Show Posts

This section allows you to view all posts made by this member. Note that you can only see posts made in areas you currently have access to.


Topics - Raihana Zannat

Pages: [1] 2 3 ... 5
1
Faculty Sections / The FaceApp privacy scare
« on: July 24, 2019, 11:47:07 AM »
We already know that Facebook quizzes are harbingers of big chunks of our data, which they might use against each other to start a big data war in the near future. But, there’s a new cat in town and it makes you look old – it’s called FaceApp.
Russian company Wireless Lab created FaceApp and the app’s terms of condition are a long read. The summary of it is that you give FaceApp irrevocable and royalty-free access to your face. Fair play to them though since most apps do take your data, sometimes without even a notice going as far stealing it.

What’s spectacular about the FaceApp ordeal is that US senator Chuck Schumer has ordered the FBI and FTC to look into the app. So the US does see the app as a major security concern. FaceApp CEO Yaroslav Goncharov has come out and stated that they are not using the pictures for anything questionable. So more than anything, FaceApp’s terms of conditions came off as a cause of concern due to the multiple massive data breaches that have happened in recent time. Reports also point towards the fact that FaceApp isn’t accessing data beyond the single picture you use, with no signs of stealing other sensitive information.

Regardless, it’s best to be safe, especially with external apps like FaceApp. There are already some knockoff FaceApp type apps which do more than just stealing your pictures.
-collected

2
Accredited R We? / Bite-sized games which pack a punch
« on: July 24, 2019, 11:35:08 AM »
Bite-sized games which pack a punch
Here are a couple of games you can play to your heart’s content, without worrying about storage.

Mekorama

Platform: Android, iOS, Switch

Size: 4.7 MB

Price: Free

Mekorama is a puzzle game and it’s directly inspired from the gorgeous Monument Valley. It’s also free and with an infinitesimal number of user made levels, you can sink hours into this “2.5D” puzzle game. It’s a beautiful looking game and not to mention, it’s free.

Robot Wants Kitty

Platform: Android, iOS

Size: 8.9 MB

Price: Free

Robot Wants Kitty while only having six levels follows a robot which has to collect kitten each level in order to acquire powerups. If you’re a sucker for the classic Metroidvania formula and you’re looking for a way to kill some time, this game’s got you covered.

Hoppenhelm

Platform: Android

Size: 22 MB

Price: Free

Hoppenhelm is a great pick up and play game. An endless runner with an art style similar to action platformers you would find on the SNES or Sega Genesis, Hoppenhelm oozes a lot of charm. It also has a lot more depth than other similar endless runner type deals, with its character customisation features and randomly generated levels.

3
New folder নামে একটি শর্টকাট ফোল্ডার দেখা যাচ্ছে?? ???

1.একটি ব্রাউজার  ওপেন করি । সার্চ বারে usb fix লিখুন এন্টার দেই বা
2.https://www.usbfix.net  এই লিঙ্ক থেকে usb fix ডাউনলোড করে ইনেস্টল করি ।
3.usb fix ওপেন করি  ‘স্কান ইউএসবি ডিস্ক‘ এ ক্লিক করি ।
4.পেনড্রাইভ  টির শর্টকাট ভাইরাস টি ডিটেক করবে ক্লিন করি ।
5.এখন পেনড্রাইভ ওপেন করি New folder নামে শর্টকাট ভাইরাস নেই।

4
খাবারে ক্যান্সার নিরোধী অণু খুঁজে বের করছে ড্রিমল্যাব নামের মোবাইল অ্যাপ। মোবাইল 'কাজহীন' বা অলস অলস থাকা অবস্থায় যে প্রসেসিং পাওয়ার কাজে লাগে না তা ব্যবহার করে শনাক্ত করা হবে এই অণু।
গবেষণায় দেখা গেছে গাঁজর, সেলেরি নামে এক থরনের শাক এবং কমলায় সবচেয়ে বেশি ক্যান্সার নিরোধী অণু রয়েছে-- খবর বিবিসি’র।

ইতোমধ্যেই অ্যাপটি ডাউনলোড হয়েছে ৮৩ হাজার বার। গ্রাহকের ঘুমের সময় এটি কাজ করে এবং ইতোধ্যেই এক কোটির বেশি গণনা শেষ করেছে।

এ বিষয়ে এক গবেষক বলেন, এর চিকিৎসা বের করতে এখনও অনেক কাজ বাকি।

ইতোমধ্যেই অ্যাপটি ডাউনলোড হয়েছে ৮৩ হাজার বার। গ্রাহকের ঘুমের সময় এটি কাজ করে এবং ইতোধ্যেই এক কোটির বেশি গণনা শেষ করেছে।

অ্যালগরিদমের মাধ্যমে অ্যাপটি একটি বিস্তৃত ডেটাবেইজের সঙ্গে আট হাজারের বেশি দৈনন্দিন খাবারের উপাদান পরিমাপ করে। ল্যাব পরীক্ষার কোষ বা প্রাণীর দেহে যে অণুগুলো সফলভাবে ক্যান্সার প্রতিহত করতে পেরেছে ডেটাবেইসটিতে সে উপাদানগুলো রাখা হয়েছে।

আঙ্গুর, জিরা এবং বাধাকপিতে ক্যান্সার নিরোধী অণূর পরিমাণ অনেক বেশি বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

বর্তমান অ্যান্টি-ডায়াবেটিক এবং অ্যান্টি-মাইক্রোবায়াল ওষুধও ক্যান্সারের চিকিৎসায় ব্যবহার করা যেতে পারে বলে পরামর্শ দিয়েছেন গবেষকরা।

অ্যাপটি নিয়ে প্রকাশিত পেপারের মূল লেখক ইম্পেরিয়াল কলেজ লন্ডনের সার্জারি ও ক্যান্সার বিভাগের ড. কিরিল ভেসেলভ বলেন, “এটা আমাদের জন্য যুগান্তকরী মূহুর্ত।”

“পরবর্তী পদক্ষেপ এআই প্রযুক্তি দিয়ে এটা বের করতে হবে যে, ব্যক্তি ভেদে ওষুধ এবং খাবারের অণুর সমন্বয় কেমন প্রভাব ফেলে।”

ক্যান্সার রিসার্চ ইউকে’র স্বাস্থ্য তথ্য কর্মকর্তা উইলিন উ বলেন, “এই গবেষণার মাধ্যমে আশা করা যাচ্ছে আমরা ক্যান্সারের নতুন চিকিৎসা খুঁজে পাব, আমাদের খাবার এবং পানীয়ের মধ্যে থাকা রাসায়নিকের মাধ্যমেই।”

“এই পদক্ষেপ থেকে ফলাফল এলেও ক্যান্সার চিকিৎসায় তা ব্যবহার করতে এখনও অনেক দেরি। একটি নির্দিষ্ট ধরনের খাবার খাওয়ায় চেয়ে সার্বিক খাদ্যাভ্যাস ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।”

“অনেক প্রমাণ আছে যে মাংস, বেশি ক্যালোরির খাবার এবং পানীয়ের চেয়ে ফল এবং শাক সবজির মতো ফাইবার জাতীয় খাবার খেলে ক্যান্সারের ঝুঁকি কমে।”

ড্রিমল্যাব নামের অ্যাপটি যৌথভাবে বানিয়েছে ইম্পেরিয়াল কলেজ লন্ডন এবং ভোডাফোন ফাউন্ডেশন। গবেষণাটি প্রকাশ করা হয়েছে নেচার সাময়িকীতে।

- বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম

5
স্বাস্থ্য নিয়ে আজকাল অনেক তথ্যই পাওয়া যায় ইন্টারনেটে। পুষ্টি, স্থূলতা, ক্যান্সার, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস নিয়ে অনেক ধরণের তথ্য থাকে সেখানে। তবে এগুলোর মধ্যে কোনটা ভুল আর কোনটা সঠিক সেটা বোঝা মুশকিল। স্বাস্থ্য নিয়ে এমন কিছু তথ্য লোকের মুখে মুখে ফিরছে যে ঠিক না ভুল যাচাই হওয়ার আগেই তা প্রচলিত বিশ্বাসে পরিণত হয়েছে। যেমন-

১. ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে, হজমের উন্নতি ঘটাতে,শরীর সুস্থ রাখতে পানির গুরুত্ব অপরিসীম। তবে তাই বলে গুণে গুণে প্রতিদিন আট গ্লাস পানিই খেতে হবে এমন ধারণা ভুল। যখনই পিপাসা লাগবে, তখনই পানি খাবেন। পানির পরিবর্তে কখনও স্যুপ, রসালো ফল বা সবজিও খেতে পারেন। এতেও পানির পিপাসা মিটবে।

২. দিনে একটার বেশি ডিম খেলে হৃদযন্ত্রের ক্ষতি হয় এমন কথা প্রায়ই শোনা যায়।আবার এটাও প্রচলিত আছে,ডিমের কুসুম খাওয়া ঠিক নয়। শুধু সাদা অংশ খাওয়া ভাল। এটা ঠিক নয়। দিনে সর্বোচ্চ দুটি ডিম খাওয়া যায়। এটা সবার জন্যই পুষ্টিকর একটি খাবার।

৩. ঠাণ্ডা জায়গায় থাকলে সর্দি-কাশি বাড়ে, এটাও ভুল ধারণা। বরং হালকা ঠাণ্ডা আবহাওয়ায় যিনি থাকেন তিনি অন্যদের চেয়ে বেশি সুস্থ থাকেন। কারণ, হাড়কাঁপানো ঠাণ্ডা জায়গার বদলে হালকা ঠাণ্ডা জায়গায় থাকলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। আর অসুস্থ হয়ে ঘরে বসে থাকলে মানুষ আরও অসুস্থ হয়ে পড়ে। কারণ বদ্ধ জায়গায় জীবাণু বেশি ছড়ায়।

৪. সুস্থ থাকতে নিয়মিত মাল্টি ভিটামিন খেতে হবে এমন ধারণা ঠিক নয়। সঠিক খাদ্যতালিকা বিশেষ করে সবজি, ফল, দানা শস্য বেশি করে খেলে এমনিতেই মাল্টি ভিটামিন পাওয়া যায়। এর জন্য আলাদা ওষুধ খেতে হবে না।

৫. আমরা জানি, সবুজ বা হলদে কফ মানেই জীবাণুর সংক্রমণ। অনেক সময় সাইনাস হলে বা সাধারণ সর্দি-কাশিতেও কফ হলুদ বা সবুজ হয়ে যেতে পারে।

৬. অনেকেই টয়েলেট সিট নোংরা দেখলেই কুকুড়ে যান। কিন্তু অনেকেই হয়তো জানে না, বাথরুমের দরজা, দরজার হাতল আর মেঝেতে টয়লেট সিটের চেয়ে বেশি জীবাণু থাকে।জীবাণুমুক্ত থাকতে বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে হ্যাণ্ডওয়াশ ব্যবহার করুন।

সূত্র : এনডিটিভি

6
Faculty Sections / Systemic lupus erythematosus
« on: June 27, 2019, 11:46:08 AM »
Systemic lupus erythematosus (SLE) is an autoimmune disease. In this disease, the immune system of the body mistakenly attacks healthy tissue. It can affect the skin, joints, kidneys, brain, and other organs.
Causes

The cause of SLE is not clearly known. It may be linked to the following factors:

    Genetic
    Environmental
    Hormonal
    Certain medicines

SLE is more common in women than men. It may occur at any age. However, it appears most often in people between the ages of 15 and 44. The disease affects African Americans and Asians more than people from other races.

7
বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কমবেশি সবারই স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে। বিশেষ করে কারও যদি পরিবার-পরিজন, ঘনিষ্ঠ আত্মীয়-স্বজনদের মধ্যে কারও স্ট্রোক হয়ে থাকে, তাহলে এই সম্ভাবনা আরও বেড়ে যায়।
বিশেষজ্ঞদের মতে, যেসব কারণে স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে সে সম্পর্কে যদি আগে থেকে জানা যায় তাহলে প্রতিরোধ করা সহজ হবে। স্ট্রোক এড়াতে যে বিষয়গুলো মেনে চলা জরুরি-

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখুন: উচ্চ রক্তচাপ থাকলে এখনই সাবধান হন। সঠিক সময়ে রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে না রাখলে স্ট্রোকের আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়।

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের জন্য খাবারে কম পরিমাণে লবণ ব্যবহার করা উচিত। সেই সঙ্গে উচ্চ কোলেস্টরল যুক্ত খাবার যেমন -বার্গার, চিজ এবং আইসক্রিম ইত্যাদি বর্জন করুন। এছাড়া প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করুন। সেই সঙ্গে নিয়মিত খাদ্যতালিকায় ফলমূল ও শাকসবজি রাখুন। দিনে অন্তত ৩০ মিনিট ব্যায়াম করুন, ধূমপান বর্জন করুন।

ওজন কমান: স্থূলতা শুধু অসময়ে স্ট্রোক নয়, বিভিন্ন ধরণের অসুখ-বিসুখও তৈরি করে। এ কারণে ওজন বেশি থাকলে অবশ্যই বাড়তি মেদ ঝরিয়ে ফেলুন। এতে স্ট্রোকের ঝুঁকি কমে যাবে।

বেশি করে শরীর-চর্চা করুন: নিয়মিত শরীর-চর্চা এবং ব্যায়াম করলে ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে। রক্তচাপও নিয়ন্ত্রণে থাকে। আর স্ট্রোক হওয়ার আশঙ্কাও অনেকাংশে হ্রাস পায়।অল্প সময়ের জন্য হলেও সপ্তাহে অন্তত পাঁচ দিন শরীর-চর্চা করুন।

অ্যালকোহল এড়িয়ে চলুন : ধূমপানের মতো অতিরিক্ত অ্যালকোহল পানের কারণেও স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে।

আর্টারিয়াল ফাইব্রিলেশন: হৃৎপিণ্ড যদি অনিয়মিত গতিতে হয়, হৃৎপিণ্ডে ক্লট তৈরি হতে পারে। এই ক্লট মস্তিষ্কে পৌঁছে গেলে, স্ট্রোক ডেকে আনে। এক্ষেত্রে সতর্ক হওয়া অত্যন্ত জরুরি। কারও যদি অল্পতেই বুক ধড়ফড় করে বা শ্বাসকষ্ট হয় তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখুন : ডায়াবেটিস থাকলে সতর্ক থাকুন। নিয়মিত চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী রক্তের শর্করা পরীক্ষা করুন। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজন ওষুধ খান, খাদ্যতালিকার দিকে নজর দিন।

ধূমপান বন্ধ করুন: একাধিকভাবে ধূমপান শরীরের ক্ষতি করে। এতে রক্ত গাঢ় হয়ে যায়, যার ফলে ধমনীতে প্লাক বিল্ড—আপ বেড়ে যায়, যা শরীরের পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকর। এ কারণে ধুমপান পরিহারে নজর দিন।

সাধারণত স্ট্রোক হলে কিছু লক্ষণ দেখা দেয়। যেমন-

১. শরীরের এক অংশ হঠাৎ দুর্বল হয়ে পড়ে

২. মুখ অসাড় হয়ে যায়

৩. অস্বাভাবিক এবং প্রচণ্ড মাথাব্যথা হয়

৪. দৃষ্টি ক্ষীণ হয়ে আসে

৫. দেহের অঙ্গ—প্রত্যঙ্গ অসাড় হয়ে যায়, কথা জড়িয়ে যায়

৬ .হাঁটার প্রকৃতি বদলে যায়।

শরীরে এসবে লক্ষণের কোনটি দেখা দিলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন

সূত্রঃ সমকাল

8
তীব্র গরম আবার হুটহাট বৃষ্টি। কখনো গরমে অস্থির আবার কখনো বৃষ্টির কারণে গায়ে কাঁথা জড়িয়ে ঘুম। এদিকে ঘরে কিংবা অফিসে এসিতে থাকা আর বাইরে বের হলেই রোদের চোখ রাঙানি। সব মিলিয়ে গরম আর ঠান্ডায় নাজেহাল হচ্ছেন সবাই। এই সময়টা ঠান্ডা-সর্দি-কাশির খুব প্রিয়। কারণ তারা এই সময়টাতেই আসন গেড়ে বসতে পারে আমাদের শরীরে। খুসখুসে কাশি কিংবা ঘুসঘুসে জ্বর তাড়াতে চাইলে এই উপায়গুলো মেনে চলুন-

আদা
গরম পানিতে ইঞ্চিখানেক আদার টুকরা ফুটিয়ে নিন মিনিট দশেকের জন্য। আদাযুক্ত পানি জুড়াতে সময় দিন। হালকা গরম থাকা অবস্থায় আর লেবুর রস মিশিয়ে মিশ্রণটুকু খেয়ে নিন। দিনে বার তিনেক খেতে পারেন এই মিশ্রণ।

মধু
ঠান্ডা লাগা বা কাশি সারাতে মধু বেশ কার্যকর। রাতে শোওয়ার আগে মধু খেয়ে নিলে কাশির সমস্যা দূর হবে। দুধের সঙ্গে মধু মিশিয়েও খাওয়া যায়।

লবণ-পানি
এক গ্লাস হালকা গরম পানিতে আধা চা চামচ লবণ মিশিয়ে এই মিশ্রণটি দিয়ে গার্গল করুন। লবণ ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করতে সাহায্য করে। সেইসঙ্গে ফোলাভাব কমায় আর গলা পরিষ্কার রাখে। প্রতিদিন তিনঘণ্টা পরপর এই মিশ্রণ ব্যবহার করে দেখুন।

আপেল সাইডার ভিনিগার
গলার মিউকাস ভাঙতে এবং তা ব্যাকটেরিয়ামুক্ত রাখতে আপেল সাইডার ভিনিগার দারুণ কার্যকর। গলা ধরে যাচ্ছে বুঝতে পারলেই এককাপ পানিতে এক বা দুই চাচামচ অ্যাপেল সাইডার ভিনিগার মিশিয়ে গার্গল করুন, অল্প অল্প করে খেতেও পারেন। তবে এই মিশ্রণের আগে ও পরে প্রচুর পানি পান করবেন।

স্টিম
স্টিম আপনার পোস্ট নেজাল ড্রিপিং কমায়, ফলে কাশিও কমতে বাধ্য। প্রতিদিন সকালে ও বিকালে স্টিম নিলেই পার্থক্যটা বুঝতে পারবেন।

9
Faculty Sections / Uber introduces Phone Anonymisation
« on: June 24, 2019, 06:02:50 PM »
Uber, the world’s largest on-demand ride-sharing company, introduced two-way Phone Anonymisation on 10 June, 2019. It is a new technology that will improve the way riders and drivers connect and communicate with each other.

With this, when a rider and driver contact each other regarding a trip, both phone numbers will be anonymised, ensuring neither can see the other user’s personal contact details.

Phone anonymisation is a safety precaution, ensuring that the privacy of both rider and driver partner is protected at all times. This is done by using a software to connect calls that anonymises both mobile phone numbers.

The feature complies with Uber’s Community Guidelines which promotes mutual respect between riders and driver-partners.

This is done by ensuring that personal contact details of riders and driver partners are protected during every trip so that there is never any unwanted post-trip contact.
Commenting on the launch, Zulquar Quazi Islam, Lead, Uber Bangladesh, said, “Riders and driver partners form the core of Uber’s business. The launch of Phone Anonymisation will ensure the privacy of both driver-partners and riders, and improve the way they communicate. This launch further strengthens Uber’s resolve to take steady steps in ensuring rider and driver safety.”
(collected).

10
Faculty Sections / NUTRITION VALUES OF DATES
« on: June 24, 2019, 05:59:36 PM »
The fruits of date palms pack quite the nutritional punch. At the same time, they contain an insignificant amount of fat and have no cholesterol. Dates boost your energy while pacifying your hunger, and your body benefits from their health-promoting nutrients. Dates are a good source of various vitamins and minerals. It’s also a good source of energy, sugar, and fibre. Essential minerals such as calcium, iron, phosphorus, sodium, potassium, magnesium, and zinc can be found in them. They also contain vitamins such as thiamine, riboflavin, niacin, folate, vitamin A, and vitamin K.

HEALTH BENEFITS

Here are just some of the reasons why you should be eating dates regularly:

• Did you know that dates are free from cholesterol, and contain very little fat? Including them, in small quantities, in your daily diet can help you keep a check on cholesterol level, and even assist in weight loss.

• Dates are a strong source of proteins that help us in staying fit, and keep our muscles strong.

• If you have a few dates every day, you won’t have to take vitamin supplements. Not only will it keep you healthy, but there will be a noticeable change in your energy level. So, it works really well as quick snacks.

• Dates are rich in selenium, manganese, copper, and magnesium, and all of these are required when it comes to keeping our bones healthy, and preventing conditions such as osteoporosis.

• Dates are loaded with potassium and sodium, which goes a long way to keeping your nervous system in order. Potassium helps to reduce cholesterol, and keeps the risk of a stroke in check.

• Apart from the fluorine that keeps your teeth healthy, dates also contain iron, which is highly recommended.

• If you soak a few dates in water and chew on them daily, your digestive system will function better. It’s recommended for those who have trouble with constipation.

• The vitamin C and D works on your skin’s elasticity and also keeps your skin smooth. If you suffer from skin problems, incorporating dates into your diet might help you in the long run. Dates also come with anti-aging benefits, and prevent the accumulation of melanin in your body.

• The sugar, proteins, and other vitamins in fruit helps in weight gain, especially when you need it.

11
মাংসের লিভার (যকৃৎ) বা মেটে আমাদের শরীরের জন্য খুবই উপকারী, এ কথা আমরা সকলেই জানি। কিন্তু মুরগির মাংসের মেটেও কি ততটাই উপকারী? জেনে নেওয়া যাক এ বিষয়ে পুষ্টিবিদদের মতামত।

১) মুরগির লিভারে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন, ক্যালশিয়াম, আয়রন, ফাইবার ছাড়াও আরও অনেক স্বাস্থ্যগুণে ভরপুর উপাদান।

২) মুরগির লিভার বা মেটেতে রয়েছে দস্তা বা জিঙ্ক যা জ্বর, সর্দি-কাশি, টনসিলাইটিস সৃষ্টিকারী জীবাণুর বিরুদ্ধে শরীরে প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তুলতে সাহায্য করে।
৩) মুরগির লিভারে রয়েছে ভিটামিন-এ এবং বি যা আমাদের দৃষ্টিশক্তি ও মস্তিষ্কের বিকাশে সহায়ক।

৪) মুরগির লিভারে রয়েছে কোলাজেন ওইলাস্টিন নামের একটি উপাদান যা আমাদের শরীরের শিরা-উপশিরায় রক্ত প্রবাহ সহজ ও স্বাভাবিক রাখতে সাহায্য করে।

৫) মুরগির লিভারে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আয়রন আর ফাইবার যা শরীর ও হৃদযন্ত্রের পক্ষে খুবই উপকারী।
৬) মুরগির লিভার বা মেটেতে রয়েছে সেলেনিয়াম নামের একটি জরুরি উপাদান যা কোলন ক্যানসারের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে। এই সেলেনিয়াম শ্বাসকষ্ট, হাঁপানি, ছোট-বড় সংক্রমণ, শরীরের গাঁটে গাঁটে ব্যথা, কৃমির সমস্যাকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে সক্ষম।

৭) শরীরের বিভিন্ন অপুষ্টিজনিত সমস্যা দূর করতে এবং দ্রুত ওজন বাড়াতে মুরগির লিভার বা মেটে অত্যন্ত কার্যকর!
এ ছাড়াও, ডায়বেটিসের মতো অসুখে আক্রান্তদের জন্য মুরগির লিভার বা মেটে খুবই উপকারী। পুষ্টিবিদদের মতে, মুরগির মাংসের তুলনায় মুরগির লিভারের পুষ্টিগুণ কোনও অংশে কম নয়। তবে একটা বিষয় অবশ্যই মাথায় রাখবেন, যাঁদের উচ্চ রক্তচাপ বা হার্টের সমস্যা রয়েছে, তাঁদের মুরগির মেটে না খাওয়াই ভাল। কারণ, মুরগির মেটে খেলে শরীরে কোলেস্টেরলের পরিমাণ বেড়ে যেতে পারে। ফলে বাড়বে উচ্চ রক্তচাপ বা হার্টের সমস্যা।

তথ্যসূত্র: দ্য গার্ডিয়ান।

12
প্রায় সবার বাড়িতেই টিকটিকির ‘অনুপ্রবেশ’ ঘটে। ঘরের আনাচে কানাচে, প্রায় সর্বত্র এদের অবাধ বিচরণ! আপাত দৃষ্টিতে এটিকে নিরীহ গোছের মনে হলেও টিকটিকি মারাত্মক বিষাক্ত। বাড়িকে টিকটিকি-মুক্ত করতে অনেকেই বাজারে উপলব্ধ একাধিক রাসায়নিক যুক্ত দামি স্প্রে ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু তা সত্ত্বেও বাড়ি থেকে টিকটিকির উপদ্রব চিরতরে বন্ধ করা যায় না। তাহলে কী করে টিকটিকি-মুক্ত করবেন আপনার বাড়ি? আসুন জেনে নেওয়া যাক বাড়ি টিকটিকি-মুক্ত করার অব্যর্থ কয়েকটি উপায়...

১) জানালার কোনায় কোনায় বা ঘরের ভেণ্টিলেটরে কয়েক কোয়া রসুন রেখে দিন। রসুনের গন্ধে টিকটিকি ধারে কাছেও ঘেঁষবে না।

২) গোলমরিচ বা শুকনো লঙ্কার গুঁড়ো ৩-৪ কাপ জলে ঘণ্টাখানেক ভিজিয়ে রাখুন। এর পর ওই গোলমরিচ বা শুকনো লঙ্কার গুঁড়ো মেশানো জল ঘরের কোনায় কোনায় স্প্রে করে দিন। টিকটিকি ওই এলাকা ছেড়ে পালাবে!

৩) ঘরের যেখানে টিকটিকির উপদ্রব বেশি, সেখানে ন্যাপথালিনের বল বা ন্যাপথালিন গুঁড়ো করে ছড়িয়ে দিন। ন্যাপথালিনের গন্ধে টিকটিকি পালাবে।

৪) ঘরের যে সমস্ত জায়গায় টিকটিকির উপদ্রব বেশি, সেখানে ডিমের খোসা রেখে দিন। ওই সমস্ত জায়গায় আর টিকটিকির দেখা মিলবে না।

৫) ঘরের যে সমস্ত জায়গায় টিকটিকির উপদ্রব বেশি, সেখানে ময়ূরের পালক রেখে দিলে টিকটিকি ধারে কাছেও ঘেঁষবে না।

৬) পেঁয়াজের গন্ধ টিকটিকি মোটেই সহ্য করতে পারে না। তাই কয়েক টুকরো পেঁয়াজ ঘরের যে সমস্ত জায়গায় টিকটিকির উপদ্রব বেশি, সেখানে রেখে দিন। টিকটিকি পালাবে।
৭) খানিকটা তামাকের সঙ্গে সামান্য কফি মিশিয়ে ছোটো ছোট গুলি বা বলের মতো তৈরি করে নিন। তারপর সেগুলিকে ঘরের আনাচে কানাচে রেখে দিন। দেখবেন টিকটিকির উপদ্রব কমে যাবে।

13
বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষুদ্র কম্পিউটার তৈরির দাবি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের গবেষকেরা। ‘মিশিগান মাইক্রো মোট’ নামের এ ডিভাইসটির আকার মাত্র দশমিক তিন মিলিমিটার। এটি ক্যানসার পর্যবেক্ষণ ও চিকিৎসায় নতুন সম্ভাবনার পথ খুলে দেবে বলে মনে করছেন গবেষকেরা।

দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের এক খবরে বলা হয়, এর আগে গবেষকেরা ২ বাই ২ বাই ৪ মিলিমিটার আকারের একটি ডিভাইস তৈরি করেছিলেন। তাতে বাইরে থেকে শক্তি জোগানো বন্ধ হলেও তা তথ্য ধরে রাখতে পারত। কিন্তু ক্ষুদ্রতম কম্পিউটারটির ক্ষেত্রে একবার চার্জ শেষ হলে তার আগের সব তথ্য মুছে যায়।

যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডেভিড ব্লাউ বলেন, একে কম্পিউটার বলা যাবে কি না তা আমরা নিশ্চিত নই। এটি মতামতের ওপর নির্ভর করে। কম্পিউটার হতে গেলে যে ফাংশন থাকার কথা, তা আছে কি না, সে বিষয়টি মতামতসাপেক্ষ। র‍্যাম ও ফটোভল্টাইকসসহ এ কম্পিউটিং ডিভাইসে প্রসেসর, তারহীন ট্রান্সমিটার ও রিসিভার রয়েছে। যেহেতু এতে প্রচলিত রেডিও অ্যানটেনা নেই এটি দৃশ্যমান আলোর সাহায্যে তথ্য আদান-প্রদান করে। একটি বেজ স্টেশন শক্তি ও প্রোগ্রামের জন্য আলো সরবরাহ করে এবং তথ্য গ্রহণ করে।
(collected)


ডেভিড ব্লাউ বলেন, সিস্টেম প্যাকেজিং স্বচ্ছ তৈরি করতে হয় বলে ‘মিশিগান মাইক্রো মোট’ তৈরির চ্যালেঞ্জ হলো এটি কীভাবে কম শক্তিতে চালানো যায়। এ সমস্যা দূর করতে নতুনভাবে সার্কিটের নকশা করতে হয়েছে।

নিখুঁত তাপমাত্রা পরিমাপক সেনসর হিসেবে এটি তৈরি করা হয়। নতুন এ ডিভাইসিট তাপমাত্রাকে ইলেকট্রনিক স্পন্দনে রূপান্তর করতে পারে। এ প্রক্রিয়ায় কোষের মধ্যে তাপমাত্রার ওঠানামা নিখুঁতভাবে নির্ণয় করতে পারে এ যন্ত্র।

ক্ষুদ্র এই মাইক্রো কম্পিউটার অন্যান্য কাজে লাগানোর কথা ভাবছেন গবেষকেরা।

14
Departments / Concerns over Google's Stadia
« on: March 31, 2019, 10:49:17 AM »
When it was announced that one would need a 25 Megabit connection to achieve lag-free 4K 60Fps gaming with the Stadia, the rest of the world (including Bangladesh) breathe a sigh of sadness. This led people to ask more questions further compounding on the initial concerns over Google's future cloud gaming service. And, so the concept which could ultimately change the landscape of gaming, has also left a lot of important things unanswered.

Firstly, this isn't the first time a major company's taken a crack at cloud gaming because that title goes to Nvidia's GeForce Now and PlayStation TV. But there were three big drawbacks – the necessity of a fast internet connection, the lack of games and the need for proprietary hardware.  Google, in their press briefing, touted the Stadia's server capabilities, showcasing how gamers wouldn't need any extra hardware and that they could stream their games from any device. And so the question then becomes whether or not publishers and developers are willing to back this idea.

We know for sure that Google has Ubisoft's blessing, seeing how they showcased the Stadia with Assassin's Creed Odyssey. Id Software are also on board since Doom Eternal is slated to launch on the platform. But the list runs pretty dry after that. No major developer has commented about the prospects of the Stadia yet and with a TBA 2019 launch date, Google needs to make their argument compelling.

Google's main focus is to take away the hassle of hardware, for both developers and manufacturers – take gaming to the clouds supposedly. The key goal being the urgency to become a singular platform. The problem is that this has been tried before, and it didn't work out then either. The Panasonic 3DO wanted to achieve something similar, but in 1994 no major game developer or publisher except for EA was on board with the idea. The idea was to make one single hardware and that game-makers would make games for that one piece of hardware; Panasonic would keep the profits from hardware, developers would keep software sales and publishers would collect their profits from distribution. But at the time, Sega and Nintendo had their own hardware, their own exclusives and there was a console war they were tending to, till Sony showed up and changed the status quo entirely.

And the situation is somewhat similar still, with Xbox and Sony competing with each other on a hardware level, buying out small studios, having different studios make exclusive games for them. And while Google will eventually make some leeway and get a couple of developers on board, they need to make a compelling case for the Stadia and those would be exclusives.

And so, despite the number of games the Stadia brings onto their supercomputer server, people will just prefer the reliability of owning the game and loading it from their console, as opposed to relying on Google's server. Lag, latency and performance aside; Google has to work out how to convince developers first only then will customers follow.
(copied)

15
Departments / IoT on the rise in local market
« on: March 31, 2019, 10:48:37 AM »
IoT or Internet of Things is the application of the internet and software technology in more traditional sects of our lives, such as, door locks, security cameras, LED lights, etc. And while, Google Home and Amazon Echo are the most famous IoT devices in the world, there are others being manufactured as well with some big local players involved in distributing and creating devices which can significantly change how we use the internet in our day to day lives.
We are seeing an increasing shift in terms of adoption of IoT devices. DataSoft, Grameenphone, and many other IT firms have stepped into the IoT production and development sector. And BTRC too have officially backed the usage of IoT devices, issuing a directive on April 24, 2018. The instructions published by BTRC states that it would be legal to import IoT devices and that they are all for the manufacturing, research and development of devices which can be used to build a smart city. This is why more and more institutions and businesses have been adopting smart-lock systems, Face ID and fingerprint scanners in their compounds. And this has also allowed for a lot more consumers to know about Google Home devices, such as, the Google Home Mini and other smart speakers, like the, Amazon Echo and Echo Dot. But more than anything, the implementation of these devices have helped to motivate companies like DataSoft which are not only making products for the local market but extending their influence in foreign territories as well. In late 2017, DataSoft signed an agreement with Japanese company Smart Life to develop and implement smart-home technology in 10,000 homes in Tokyo. The company are also installing IoT-based toll management systems for the Democratic Republic of Congo (DRC) and its Matadi Bridge. And to mitigate the water supply shortage facing the people of Mecca, Saudi Arabia, DataSoft have developed an IoT device with the device shipping from July 31, 2018. All of this has made DataSoft a well-known name in the rest of the world and with a production plant located in Gazipur, the company aims to make IoT devices for both local and foreign consumers. DataSoft stated that they are currently working on four IoT devices which would send alerts to the user's smartphone in the case of a gas and water leakages, smoke and intrusion in the house. These devices will be available from next month and users will have to pay Tk. 7,999/- for the first year and Tk. 2,999/- onwards from the next year.

Grameenphone are another major player in terms of the development of IoT services. The telco provides its own Smart Home, Smart Security and Smart Attendance services alongside the Vehicle Tracking Service. Grameenphone also introduced the country's first IoT-based digital livestock management solution Digi Cow for livestock farmers on December 7, 2018. And it's not just with their own products, Grameenphone also works in conjunction with other IoT development companies. BanglaTrac are currently developing IoT solutions for vehicles and Grameenphone is marketing the device. Chinese company Hexing are also working with Grameenphone in demonstrating its own NB-IoT enabled Gas meter and NB-IoT enabled Smart Prepayment Energy Meter. Hexing are well-known in China for their work with electricity meters. On October 21, 2018, they signed a joint-venture deal with the state-owned West Zone Power Distribution Company (WZPDCL) to create the company "Bangladesh Smart Electrical Company Limited".

There are also many up and coming companies working with developing IoT devices, with one such company being Inovace Technologies. The company has developed a device which will send automated alerts to guardians regarding their children's attendance in school. The company also helped Grameenphone in developing its Smart Attendance device and its own fingerprint attendance service called “TipSoi 21”.

And Grameenphone aren't the only telco to take part in IoT initiatives. Robi launched their own Smart Homeand Smart Attendance systems. They also launched Industrial IoT services which focuses on modernizing construction. In August 2017, Robi signed an agreement with Sri Lankan start-up nCinga to create an IoT solution focused on helping the RMG industries of Bangladesh. Banglalink have their own Vehicle Tracking Service and the Watchmaniss Security Service, a security service for corporates.
Alongside these developments, there are also retail stores which are importing smart locks and security cameras from China. But there's still a lot of confusion amongst consumers as to how these IoT devices operate, a lot of them finding the prices of these products off-putting. And so the key ingredient for long-lasting development and growth of the IoT development sector is to make sure consumers understand these devices. And a lot of corporations, with its implementation of smart-locks in the office are bringing the use-case of these devices to an employee level.

There are also ongoing attempts to train employees for the IoT sector and institutions like BRAC University, Grameenphone in collaboration with IEEE, Datasoft, Bangladesh Skill Development Institute, Global Skills Development Agency are already providing such training and solving the issues with existing knowledge gaps regarding this newly emergent sector.
(copied)

Pages: [1] 2 3 ... 5