগুলো:
১। সফটওয়্যার রিমুভাল টুল ওয়েবসাইটে যেয়ে ডাউনলোড বাটনে ক্লিক করতে হবে। সবগুলো শর্ত একসেপ্ট করে ডাউনলোড কমপ্লিট করতে হবে।
২। ডাউনলোড শেষে পপ আপ উইন্ডোতে ‘রান’ ক্লিক করতে হবে।
৩। কোন ম্যালওয়্যার প্রোগ্রাম আছে কি না তা জানিয়ে দেবে গুগল । যদি না থাকে তবে সরাসরি ধাপ ৫-এ চলে যেতে হবে।
৪। ‘রিমুভ সাসপিশাস প্রোগ্রাম’-এ ক্লিক করে টুলটি সম্পূর্ণ কাজ শেষ করার আগ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।
৫। ক্রোমে নতুন একটি ট্যাব খুলে যাবে। এখানে ক্রোম ব্রাউজার রিসেট করে সব কুকি ডিলিট হবে করার পরামর্শ আসবে। এটা আবশ্যক নয়। তবে টুলটি ব্যবহার করার পরেও যদি ক্রোম ব্রাউজার নিয়ে কোনো জটিলতার মুখে পরতে হয় তবে এটা করাই ইতিবাচক হবে।
তবে মনে রাখতে হবে যে এই সফটওয়ার রিমুভাল টুল পুরো সিস্টেমের জন্য কোনো অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার নয়। কেবল ক্রোম ব্রাউজারের পারফর্মেন্সে প্রভাব ফেলে এমন প্রোগ্রামগুলোই স্ক্যান করবে এই টুল। কম্পিউটারে অন্য কোনো জটিলতার মুখোমুখি হলে সেক্ষেত্রে অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার দিয়ে স্ক্যান করাই হবে শ্রেয়।

30
Use of PC / যত্নে রাখুন ওয়াই-ফাই
« on: July 08, 2015, 04:57:04 PM »
এখন যেন কেবল পিসি বা ম্যাকে ইন্টারনেট সংযোগ থাকলেও চলে না। স্মার্টফোন, ট্যাবলেট, স্মার্টটিভি থেকে শুরু করে গেইমিং কনসোল এমনকি ঘরের স্মার্ট হিটিং সিস্টেমের জন্যেও লাগে নেট কানেকশন।
ঘরে বসে ইচ্ছেমতো ইন্টারনেট ব্যবহার করতে অনেকেই এখন নির্ভর করেন ওয়াই-ফাই রাউটারের উপর। আসবাবপত্র থেকে করে প্রতিবেশীর ওয়াই-ফাই সিগনাল ঝামেলা পাকাতে পারে নিজের ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্কে। তবে সহজ কিছু পদক্ষেপে অনেকটাই সমাধান করা সম্ভব দূর্বল ওয়াই-ফাই সমস্যার।
ওয়াই-ফাই সিগনালের পারফর্মেন্স চেক করুন: প্রথমেই যে কাজটা করা প্রয়োজন সেটা হলো নিজের ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্কের পারফর্মেন্স যাচাই করে দেখা। প্রতিবেশীও যতি ওয়াই-ফাই রাউটার ব্যবহার করেন তবে একে অপরের জন্য প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে পারে নেটওয়ার্ক দুটি।
ওয়াই-ফাই সিগনাল পর্যবেক্ষণের জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে ‘inSSIDer’ অ্যাপটি। অ্যাপটি নির্দিষ্ট এলাকার মধ্যে কার্যকর সবগুলো ওয়াই-ফাই সিগনাল সম্পর্কে জানিয়ে দেবে আপনাকে। এছাড়াও স্পিড টেস্ট ফিচার আছে অ্যাপটিতে, যা জানিয়ে দেবে ওয়াই-ফাই সংযোগের গতি।
ঘরের বিভিন্ন জায়গায় একাধিকবার পরীক্ষা চালানোই হবে শ্রেয়। রাউটার থেকে দূরত্ব আর ঘরের আসবাবপত্রের উপর নির্ভর করে পরিবর্তন আসবে স্পিড টেস্টে। 
সম্ভাব্য সমাধান: ঘরের কোথায় ওয়াই-ফাই সিগনাল দুর্বল সেটি একবার বের করে ফেললে সেই সমস্যার সমাধানটাও করা যাবে সহজে। ওয়াই-ফাই সিগনালের জন্য আরও শক্তিশালী ওয়াইফাই রাউটার লাগানো যেতে পারে যে কোনো সময়। কার্যকর বিকল্প হতে পারে নেটওয়ার্ক রিপিটার। একাধিক নেটওয়ার্ক রিপিটার বসিয়ে সমাধান করা যেতে পারে দুর্বল ওয়াই-ফাই সিগনালের।
আর আপনার বাসায় যদি দুটি একাধিক ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্ক থাকে তবে নেটওয়ার্ক দুটিকে একই এসএসআইডি দিয়ে জুড়ে দিতে পারেন একসঙ্গে। ফলে এক নেটওয়ার্ক থেকে আরেকটিতে পরিবর্তন সহজ হয়ে যাবে।
হার্ডওয়্যার: সোজা কথায় বলতে গেলে শক্তিশালী ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্ক চাইলে কিছুটা বেশি করে হলেও খরচ করতে হবে গাঁটের পয়সা। সম্প্রতি নতুন একটি ডুয়াল-ব্যান্ড ওয়াই-ফাই রাউটার বাজারজাত করছে লিংকসিস। লিংকসিস ডব্লিউআরটি১৯০০এসিতে আছে ১.২ গিগাহার্টজের প্রসেসর, চারটি অ্যান্টেনা, ই-সাটা এবং ইউএসবি ২ ও ইউএসবি ৩ পোর্ট।
এ ছাড়াও আছে গিগাবিট ওয়ান পোর্ট এবং গিগাবিট ল্যান পোর্ট। লিংকসিস এবং বেলকিন দুটি প্রতিষ্ঠানেরই আছে ‘এক্সটেন্ডার’। সিগনাল শক্তিশালী করার পাশাপাশি ডেটা ট্রান্সফারের গতিও বাড়ায় এক্সটেন্ডারগুলো।
বাজেটে ওয়াই-ফাই: ওয়াই-ফাইয়ের পেছনে বাড়তি পয়সা খরচ করতে না চাইলেও সমস্যা নেই। সহজে ওয়াই-ফাই সিগনাল পাবার জন্য রাউটারটি বসাতে হবে বাসার কেন্দ্রিয় কোনো উঁচু স্থানে। আর কর্ডলেস ফোন থেকেও দূরে রাখতে হবে রাউটারটি।
আর ঘন ঘন নেটওয়ার্ক পাসওয়ার্ডও বদলে নিতে হবে। অন্যথায় প্রতিবেশী যদি বিনে পয়সায় আপনার ওয়াই-ফাই নেটওয়ার্ক চালাতে থাকে, তবে সিগনাল দুর্বল হয়ে পরবে সিগনাল।

Pages: 1 [2] 3 4 ... 7