Show Posts

This section allows you to view all posts made by this member. Note that you can only see posts made in areas you currently have access to.


Messages - Zahir_ETE

Pages: 1 ... 3 4 [5] 6 7
61
বর্তমানে প্রায় সবাই এ্যান্ড্রয়েড ফোনটি নিরাপদ রাখার জন্য পাসওয়ার্ড বা প্যাটার্ন লক ইউস করি। অনেক সময় আমরা পাসওয়ার্ড টা ভুলে যাই, ফোনটিকে পুনরুদ্ধার করার জন্য ফ্ল্যাশ বা পুনরায় অপারেটিং সেটআপ দিতে হয় । আর এটি করার জন্য অর্থও খরচ করতে হয় ।

কিন্তু, আপনি ইচ্ছা করলে নিজে থেকেই কাজটি করতে পারেন-
১. ফোনটি অফ করে নিন,
২. এরপর ভলিউমের বাটন দুটি চেপে ধরুন,
৩. পাওয়ার বাটনটি চেপে ধরে রাখুন, যতক্ষণ না পর্যন্ত ফোনটি চালু হয়,
৪. এরপর দেখবেন চারটি অপশন আসবে,
৫. রিসেট ফ্যাক্টরি সেটিংস্-এ চাপুন ।
(এটি করার জন্য ভলিউমের এবং পাওয়ার বাটনটি ইউস করুন)
৪. এরপর কিছুক্ষন অপেক্ষা করতে হবে, ফোনটি রিস্টার্ট হওয়া পর্যন্ত ।

62
মেথড- ১
বেশিরভাগ এন্ড্রোয়েড ফোনে আপনি ভলিউম ডাউন বাটন এবং পাওয়ার বাটন একসাথে প্রেস করে ধরে রেখে স্ক্রীনশট নিতে পারবেন।

মেথড- ২
স্যামসাং এবং এইচটিসি সহ কিছু এন্ড্রোয়েড ফোনে হোম বাটন ও পাওয়ার বাটন একসাথে প্রেস করে স্ক্রীনশট নিতে হয়।

মেথড- ৩
স্যামসাং কিছু ডিভাইস এ আপনি স্ক্রিন এর উপর দিয়ে হাত বুলালেই স্ক্রীনশট নিতে পারবেন। এটি চালু করতে Settings > Motion এ গিয়ে অ্যাক্টিভ করে দিন।

63
অ্যান্ডয়ড ৪.৪ কিটক্যাট- গুগলের মতে যা “Beautiful & Immersive”
চলুন জেনে নেই এর উল্লেখযোগ্য কিছু ফিচার।

১- ফুল-স্ক্রিন অ্যাপ ব্যবহারের সুবিধা (Immersive Mode)

২- টাচস্ক্রিন ব্যবহারে উন্নতি আনা হয়েছে।

৩- মাল্টিটাস্কিং আরও উন্নত করা হয়েছে।

৪- ফাইল একসেস আরও সহজ করা হয়ছে।

৫- স্ক্রিন লক থাকা অবস্থায় ফুল-স্ক্রিন অ্যালবাম আর্ট যুক্ত করা হয়ছে।

৬- NFC আর্কিটেকচার পরিবর্তন করা হয়ছে।

৭- ভয়েস কন্টোলের মাধ্যমে ডিভাইস নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। (Ok Google)

৮- অজ্ঞাত নাম্বার থেকে ফোনে আসলে- বের করতে পারবেন তাঁর পরিচয়। (Smart Caller ID)

৯- টেক্সট ম্যাসেজ, এমএমএস, চ্যাট ও ভিডিও কল সমূহ একই স্থানে জায়গা দেয়া হয়েছে। (Hangouts)

১০। Google Cloud Print এর মাধ্যমে কম্পিউটারের সাহায্য ছাড়াই এখন প্রিন্ট করতে পারবেন।

পোস্ট ভালো লাগলে লাইক, কমেন্টস, শেয়ার দিয়ে অনুপ্রাণিত করুন।
আপনাদের অনুপ্রেরণাই আমাদের শক্তি। ধন্যবাদ।

64
আমরা যারা অ্যানড্রয়েড ব্যাবহার করে থাকি, তারা মোবাইল দিয়েই বেশি ছবি তুলে থাকি। যারা একটু দামি মোবাইল ব্যাবহার করে তারা ক্যামেরাতে বেশি অপশন পেয়ে থাকে। যেমন- অটো ফোকাস, আইএসও, হোয়াইট ব্যালেন্স, মেটারিং ইত্যাদি। ছবির কোয়ালিটিও ভালো হয়। কিন্তু যারা একটু কম দামের মোবাইল ব্যাবহার করে তারা এতো অপশন পায় না।

তাঁদের জন্যই আমাদের আজকের এই পোষ্ট। আজ আমরা এমন একটি অ্যাপস নিয়ে এসেছি, যেটি ব্যাবহার করে আপনি যেকোনো মোবাইল থেকেই DSLR ক্যামেরার সকল অপশন পেয়ে যাবেন, অটো ফোকাস, আইএসও, হোয়াইট ব্যালেন্স, মেটারিং ইত্যাদি। এটি আপনি প্লে স্টোরে “DSLR Camera Pro” নামে পাবেন। আমাদের দেখা অ্যানড্রয়েডের সেরা ক্যামেরা অ্যাপস এটি।

http://androidnbd.com/Download/DSLR_Camera_Pro_v2.5.3.apk

65
এখন সময় এন্ড্রয়েডের! জাভা মোবাইলের দিন শেষ, তবে বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে, “ভালো” মানের এন্ড্রয়েড ফোনের দাম এখনো আকাশ ছোঁয়া। তাই অনেকেই আছেন যারা এখনো এন্ড্রয়েডের স্বাদ নিতে পারেননি। তবে বলে কি আরো ৫ / ৬ বছর অপেক্ষা করতে হবে?? মোটেও না, যদি আপনার পিসি হয়ে থাকে ভালো পারফরমেন্স এর পিসি তাহলে আজই এক্ষুণি মাত্র ২ মিনিটের মাধ্যমে আপনার পিসিতে এন্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ইন্সটল করে নিতে পারেন এবং বিভিন্ন এন্ড্রয়েড এপস চালাতে পারবেন।
এজন্য আপনার যা যা লাগবে:
 
- ২ গিগাবাইট র‌্যাম সহ কোর ২ ডুয়ো প্রসেসরের পিসি,
- ভার্চুয়াল বক্স সফটওয়্যার এবং
- এন্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের ভার্চুয়াল ইমেজ।

 যাদের কাছে আগেই ওরাকল ভার্চূয়াল বক্স ইন্সটল করা রয়েছে তারা শুধুমাত্র এন্ড্রয়েড ইমেজটি ডাউনলোড করে নিন, আর যাদের কাছে নেই তাদের দুটোই ডাউনলোড করতে হবে।
ভার্চূয়াল বক্স ডাউনলোড (96 মেগা):

https://www.virtualbox.org/wiki/Downloads

এন্ড্রয়েড ৪ আইসক্রিম স্যান্ডউইচ (উইথ এক্সট্রা সস!! হাহাহাহা) ইমেজ (৯০ মেগা):

http://www.vmlite.com/index.php?option=com_content&view=article&id=68:android&catid=17:vmlitenewsrotator

ভার্চূয়াল বক্স প্রোগ্রামটি অন্যান্য প্রোগ্রামের মতোই ইন্সটল করুন। এবার এন্ড্রয়েড ইমেজটি ডাউনলোড করুন।

১। ইমেজটি রার ফরমেটে ডাউনলোড করে, যেকোনো কমপ্রেস সফটওয়্যার যেমন উইনরার দিয়ে ফাইলটি ডিকমপ্রেস করুন।
২। ফোল্ডারটি ওপেন করুন। এখানে দেখুন নীল রং এর Android-v4.exe আছে। এটায় ক্লিক করুন।
৩। এরপর অটোমেটিক ভার্চূয়াল বক্স চালু হবে এন্ড্রয়েড ইমেজটি নিয়ে। এখানে সবুজ বাটনের Start বাটনে ক্লিক করুন।
৪। স্টাট বাটনে ক্লিক করলে ভার্চূয়াল মেশিনটি চালু হবে এবং নিচের মতো পর্দা আসবে।
এখানে Android Startup from /dev/sda এই অপশনটি নির্বাচন করুন।

৫। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন, এন্ড্রয়েড লোডিং স্ক্রিণ আসবে এবং বুটিং হবে।
৬। এরপর আপনার সামনে এন্ড্রয়েড হোম স্ক্রিণ আসবে লক অবস্থায়।
৭। এখন সহজ ভাবে লক বাটনটি ড্রাগ করুন, এন্ড্রয়েড ৪ হোমস্ক্রিণ আপনার সামনে!
তো হলে গেল! এবার পিসিতেই চালান এন্ড্রয়েডের এপপস!

66
স্পেনের বার্সেলোনায় চলমান মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে চিকন গড়নের ৭ ইঞ্চির ট্যাবলেট প্রদর্শন করেছে হুয়াওয়ে। ‘মিডিয়াপ্যাড এক্সওয়ান’ নামের এ ট্যাবের অন্যতম দুটি বৈশিষ্ট্য লেড ফ্ল্যাসসহ ১৩ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা এবং প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব কুয়াড কোর সিপিইউ। হুয়াওয়ের দেওয়া তথ্য মতে, ৭.১ মিমি. পুরুত্ব অনুযায়ী এটি বিশ্বের চিকন গড়নের ট্যাব। এছাড়া পণ্যটির ২৪০ গ্রাম ওজন পযুক্তিপণ্য প্রেমীদের সহজেই আকৃষ্ট করতে সক্ষম হবে। ৭ ইঞ্চি পরিমাপের এ ট্যাবের ফুল এইচডি ডিসপ্লেতে পিক্সেলের পরিমান ১৯২০ বাই ১০৮০।

অন্য বৈশষ্ট্যিগুলো-৫ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ফেসিং ক্যামেরা, মাইক্রোএসডি কার্ড স্লট, ৫ হাজার এমএএইচ ব্যাটারি, সিপিইউ ১.৬ গিগাহার্জ কুয়াড কোর এবং ৠাম ২ জিবি। অ্যান্ড্রয়েডের লেটেষ্ট ভার্সন ৪.২.২ জেলি বিনে চলা ট্যাবটিতে ফোন ফাঙ্কশনও রয়েছে। এ মুহূর্তে ট্যাবটির দাম এবং বাজারে আসা সম্পর্কে কোনো তথ্য দেয়নি চীনের এ নির্মাতা।

67
আমরা যারা অ্যান্ড্রয়েড ব্যাবহার করি তারা বিভিন্ন কাষ্টম রম ব্যাবহার করতে চাই। কিন্তু কাষ্টম রম ইনষ্টল করার সময় আমাদের রিকোভারি মোডের দরকার হয়। এই রকম একটা রিকোভারি মোডের নাম হল TWRP (Team Win Recovery Mod) মোড। এটি ইনষ্টল করার জন্য আপনার মোবাইলে “GooManager” নামের একটি আপস লাগবে। এটি ইনষ্টল করে সেটিংস এ যেয়ে install open recovery script এ ক্লিক করুন। তারপরে পারমিশন yes দিয়ে করুন। একবার ফোনটা রিস্টাট হবে এবং কাজ শেষ। তবে আপনার ফোন টা রুটেড হতে হবে।

68
নতুন ফিচার যোগ হতে যাচ্ছে অ্যান্ড্রয়েড ৪.৪ কিটক্যাট চালিত স্মার্টফোনে। অপরিচিত কেউ কল করলেও কলারের ছবিটি কলার আইডি হিসেবে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভেসে উঠবে অ্যান্ড্রয়েড ৪.৪ কিটক্যাট চালিত স্মার্টফোনের পর্দায়।

সম্প্রতি প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট ম্যাশএবল এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ফিচারটি বাই ডিফল্ট অন করা থাকবে।

ফিচারটির সাহায্যে কলারকে সহজেই চেনা যাবে। ফোনবুকে সহকর্মী বা কলারের নাম্বার না থাকলে এ ফিচারটি কলারকে চিহ্নিত করতে সাহায্য করবে। তবে এজন্য অবশ্যই গুগলপ্লাস অ্যাকাউন্টে কলারের ছবি এবং ফোন নাম্বার থাকতে হবে।

এ প্রসঙ্গে গুগলের কলার আইডি টিমের আটিলা বডিস জানিয়েছেন, গ্রাহক তাদের ফোন নাম্বার নিশ্চিত করলে ২০১৪ সালের শুরুতে তারা আবিষ্কার করবেন কল করলেই অপর পক্ষের ফোনের পর্দায় তাদের গুগলপ্লাস অ্যাকাউন্টের ছবি এবং নাম দেখা যাচ্ছে। ঠিক একই রকম ঘটনা ঘটবে যখন অন্যরা তাদের কল করবে।

আর ব্যবসায়ের ক্ষেত্রে, গুগল ব্যবসা এবং সেবা প্রতিষ্ঠানের নামের সঙ্গে নাম্বার গুগল প্লেস লিস্টিংয়ে ম্যাচ করে রাখবে। ফলে কোনো রেস্টুরেন্ট যদি রিজার্ভেশন নিশ্চিত করার জন্য কাউকে কল করে তবে তার ফোনে রেস্টুরেন্টটির নাম দেখা যাবে।

69
IT Forum / ইউটিউবের গোপন ১০ ফিচার
« on: December 19, 2013, 04:28:56 PM »
প্রতিদিন ইউটিউবে ভিডিও দেখতে লাখ লাখ মানুষ ভিজিট করেন। ইউটিউবের এমন কতগুলো ফিচার রয়েছে যেগুলো অনেকেরই অজানা। ইউটিউবের গোপন ১০টি ফিচার নিয়ে আজকের প্রতিবেদন।

১. শেয়ার

ইউটিউবের ভিডিও কনটেন্ট ব্যক্তিগত ওয়েবসাইটে শেয়ার করতে হলে প্রথমে ভিডিওটি চালু করুন। এরপর ভিডিওর মাঝখানে রাইট মাউস ক্লিক করলে একটি মেনু দেখাবে। তাতে কপি ভিডিও ইউআরএল অ্যাট কারেন্ট টাইম-এ ক্লিক করুন। এতে ভিডিওটির ইউআরএল কপি হবে। কারেন্ট টাইমে ক্লিক করলে আপনি যেখান থেকে চান, সেখান থেকে ভিডিও দেখাতে পারবেন।

২.  প্লে/পজ

ইউটিউবে ভিডিও দেখার সময় যদি বিরতি দিতে চান তবে মাউস দিয়ে পজ বাটনে ক্লিক করলেই হয়। কিন্তু এর পরের বার কিবোর্ডের স্পেস বাটন ব্যবহার করুন। মাউসের চেয়ে কিবোর্ডের মাধ্যমে সহজে পজ করা যায়। পুনরায় ভিডিওটি চালু করতে কিবোর্ডের স্পেস বাটন প্রেস করুন। ভিডিওটি চলতে শুরু করবে।

৩. সামনে ও পেছনে টেনে দেখা

আপনি যদি ভিডিও সামনে বা পেছনে টেনে দেখতে চান তখন কিবোর্ডের লেফট অ্যারো কি ও রাইট অ্যারো কি ব্যবহার করতে পারেন। মাউসের মাধ্যমে এ কাজটি করতে বেশি সময় লাগে। অথচ কিবোর্ড ব্যবহার করে দেখুন, যথেষ্ট সহজ হয়ে যাবে।

৪. পরে দেখতে

ধরুন আপনি কোনো ভিডিও দেখছেন। প্রায় মাঝামাঝি অবস্থানে। জরুরি প্রয়োজনে আপনাকে এখন উঠতে হবে। তবে ভিডিও দেখা বন্ধ করলেই আবার শুরু থেকে দেখতে হবে এমন কথা নেই। আপনি চাইলে পরেও যেখানে শেষ করেছেন সেখান থেকেই আবার দেখা শুরু করতে পারেন। এ জন্য ‘ওয়াচ লেটার’ বাটনে প্রেস করুন। এটি দেখতে ঘড়ির মতো। এতে পরবর্তীতে আপনাকে আবার ভিডিওটি খুঁজে বের করতে হবে না। সহজেই আগের ভিডিওতে ফিরে যেতে পারবেন।

৫. বিষয় নিষ্ক্রিয় করে দিন

আপনি যদি কোনো নির্দিষ্ট বিষয়ের ভিডিও দেখতে না চান, তবে আপনি সেগুলোকে নিষ্ক্রিয় করে দিতে পারেন। এ জন্য এমবেড কোডে গিয়ে ইউআরএল-এর শেষে ?rel=0 যুক্ত করুন।

৬. রিপিট ভিডিও:

আপনি যদি ইউটিউবের কোনো ভিডিও বারবার দেখতে চান তবে সেটিকে রাখুন ইউটিউব রিপিটারে। এ জন্য ভিডিওটি সিলেক্ট করার পর অ্যাড্রেস বারে ইউটিউব লেখার পর রিপিটার শব্দটি যোগ করতে হবে। অর্থাৎ ইউটিউব অ্যাড্রেস তখন হবে অনেকটা এ ধরনের- http://www.youtuberepeater.com/watch?

৭. কাস্টমাইজড সার্চিং

আপনি যদি সার্চ রেজাল্ট অনুসন্ধান করতে চান, তাহলে নম্বরের কোড ব্যবহার করতে পারেন। আর যদি হাই ডেফিনিশন (এইচডি) কোনো ভিডিও দেখতে চান তবে কাস্টমাইজড সার্চ বক্সে এইচডি নির্বাচন করুন। এছাড়া আপনি চাইলে বিভিন্ন অপশনও নির্বাচন করে ছোট ও বড় ভিডিও খুঁজতে পারেন। এভাবেই অনুসন্ধান করতে পারেন থ্রিডি ভিডিও। এছাড়া ২০ মিনিটের চেয়ে লম্বা ভিডিও পেতে লিখুন লং। সার্চ বক্সে শর্ট লিখলে সর্বোচ্চ চার মিনিটের ভিডিওর তালিকা দেখাবে।

৮. অন্য ভাষায় খুঁজুন

ইউটিউবে বিভিন্ন ভাষায় আপলোড করা বিষয়বস্তু খুঁজে বের করা যায়। ইংরেজি ছাড়াও অন্যান্য ভাষায় বিষয়বস্তুর উপর নির্মিত ভিডিও দেখতে ইউটিউব পেইজের একেবারে নিচে গিয়ে ল্যাঙ্গুয়েজ অপশনটি পরিবর্তন করুন। এখানে আফ্রিকানস থেকে ভিয়েতনামিজ যে কোনো ভাষায় পরিবর্তন করতে পারেন। এরপর কিবোর্ডের মাধ্যমে নির্বাচিত ভাষায় অনুসন্ধান করতে পারেন। এ ক্ষেত্রে সার্চ বক্সে লেখার সময় কিছুটা পরিবর্তন দেখা যাবে। যেমন হিব্রু ভাষায় লিখতে গেলে তা বাম থেকে ডান দিকে লেখা হবে। এতে পেইজের আকৃতিও নতুনভাবে দেখা যাবে।

৯. এমবেড করুন ভিডিও

আপনি যদি অন্য কোনো ওয়েবসাইটে ইউটিউবের ভিডিও আপলোড করতে চান, তবে শেয়ার বাটনে প্রেস করুন। এবার এমবেড-এ গিয়ে আপনি ভিডিওটি দেখার উইন্ডোর আকার ছোট বড় করতে পারেন।

১০. ধীরগতির ইন্টারনেট

আপনার ইন্টারনেট সংযোগ যদি ধীরগতির হয়, তখন ইউটিউবে ভিডিও দেখতে সমস্যা হওয়াটাই স্বাভাবিক। এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে ব্যবহার করুন ইউটিউব ফেদার। এখান থেকে আপনি লো ভার্সনের ভিডিও দেখতে পারবেন। এভাবে ভিডিও দেখার সময় কিছু বাটন ও ফিচার দেখাবে না। এতে তুলনামূলক কম সময়ে ভিডিও লোড হবে।

ইউটিউব ফেদার সেট করতে অ্যাড্রেস বারে টাইপ করুন http://www.youtube.com/feather_beta  এরপর সেখান থেকে ফেদার বেটা সেট করে নিতে হবে।

70
IT Forum / জিমেইলের অজানা ৯ ফিচার
« on: December 19, 2013, 04:27:35 PM »
প্রযুক্তি নিয়ে ওয়েবসাইটে যারা রোজ ঘাঁটাঘাঁটি করেন, তাদের সবার অন্তত একটি করে ইমেইল অ্যাকাউন্ট আছে। জিমেইল ইন্টারনেট জায়ান্ট গুগলের বিনামূল্যের ইমেইল সেবা। জিমেইলে রয়েছে প্রয়োজনীয় বেশকিছু ফিচার। রোজ ইমেইল ব্যবহার করলেও এর কিছু ফিচার অনেকের কাছেই অজানা। সে ফিচারগুলো নিয়েই এবারের প্রতিবেদন।

১. অ্যাটাচ করতে ভুলে গেলে

জিমেইলের স্ট্যান্ডার্ড ভার্সনে কাউকে মেইল করার সময় "I have attached" বা এ রকম কোনো শব্দ ব্যবহার করার পর যদি অ্যাটাচ করতে ভুলে যান, তবে সেন্ড বাটনে ক্লিক করলেও আপনার মেইলটি যাবে না। এর বদলে দেখাবে একটি মেসেজ। যার অর্থ দাঁড়ায়-- আপনি মেইলে লিখেছেন অ্যাটাচমেন্ট করেছেন, কিন্তু মেইলে কোনো অ্যাটাচমেন্ট নেই। আপনি কি এরপরও মেইলটি পাঠাতে চান? এতে জিমেইলে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য অ্যাটাচ করতে ভুলের প্রবণতা কমে আসবে।

২. রঙিন স্টার

গুরুত্বপূর্ণ ইমেইল আলাদা করতে জিমেইলে রয়েছে স্টার চিহ্ন ব্যবহারের সুযোগ। জিমেইলের ইনবক্সের হোমপেইজে প্রতিটি ইমেইলের পাশে একটি করে অনুজ্জ্বল স্টার চিহ্ন দেখা যায়। আপনি যদি কোনো মেইলকে গুরুত্বপূর্ণের তালিকায় রাখতে চান তবে সেই স্টারে ক্লিক করুন। সাদা রংয়ের স্টার তখন হলুদ রং ধারণ করবে।

আপনি চাইলে হলুদ রংয়ের পরিবর্তে বিভিন্ন রংয়ের স্টার ব্যবহার করতে পারেন। এ জন্য প্রোফাইল ছবির নিচে থাকা সেটিংস কমান্ড থেকে ইন ইউজ এবং নট ইন ইউজ থেকে রং বাছাই করতে পারবেন। এখান থেকে একটি, দুটি বা চারটি বিভিন্ন রংয়ের স্টার ব্যবহার করতে পারেন। প্রয়োজন অনুযায়ী মেইলগুলো আলাদা রংয়ের স্টার ব্যবহার করে রাখতে পারেন। সেটিংসে রং নির্বাচন করার পরে সেভ দ্য পেইজে ক্লিক করুন। এর পর প্রথমবার স্টারে ক্লিক করলে হলুদ দেখা। দ্বিতীয়বার ক্লিক করলে রং পরিবর্তন হতে থাকবে।

৩. ছদ্মনামে একাধিক ইমেইল

আপনি যদি ইমেইল অ্যাড্রেসে একাধিক ছদ্মনাম ব্যবহার করতে চান, তবে ঠিকানার মাঝখানে একটা ডট বসিয়ে দিন। এরপরও আপনার মেইল আসবে। যদি আরও ছদ্মনাম ব্যবহার করতে চান, তবে প্রথম অক্ষরের পর একটি ডট দিয়ে বাকিটুকু আগের মতো বসিয়ে দিন।

এটা হতে পারে এমন--

samjones@gmail.com  >  sam.jones@gmail.com  >  s.amjones@gmail.com

আপনি চাইলে বিভিন্ন ওয়েবেসাইটের সেবা গ্রহণ করার সময় বা নিউজলেটার সাবসক্রিপশন করার সময় ছন্দনামে ইমেইল আইডি ব্যবহার করতে পারেন।

৪. করণীয় তালিকা

আপনার টু-ডু লিস্ট বা করণীয় তালিকা যুক্ত করতে পারেন জিমেইলে। অফিস কিংবা ব্যবসায়িক প্রয়োজনে এ ফিচারটি ব্যবহার করা সম্ভব।

আগামী দিনের সম্ভাব্য কাজের তালিকা ইমেইলে যুক্ত করতে ও সার্কেলের সদস্যদের কাছে পাঠানোর জন্য জিমেইলের হোম পেইজে গুগল লোগোর নিচে জিমেইলে ক্লিক করলে একটি পপআপ স্ক্রিন দেখা যাবে। সেখান থেকে টাস্ক নির্বাচন করুন।

এবার এতে যুক্ত করুন দিনের বা সপ্তাহের কাজের তালিকা। এ তালিকাটি সার্কেলে বা কাউকে মেইল করে পাঠাতে পারেন। টাস্ক তৈরি হলে অ্যাকশনস-এ ক্লিক করে তা প্রিন্ট, ইমেইল করতে পারেন। এ ছাড়া কাজের তালিকা হালনাগাদ করা ও ফাইলের নাম পরিবর্তনের সুবিধা থাকছে এতে।

৫. কিবোর্ড শর্টকাট

জিমেইলে কিবোর্ডের জন্য কিছু প্রয়োজনীয় শর্টকাট কি আছে। এতে মাউস ছাড়াই জিমেইল ব্যবহার করা যাবে। এ রকম কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ কিবোর্ডের শর্টকাট কি হচ্ছে--

মেসেজ পাঠাতে Ctrl + Enter

নতুন উইন্ডো চালু করতে Ctrl +

কাউকে মেইল কার্বন কপি (সিসি) পাঠাতে Ctrl + Shift + c

কাউকে মেইল ব্লাইন্ড কার্বন কপি (বিসিসি) পাঠাতে Ctrl + Shift + b

তবে মনে রাখবেন, কম্পোজে ক্লিক করার পরই কেবল উপরের শর্টকাটগুলো কাজ করবে।

৬. অ্যাডভান্সড শর্টকাট

ইমেইল ব্যবহারকারীদের দরকারি প্রয়োজন মেটাতে রয়েছে অ্যাডভান্সড শর্টকাট মেনু। এটি চালু করতে জিমেইলের ডান পাশে সেটিংসে গিয়ে কিবোর্ড শর্টকাট সক্রিয় করে ‍দিন।

কিবোর্ড শর্টকাট চালুর পর আপনি নিচের সেবাগুলো পাবেন--

নতুন মেসেজ লিখতে কিবোর্ডে c বাটন চাপুন।

নতুন ট্যাবে মেসেজ লিখতে কিবোর্ডে d বাটন চাপুন।

জিমেইলের সার্চ বক্সে কোনো তথ্য খুঁজতে কিবোর্ডে / বাটন চাপুন।

কোনো মেসেজের রিপ্লাই দিতে কিবোর্ডে r বাটন চাপুন।

চ্যাটিয়ের তথ্য মুছে ফেলতে কিবোর্ডে # বাটন চাপুন।

৭. এক ব্রাউজারেই দুটি ভিন্ন ইমেইল

আপনার জিমেইলে ফ্যানের সংখ্যা যদি বেশি হয়, বা দুটি জিমেইল অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করেন, তবে একই ব্রাউজারে আপনি দু্টি ইমেইল চালু করতে পারেন।

একসঙ্গে দুটি জিমেইল অ্যাকাউন্ট সক্রিয় করতে জিমেলের উপরে ডান পাশে আপনার ইমেইল অ্যাড্রেসে ক্লিক করে Add account নির্বাচন করুন। এতে নতুন একটি ট্যাব ওপেন হবে। এবার এখানে আপনার অন্য জিমেইলে আইডি ও পাসওয়ার্ড বসিয়ে একসঙ্গে দুটি অ্যাকাউন্ট চালু করতে পারেন।

৮. ধীরগতির ইন্টারনেট

ধীরগতির ইন্টারনেট সংযোগ হলে জিমেইল চালু হতে লম্বা সময় লাগতে পারে। এ সমস্যা সমাধানে আপনি যদি switch to a basic version নির্বাচন করেন তবে দ্রুত পেইজ আপলোড হবে। সার্চ বক্সে https://mail.google.com/mail/?ui=html লিখে সার্চ করলে বেসিক ভার্সনে জিমেইল দ্রুত চালু হবে।

৯. ব্যাকআপ মেসেজ

জিমেইলে আপনার গুরুত্বপূর্ণ মেসেজগুলো সংরক্ষণ করে রাখতে পারেন। এ জন্য সেটিংস অপশন থেকে Forwarding and POP/IMAP নির্বাচন করুন। এরপর প্রয়োজনমতো আপনার মেইলগুলো ডাউনলোড করে রাখতে পারেন কম্পিউটারে।

71
ইন্টারনেট জায়ান্ট গুগলের ইমেইল সেবা জিমেইলে এসেছে নতুন আরেকটি পরিবর্তন। জিমেইল আর আগের মতো ‘ডিসপ্লে ইমেজ বিলো’ বলে ব্যবহারকারীদের কাছে ছবি দেখানোর জন্য অনুমতি নেবে না। এখন থেকে জিমেইল স্বয়ংক্রিয়ভাবেই ইমেইলের সঙ্গে থাকা ছবিগুলো দেখাবে।

এক প্রতিবেদনে প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট ম্যাশএবল জানিয়েছে, জিমেইলের ছবিসংক্রান্ত এ পরিবর্তনটি বৃহস্পতিবার থেকে শুরু করেছে গুগল।

এতোদিন ব্যবহারকারীদের মোবাইল ও কম্পিউটারের নিরাপত্তা রক্ষার লক্ষ্যেই ছবি দেখানো সংক্রান্ত এ অনুমতিটি নিত জিমেইল। কিন্ত জিমেইল এখন থেকে এক্সটার্নাল হোস্ট সার্ভারের বদলে নিজস্ব নিরাপদ প্রক্সি সার্ভার ব্যবহার করবে। ফলে জিমেইল আগেই ম্যালওয়্যার বা ভাইরাসযুক্ত ছবি চিহ্নিত করতে পারবে। এ কারণেই ব্যবহারকারীদের আর কোনো অনুমতির প্রয়োজন পড়বে না জিমেইলের।

তবে ব্যবহারকারীরা যদি অনুমতির এ বিষয়টি চালু রাখতে চান তাহলে জেনারেল ট্যাব সেটিংস থেকে ‘আস্ক বিফোর ডিস্প্লেইং এক্সটার্নাল ইমেজ’ সিলেক্ট করে নিতে পারবেন।

বৃহস্পতিবার থেকেই জিমেইলের ডেস্কটপ সংস্করণে নতুন এ আপডেটটি চালু হয়েছে। তবে মোবাইল সংস্করণে আপডেটটি ২০১৪ সালের প্রথম দিকে আসবে এমনটাই প্রতিবেদনে জানিয়েছে ম্যাশএবল।

72
রিকসন বাজারে আনছে ‘রেডিও ডট সিস্টেম’। ছোট এ যন্ত্রটি অভ্যন্তরীণ নেটওয়ার্ক সংকেতের শক্তি বাড়াতে যথেষ্ট কার্যকর। এর মাধ্যমে উচ্চগতির ইন্টারনেট ব্যবহারের পাশাপাশি ফোনে সুস্পষ্ট কথা শোনা যাবে। অফিস কিংবা বাসায় প্রায়ই মোবাইল নেটওয়ার্কের সংকেত হয়ে যায়। এই সমস্যার সমাধানে ‘রেডিও ডট সিস্টেম’।

গোলাকৃতির এই যন্ত্রের ওজন মাত্র ৩০০ গ্রাম। ফলে যে কেউ হাতের মুঠোয় করেও এই ডিভাইসটি বহন করতে পারেন। আগামী বছরের শেষের দিকে বাণিজ্যিকভাবে বাজারে ছাড়া হবে রেডিও ডট সিস্টেম। -

73


প্রযুক্তি সংবাদবিষয়ক ওয়েবসাইট ম্যাশএবল এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, পোর্টেবল পাওয়ার সিস্টেম নির্মাতা ‘নেকটার’ তৈরি করেছে তেমনি একটি ডিভাইস।

ডিভাইসটি সঙ্গে থাকলে ভ্রমণকালে ব্যবহারকারীরা স্মার্টফোন ও ক্যামেরার চার্জ ফুরিয়ে গেলে দ্রুত চার্জ করে নিতে পারবেন। এতে দুই সপ্তাহ থেকে একমাস পর্যন্ত ভাবনাহীন থাকা যাবে।

ইউএসবি ২.০ পোর্ট সাপোর্ট করে এমন ডিভাইসে চার্জ দেওয়া যাবে এ গ্যাজেটটির মাধ্যমে। এ জন্য আলাদা ওয়াল প্লাগের প্রয়োজন হবে না কিংবা মোবাইলের কোনো অ্যাপ বন্ধ করে রাখতে হবে না।

এ সম্পর্কে নেকটারের মার্কেটিং অ্যান্ড বিজনেস ডেভেলপমেন্টের ভাইস প্রেসিডেন্ট মওলি রামানি জানান, ডিভাইসটি আপনাকে আত্মনির্ভরশীল করে তুলবে। মাত্র দুকাপ কফির দামে দুই সপ্তাহ সচল রাখা যাবে দরকারি গ্যাজেট।

নেকটার পোর্টেবল পাওয়ার প্ল্যান্টের ভেতর রয়েছে একটি ছোট ‘মাইক্রো-সলিড অক্সাইড ফিউয়েল সেল’। প্রতিষ্ঠানটি একে সিলিকন পাওয়ার সেল হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিয়েছে। যার ভেতর বুটেন গ্যাস অন্য একটি তরলের সঙ্গে মিশে রাসায়নিক বিক্রিয়ার মাধ্যমে বিদ্যুৎ তৈরি করে।

ব্যাটারির চেয়ে ১০ গুণ হালকা ও পাঁচগুণ ছোট প্রযুক্তির এ যন্ত্রটির দাম ধরা হয়েছে ১০ ডলার।

74


এমনই এক সেমিকন্ডাক্টার বিশ্লেষক প্রতিষ্ঠান চিপওয়ার্কস আইফোন ৫এস-এর এ৭ চিপের নকশা বিশ্লেষণ করে জানিয়েছে, শুধু ৬৪-বিটের অপারেটিং সিস্টেম (ওএস) নয়, কোয়াড-কোর গ্রাফিক্স চিপ রয়েছে স্মার্টফোনটিতে।

প্রযুক্তি সংবাদবিষয়ক সাইট সিনেট জানিয়েছে, অ্যাপলের তৈনি স্মার্টফোনগুলোর মধ্যে ৫এস-ই হচ্ছে প্রথম স্মার্টফোন যাতে কোয়াড-কোর জিপিইউ আছে। আইফোন ৫-এর এ৬ চিপে ছিল তিন-কোরের জিপিইউ।

নতুন আইফোনের ডুয়াল-কোর সিপিইউ থাকার খবরও নিশ্চিত করেছে চিপওয়ার্কস।

আইপ্যাড ৩ এবং আইপ্যাড ৪-এর এ৫এক্স এবং এ৬এক্স চিপে কোয়াড-কোর জিপিইউ থাকলেও এই নিয়ে প্রথমবারের মতো স্মার্টফোনে কোয়াড-কোর জিপিইউ ব্যবহার করেছে অ্যাপল। যদিও স্মার্টফোন বাজারে অ্যাপলের মূল প্রতিদ্বন্দ্বী স্যামসাং গ্যালাক্সি সিরিজের স্মার্টফোনগুলোতে ৪ কোরের গ্রাফিক্স প্রসেসিং ইউনিট ব্যবহার করছে বেশ কিছুদিন ধরেই।

সিনেটের প্রতিবেদন অনুযায়ী ৬৪বিটের ওএস আর কোয়াড-কোর জিপিইউ থাকায় সবচেয়ে বেশি সুবিধা হবে গেইমারদের। দ্রুত গতির চিপের কারণে ‘ইনফিনিটি ব্লেড থ্রি’-এর মতো গেইমগুলা খেলা সহজ হবে আইফোন ৫এস-এ।

75
Ctrl+Alt+Del  মূলত ডিজাইন করা হয়েছিল পিসি রিবুট করার জন্য। এখনও এ কমান্ডটি উইন্ডোজের পুরনো কিছু সংস্করণে ব্যবহৃত হয়। কমান্ডটি প্রথমে আইবিএম এর ম্যানেজার ডেভিড ব্র্যাডলি উদ্ভাবন করেছিলেন। কিন্তু প্রথমদিকে তার প্রক্রিয়াটি একটু জটিল ছিল। পরবর্তীতে তিনি এটি সহজ করে দিয়েছিলেন।সম্প্রতি আইবিএম এর ২০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ব্র্যাডলি জানান, তিনি হয়তো কমান্ডটি উদ্ভাবন করেছিলেন, কিন্তু এটি বিখ্যাত করেছেন গেটস।

গেটস তার বক্তব্যে বলেন, “আমরা এ কাজটি হয়তো একটি মাত্র বাটনের সাহায্যেই করতে পারতাম। কিন্তু আইবিএম-এর যে ব্যক্তি কিবোর্ড ডিজাইন করেছিলেন, তিনি আমাদের তা দিতে চাননি।”

তবে সে অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়া একজন জানিয়েছেন, একটি মাত্র বাটনের সিদ্ধান্তটিই বরং ভুল হত।

Pages: 1 ... 3 4 [5] 6 7