Show Posts

This section allows you to view all posts made by this member. Note that you can only see posts made in areas you currently have access to.


Messages - Tapushe Rabaya Toma

Pages: 1 ... 9 10 [11] 12
152
 :) :D

155
US tech giant Apple is experimenting with wireless charging technologies that could see users charge their iPhones with a Wi-Fi router.

“Apple’s patent application for ‘Wireless Charging and Communications Systems With Dual-Frequency Patch Antennas’ is a method for transferring power to electronic devices over frequencies normally dedicated to data communications,” appleinsider.com reported on Friday.

The patch antennas may be used for wireless power transfer at microwave frequencies or other frequencies and may be used to support millimeter wave communications.

The patch antennas may be used to form a beam steering array. The wireless circuitry may include adjustable circuitry to steer wireless signals associated with the antenna array.

“Apple’s patent application merely covers the theory behind wireless power transmission using existing communications link frequencies, and does not divulge specific operating details beyond the implementation of specialised beam forming patch antennas,” the report noted.

Apple is set to bring “True Color iPad Pro” screen technology to its smartphones for the first time.

“The screen technology uses advanced four-channel ambient light sensors to automatically adapt the colour and intensity of the display to match the light in your environment. Which means reading anywhere is more natural and comfortable - almost like looking at a sheet of paper,” Forbes.com reported earlier.

The full spectral sensing ambient light sensor will be added across the iPhone 7S, iPhone 7S Plus and iPhone 8.

157
যুক্তরাষ্ট্রে হঠাৎ করেই বেড়েছে দুর্ঘটনায় পথচারী মৃত্যুর হার। এই মৃত্যুর হার বৃদ্ধির পেছনে মূল কারণ অন্যমনস্ক হয়ে মুঠোফোনের ব্যবহার। দেশটিতে ২০১৬ সালে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রায় ছয় হাজার পথচারীর মৃত্যু হয়েছে। গত দুই দশকে এত বেশি পথচারী মৃত্যুর নজির আর নেই।
মার্কিন গভর্নরস হাইওয়ে সেফটি অ্যাসোসিয়েশনের সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে। সেখানে অন্যান্য কারণের মধ্যে উল্লেখ করা হয়েছে অর্থনৈতিক উন্নয়নের ফলে গাড়িচালকের সংখ্যা বৃদ্ধি, জ্বালানির মূল্যহ্রাস এবং স্বাস্থ্য রক্ষা ও পরিবেশগত কারণে হাঁটার পরিমাণ বৃদ্ধি। মারাত্মক দুর্ঘটনায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে ৩৪ শতাংশ পথচারী ও ১৫ শতাংশ চালকের কারণ হিসেবে মদ্যপানের উল্লেখও সেখানে ছিল।
যুক্তরাজ্যের রয়াল সোসাইটি ফর দ্য প্রিভেনশন অব অ্যাকসিডেন্টস সংস্থাও মনোযোগ হারানো বা ডিসট্র্যাকশনের অন্যতম কারণ হিসেবে মুঠোফোনের উল্লেখ করেছে। সংস্থাটির সড়ক নিরাপত্তা ব্যবস্থাপক নিক লয়েড বলেন, ‘ডিসট্র্যাকশনের ফলে আরও বেশি তরুণ আহত হচ্ছে, বিশেষ করে রাস্তা পারাপারের সময় মুঠোফোন ব্যবহারের কারণে। সেটা মুঠোফোনে কথোপকথন, গান শোনা, বার্তা আদান-প্রদান কিংবা ইন্টারনেট ব্যবহারের কারণে হতে পারে।’

স্মার্টফোন ‘জোম্বি’
বিশ্বজুড়ে বেশ কিছু শহরে রাস্তায় ডিজিটাল ডিসট্র্যাকশন ঠেকাতে ব্যবস্থা নিচ্ছে স্থানীয় সরকার। জার্মানির অগসবার্গ শহরে যেমন রাস্তার বিভিন্ন জায়গায় ভূমিতে লাল-সবুজ বাতি বসানো হয়েছে। এর পেছনে কারণ, রাস্তায় যারা স্মার্টফোনে নাক-মুখ গুঁজে চলাচল করে, তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ।
নেদারল্যান্ডসের বোদেগ্রাভেন শহরে গত ফেব্রুয়ারিতে একধরনের ট্রাফিক বাতির পরীক্ষা চালানো হয়েছে, যেগুলো ফুটপাথজুড়ে লাল বা সবুজ আলো ফেলবে। এই আলো ফেলার কারণ একটাই—স্মার্টফোন জোম্বিদের দৃষ্টি আকর্ষণ। রাস্তায় মনোযোগ কেড়ে নেওয়ার পেছনের কারণ হিসেবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম, গেম, হোয়াটসঅ্যাপ এবং গানের কথা বলছেন তাঁরা।

158
গত ২৬ মার্চ, বাংলাদেশ সময় বেলা একটা। ভারতের আইআইটি কানপুরে তখন চলছিল ‘টেককৃতি ২০১৭’-এর পুরস্কার বিতরণী পর্ব। তিন দিন ধরে চলেছে এই আয়োজন। আইআইটি ক্যাম্পাসের ভেতরের বিশাল মাঠ, আয়োজকেরা যাকে বলছিলেন ‘ফেস্টিভ্যাল গ্রাউন্ড’, সেখানেই প্রায় ১২টি দেশের হাজারখানেক শিক্ষার্থী এক হয়েছিলেন। বাংলাদেশ থেকেও ছিল বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া গোটা দশেক দল। স্বাধীনতা দিবসের এই দিনে হতাশ করেনি বাংলাদেশের দলগুলো। চারটি দল, পাঁচটি ভিন্ন প্রতিযোগিতায় মোট ছয়টি পুরস্কার নিয়ে তবেই ফিরেছে।

এই দল চারটি হলো নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের যৌথ দল ‘টিম স্পার্ক’, ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির দল ‘মাস্টারমাইন্ড’, নর্থ ওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের দল ‘জিরো ইরর’ ও বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস অ্যান্ড টেকনোলজির দল ‘বিআরসি ব্রাভো’। এর মধ্যে ‘টিম স্পার্ক’ একাই জিতেছে মোট তিনটি পুরস্কার। আর বাকি তিনটি দল একটি করে।

কথা হচ্ছিল ‘টিম স্পার্ক’ দলের সদস্য ফাতিন হাসনাত চৌধুরীর সঙ্গে। নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সদ্য স্নাতক শেষ করা ফাতিনের দলের অন্য সদস্যরা হলেন একই বিশ্ববিদ্যালয়ের তাকি উদ্দীন ও সিফাত রেজওয়ান এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর দাস ও সাদ আহমেদ আকাশ। প্রতিযোগিতার আদ্যোপান্ত জানালেন ফাতিন—‘আমরা মোট তিনটি প্রতিযোগিতায় পুরস্কার পাই। “ইন্টারন্যাশনাল রোবটস গট ট্যালেন্ট” (আইআরজিটি) নামক প্রতিযোগিতায় অনেক দেশ থেকে রোবট আসে। যার রোবট যত অভিনব, তার বিজয়ী হওয়ার সম্ভাবনা তত বেশি। এখানে আমরা দ্বিতীয় হয়েছি।’ তাকি জানালেন, ‘এবারের আসরের অন্যতম আকর্ষণীয় প্রতিযোগিতা ছিল “এলিভেটর পিচ”। উদ্যোক্তা হিসেবে নিজের ব্যবসায়িক আইডিয়া জানিয়ে এক মিনিটের একটা বক্তব্য দিতে হয়েছিল। সেখানে আমাদের আইডিয়াই হলো প্রথম! আরেকটি প্রতিযোগিতা ছিল অটোমেশন-বিষয়ক প্রতিযোগিতা “এমবেডেড”। সেখানে আমরা ১০০-তে ১০০ পেয়ে প্রথম হই।’

তবে তিন-তিনটি পুরস্কার পাওয়ার থেকেও বড় অন্য আরেকটি অর্জনের কথা শোনালেন ফাতিন। যে পুরস্কারে তাঁরা নিজেরাই চমকে গেছেন। ফাতিনের মুখেই শোনা যাক—‘পিচ এলিভেটর প্রতিযোগিতায় আমাদের প্রেজেন্টেশন শেষ হওয়ার পর জানতে পারলাম, বাংলাদেশ থেকে যে ছেলেগুলো প্রেজেন্টেশন দিয়েছে, জুরিবোর্ড তাদের খুঁজছে। দলের হয়ে আমি ভয়ে ভয়ে সামনে গেলাম। ভাবছিলাম, ভুলটুল কিছু বলে ফেলিনি তো! ভুল ভাঙল যখন জুরিবোর্ডের একজন বিচারক হেসে হেসে আমাকে বললেন, “তোমার আইডিয়া খুবই ভালো লেগেছে। যদি তোমার দেশে এটা নিয়ে কাজ করার সুযোগ কম থাকে, তবে তুমি আমার কোম্পানির সঙ্গে কাজ করতে পারো।” শুধু তা-ই নয়, তিনি তাঁর ভিজিটিং কার্ড দিয়ে পরে যোগাযোগ করতেও বললেন।’

এ তো গেল প্রতিযোগিতার সময়ের ঘটনা। এই প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার সুযোগ হয়েছিল কীভাবে? জানতে চাইলে সিফাত রেজওয়ান বলেন, ‘ইঞ্জিনিয়ারিং স্টুডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ইসাব) একটা আঞ্চলিক প্রতিযোগিতার আয়োজন করে বাংলাদেশে। এই পর্বে টিকলে ভারতের আইআইটি কানপুরে যাওয়ার সুযোগ পায় দলগুলো। এবারের আসরে বাংলাদেশ থেকে মোট ১০টি দল মূল পর্বে অংশ নেওয়ার সুযোগ পায়।’

বাকি পুরস্কারগুলোর মধ্যে ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ‘মাস্টারমাইন্ড’ দলটি আইআরজিটি রাউন্ডে তৃতীয় স্থান অর্জন করে। এই দলের সদস্যরা হলেন নাজিব আহমেদ, অমিত ঘোষ, মীর রাসেল ও জুনায়েদ জাহিন। ওদিকে বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস অ্যান্ড টেকনোলজির দল ‘বিআরসি ব্রাভো’ ইন্টারন্যাশনাল অটোনমাস রোবটিকস চ্যালেঞ্জ (আইএআরসি) রাউন্ডে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে। দলে ছিলেন সালসেং মরং, রাকিব রায়হান, শাহাদাত হোসেন, মহসিন সরকার ও আরিফুল ইসলাম। নর্থ ওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের দল ‘জিরো ইরর’ চ্যাম্পিয়ন হয় ‘টেকনিক্যাল ইনোভেশন চ্যালেঞ্জ’ (টিআইসি) শীর্ষক প্রতিযোগিতাটিতে। পল্লব জেইন, মাজহারুল ইসলাম ও ইমরান হোসেন ছিলেন এই দলের সদস্য।

‘টেকনোলজির’ সঙ্গে সংস্কৃতির মিশেলে এই প্রতিযোগিতার নাম টেককৃতি। প্রতিবছরই আইআইটির কানপুর দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম বিশাল এই মহাযজ্ঞের আয়োজন করে থাকে। এবারের আসরে প্রতিযোগিতা ছাড়াও ১৬টি কর্মশালা এবং বিশ্বের ১০ জন নামকরা বিজ্ঞানীর সঙ্গে আলোচনায় অংশ নেওয়ার সুযোগ ছিল।

http://www.prothom-alo.com/education/article/1163531/%E0%A6%86%E0%A6%87%E0%A6%86%E0%A6%87%E0%A6%9F%E0%A6%BF%E0%A6%A4%E0%A7%87-%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%82%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%A6%E0%A7%87%E0%A6%B6-%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%AE%E0%A7%9F

159
সক্রিয় ফেসবুক ব্যবহারকারীর হিসেবে ঢাকা এখন বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর। ঢাকা ও আশপাশের অঞ্চল মিলিয়ে ঢাকা শহর বোঝানো হয়েছে। এখানে ২ কোটি ২০ লাখের বেশি মানুষ সক্রিয়ভাবে ফেসবুক ব্যবহার করছেন।
যুক্তরাজ্যে নিবন্ধিত ‘উই আর সোশ্যাল লিমিটেড’ ও কানাডার ‘হুটস্যুট ইনকরপোরেশনের’ এক যৌথ প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। প্রতিষ্ঠান দুটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম বিষয়ক গবেষণা ও ডিজিটাল সেবাদাতা হিসেবে পরিচিত।
ওই প্রতিবেদনে এপ্রিল মাসে ফেসবুক ব্যবহারকারী শহরের তালিকায় শীর্ষে অবস্থান থাইল্যান্ডের ব্যাংকক শহরের। সেখানে তিন কোটির বেশি মানুষ ফেসবুকে সক্রিয়। আর ঢাকার পরে আছে জাকার্তা ও মেক্সিকো সিটি। জাকার্তায় ফেসবুক ব্যবহারকারী প্রায় ঢাকার সমান। মেক্সিকো সিটিতে সক্রিয় ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা ১ কোটি ৭০ লাখ।
চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে উই আর সোশ্যালের করা প্রতিবেদনে ফেসবুক ব্যবহারকারী হিসেবে ঢাকার অবস্থান ছিল তৃতীয়। ওই সময় ফেসবুক ব্যবহারকারী ছিল ১ কোটি ৬০ লাখ। অর্থাৎ গত তিন মাসে ঢাকায় ৬০ লাখ ফেসবুক ব্যবহারকারী বেড়েছে।
দেশ হিসেবে যদিও শীর্ষ ১০ ফেসবুক ব্যবহারকারীর তালিকায় বাংলাদেশের নাম নেই। এ তালিকায় দেশ হিসেবে সবচেয়ে বেশি সক্রিয় ফেসবুক ব্যবহারকারী রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে প্রায় ২১ কোটি ৯০ লাখ মানুষ এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সক্রিয়। তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারত, সেখানকার ২১ কোটি ৩০ লাখ মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করছেন। এরপর রয়েছে ব্রাজিল, ইন্দোনেশিয়া ও মেক্সিকো।
বাংলাদেশে ফেসবুক ব্যবহারকারীর তথ্য সম্পর্কে সরকারের তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগ সূত্র বলছে, বর্তমানে দেশে প্রায় ২ কোটি ৩৩ লাখ মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করছেন। দেশে যত সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহৃত হচ্ছে এর মধ্যে ৯৯ শতাংশই ফেসবুক। বাংলাদেশে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের মধ্যে ১ কোটি ৭০ লাখ পুরুষ আর ৬৩ লাখ নারী। ফেসবুক ব্যবহারকারীদের ৯৩ শতাংশের বয়স ১৮ থেকে ৩৪ বছরের মধ্যে। এর মধ্যে মোবাইল ডিভাইস থেকে ২ কোটি ২৬ লাখ মানুষ ফেসবুকে ঢুকছেন।
উই আর সোশ্যালের প্রতিবেদন অনুযায়ী, বিশ্বের প্রায় অর্ধেক মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহার করে। বিশ্বের প্রায় সাড়ে সাত শ কোটি জনসংখ্যার মধ্যে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী রয়েছে ৩৭৭ কোটি; আর এদের মধ্যে ২৭৮ কোটি ব্যবহারকারী কোনো না কোনো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারে সক্রিয়।
জানতে চাইলে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়শেন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) পরিচালক রিয়াদ হোসেন প্রথম আলোকে জানান, ‘এ হিসাবে কিছু গোলমাল থাকতে পারে। কারণ, ফেসবুকে পুরো বাংলাদেশের ব্যবহারকারী ২ কোটি ৩০ লাখের মতো বলে ফেসবুক সূত্রেই জানা যায়। ঢাকার সব বাসিন্দা ফেসবুক ব্যবহার করলেও সংখ্যাটা এত বেশি হবে বলে মনে হয় না। তবে শহর হিসেবে ঢাকা সারা পৃথিবীর মধ্যে ফেসবুক ব্যবহারে এগিয়ে আছে বলেই মনে হয়।’

http://www.prothom-alo.com/technology/article/1146776/%E0%A6%AB%E0%A7%87%E0%A6%B8%E0%A6%AC%E0%A7%81%E0%A6%95-%E0%A6%AC%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%AC%E0%A6%B9%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%87-%E0%A6%A2%E0%A6%BE%E0%A6%95%E0%A6%BE-%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%B6%E0%A7%8D%E0%A6%AC%E0%A7%87-%E0%A6%A6%E0%A7%8D%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%A4%E0%A7%80%E0%A7%9F

160
২০১৭ সালে প্রযুক্তি খাতে কী ধরনের পরিবর্তন আসতে পারে তার পূর্বাভাস দিয়েছেন প্রযুক্তি বিশ্লেষক টিম বাজারিন। ৩০ বছর ধরে প্রযুক্তি নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী্র কলাম লিখে আসছেন তিনি। গবেষণা এবং জরিপ বিশ্লেষণা করে এবারও ভবিষ্যদ্বাণী্ করেছেন বাজারিন।

নতুন বছরকে সামনে রেখে প্রযুক্তি নিয়ে তার পাঁচ ভবিষ্যদ্বাণী প্রকাশ করেছে মার্কিন সাময়িকী টাইম।

১. প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প প্রভাব

সিলিকন ভ্যালি’র প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো যে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত ডোনাল্ড ট্রাম্পের বড় সমর্থক নয় তা মোটামুটি সবারই জানা। তবে, তারা এ-ও জানেন সামনের চার বছর এই প্রশাসনের সঙ্গেই কাজ করতে হবে তাদের। সম্প্রতি ট্রাম্পের সঙ্গে সাক্ষাৎও করেছেন শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি নেতারা। তবে, ট্রাম্প-এর স্বভাব এমনই যে তার কাজকর্ম আগে থেকে আঁচ করা অসম্ভব  হওয়ায় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের প্রতি তার উদ্যোগ কী হবে তা স্পষ্ট নয়। তাই ২০১৭ সালে এটি প্রযুক্তির জন্য বড় সমস্যা হতে পারে, সম্ভবত সবচেয়ে বড়।

২. অগমেন্টেড/মিক্সড রিয়ালিটির গুরুত্ব বৃদ্ধি

সামনের বছর ভার্চুয়াল রিয়ালিটি’র চেয়ে অগমেন্টেড বা মিক্সড রিয়ালিটির গুরুত্ব বৃদ্ধি পেতে পারে। বর্তমানে শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো ভিআর ডিভাইস নিয়ে কাজ করলেও সামনের বছর অগমেন্টেড রিয়ালিটি প্রযুক্তি প্রাধান্য পাবে। এর আগে অ্যাপল প্রধান টিম কুকও জানিয়েছেন এআর প্রযুক্তি ভিআর-এর চেয়ে ‘বেশি মজাদার’। তাই ২০১৭-তে নতুন আইফোন উন্মোচনকালে অগমেন্টেড রিয়ালিটি বড় আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকলে আশ্চর্য হওয়ার কিছু নেই।

৩. হাইব্রিড কম্পিউটার

২০১৭ সাল হতে পারে টু-ইন-ওয়ান কম্পিউটারের। বহুমুখী কম্পিউটিং প্লাটফর্ম হওয়ায় নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো এখন সে দিকেই মনযোগ দিচ্ছে। একইসঙ্গে ল্যাপটপ এবং ট্যাবলেটের অভিজ্ঞতা পাওয়ায় গ্রাহকও সেদিকে ঝুঁকছে বলেই ধারণা করা হচ্ছে।

৪. বাড়বে স্মার্ট ওটোমোবিলস-এর চাহিদা

বর্তমানে স্বচালিত গাড়ি নিয়ে বিস্তৃত পরিসরে গবেষণা চালানো হলেও সেগুলো ২০২২ সালের আগে রাস্তায় নামবে না বলে ধারণা করা হচ্ছে। এই সময়ের মধ্যে গ্রাহক সফটওয়্যার ব্যবহার করে তার গাড়ি আরও স্মার্ট করতে চাইবে। তাই অ্যাপলের কারপ্লে বা গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অটোর মতো সফটওয়্যার প্লাটফর্মগুলোর চাহিদা বৃদ্ধি পাবে।

৫. হ্যাকার এবং সন্ত্রাসী হবে আরও পরিণত

চলতি বছর জুড়ে বেশ কিছু বড় হ্যাক এবং সন্ত্রাসের খবর পাওয়া গেছে।  ইনটেল সিকিউরিটির তথ্যমতে এ বছরের শধু প্রথম অর্ধেই ৫৫৪ মিলিয়ন হ্যাকের ঘটনা ঘটেছে।  আগের  পুরো বছর জুড়ে যার সংখ্যা ছিল ৭০৭ মিলিয়ন। নতুন বছরে এসব সাইবার অপরাধীরা আরও পরিণত এবং চতুর হবেন বলে বিশ্বাস বাজারিন-এর।

163
Environmental Science and Disaster Management / Re: Water pollution
« on: April 30, 2017, 02:50:31 PM »
need more awareness....

164
Rules should imposed strictly...

Pages: 1 ... 9 10 [11] 12