ফুকেট এবং ফি ফি আইল্যান্ড

Author Topic: ফুকেট এবং ফি ফি আইল্যান্ড  (Read 1279 times)

Offline Shakil Ahmad

  • Sr. Member
  • ****
  • Posts: 374
  • Test
    • View Profile
ফুকেট এবং ফি ফি আইল্যান্ড

ফুকেট কিভাবে যাবেনঃ

ব্যাংকক থেকে ফুকেট যেতে দুটি উপায় আছে, বাস এবং বিমান। বাসে যেতে প্রায় ১৩-১৪ ঘণ্টা লাগে। বাস ভাড়া ৬০০-৯০০ বাথ, মানে বাংলা টাকায় প্রায় ১৫০০-২২০০ টাকা। তার মানে যাওয়া আসা মিলে প্রায় ৩০০০-৪০০০ টাকা!! আর বিমানে গেলে ১ ঘণ্টা ১০ মিনিট। মাস খানেক আগে প্ল্যান করলে এয়ার এশিয়াতে রিটার্ন টিকেট পাবেন ৪০০০ টাকায়! আমরা ১৫ দিন আগে টিকেট করেছিলাম রিটার্ন ৭০০০ টাকা তাও বড়দিনের বন্ধের সময়টাতে। তুলনামূলক ভাবে বিচার করলে বিমানে যাওয়া উচিৎ।

ফুকেটে কোথায় থাকবেনঃ

ফুকেটে থাকার জন্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় জায়গা হল পাতং বিচ এরিয়া। ফুকেট এয়ারপোর্টে নেমে পাতং বিচ এরিয়ার জন্যে মাইক্রোবাস/কার ভাড়া করবেন। ১০জনের মাইক্রোবাস ভাড়া নিবে ১৪০০ বাথ। এয়ারপোর্ট থেকে পাতং আসতে প্রায় ৪০ মিনিট সময় লাগে। পাতং এরিয়াতে অনেক হোটেল আছে। আমাদের কক্সবাজারের মত। বুকিং.কম থেকে চাইলে আগেই রুম বুক করতে পারেন। পাতং স্টুডিউ এপার্টমেন্ট এ ছিলাম আমরা। খুবই ভালো থাকার ব্যবস্থা। একটা বেডরুম আর একটা লিভিং রুমের ফ্ল্যাটে ৬-৮ জন থাকা যায়। ভাড়া মাত্র ১৫০০ বাথ!!

ফি ফি আইল্যান্ডে কিভাবে যাবেনঃ

ফুকেট এয়ারপোর্ট থেকে পাতং আসার পথে আপনার মাইক্রোবাস/কার ড্রাইভার অবশ্যই মাঝ পথে কিছু ট্রাভেল এজেন্সির অফিসের সামনে দাঁড়াবে। এটা ওদের বিজনেস। ট্রাভেল এজেন্সি গুলো বিভিন্ন রকম প্যাকেজ দেয় ফি ফি, ক্রাবি, জেমস বন্ড আইল্যান্ডের জন্যে। তবে দরদাম করতে হয় অনেক। আমরা ১১ জন ফি ফি আইল্যান্ডের প্যাকেজ নিয়েছিলাম ১০,০০০ বাথ দিয়ে। এর মধ্যে হোটেল থেকে গাড়িতে করে পোর্ট এ নিয়ে যাওয়া, শিপে করে ফি ফি আইল্যান্ডে যাওয়া, ফি ফি তে দুপুরের খাবার, ১ ঘণ্টা স্নোরকেলিং করা, পরদিন শিপে করে ফুকেট ফিরে আসা ও পোর্ট থেকে এয়ারপোর্ট ড্রপ করা অন্তর্ভুক্ত ছিল। ১৫০০০ বাথ চেয়েছিল, সেখান থেকে দরদাম করে ১০০০০ এ আনা হয়েছিল।

মনে রাখবেন ট্রাভেল এজেন্সি গুলো আপনাকে চাপাচাপি করবে ওদের ডে প্যাকেজ গুলো নেয়ার জন্যে। এতে ওদের খরচ কম পরে। আমরা আগে থেকেই নিয়ত করে গিয়েছিলাম রাতে ফি ফি তে থাকবো তাই ওইভাবে দরদাম করেছিলাম।

ফি ফি আইল্যান্ডে কোথায় থাকবেনঃ

আগেই বলেছি ট্রাভেল এজেন্সি গুলো আপনাকে চাপাচাপি করবে ওদের ডে প্যাকেজ গুলো নেয়ার জন্যে। তাই দেখা যায় অনেকেই দিনে গিয়ে দিনে চলে আসে। ফি ফি তে থাকার অনেক হোটেল আছে এবং মোটামুটি খালিই থাকে। আগে থেকে ঠিক না করে গেলেও সমস্যা নাই। আমদেরও আগে থেকে ঠিক করা ছিলনা। ওইখানে গিয়ে ঠিক করেছিলাম। ৩ জন থাকা যায় এইরকম রুমের ভাড়া ছিল ১০০০ বাথ। ছোট দ্বীপ, হোটেল টাও ছিল বিচের একদম কাছে।

হাতে সময় থাকলে অবশ্যই ফি ফি তে থাকা উচিৎ। ফি ফি থেকে আপনি চাইলে ক্রাবি, কো সামুই, কো তাও ঘুরে আসতে পারেন। আর কাছাকাছি আছে মায়া বে, মাংকি আইল্যান্ড ইত্যাদি। রাতে বিচের পাড়ে বার গুলোতে ড্যান্স পার্টি হয়, সবার জন্যে ওপেন, মজা পাবেন বন্ধুরা সহ গেলে।

বিশেষ সতর্কতাঃ

১। এয়ার এশিয়ার বিমান গুলো যেহেতু বাজেট এয়ার তাই কেবিন ব্যাগেজ ছাড়া চেক ইন ব্যাগ নিতে হলে অতিরিক্ত চার্জ দিতে হয়।
২। এয়ার এশিয়ার বিমানে ফ্রি তে পানিও দিবেনা!! যা খাবেন কিনে খেতে হবে!

তবে খুশির খবর এটাই টয়লেটে যেতে টাকা দিতে হবেনা!
এয়ার হোস্টেসকে জিজ্ঞেশ করসিলাম

৩। পাতং বা ফি ফি তে গিয়ে ক্যামেরা সাবধান ভাই!! কি তুলতে গিয়ে কি তুলে ফেলেন ঠিক নাই, পরে নিজেই লজ্জা পেয়ে যাবেন
আর নতুন বিবাহিত ভাইরাতো একদম সাবধান!!


কিছুটা টাকা খরচ হলেও থাইল্যান্ড গেলে ফুকেট এবং ফি ফি তে ঘুরে আসুন। অনেক ভালো লাগার মতো জায়গা।