টবে ধনেপাতার চাষ

Author Topic: টবে ধনেপাতার চাষ  (Read 960 times)

Offline Sultan Mahmud Sujon

  • Administrator
  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 2601
  • Sultan Mahmud Sujon,Admin Officer
    • View Profile
    • Higher Education
টবে ধনেপাতার চাষ
« on: January 09, 2013, 09:23:12 AM »


শীতকাল-হল নানা রকম সবজিসহ সালাদ-শস্য চাষের মৌসুম। শীতকালীন সালাদ-শস্যের মধ্যে ধনেপাতা অন্যতম। এর ইংরেজী নাম Parsley। বিভিন্ন তরকারি, চটপটি সুস্বাদু করতে ধনেপাতার ব্যবহার অনেক আগে থেকেই বহুল প্রচলিত। যারা শহরে থাকেন তাদের জন্য সুসংবাদ হল শীতকালীন সালাদ-শস্য ধনেপাতা চাষ করতে পারেন টবে করে বাসার ছাদে অথবা বারান্দায়।

ধনেপাত: ধনেপাতার খাদ্যমান অনেক বেশি। এতে ক্যালসিয়াম, লৌহ ও ক্যারোটিন থাকে প্রচুর পরিমাণে। টবে ধনেপাতার চাষ করার সুবিধে হচ্ছে, মৌসুমে কয়েকবার খেয়ে আবার চাষ করা যায়।

চাষের সময়: আশ্বিন থেকে পৌষ (সেপ্টেম্বর থেকে ডিসেম্বর)

বীজ বপন: ধনের বীজ ২৪ ঘন্টা ন্যাকড়ায় জড়িয়ে ভিজিয়ে রাখলে তাড়াতাড়ি গজাবে। ধনের জন্য চওড়া মুখ বিশিষ্ট টব নির্বাচন করতে হবে। ৩ থেকে ৪ সেন্টিমিটার গভীরে বীজ বুনে আবার মাটি দিয়ে ঢেকে সেচ দিতে হবে। মাটি ভেজা থাকলে জল দেওয়ার দরকার নেই।

পরবর্তী পরিচর্যা: মাটিতে রস না থাকলে ২/১ দিন পর পর পানি সেচ দিতে হবে। পাখি যাতে পাতা না খায় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। বীজ বোনার পর পিঁপড়া যাতে খেয়ে ফেলতে না পারে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। পিঁপড়া লাগলে পাইরিফস বা পাইরিবান অথবা সেভিন ডাস্ট ছিটিয়ে পিঁপড়া দমন করতে হবে।

পাতা তোলা: গাছ খুব ঘন হলে তা তুলে পাতলা করে দিতে হবে। গাছ বেশি বড় হওয়ার আগে তুলে খেতে হবে।
ধনে উৎপাদন প্রযুক্তি

ধনিয়ার চাষ সব রকমের মাটিতে করা যায়। তবে বেলে দোঁআশ থেকে এঁটেল দোঁআশ মাটি ধনিয়া চাষের জন্য উপযোগী। ধনে আবাদের জন্য পানি নিষ্কাশনের সুবিধা থাকতে হবে।
বপনের সময় : সেপ্টেম্বর মাস।

জমি তৈরি : মাটিও জমির প্রকার ভেদে ৪-৬টি চাষ ও মই দিতে হয়।

বীজ বপন : বীজ বোনার আগে পানিতে ২৪ ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখতে হবে। বীজ ছিটিয়ে বুনলে হেক্টর প্রতি দ্বিগুণ বীজ ব্যবহার করতে হবে। ধনে অন্য কোনো ফসলের সঙ্গে মিশ্র ফসল হিসেবে সারি পদ্ধতিতে বপনের জন্য ৪-৫ কেজি বীজের প্রয়োজন হয়।

সারের পরিমাণ ও প্রয়োগ পদ্ধতি : ধনে চাষের জন্য মাঝারি উর্বর মাটিতে হেক্টর প্রতি ১৫০-৩০০ কেজি ইউরিয়া, ১০০-২০০ কেজি টিএসপি, ৮০-১০০ কেজি এমপি এবং ৭-১০ টন গোবর সার প্রয়োগ করা প্রয়োজন। জমি তৈরির সময় অর্ধেক গোবর, সমুদয় টিএসপি ও অর্ধেক এমপি সার প্রয়োগ করতে হবে। বাকি অর্ধেক গোবর চারা রোপণের এক সপ্তাহ আগে মাদায় দিয়ে মিশিয়ে রাখতে হবে। এরপর চারা রোপণ করে সেচ দিতে হয়। ইউরিয়া এবং বাকি অর্ধেক এমপি সার ৩ কিস্তিতে প্রয়োগ করতে হবে। চারা লাগানোর ৮৮-১০ দিন পর প্রথম কিস্তিতে এবং চারা লাগানোর ৩০-৩৫ দিন পর বাকি সার উপরি প্রয়োগ করতে হবে।

অন্তর্বর্তীকালীন পরিচর্যা : পাতা ফসলের ক্ষেত্রে চারা গজানোর ১০-১৫ দিন পর প্রতি সারিতে ৫ সেন্টিমিটার পর পর একটি চারা রেখে অন্যগুলো তুলতে হবে। বীজ ফসলের ক্ষেত্রে প্রতি ১০ সেন্টিমিটার পর পর একটি চারা রাখতে হবে। নিড়ানি দিয়ে আগাছা পরিষ্কার এবং মাটি ঝুরঝুরে করে দিতে হবে। প্রতিবার সেচের পর পর জমির ‘জো’ আসা মাত্র মাটির চটা ভেঙে দিলে গাছের শিকড় প্রচুর পরিমাণে আলো বাতাস পাবে, ফলে গাছের বৃদ্ধি সহজ ত্বরান্বিত হবে। ধনে গাছে জমির পানি জলাবদ্ধতা সহ্য করতে পারে না। তাই জমাকৃত অতিরিক্ত সেচের পানি বা বৃষ্টির পানি ২-১ ঘণ্টা মধ্যেই নিকাশের ব্যবস্থা করতে হবে।
এগ্রোবাংলা ডটকম