Agricultural commodities, sugar and fertilizer use jute bags mandatory

Author Topic: Agricultural commodities, sugar and fertilizer use jute bags mandatory  (Read 1151 times)

Offline ariful892

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 677
  • Focuse on implementation and result...
    • View Profile
10-01-2014: দৈনিক বণিক বার্তা: কৃষিপণ্য, চিনি ও সার মোড়কজাতে পাটের ব্যাগ ব্যবহার বাধ্যতামূলক হলেও তা মানা হচ্ছে না। সরকারি গুদামে খাদ্যপণ্য সংরক্ষণে স্বল্প পরিসরে ব্যবহার হলেও বেসরকারি খাতে এটি পুরোপুরি উপেক্ষিত। এখনো প্লাস্টিকের ব্যাগ ব্যবহারেই বেশি আগ্রহী ব্যবসায়ীরা। পণ্য মোড়কজাতে পাটের ব্যাগ ব্যবহার বাধ্যতামূলক করে আইন পাস হয় ২০১০ সালের অক্টোবরে। পরিবেশের সুরক্ষা ও পাট শিল্পকে উৎসাহিত করতেই আইনটি পাস হয়। এরপর তিন বছরের বেশি সময় চলে গেলেও পাটের ব্যাগ ব্যবহার বাড়ানো যায়নি। আইন প্রয়োগে শৈথিল্যের কারণেই এ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করছেন অনেকে। পাশাপাশি এর ব্যবহার বিষয়ে প্রচার-প্রচারণার অভাবকেও এজন্য দায়ী করছেন তারা।

গতকাল পুরান ঢাকার বাবুবাজার ও বাদামতলী চালের আড়তে গিয়ে দেখা যায়, সব দোকানে প্লাস্টিকের ব্যাগে পণ্য বিক্রি হচ্ছে। একই চিত্র চোখে পড়ে পুরান ঢাকার পাইকারি বাজার মৌলভীবাজারেও। সেখানেও সব দোকানেই চিনি, আটা, ময়দা ও ডালভর্তি প্লাস্টিকের ব্যাগ দেখা যায়। আইনি বাধ্যবাধকতার বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে ব্যবসায়ীরা বলেন, সবার আগে মিল পর্যায়ে আইনটি প্রয়োগ করতে হবে। শুধু বাজারে অভিযান চালিয়ে ফল হবে না।

পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার ২০১০ শীর্ষক আইনে ধান, চাল, গম, সার ও চিনি মোড়কজাতে পাটের ব্যাগ ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি নির্ধারিত পণ্য পাটের ব্যাগ দিয়ে মোড়কজাত ছাড়া বিক্রি, বিতরণ বা সরবরাহ করতে পারবেন না। আইন লঙ্ঘনে শাস্তির বিধানও রাখা হয়েছে। আইনের ১৪ ধারায় বলা আছে, কোনো ব্যক্তি এ আইনে নির্ধারিত পণ্য প্যাটের ব্যাগের পরিবর্তে কৃত্রিম মোড়ক দিয়ে মোড়কজাত, বিক্রি বা সরবরাহ করলে অনূর্ধ্ব এক বছরের কারাদণ্ড বা অনধিক ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড কিংবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবেন। একই আইনের উপধারা ২-এ বলা আছে,  পুনরায় এ আইন লঙ্ঘন করলে শাস্তি দ্বিগুণ হবে। পাশাপাশি আইনের ধারা ১২-এর ১ উপধারায় ওই পণ্য বাজেয়াপ্ত করার বিধান রয়েছে।

আইন সত্ত্বেও পাটের ব্যাগ ব্যবহারে অনীহা রয়েছে খোদ সরকারি প্রতিষ্ঠানের। বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন (বিএডিসি) ও খাদ্য বিভাগই শুধু পণ্য মোড়কজাতে পাটের ব্যাগ ব্যবহার করছে। কয়েক দফা প্রতিশ্রুতি দেয়ার পরও বাংলাদেশ খাদ্য ও চিনি শিল্প করপোরেশন তা রাখেনি। পরিবেশবান্ধব পাটের ব্যাগ ব্যবহার শুরু করেনি দেশের সার কারখানাগুলোও। চিটাগাং ইউরিয়া ফার্টিলাইজার লিমিটেড (সিইউএফএল), কর্ণফুলী ফার্টিলাইজার কোম্পানি (কাফকো) এখনো প্লাস্টিকের ব্যাগেই সার মোড়কজাত করছে।

জুট ডাইভারসিফিকেশন প্রমোশন সেন্টারের নির্বাহী পরিচালক খন্দকার মোখলেসুর রহমান এ প্রসঙ্গে বণিক বার্তাকে বলেন, সরকারের সদিচ্ছা থাকলেও পণ্য মোড়কজাতে পাটের ব্যাগ ব্যবহার বাড়ানো যাচ্ছে না। দীর্ঘদিন ধরে সিনথেটিক ব্যাগ ব্যবহারে অভ্যস্ত হওয়ায় আইন প্রয়োগে কিছুটা সমস্যা হচ্ছে। পাটের ব্যাগ ব্যবহার না বাড়ার আরেকটি কারণ এর দাম। প্লাস্টিকের যে ব্যাগ ২০ টাকায় কেনা যায়, সমপরিমাণ ধারণক্ষমতার একটি পাটের ব্যাগ কিনতে খরচ পড়ে ৫০-৬০ টাকা।

খরচ বাঁচাতে অনেকেই তাই পাটের পরিবর্তে প্লাস্টিকের ব্যাগই বেছে নিচ্ছে। যদিও সংশ্লিষ্টরা বলছেন, একটি পাটের ব্যাগ কমপক্ষে চারবার ব্যবহার করা যায়। ফলে প্রথম অবস্থায় দাম কিছুটা বেশি হলেও একসময় এর মূল্যমান পুষিয়ে নেয়া সম্ভব। ??????

এদিকে পাটের ব্যাগ ব্যবহার বাধ্যতামূলক করে আইন পাসের পর ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন দেখেছিল দেশের পাটকলগুলো। কিন্তু প্লাস্টিকের ব্যাগ ব্যবহার বন্ধ না হওয়ায় সে স্বপ্ন আর বাস্তবে রূপ পায়নি। কেরানীগঞ্জের রুহিতপুর এলাকার রিলায়েন্স জুট মিলের স্বত্বাধিকারী হাজি সারোয়ার হোসেন বলেন, পাটজাত পণ্যের বাজারে মন্দার কারণে অনেকেই ব্যবসা গুটিয়ে নিচ্ছেন। লোকসানের পাল্লা ভারী হওয়ায় এরই মধ্যে ৫০-৬০টি কারখানা বন্ধ হয়ে গেছে। তবে পাটের ব্যাগ ব্যবহার বাড়ানো গেলে মিলগুলো সচল থাকবে। এ অবস্থায় আইনটি কঠোরভাবে কার্যকরের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এ লক্ষ্যে একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় কমিটিও গঠন করা হয়েছে। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত কমিটির বৈঠকে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোকে পাটের ব্যাগ ব্যবহারের গুরুত্ব বোঝানোর মাধ্যমে চলতি মাস থেকেই এ ব্যাপারে প্রচার-প্রচারণা ও কঠোরভাবে আইন বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এ লক্ষ্যে প্লাস্টিক ব্যাগ উৎপাদনকারী বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর কার্যক্রম ধীরে ধীরে কমিয়ে আনতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়ার কথাও বলা হয় বৈঠকে। পাট ও বস্ত্র মন্ত্রণালয়ের পাট শাখা-২-এর যুগ্ম সচিব নাসিমা বেগম বলেন, পাটের ব্যাগ ব্যবহার পূর্ণাঙ্গভাবে চালু করতে আরো দুই-তিন মাস সময় লাগবে। আইন অমান্যকারীদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।
.............................
Md. Ariful Islam (Arif)
Administrative Officer, Daffodil International University (DIU)
E-mail: ariful@daffodilvarsity.edu.bd , ariful@daffodil.com.bd , ariful333@gmail.com