Daffodil International University

Faculties and Departments => Business and Economics => Topic started by: Md. Alamgir Hossan on April 26, 2017, 01:55:40 PM

Title: ১২ হাজার বাংলাদেশিকে ছাড়তে হচ্ছে সৌদি আরব
Post by: Md. Alamgir Hossan on April 26, 2017, 01:55:40 PM
১২ হাজার বাংলাদেশি অভিবাসীকে সৌদি আরব ছাড়তে হচ্ছে। অবৈধ অভিবাসীদের দেশ ছাড়ার নির্দিষ্ট সময়সীমা বেঁধে দিয়েছে রিয়াদ। কর্তৃপক্ষের এমন কঠোর নিষেধাজ্ঞার কারণে জুনের ৩০ তারিখের মধ্যেই সৌদি ছাড়তে হচ্ছে বাংলাদেশি অবৈধ অভিবাসীদের।

ভিসার মেয়াদ শেষের পরও যারা অবৈধভাবে সৌদি আরবে অবস্থান করছেন, তাদের বিনা শাস্তিতে দেশের ফিরতে ৩০ জুন পর্যন্ত ৯০ দিনের এই সুযোগ গত ২০ মার্চ ঘোষণা করে মধ্যপ্রাচ্যের দেশটির সরকার। এই ঘোষণার পর অবৈধ বাংলাদেশিদের কাছ থেকে ভালো সাড়া পাওয়া যাচ্ছে বলে দূতাবাসের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

রিয়াদে বাংলাদেশ দূতাবাসের কাউন্সিলর মনিরুল ইসলাম বলেন, দেশে ফেরার সুযোগ নিতে মঙ্গলবার পর্যন্ত রিয়াদে মোট সাত হাজার ৩০৯ জন আউট পাস সংগ্রহ করেছেন। আর জেদ্দা থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত চার হাজার ৮৫৫ জন ‘আউট পাস’ নিয়েছেন বলে কনস্যুলেটের ফার্স্ট সেক্রেটারি কামরুজ্জামান জানিয়েছেন।

এ ঘোষণার আওতায় বৈধ হওয়ার কোন সুযোগ নেই। তবে অবৈধ অভিবাসীরা এনিয়ে সৌদির সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে বৈধতা দেয়ার দাবি জানিয়েছেন।

ঘোষণা অনুযায়ী, দেশে ফিরতে চাইলে আবারও সৌদি আরবে আসার আবেদন করতে পারবেন এসব অভিবাসীরা। আর এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন প্রবাসীরা। অবৈধ অভিবাসীদের খুঁজে বের করতে এরইমধ্যে ট্রাস্কফোর্স গঠন করেছে সৌদি সরকার। শিগগিরই মাঠে নামবে তারা। স্থাপন করা হয়েছে বেশ কিছু ডিটেনশন সেন্টারও।

ঘোষণা অনুযায়ী, আবাসন খাতে ও শ্রম আইন লঙ্ঘনকারীদের জন্য ৯০ দিনের সময় দেওয়া হয়। বলা হয়, এ সময়সীমার মধ্যে আইন লঙ্ঘনকারীরা জরিমানা ছাড়া সৌদি আরব ছেড়ে যেতে পারবেন।

যারা অবৈধভাবে সৌদি আরবে প্রবেশ করে কাজ করছেন বা যাদের কাগজপত্র নেই- তাদেরকে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন নায়েফ এই সাধারণ ক্ষমার সুযোগ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। সেইসঙ্গে তিনি এই ক্যাম্পেইনে সবাইকে সহযোগিতা করার অনুরোধ করেছেন।

জেদ্দায় বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল এফ এম বোরহান উদ্দিন বলেন, অবৈধরা এই সুযোগ নিয়ে সৌদি আরব না ছাড়লে তাদের জেল-জরিমানা হবে। আর যারা এই সুযোগ নেবেন, তাদের কোনো শাস্তি ছাড়াই দেশে ফেরার সুযোগ দেওয়া হবে। এমনকি ভবিষ্যতে কাজ নিয়ে আবারও বৈধভাবে সৌদি আরবে আসার সুযোগ থাকবে তাদের।