প্রথমেই দরকার মানসিক রোগ নির্ণয়

Author Topic: প্রথমেই দরকার মানসিক রোগ নির্ণয়  (Read 2528 times)

Offline imam.hasan

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 246
    • View Profile
রাজধানী ঢাকা থেকে বাংলানিউজের একজন পাঠক জানিয়েছেন তার মানসিক সমস্যার কথা। ৩১ বছর বয়সী এই পাঠক তার বোনের বাড়িতে থাকেন। তার গ্রামের বাড়ি চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জে।

আপনার সমস্যা
“আমি ১০ মাস আগে বিবাহ করিয়াছি। আমি একটি এনজিওতে কম্পিটার অপারেটর পদে চাকুরি করিতেছি দীর্ঘ প্রায় ১০ বৎসর যাবৎ। আমি ছোট বেলা হইতে সব সময় যে কোন বিষয়ের উপর অবাস্তব সন্দেহ, ভয় ও বিষন্নতায় ভুগি এবং মাঝে মাঝে আমার ঘুমও ঠিক মত হইতেছে না। আমার গুরুত্বপূর্ণ কোনো কাজ থাকলে দুই দিন আগ থেকে টেনশনে থাকি, আমার যদি ঘুম না হয় তাহলে আমি কাজটিতে অংশগ্রহণ করিতে পারিব না ফলে আমার ক্ষতি হইতে পারে। রাত্রে বিছানায় শোয়ার পর ঘুম আসতে দেরি হইলে আমার ভয় ও অস্থির লাগে। আমি তিন বার মানসিক ডাক্তারের শরণাপন্ন হই। বর্তমানে আমি রিভোট্রিল ২ মি. গ্রাম, রিজডন ১ মি. গ্রাম, রিলাফিন ৫০ মি. গ্রাম, ইনডেভার ১০ মি. গ্রাম এবং জেপটল ২০০ সি আর সেবন করিয়া আসিতেছি। কিন্তু তেমন কোন ভাল ফল পাইতেছি না বিধায় আপনাদের মাধ্যমে ভালো কোনো মানসিক ডাক্তারের পরামর্শ চাইতেছি। পরামর্শ দিলে আপনাদের নিকট কৃতজ্ঞ থাকিব।”

আমাদের সমাধান
উত্তর: আপনার সমস্যা যে অনেক দিনের তা বোঝা গেলো। এটাও বোঝা গেলো সমস্যা মুক্ত হওয়ার ইচ্ছা এবং চেষ্টা দু’টিই আপনার আছে। কিন্তু একটি বিষয় মনে রাখতে হবে, এসব সমস্যার ক্ষেত্রে একবার দু’বার ডাক্তারের কাছে যাওয়া যথেষ্ট নাও হতে পারে। আপনার লেখা পড়ে মনে হচ্ছে আপনাকে বেশ কয়েক দিনই ডাক্তারের কাছে দেখা করতে হবে। আপনি যেসব ওষুধের কথা লিখেছেন, এতো ওষুধ আপনার দরকার নাও লাগতে পারে। আপনার চিকিৎসার জন্য প্রথমেই দরকার আপনার মানসিক রোগটি কি, তা নির্ণয় করা।

অনেকেই মনে করেন, মানসিক রোগের আবার প্রকার কি? বিষয়টি ঠিক না, মানসিক রোগও অনেক। প্রত্যেকটির আলাদা আলাদা বৈশিষ্ট্য। যাই হোক, আপনার রোগটির নির্ণয়ের পর আপনার চিকিৎসার চূড়ান্ত পরিকল্পনা করা যাবে। তবে আপাতত মনে হচ্ছে, ওষুধের পাশাপাশি আপনাকে সাইকোথেরাপিও নিতে হবে। যেহেতু আপনি ঢাকায় থাকেন, আপনার জন্য পরামর্শ থাকবে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোরোগবিদ্যা বিভাগে যোগাযোগ করার জন্য। ঠিক মতো চিকিৎসা করালে আপনার সমস্যা ঠিক হয়ে যাবে আশা করছি।

আপাতত আপনি যা করতে পারেন
-ট্যাবলেট- আরপোলাক্স ২০মি গ্রা. (সিটালোপ্রাম) সকালে একটা নাস্তার পর খেতে পারেন। -ট্যাবলেট- ইনডেভার ১০মি গ্রা. (প্রোপনলল) সকালে একটা, রাতে একটা এবং -ট্যাবলেট- রিভোট্রিল ০.৫ মিগ্রা. (ক্লোনাজিপাম) সকালে অর্ধেক ও রাতে একটা খেতে পারেন।