গোপনে পারমাণবিক শহর গড়ছে ভারত

Author Topic: গোপনে পারমাণবিক শহর গড়ছে ভারত  (Read 1132 times)

Offline Md. Zakaria Khan

  • Sr. Member
  • ****
  • Posts: 329
  • active
    • View Profile
গোপনে পারমাণবিক শহর গড়ছে ভারত

ভারত অত্যন্ত গোপনীয়ভাবে পারমাণবিক শহর গড়ছে । দক্ষিণ এশিয়ার ‘সর্ববৃহৎ পরমাণু সমৃদ্ধ’ শহরটির নির্মাণ কাজ শেষ হবে ২০১৭ সালে । এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে যুক্তরাষ্ট্রের ফরেন পলিসি বিষয়ক একটি প্রখ্যাত ম্যাগাজিন। খবর পিটিআইয়ের। ফরেন পলিসি জার্নালে বলা হয়েছে, কর্নাটকের চল্লেকেরে এলাকায় শহরটি নির্মাণের কাজ চলছে। পাকিস্তান ও চীনের সক্ষমতার বিষয়টি মাথায় রেখে নিজেদের পারমাণবিক শক্তি আরও বাড়াতে প্রকল্পটি বাস্তবায়িত করছে ভারত। ফরেন পলিসিকে ভারতীয় এক অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা ও বিশেষজ্ঞ বলেন, এই প্রকল্পের ফলে ভারতে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের পরিমাণ আরও বারবে। যা থেকে নতুন করে আরও হাইড্রোজেন বোমা তৈরি করা যাবে। এগুলো উচ্চ পর্যায়ের থার্মোনিউক্লিয়ার অস্ত্রে ব্যবহৃত হবে। প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, শহরটিতে দক্ষিণ এশিয়ার সর্ববৃহৎ সেনাচালিত পরমাণু সেন্ট্রিফিউজ ভবন থাকবে। এ ছাড়া পরমাণু গবেষণাগার, অস্ত্র ও বিমান পরীক্ষা চলানোর সুবিধা থাকবে। অনুসন্ধানী প্রতিবেদনটিতে ভারতের বেশ কয়েকজন অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তার বরাত ও বর্তমানে চাকরিরতদের সূত্রের উদ্ধৃতি দেয়া হয়েছে। তবে এ ব্যাপারে ভারত বা যুক্তরাষ্ট্র সরকারের কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি। এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে বলা হয়, তারা মাইসোরের প্রকল্পগুলোর দিকে নজর রাখছে এবং চল্লেকেরের অগ্রগতির দিকেও নজর রাখা হচ্ছে। চল্লেকেরে মাইসোর থেকে ২৬০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। সম্প্রতি স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিস রিসার্চ ইনস্টিটিউট (এসআইপিআরআই) জানায়, ভারতের কাছে অন্তত ৯০ থেকে ১১০টি পারমাণবিক অস্ত্রের মজুদ রয়েছে। অপরদিকে পাকিস্তানের ১২০ ও চীনের ২৬০টি পারমাণবিক অস্ত্র রয়েছে। - See more at: http://amarbangladesh-online.com/

Offline Md. Zakaria Khan

  • Sr. Member
  • ****
  • Posts: 329
  • active
    • View Profile
ইন্টারনেট গ্রাহক কমেছে, বেড়েছে মুঠোফোন গ্রাহক

র্ষ নিউজ ডেস্ক: চলতি বছরের নভেম্বরে দেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা সাত লাখ কমে গেছে। ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলো বন্ধ থাকার কারণেই এ সময়ে ইন্টারনেট ব্যবহারকারী কমেছে বলে টেলিযোগাযোগ খাত সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন। ইন্টারনেট ব্যবহারকারী কমলেও এ সময়ে মুঠোফোন ব্যবহারকারী ১২ লাখ বেড়েছে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, নভেম্বরে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৫ কোটি ৩৯ লাখ হয়েছে। গত অক্টোবরে এ সংখ্যা ছিল ৫ কোটি ৪৬ লাখ।

জাতীয় নিরাপত্তার কারণে গত ১৮ নভেম্বর ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বন্ধ করে দেয়া হয়। ইন্টারন্যাশনাল ইন্টারনেট গেটওয়ে (আইআইজি) প্রতিষ্ঠানগুলোর হিসাব অনুযায়ী, ফেসবুক বন্ধ হওয়ার আগের দিন অর্থাৎ ১৭ নভেম্বর পর্যন্ত দেশে ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথ ব্যবহারের পরিমাণ ছিল ২৩০-২৪০ জিবিপিএস (গিগা বিট প্রতি সেকেন্ড)। এসব মাধ্যম বন্ধ হওয়ার এক সপ্তাহের মধ্যে তা ৩০ শতাংশ কমে ১৭০ জিবিপিএসে নেমে যায়। গত ১৪ ডিসেম্বর এগুলো খুলে দেয়ার পর ব্যান্ডউইথ ব্যবহার আগের পর্যায়ে ফিরে এসেছে।

আইআইজি প্রতিষ্ঠান ফাইবার অ্যাট হোমের চিফ স্ট্রাটেজি অফিসার সুমন আহমেদ সাবির বলেন, ‘ফেসবুক ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো বন্ধ থাকাই ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর কমে যাওয়ার মূল কারণ।’

মোবাইল ইন্টারনেটের ব্যবহারকারীও গত এক মাসে ৫ কোটি ২৩ লাখ থেকে ৯ লাখ কমে ৫ কোটি ১৪ লাখ হয়েছে। মোবাইল অপারেটররাও ইন্টারনেট ব্যবহারকারী কমে যাওয়ার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বন্ধ থাকার বিষয়টিকেই সামনে এনেছেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক মুঠোফোন অপারেটরের শীর্ষ কর্মকর্তা জানান, ফেসবুক, ভাইবার বন্ধ থাকায় নভেম্বরে তাদের নেটওয়ার্কে ইন্টারনেটের ব্যবহার ৩০ শতাংশ কমে যায়।

মুঠোফোন ব্যবহারকারী: নভেম্বরে মুঠোফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৩ কোটি ৩১ লাখ, আগের মাসে যা ছিল ১৩ কোটি ১৯ লাখ। এ সময়ে গ্রামীণফোনের গ্রাহক ৫ কোটি ৫৮ লাখ থেকে ৬ লাখ বেড়ে ৫ কোটি ৬৪ হয়েছে। বাংলালিংকের গ্রাহক ৪ লাখ বেড়ে ৩ কোটি ২৫ লাখ থেকে ৩ কোটি ২৯ লাখ হয়েছে। রবির গ্রাহক ৮ হাজার বেড়ে হয়েছে ২ কোটি ৮২ লাখ ৯৬ হাজার। এয়ারটেলের গ্রাহক অক্টোবরের তুলনায় নভেম্বরে ৪ লাখ বেড়ে ১ কোটি ৩ লাখ ৪৫ হাজার হয়েছে।

তবে গ্রাহক কমেছে টেলিটক ও সিটিসেলের। টেলিটকের গ্রাহক নভেম্বরে আগের মাসের তুলনায় ৮৪ হাজার কমে ৪০ লাখ ৫৭ হাজার হয়েছে। এ সময়ে সিটিসেলের গ্রাহক ১০ লাখ ৮৯ হাজার থেকে কমে ১০ লাখ ৩৪ হাজার হয়েছে।

- See more at: http://www.sheershanewsbd.com/2015/12/22/109104#sthash.v26alqSz.dpuf