Business News

Author Topic: Business News  (Read 14767 times)

Offline Golam Kibria

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 1127
  • Working for a better life
    • View Profile
    • Golam Kibria
Re: Business News
« Reply #75 on: September 27, 2011, 03:56:46 PM »
   

সেবা খাতে পিছিয়ে বাংলাদেশ

 উন্নত দেশগুলো প্রতিবছর সেবা খাত থেকে প্রচুর আয় করলেও বাংলাদেশ এক্ষেত্রে এখনো অনেক পিছিয়ে আছে। বর্তমানে বাংলাদেশ সেবা রপ্তানি খাতে যে পরিমাণ আয় করে, এর প্রায় দ্বিগুণ অর্থ ব্যয় হয় সেবা আমদানির ক্ষেত্রে। ফলে প্রতিবছর সেবা খাতে বাণিজ্য ঘাটতি বাড়ছে।
 
বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত এক বছরে সেবা খাতে বাণিজ্য ঘাটতি দ্বিগুণ বেড়েছে।
বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাব মতে, গত ২০১০-১১ অর্থবছরে সেবা খাতে বাংলাদেশ আয় করেছে প্রায় ২৫৭ কোটি ডলার। এর বিপরীতে সেবা আমদানি খাতে ব্যয় হয়েছে ৪৯৬ কোটি ৮০ লাখ ডলার। অর্থাৎ আলোচ্য অর্থবছরে সেবা খাতে বাণিজ্য ঘাটতি দাঁড়িয়েছে ২৩৯ কোটি ৮০ লাখ ডলার। এর আগের অর্থবছরে (২০০৯-১০) এ খাতে বাণিজ্য ঘাটতির পরিমাণ ছিল ১২৩ কোটি ৩০ লাখ ডলার।
 
এ অবস্থায় দেশের রপ্তানি আয় বৃদ্ধি ও সেবা খাতে বাণিজ্য ঘাটতি কমিয়ে আনার লক্ষ্যে দেশি-বিদেশি একাধিক মহল দীর্ঘদিন ধরে সেবা খাতের উন্নয়ন ও দক্ষতা বাড়ানোর কথা বলে এলেও কার্যত এ খাতে কোনো গুণগত পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায় না।
 
বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান ‘সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগ’ (সিপিডি)-এর মতে, বর্তমানে সেবা খাত পণ্য রপ্তানির নির্বাহ খরচ (ট্রানজিকশন কস্ট) ও সরবরাহ সময় (লিড টাইম) কীভাবে এবং কতখানি কমিয়ে আনতে পারেÑ এর ওপরই বিশ্ব পণ্য বাজারে প্রতিযোগিতা সক্ষমতা অনেকাংশে নির্ভর করে থাকে।
 
তিনটি কারণে সেবা বাণিজ্য উন্নয়নশীল ও স্বল্পোন্নত দেশগুলোর জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করে সংস্থাটি। এই গুরুত্বপূর্ণ কারণ তিনটি হচ্ছে: পণ্য রপ্তানিতে প্রতিযোগিতা সক্ষমতা সংরক্ষণ ও সম্প্রসারণ, সেবা খাতে রফতানির সুযোগের সদ্ব্যবহার এবং অভ্যন্তরীণ সেবা বাণিজ্যে দেশীয় সেবা প্রতিষ্ঠানের উৎপাদনশীলতা ও দক্ষতার মাধ্যমে বাজার সংরক্ষণ।

আন্তর্জাতিক বাজারে সেবা খাতের এ অপরিহার্যতা ও নিয়ামক ভূমিকার কারণে সেবা বাণিজ্যকে এখন ‘অর্থনৈতিক বিশ্বায়নের পরবর্তী ধাপ’ হিসেবে অভিহিত করা হচ্ছে। পাশাপাশি গত তিন দশক ধরে সেবা খাতে বাণিজ্য প্রবৃদ্ধির হার যেভাবে দ্রুত গতিতে বাড়ছে, এতে করে তা বিশ্ব বাণিজ্যে পণ্য খাতকেও অতিক্রম করে যেতে পারে বলে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন।
 
এদিকে সেবা খাতে বাংলাদেশ পিছিয়ে থাকলেও সার্বিকভাবে দেশের অর্থনীতিতে সেবা খাত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। জিডিপিতে বর্তমানে সেবা খাতের অবদান প্রায় ৬০ শতাংশ। দেশে বছরে গড়ে সেবা বাণিজ্যের পরিমাণ প্রায় ২৫০ কোটি ডলার, যা মোট পণ্য বাণিজ্যের ১৫ শতাংশেরও বেশি।

Source : http://www.banglanews24.com/detailsnews.php?nssl=9034146523cfa1359cca6c36b80151fb&nttl=2011092606531259785&toppos=1
« Last Edit: October 05, 2011, 12:49:22 AM by Golam Kibria »
Golam Kibria
ID:101-11-1373 (BBA)
Asst.Offic, Bangladesh Skill Development Institute
Ex.Lecturer,SEBGC
Email : golam_1373@diu.edu.bd
http://www.golamkibria.com
Mob:01843674226
Digital University: http://www.daffodilvarsity.edu.bd
Bangladeshi Poems, Novels and history: http://www.trulybangladesh.com

Offline Golam Kibria

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 1127
  • Working for a better life
    • View Profile
    • Golam Kibria
Re: Business News
« Reply #76 on: September 27, 2011, 03:58:48 PM »

বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহী ব্রিটিশ ব্যবসায়ীরা


 বাংলাদেশে বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগ করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ ব্যবসায়ীরা। তারা আর্থিক, জ্বালানি, বিদ্যুৎ, খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ, শিক্ষা ও তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগ করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে ।

এক দল ব্রিটিশ ব্যবসায়ী প্রতিনিধি মনে করছেন, বাংলাদেশে এসব খাতে বিনিয়োগ লাভজনক। তবে বিদ্যুত ও জ্বালানী সংকটকে তারা বিনিয়োগের বাধা মনে করছেন।

সোমবার এফবিসিসিআই মিলনায়তনে আয়োজিত এক মতবিনিময়সভায় সফররত ওয়েলস বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের (ডব্লিউবিসিসি) একটি প্রতিনিধি দল এ আগ্রহের কথা প্রকাশ করে সমস্যার কথা তুলে ধরেন। সফররত এ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন ডব্লিউবিসিসি এর চেয়ারম্যান দিলাবার এ হোসাইন। তার সঙ্গে ১৯ সদস্যেও একটি ব্যবসায়ি প্রতিনিধি দল রয়েছে।

মতবিনিময়সভায় বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের পক্ষে ছিলেন, এফবিসিসিআই সভাপতি একে আজাদ, সহ-সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরি বাবুসহ শীর্ষ ব্যবসায়ী নেতারা।

মতবিনিময়সভায় ব্রিটিশ ব্যবসায়ীরা উল্লেখিত খাতসমূহে একক বা যৌথ বিনিয়োগ করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। তাদের মতে, বাংলাদেশে ব্যাপক বিনিয়োগের সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা বলছে, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সমস্যা বাংলাদেশে থাকলেও সরকার এ সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নিচ্ছে। আগামী ২০১৩ সালের মধ্যে বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। আর গ্যাসের সমস্যা মূলত পাইপ লাইলের কারণে। 

তাছাড়া বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সংকট নিরসনে এ  খাতে বিনিয়োগ করার জন্য ব্রিটিশ ব্যবসায়ীদের আহ্বান জানান।

একে আজাদ বলেন, ২০১১-১২ অর্থবছরে ৭ শতাংশ এবং ২০১২-১৩ অর্থবছরে  ৮ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়েছে। এ লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে হলে প্রচুর বিদেশী বিনিয়্গো দরকার। তাছাড়া চলমান প্রবৃদ্ধি ধরে রাখার জন্য আরো ২৮০০ কোটি ডলারের বিনিয়োগ দরকার।

এফবিসিসিআই সভাপতি বাংলাদেশে বিদেশী বিনিয়োগের সম্ভাব্য খাতগুলো তুলে ধরে বলেন, এখানে বন্দর উন্নয়ন, জাহাজ নির্মাণ শিল্প, শিল্প পার্ক খাত, খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ সেবা খাতে বিনিয়োগের যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে। । এছাড়া তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর শিল্প খাতে বিনিয়োগ করার যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে।

বাংলাদেশের সস্তা শ্রম যে কোনো বিনিয়োগকে লাভবান করবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

একে আজাদের বক্তব্যের জবাবে ডব্লিউবিসিসি চেয়ারম্যান দিলবার হোসাইন বলেন- বাংলাদেশে নির্মাণ, ঔষধ, আর্থিক খাত, খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ, সিরামিক, তৈরি পোশাকসহ বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগ করা যেতে পারে। এ ক্ষেত্রে ওয়েলস এর ব্যবসায়ী ও ওয়েলসে বসবাসকারী অনাবাসী বাংলাদেশিরাও বিনিয়োগ করতে পারে।

তিনি আরও বলেন, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত যুক্তরাজ্য বাংলাদেশে থেকে আমদানি করে ৭২৩ মিলিয়ন পাউন্ড। পক্ষান্তরে বাংলাদেশে তারা রপ্তানি করে ৮০ মিলিয়ন পাউন্ড।  যা বাংলাদেশের জন্য ইতিবাচক। বাংলাদেশের মানসম্পন্ন অনেক পণ্য আছে যা আরো বেশি বেশি করে যুক্তরাজ্যে পাঠাতে পারে। যাতে বাংলাদেশের সাথে যুক্তরাজ্যের যে দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্ক আছে তা আরও সম্প্রসারণ ও শক্তিশালী হবে।

Source : http://www.banglanews24.com/detailsnews.php?nssl=e16728c7281d0b08f8a69714a2fc21e6&nttl=2011092604572259751&toppos=2
Golam Kibria
ID:101-11-1373 (BBA)
Asst.Offic, Bangladesh Skill Development Institute
Ex.Lecturer,SEBGC
Email : golam_1373@diu.edu.bd
http://www.golamkibria.com
Mob:01843674226
Digital University: http://www.daffodilvarsity.edu.bd
Bangladeshi Poems, Novels and history: http://www.trulybangladesh.com

Offline Golam Kibria

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 1127
  • Working for a better life
    • View Profile
    • Golam Kibria
Re: Business News
« Reply #77 on: September 28, 2011, 12:04:27 AM »
নতুন ব্যাংক: লাইসেন্স দিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের আবেদনপত্র আহবান


 ব্যাংকিং খাতে নতুন ব্যাংকের লাইসেন্স প্রদানের জন্য যোগ্য ও উপযুক্ত স্পন্সরদের কাছে আবেদনপত্র আহবান করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ‘ব্যাংক কোম্পানি আইন ১৯৯১’-এর ৩১ ধারা মোতাবেক বাংলাদেশ ব্যাংক এই আবেদনপত্র আহবান করেছে।

মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ওয়েবসাইটে আনুষ্ঠানিকভাবে এ সংক্রান্ত বিজ্ঞাপন প্রকাশ করা হয়।   

নতুন ব্যাংকের লাইসেন্স প্রদানের জন্য আবেদনপত্র আহবানের পাশাপাশি ব্যাংক লাইসেন্স প্রদান সংক্রান্ত একটি চূড়ান্ত গাইড লাইনও প্রণয়ন করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বিজ্ঞাপন অনুযায়ী, আগামী ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত কেন্দ্রীয় ব্যাংকের অফিস চলাকালীন সময়ে নতুন ব্যাংকের লাইসেন্সের জন্য আবেদন করা যাবে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ‘ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি’ বিভাগের মহাব্যবস্থাপক বরাবর আবেদন করতে হবে। ফি হিসেবে আবেদনপত্রের সঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুকূলে ১০ লাখ টাকার অ-ফেরতযোগ্য ব্যাংক ড্রাফট জমা দিতে হবে।
আবেদন করার জন্য অত্যাবশ্যকীয় শর্ত হিসেবে যেসব বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে এর মধ্যে উল্লেখযোগ্যসমূহ হচ্ছে: প্রস্তাবিত ব্যাংকটিকে অবশ্যই পাবলিক লিমিটেড কোম্পানি হতে হবে, অনুমোদিত মূলধন ৪শ’ কোটি টাকার কম হবে না, প্রত্যেক স্পন্সরের শেয়ারের মূল্য হবে কমপক্ষে ১ কোটি টাকা এবং কোনো স্পন্সর বা তার পারিবারিক সদস্য কোম্পানির শেয়ার মূলধনের ১০ শতাংশের অধিক মালিক হতে পারবেন না। কোনো কর খেলাপী ও ঋণ খেলাপী প্রস্তাবিত ব্যাংকের স্পন্সর হতে পারবেন না।

Source : http://www.banglanews24.com/detailsnews.php?nssl=514786a1904d9380816aa3f79fc77dfe&nttl=2011092706261359986&toppos=1
Golam Kibria
ID:101-11-1373 (BBA)
Asst.Offic, Bangladesh Skill Development Institute
Ex.Lecturer,SEBGC
Email : golam_1373@diu.edu.bd
http://www.golamkibria.com
Mob:01843674226
Digital University: http://www.daffodilvarsity.edu.bd
Bangladeshi Poems, Novels and history: http://www.trulybangladesh.com

Offline Golam Kibria

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 1127
  • Working for a better life
    • View Profile
    • Golam Kibria
Re: Business News
« Reply #78 on: September 29, 2011, 07:11:07 AM »
বাংলাদেশে বিনিয়োগ করবে যুক্তরাজ্যের ওয়েলস-বাংলাদেশ চেম্বার


সিলেট: বাংলাদেশের পর্যটন, জ্বালানি, ওষুধ, হাসপাতাল ও শিল্পখাতে বিনিয়োগ করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে যুক্তরাজ্যের ওয়েলস-বাংলাদেশ চেম্বার।

বুধবার দুপুরে সিলেট চেম্বার নেতাদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় এ আগ্রহের কথা জানান ওয়েলস-বাংলাদেশ চেম্বারের চেয়ারম্যান দিলাবর এ হোসাইন।

সিলেট চেম্বারের সভাপতি ফারুক আহমদ মিসবাহ্র সভাপতিত্বে সভায় ওয়েলস চেম্বারের সফররত অন্য ২৫ সদস্য এবং সিলেট চেম্বারের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার এনএম জিয়াউল আলম।

বাংলাদেশে সম্ভাবনাময় খাতে বিনিয়োগের আগ্রহ প্রকাশ করে ওয়েলস-বাংলাদেশ চেম্বারের চেয়ারম্যান দিলাবর এ হোসাইন বলেন, বাংলাদেশে এখন বিয়োগের যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে। আর এজন্য সিলেটে পর্যটন ও শিল্প খাতে বিনিয়োগ করে এ অঞ্চলের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি করা সম্ভব।

মতবিনিময় শেষে বাংলানিউজকে দিলাবর বলেন, ‘পর্যটনে বিনিয়োগের সর্বোত্তম জায়গা হতে পারে সিলেট। আর এটা আমাদের প্রাথমিক মিশন’।

এ দেশ আমাদের জন্মভূমি উল্লেখ করে দিলাবর আরও বলেন, ‘যৌথভাবে দুই দেশের ব্যবসায়ীদের মধ্যে এ মতবিনিময় বিনিয়োগের উৎকৃষ্ট দিকটি বেরিয়ে আসবে।’

সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার এনএম জিয়াউল আলম তার বক্তব্যে বলেন, দেশে এখন বিনিয়োগের অনুকূল পরিবশে রয়েছে। সিলেটে স্পেশাল ইকোনমিক জোন হচেছ যার মাধ্যমে সিলেটসহ দেশের অর্থনীতিতে নতুন দ্বার উন্মোচিত হবে। প্রবাসীদের বিনিয়োগ এতে নতুন মাত্রা যোগ করবে।

এছাড়াও তিনি বলেন, পর্যটন এবং সংশ্লিষ্ট সব খাত সিলেটে আছে এখন শুরু বিনিয়োগের প্রয়োজন।

সভাপতির বক্তব্যে সিলেট চেম্বার সভাপতি ফারুক আহমদ মিসবাহ বলেন, প্রবসীদের দেশে বিনিয়োগে আকৃষ্ট করতে চেম্বারের উদ্যোগে ২০ টি প্রকল্প প্রস্তুত রাখা হয়েছে। তাছাড়া অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সিলেটে স্পেশাল ইকোনমিক জোন হচ্ছে।

তিনি ওয়েলস-বাংলাদেশ চেম্বারকে সিলেটে পর্যটন এবং কৃষিখাতসহ অন্যান্য খাতে বিনিয়োগের আহবান জানান।

সভায় ওয়েলস-বাংলাদেশ চেম্বার অন্যদের মধ্যে প্রতিনিধি দলের নেতা ও ওয়েলস-বাংলাদেশ চেম্বারের সাধারণ সম্পাদক মাহবুব নূর, সহসভাপতি আনা মিয়া বক্তব্য রাখেন। এছাড়া সিলেট চেম্বারের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন চেম্বারের সাবেক সভাপতি এম এ সালাম চৌধুরী।

Source : http://www.banglanews24.com/detailsnews.php?nssl=4af5c33a941045a3c21c79705bc23d08&nttl=2011092805092060149
« Last Edit: September 29, 2011, 07:13:01 AM by Golam Kibria »
Golam Kibria
ID:101-11-1373 (BBA)
Asst.Offic, Bangladesh Skill Development Institute
Ex.Lecturer,SEBGC
Email : golam_1373@diu.edu.bd
http://www.golamkibria.com
Mob:01843674226
Digital University: http://www.daffodilvarsity.edu.bd
Bangladeshi Poems, Novels and history: http://www.trulybangladesh.com

Offline Golam Kibria

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 1127
  • Working for a better life
    • View Profile
    • Golam Kibria
Re: Business News
« Reply #79 on: September 29, 2011, 10:00:47 PM »
ঢাকা ও চট্টগ্রামে নতুন ইপিজেড স্থাপনের সুপারিশ


 ঢাকা ও চট্টগ্রামে নতুন রপ্তানি প্রক্রিয়াজাতকরণ এলাকা (ইপিজেড) স্থাপনের সুপারিশ করেছে সরকারি প্রতিষ্ঠান সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত কমিটির ৫০তম বৈঠকে বাংলাদেশ রপ্তানি প্রক্রিয়াজাতকরণ এলাকার (বেপজা) সার্বিক কার্যক্রম নিয়ে আলোচনার সময় এই সুপারিশ করা হয়।

সংসদ সচিবালয় সূত্রে জানা গেছে, নতুন ইপিজেড স্থাপন করে শিল্প প্লট বরাদ্দ করে বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করার সুপারিশ করা হয়।

এছাড়া মংলা ইপিজেডে বিনিয়োগ বাড়ানোর উদ্দেশ্যে এলাকায় লবণাক্ততা দূরীকরণ প্ল্যান্ট স্থাপন, বিমান ও সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন, দেশের বিভিন্ন ইপিজেড এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বৃদ্ধি করতে সংশ্লি¬ষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোর পদক্ষেপ নেওয়ার সুপারিশ করা হয়।
 
বৈঠকে জানানো হয়, বাংলাদেশে বর্তমানে মোট আটটি ইপিজেডে চলতি বছরের আগস্ট পর্যন্ত বাংলাদেশসহ ৩৫টি দেশের ৩৭৩টি শিল্প প্রতিষ্ঠান উৎপাদনরত রয়েছে।

২০১০-২০১১ অর্থ বছরে ইপিজেডের শিল্প প্রতিষ্ঠানসমূহে ৪৩ হাজার ৬৬৬ জন বাংলাদেশি শ্রমিকের প্রত্যক্ষ কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। এ সময় রপ্তানি হয়েছে ৩ দশমিক ৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। প্রকৃত বিনিয়োগ হয়েছে ৩১৩ দশমিক ২৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার যা বিগত যে কোনো বছরের তুলনায় সর্বোচ্চ।

কমিটির সভাপতি এবিএম গোলাম মোস্তফার সভাপতিত্বে বৈঠকে ড. টিআইএম ফজলে রাব্বি চৌধুরী, ধীরেন্দ্র চন্দ্র দেবনাথ, বীরেন শিকদার, এসকে আবু বাকের ও মইন উদ্দীন খান বাদল অংশ নেন। এছাড়া বেপজার নির্বাহী চেয়ারম্যান এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার উপস্থিত ছিলেন।

Source : http://www.banglanews24.com/detailsnews.php?nssl=c5be056ba66b2db7676d1158d1931137&nttl=2011092905541760335&toppos=7
Golam Kibria
ID:101-11-1373 (BBA)
Asst.Offic, Bangladesh Skill Development Institute
Ex.Lecturer,SEBGC
Email : golam_1373@diu.edu.bd
http://www.golamkibria.com
Mob:01843674226
Digital University: http://www.daffodilvarsity.edu.bd
Bangladeshi Poems, Novels and history: http://www.trulybangladesh.com

Offline Golam Kibria

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 1127
  • Working for a better life
    • View Profile
    • Golam Kibria
Re: Business News
« Reply #80 on: September 29, 2011, 10:02:37 PM »


নিউইয়র্কে রিহ্যাব মেলায় ৪শ’ কোটি টাকার বাণিজ্য



 এবার নিউইয়র্কে রিহ্যাব হাউজিং ফেয়ারে আশাতীত সাড়া পড়ায় অভিভূত মেলার আয়োজকরা। তিন  দিনের মেলায় ৪০০ কোটি টাকার প্লট ও অ্যাপার্টমেন্ট বিক্রির চুক্তি বা অঙ্গীকার পত্র পাওয়া গেছে।

২৭ সেপ্টেম্বর এস্টোরিয়া ম্যানোর হোটেলে সমাপনী অনুষ্ঠানে রিহ্যাব কর্মকর্তারা এ তথ্য জানান। গত বছর নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিত রিহ্যাব মেলায় ২৫০ কোটি টাকার ব্যবসা হয়েছিল।

রিহ্যাব ফেয়ারের আয়োজক প্রতিষ্ঠান ‘গুড কেয়ার ইন্টারন্যাশনালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জামান তপন মিডিয়াকে জানান, এবার সর্বোচ্চ সংখ্যক ৭৫টি প্রতিষ্ঠান অংশ নেয় এ মেলায়। ফেয়ারের ভেন্যু ছিলো বাংলাদেশিদের পদচারণায় মুখর। ব্যবসাও ভাল হয়েছে।

গত ৬ বছর যাবত নিউইয়র্কে এ মেলা হচ্ছে এবং এর ফলে স্বদেশে স্বপ্নের নীড় রচনায় যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসীরা অনেক সুফল পাচ্ছেন।

গত ৭ বছরে ২ সহস্রাধিক প্রবাসী ঢাকা, সিলেট এবং চট্টগ্রামে প্লট/অ্যাপার্টমেন্ট কিনেছেন বলে মেলার কর্মকর্তারা জানান। এবারের মেলায় প্রধান অতিথি ছিলেন গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট মান্নান খান।

রিহ্যাবের চেয়ারম্যান নসরুল হামিদ এমপি এবং সেক্রেটারি মুরাদ ইকবাল বলেছেন, বাংলাদেশের আবাসন সংকট মোকাবেলায় রিহ্যাব নিষ্ঠার সাথে কাজ করছে।

কোন কোন ক্ষেত্রে কিছুটা সমস্যা হলেও সামগ্রিক অর্থে রিহ্যাবের প্রায় সকল সদস্যই গ্রাহকের সাথে আন্তরিকতাপূর্ণ মনোভাব নিয়েই প্লট বা অ্যাপার্টমেন্ট বুঝিয়ে দিচ্ছে যথাসময়ে। প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট মান্নান খান জানান, এ সময়ে সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য এবং লাভজনক বিনিয়োগের ক্ষেত্র হচ্ছে ভূমি ক্রয়। কারণ, প্রতিদিনই এর দাম বাড়ছে। ১০ বছর আগে যে জমির দাম ছিল লাখ টাকা, এখন সেটি কোটি টাকায়ও পাওয়া যাবে না। তিনি বলেন, প্লট বা অ্যাপার্টমেন্ট ক্রয়ের চুক্তি সম্পাদনের আগে ভালোভাবে খোঁজ-খবর নিতে হবে।

এবারের মেলায় অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে- এ প্লাস হোল্ডিং লি., এফ্রেড ডেভেলপমেন্ট লি., এজি প্রপার্টি ডেভেলপমেন্ট লি., আমিন মোহাম্মদ ফাউন্ডেশন, আমিন মোহাম্মদ ল্যান্ড ডেভেলপমেন্ট লি., এনা হোল্ডিং লি., এশিয়ান ল্যান্ড ডেভেলপমেন্ট লি., এসোর্ট হাউজিং লি., আরোয়া ডেভেলপমেন্ট, বেকন রিয়েল এস্টেট, বেস্টওয়ে ফাউন্ডেশন লি., বায়ো প্রপার্টি লি., বিশ্বাস বিল্ডার্স লি., বিল্ডিং ফর ফিউচার লি., বিল্ডিং টেকনোলাজি লি., সেঞ্চুরী রিয়েলিটি লি., চৌধুরী মডার্ন লি., কণকর্ড রিয়েল এস্টেট এন্ড বিল্ডিং প্রডাক্ট, সিএস লি., দক্ষিণা রিয়েল এস্টেট লি., ডিসেন্ট হোল্ডিং লি., ডিভিং হোল্ডিং লি., ড্যুয়েল প্রপার্টিজ লি., ডায়নামিক ল্যান্ডমার্ক লি., আর্থ প্রপার্টিজ লি., ই ডোরাডো ডেভেলপমেন্ট লি., এনসিউর ল্যান্ডমার্ক লি., এপিক প্রপার্টিজ লি., ইক্যুটি প্রপার্টি ম্যানেজমেন্ট লি., গ্লোরিয়াস ল্যান্ড ডেভেলপমেন্ট লি., হামিদ রিয়েল এস্টেট, হাইপরিয়ান বিল্ডার্স লি., আইকন হাউজিং এন্ড বিল্ডার্স লি., ইমপ্রেস প্রপার্টিজ লি., ইনডেং ডেভেলপমেন্ট লি., ইন্সপায়ার্ড ডেভেলপমেন্ট লি., জাপান  গার্ডেন সিটি লি., জুসিকো লি., কল্পকথা গ্রীণ সিটি লি., মানামা ডেভেলপমেন্ট লি., ম্যান্ডেলাস প্রপার্টিজ, মেগা বিল্ডার্স লি., মিশন ডেভেলপমেন্ট লি., মুন লাইট ডেভেলপমেন্ট লি., মাওলানা ডেভেলপমেন্ট লি., নাভানা রিয়েল এস্টেটট লি., নিউভিশন ল্যান্ডমার্ক লিমিটিডে, নোমান প্রপার্টিজ লি., পরিজাত ডেভেলপমেন্ট লি., পূবাচল প্রবাসী পল্লী লি., আরএফ প্রপার্টিজ লি., র‌্যাঙ্গস প্রপার্টিজ লি., রিলায়েন্স ডেভেলপমেন্ট এসোসিয়েটস লি., রয়েল হোমস লি., রুহামা প্রপার্টিজ ডেভেলপমেন্ট লি., সাগুপ্তা এন এম হাউজিং লি., সাকুরা হোল্ডিং লি., সুরমা  প্রপার্টিজ লি., সৌদি বাংলা প্রপার্টিজ লি., শতাব্দী হাউজিং লি., এসটিসি প্রপার্টিজ লি., সুবাস্তি প্রপার্টি লি., স্বদেশ প্রপার্টি লি., তাঞ্জিমুল উষ্মা ফাউন্ডেশন লি., তান্সির প্রপার্টিজ লি., টারডা প্রপার্টিজ লি., তমা প্রপার্টিজ লি., ইউনিটার্চ হোল্ডিং এন্ড টেকনোলজি লি., আরবান প্রপার্টিজ ডেভেলপমেন্ট কো. লি., ইউএস বাংলা এসেট  লি., উত্তরণ প্রপার্টিজ লি., ভিশন ২১ ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট লি., ভিশন লিভিং লি. ইয়েস ডেভেলপমেন্ট লি.।

Source : http://www.banglanews24.com/detailsnews.php?nssl=5b60531e7e48b9406f470eb8c7e5ab99&nttl=2011092909355960402&toppos=7
Golam Kibria
ID:101-11-1373 (BBA)
Asst.Offic, Bangladesh Skill Development Institute
Ex.Lecturer,SEBGC
Email : golam_1373@diu.edu.bd
http://www.golamkibria.com
Mob:01843674226
Digital University: http://www.daffodilvarsity.edu.bd
Bangladeshi Poems, Novels and history: http://www.trulybangladesh.com

Offline goodboy

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 1133
  • "Find your ways, Built your inspiration."
    • View Profile
Re: Business News
« Reply #81 on: September 29, 2011, 11:15:27 PM »
Europe again steps back from brink in debt crisis


(Reuters) - Following a now-familiar script, Europe again averted disaster in its debt crisis when German lawmakers rallied behind Chancellor Angela Merkel to approve a stronger euro zone bailout fund on Thursday.

But bigger challenges loom for the euro zone now. Financial markets are already anticipating a likely Greek default and demanding more far-reaching measures to prevent the crisis that began in Athens from spreading far beyond Europe and its banks.

The Bundestag (lower house) overwhelmingly approved new powers for the 440-billion-euro EFSF fund to make precautionary loans, help recapitalize banks and buy distressed countries' bonds in the secondary market.

Despite a rebellion by 15 backbench Euroskeptics, Merkel won 315 votes from her own center-right coalition, enough to avoid the humiliation of having to rely on the opposition Social Democrats and Greens to pass the plan.

"The result of the vote is a strong signal for Europe. The broad majority in parliament clearly shows that Germany is committed to the euro and to protecting our currency," said Hermann Groehe, general secretary of her Christian Democratic party.

The measure was part of a July 21 agreement by euro zone leaders meant to solve the crisis by providing a second bailout for debt-stricken Greece, partly funded by private sector bondholders, and providing more firepower to prevent contagion engulfing bigger EU economies Spain and Italy.

But that deal failed to stop Italian and Spanish borrowing costs soaring, forcing the European Central Bank to intervene in August to buy their bonds, and may yet unravel in Greece, which has fallen behind again on its deficit reduction targets, pushing it closer to default.

"There is a growing realization, even among the more reticent, that the July 21 package is yesterday's war, and we need to go further," a senior EU official said, speaking on condition of anonymity.

The euro and European shares ticked up and safe-haven German bonds fell after the closely-watched vote in Europe's pivotal power, where public opposition to further bailouts is rife.

But analysts said financial markets and outside powers still want a more comprehensive response from European Union policymakers to the debt crisis.

U.S. President Barack Obama kept up a drum beat of criticism of the EU's crisis management, saying on Wednesday: "In Europe, we haven't seen them deal with their financial system and banking system as effectively as they need to.

EU officials are already working on ways of leveraging up the rescue fund, but kept those legally and politically fraught options under wraps ahead of the German vote to avoid antagonizing waverers in the Bundestag.

Underscoring the sensitivity, German Economy Minister Philipp Roesler, leader of the liberal Free Democrats, junior partners in Merkel's coalition, said on a visit to Brussels after the vote that Berlin does not want to leverage the bailout fund.

The European Commission welcomed German approval of the EFSF boost and said it was confident the ratification process would be complete throughout the 17-nation currency area by mid-October.

Elsewhere in Europe, there was a sense of relief. French President Nicolas Sarkozy telephoned Merkel to congratulate her and invited Greek Prime Minister George Papandreou to talks in Paris on Friday to discuss Greece's precarious debt situation. Papandreou met Merkel in Berlin on Tuesday.

Cyprus also back the EFSF's new powers on Thursday, taking the number of states that have approved to 12. Of the remainder only Slovakia's endorsement looks politically tricky.

PAIN IN SPAIN, ITALY

Despite the German vote, developments in Spain and Italy highlighted the stark challenges still facing the euro zone in coping with the sovereign debt crisis.

Spain's ruling Socialists abruptly shelved plans to boost public coffers by selling part of the state lottery for up to 9 billion euros ($12 billion), in the face of tough market conditions, political opposition and banks' funding concerns.

The backtracking, a day before book building was supposed to begin on the public offering of 30 percent of Loterias, was a blow a few weeks before a November 20 election, which opinion polls show the center-right People's Party sweeping.

Banks involved in the sale, Santander and BBVA, saw the Loterias flotation as a direct rival to their efforts to bolster their capital by enticing Spaniards to withdraw deposits to invest in lottery shares.

Italy meanwhile had to pay the highest yield on a 10-year bond since the introduction of the euro in 1999 at an auction on Thursday, the first long-term sale since Standard & Poor's cut the country's sovereign credit rating.

Rome's funding costs remain under pressure despite ECB bond-buying and a pick-up in risk appetite due to expectations of a stronger euro rescue fund. Analysts say the government's tentative crisis response has harmed investor confidence.

Italy sold 7.86 billion euros of long-term bonds, moving closer to an overall issuance target of 430 billion euros for the year, but the 10-year yield rose to 5.86 percent at the auction, up from 5.22 percent a month ago.

"That's eye-watering yield levels," said David Schnautz, a rate strategist at Commerzbank.

In Athens, senior officials of the troika of European Commission, ECB and International Monetary Fund resumed talks aimed at checking that Greece has met the terms of its bailout program after adopting new austerity measures. The Greek Finance Ministry called the climate "positive and creative".

The government will run out of money to pay salaries and pensions in October unless it receives the next 8 billion euro installment of emergency loans. It pushed an unpopular new property tax through parliament this week despite public anger.

Anti-austerity protesters blocked the entrances to several ministries before the start of the talks.

Around 200 finance ministry employees gathered in front of their ministry, shouting: "Take your bailout and leave."

"The occupations are carried out today when the troika returns to our country and as we face new barbaric measures which were decided and are being decided for further wage reductions ... new tax hikes and mass layoffs," public sector ADEDY said in a statement.

Source:http://www.reuters.com/article/2011/09/29/us-eurozone-idUSTRE78Q1BQ20110929
Md. Abul Hossain Shajib.
101-11-1375
Department of BBA, Sec:B.
25th Batch.
Daffodil International University.
Email: shajib_1375@diu.edu.bd
Admin Executive
creative.bd

Offline Golam Kibria

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 1127
  • Working for a better life
    • View Profile
    • Golam Kibria
Re: Business News
« Reply #82 on: September 30, 2011, 10:35:37 AM »

লংকাবাংলা ফিন্যান্স ও ব্যাংক এশিয়ার চুক্তি সই

ব্যাংক এশিয়া লিমিটেড ও লংকাবাংলা ফিন্যান্স লিমিটেড গতকাল বৃহস্পতিবার কার্ড চেক ইস্যু বিষয়ে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে।
এই চুক্তি অনুযায়ী লংকাবাংলার কার্ড ব্যবহারকারীরা ব্যাংক এশিয়ার কার্ড চেক ব্যবহার করে অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা উত্তোলন ও প্রদান করতে পারবেন।
ব্যাংক এশিয়ার প্রেসিডেন্ট ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মেহমুদ হোসেন এবং লংকাবাংলা ফিন্যান্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন চৌধুরী (চলতি দায়িত্ব) নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে এ চুক্তিতে সই করেন।
ব্যাংক এশিয়ার উপব্যবস্থাপনা পরিচালক এস এম খোরশেদ আলম ও ইর্তেজা রেজা চৌধুরী, সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. আরফান আলী, সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট ইমরান আহমেদ, অ্যাসিসট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট এইচ এম মোস্তাফিজুর রহমান এবং লংকাবাংলা ফিন্যান্স লিমিটেডের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট কামরুল ইসলাম ও ভাইস প্রেসিডেন্ট এ কে এম রেজাউল করিম চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
এই চুক্তি লংকাবাংলা ফিন্যান্স লিমিটেডকে চেক ইস্যু সংক্রান্ত প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করবে। বিজ্ঞপ্তি।

Source : http://www.prothom-alo.com/detail/date/2011-09-30/news/189957
Golam Kibria
ID:101-11-1373 (BBA)
Asst.Offic, Bangladesh Skill Development Institute
Ex.Lecturer,SEBGC
Email : golam_1373@diu.edu.bd
http://www.golamkibria.com
Mob:01843674226
Digital University: http://www.daffodilvarsity.edu.bd
Bangladeshi Poems, Novels and history: http://www.trulybangladesh.com

Offline goodboy

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 1133
  • "Find your ways, Built your inspiration."
    • View Profile
Re: Business News
« Reply #83 on: September 30, 2011, 11:15:23 PM »
পরীক্ষামূলক ট্রানজিটের প্রথম চালান গেছে আগরতলায়
ট্রানজিটের ট্রায়াল রান বা পরীক্ষামূলক চালান হিসেবে প্রায় ২০০ টন ইস্পাতের গ্যালভানাইজ পাটাতন (স্টিল সিট) গেছে ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের রাজধানী আগরতলায়।
গতকাল বৃহস্পতিবার এই চালান আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে আগরতলায় যায়। এটি ছিল ট্রানজিটের পরীক্ষামূলক প্রথম চালান। এই মালামাল ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের ইভারগ্রোইং আয়রন অ্যান্ড ফিনেস্ট লিমিটেডের বলে শুল্ক বিভাগ সূত্রে জানা যায়।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া শুল্ক বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, নৌপথে ট্রানজিট নিতে ভারতের দুটি পণ্যবাহী জাহাজ পশ্চিমবঙ্গের হুগলি জেলা থেকে সম্প্রতি আশুগঞ্জ নৌবন্দরে ভেড়ে। নৌ-প্রটোকলের আওতায় মাশুল ছাড়া পণ্য পরিবহনে আনুষ্ঠানিকতাসংক্রান্ত আদেশ জারি করেছে এনবিআর। এর আওতায় আশুগঞ্জ পর্যন্ত নৌপথে আর আখাউড়ায় সড়কপথে পণ্য পরিবহন করা হয়।
মঙ্গলবার রাত নয়টার দিকে আশুগঞ্জ থেকে চারটি ট্রাকে করে ওই মালামাল আখাউড়া স্থলবন্দরে আনা হয়। বুধবার বাংলাদেশের আখাউড়া ও ভারতের ত্রিপুরার আগরতলা স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হতে সময় লাগে সারা দিন। সন্ধ্যার পর এই মালামাল নিতে আগরতলা থেকে নয়টি ট্রাক বাংলাদেশের আখাউড়া স্থলবন্দর টার্মিনালে ঢোকে।
আখাউড়া স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধায়ক মো. হামিদুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, বাংলাদেশের ট্রাক থেকে ভারতীয় ট্রাকে মালামাল ওঠানো হয় আখাউড়া বন্দর টার্মিনালে।
আখাউড়া স্থলবন্দরের শুল্ক কর্মকর্তা সুবাশ চন্দ্র কুণ্ডু বলেন, ট্রাকগুলোর পণ্য বিনাশুল্কে ত্রিপুরার আগরতলায় পৌঁছার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের ছাড়পত্র রয়েছে।

Source: http://www.prothom-alo.com/detail/date/2011-09-30/news/189963
Md. Abul Hossain Shajib.
101-11-1375
Department of BBA, Sec:B.
25th Batch.
Daffodil International University.
Email: shajib_1375@diu.edu.bd
Admin Executive
creative.bd

Offline Golam Kibria

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 1127
  • Working for a better life
    • View Profile
    • Golam Kibria
Re: Business News
« Reply #84 on: October 02, 2011, 12:02:47 AM »

‘ব্যাংকগুলো বন্ডের মাধ্যমে ৭৫ শতাংশ এসএলআর জমা করতে পারবে’

ব্যাংকগুলো এখন থেকে বন্ডের মাধ্যমে ৭৫ শতাংশ ‘বিধিবদ্ধ জমা সংরক্ষণ’ (এসএলআর) জমা করতে পারবে।
বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করা হয়েছে।

আগামীকাল শনিবার থেকে এটা কার্যকর হবে।

উল্লেখ্য, প্রচলিত নির্দেশনা অনুযায়ী বর্তমানে ব্যাংকগুলো এসএলআর-এর ৫০ শতাংশ বন্ডের মাধ্যমে জমা রাখতে পারে। ব্যাংকের পুনর্মূল্যায়নজনিত ক্ষতি কমাতে বাংলাদেশ ব্যাংক এ উদ্যোগ নিয়েছে বলে জানা গেছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের সার্কুলারে বলা হয়েছে, ব্যাংকগুলোর ‘হেল্ড টু ম্যাচুউরিটি’ (এইচটিএম) সিকিউরিটিজে বিনিয়োগ মূল্যমান অনুসারে সংশ্লিষ্ট মাসে রক্ষিত সহজে বিনিয়োগযোগ্য সম্পদের এসএলআর ৫০ শতাংশ নির্ধারণ করা হয়েছিল।

বর্তমানে সার্বিক অবস্থা বিবেচনায় সাময়িকভাবে ওই বিনিয়োগের পরিমাণ সংশ্লিষ্ট মাসের রক্ষিত সহজে বিনিয়োগযোগ্য সম্পদের ৫০ শতাংশের স্থলে ৭৫ শতাংশ পুনর্নির্ধারণ করা হলো। তবে ব্যাংক কোম্পানির ধারণকৃত ট্রেজারি বিল ও বন্ডের মার্কিং টু মার্কেটভিত্তিক পুনর্মূল্যায়ন সংক্রান্ত এর আগে জারি করা ৫নং সার্কুলারে বর্ণিত নির্দেশনা অপরিবর্তিত থাকবে। 

Source : http://www.banglanews24.com/detailsnews.php?nssl=fa480a1c6ccae48bf050a03d9d7be134&nttl=2011093007523360509&toppos=2
Golam Kibria
ID:101-11-1373 (BBA)
Asst.Offic, Bangladesh Skill Development Institute
Ex.Lecturer,SEBGC
Email : golam_1373@diu.edu.bd
http://www.golamkibria.com
Mob:01843674226
Digital University: http://www.daffodilvarsity.edu.bd
Bangladeshi Poems, Novels and history: http://www.trulybangladesh.com

Offline Golam Kibria

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 1127
  • Working for a better life
    • View Profile
    • Golam Kibria
Re: Business News
« Reply #85 on: October 04, 2011, 12:05:06 AM »

সেপ্টেম্বরে রেমিট্যান্স কমেছে

গত সেপ্টেম্বরে দেশে ৮৪ কোটি ডলারের সম-পরিমাণ রেমিট্যান্স এসেছে। এ নিয়ে চলতি অর্থবছরের প্রথম তিন মাসে রেমিট্যান্স প্রবাহ  ২৯৬ কোটি ডলারে দাঁড়ালো।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
 
প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, সেপ্টেম্বরে রেমিট্যান্স প্রবাহ এর আগের মাসের তুলনায় কমেছে। আগস্টে রেমিট্যান্স  ছিল ১১০ কোটি  ১৭ লাখ ডলার। এর আগে গত জুলাইয়ে রেমিট্যান্স এসেছে ১০২ কোটি ৮১ লাখ ডলার।

এদিকে আগস্টের তুলনায় সেপ্টেম্বরে রেমিট্যান্স প্রবাহ কমলেও এর আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় রেমিট্যান্স প্রবাহ বেড়েছে। ২০১০-১১ অর্থবছরের প্রথম তিন মাসে দেশে রেমিট্যান্স প্রবাহের পরিমাণ ছিল ২৬৫ কোটি ৮৯ লাখ ডলার। 

বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাব অনুযায়ী, সেপ্টেম্বরে রাষ্ট্রায়ত্ত চার (সোনালী, জনতা, অগ্রণী ও রূপালী) বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ২৫ কোটি ৬৭ লাখ ডলার, ৩০টি বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ৫৬ কোটি ৫০ লাখ ডলার, ৯টি বিদেশি ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ৬৬ লাখ ডলার এবং রাষ্ট্রায়ত্ত বিশেষায়িত ব্যাংকগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ১ কোটি ডলার।     

Source : http://www.banglanews24.com/detailsnews.php?nssl=57c08ea1105b73d6bd9d1a0fdd7b558d&nttl=2011100309014061083&toppos=7
Golam Kibria
ID:101-11-1373 (BBA)
Asst.Offic, Bangladesh Skill Development Institute
Ex.Lecturer,SEBGC
Email : golam_1373@diu.edu.bd
http://www.golamkibria.com
Mob:01843674226
Digital University: http://www.daffodilvarsity.edu.bd
Bangladeshi Poems, Novels and history: http://www.trulybangladesh.com

Offline Golam Kibria

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 1127
  • Working for a better life
    • View Profile
    • Golam Kibria
Re: Business News
« Reply #86 on: October 04, 2011, 12:14:46 AM »

রিজার্ভ কমায় উদ্বিগ্ন নয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার সংগ্রহ (রিজার্ভ) দীর্ঘদিন পর কমতে শুরু করেছে। রিজার্ভের পরিমাণ কমাকে অর্থনীতির জন্য কিছুটা চাপ মনে করলেও উদ্বেগের কোনো কারণ দেখছে না বাংলাদেশ ব্যাংক।

সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের পরিমাণ এসে দাঁড়ায় ৯৮৮ কোটি ডলার বা ৭৪ হাজার কোটি টাকা।   

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের একাধিক সূত্র জানিয়েছে, ডলারের বিপরীতে নন ডলার বা অন্যান্য মুদ্রার দুর্বলতা, স্বর্ণের দাম, জ্বালানি তেলের আমদানি বেড়ে যাওয়া, লেনদেনের ভারসাম্যে চাপ, রেমিটেন্স প্রবাহে ধীরগতি, অন্যান্য আমদানি ব্যয় বেড়ে যাওয়া কারণে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ধরে রাখা যাচ্ছে না।

বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, ২০১১ সালের মে মাসে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ১১ বিলিয়ন ডলার ছাড়িয়ে যায়। এর আগে ২০১০ সালের আগস্টে তা ১০ বিলিয়ন ডলার ছাড়ায়।

জানতে চাইলে বাংলাদেশ ব্যাংকের জ্যেষ্ঠ পরার্মশক আল্লাহ মালিক কাজমী বাংলানিউজকে জানান, বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ সব সময় একই থাকবে এমটি ঠিক নয়। উঠা নামা করতেই পারে। তবে ১০ বিলিয়ন ডলারের নিচে নেমে এসেছে বলে আমি উদ্বেগের কারণ দেখছি না।

তিনি বলেন, জ্বালানি তেলসহ আমদানী বেড়ে যাওয়া, নন ডলারের মূল্য দুর্বল হওয়ায় এই পরিস্থিতি হয়েছে। তবে নন ডলার আবার শক্তিশালী হলে এটি স্বাভাবিক হয়ে যাবে।

সেপ্টেবর মাসে রেমিটেন্স প্রবাহ কমার প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এই জ্যেষ্ঠ পরামর্শক বলেন, গত বছরের সেপ্টেম্বরেরও এই প্রবাহ সামান্য কমেছিল।’

এদিকে বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর জিয়াউল হাসান সিদ্দিকী বলেন, রিজার্ভে কিছুটা চাপ তৈরি হয়েছে। তবে উদ্বেগের কোনো কারণ নেই। এটা সাময়িক। ব্যালেন্সে অব পেমেন্ট বেড়ে যাওয়াতে রিজার্ভ কমেছে। হঠাৎ করে ২৭৩ মিলিয়ন ডলারের দেনা জমে গিয়েছিল।

তিনি আরও বলেন, রিজার্ভ সামান্য কমলেও অর্থনীতিতে সব নিদের্শকই (ইনডিকেটর) ভালোর দিকে। রপ্তানি বেড়েছে প্রায় ২৪ শতাংশ, রেমিটেন্স প্রবাহ অব্যাহত আছে। তাছাড়া অর্থনীতি আমাদের নির্ধারিত কর্মসূচিতে রয়েছে। 

এদিকে, গত মে মাসে এশিয়ান ক্লিয়ারিং ইউনিয়ন বা আকুসহ অন্যান্য দায় হিসেবে ১০০ কোটি ডলার পরিশোধ করার পর থেকে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমতে শুরু করেছে। এই দায় পরিশোধের আগে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভের পরিমাণ ছিল ১ হাজার ১৩৭ কোটি ডলার। বড় কোনো দায় মেটানো না হলেও সর্বশেষ বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের পরিমান দাঁড়িয়েছে ৯৮৮ কোটি ডলার। দাতা সংস্থাসহ বৈদেশিক সহায়তা ছাড় করানো না গেলে রিজার্ভ আরো চাপের মুখে পড়তে পারে।

আর্ন্তজাতিক মানদন্ড অনুযায়ী সব দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের হাতে তিন মাসের আমদানি ব্যয় মেটানোর মতো বিদেশি মুদ্রা মজুদ রাখতে হয়।

এদিকে কোনো ভাবেই ডলারের দাম নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না বাংলাদেশ ব্যাংক। গতকাল আন্তঃব্যাংকিং ডলার লেনদেন হয়েছে ৭৫ দশমিক ২০ পয়সায়। কার্ব মার্কেটে ডলার বিক্রি হয়েছে ৭৯ দশমিক ২০ পয়সায়।

আল্লাহ মালিক কাজমী বলেন, আমরা কেন ডলারে দাম নিয়ন্ত্রণ করতে যাবে। এটি আপাতত অর্থনীতির জন্য কোনো চাপ নয়। 

রেমিটেন্স প্রবাহের ধীর গতি চলছে। চলতি অর্থবছরের প্রথম দুই মাসে (জুলাই-অগাস্ট) রেমিটেন্সের প্রবাহ বাড়লে হয়েছে ১৫ শতাংশের কাছাকাছি। গত সেপ্টেম্বর মাসে এই প্রবৃদ্ধি কমে এসেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাবে জুলাই মাসে প্রবাসীরা ১০৩ কোটি ডলার দেশে পাঠিয়েছিলেন। আগস্ট মাসে রেমিটেন্স এসেছে ১০৮  কোটি ডলার। সেপ্টেম্বর মাসে রেমিটেন্স প্রবাহ কমেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্যমতে, ৮৫ কোটি ডলার।
 
এদিকে অস্বাভাবিক ভাবে বাড়ছে আমদানি ব্যয়। জুলাই মাসের তথ্য অনুযায়ী, অর্থবছরের প্রথম মাসে আমদানি ব্যয় বেড়েছে গত অর্থ বছরের জুলাইয়ের তুলনায় ৩৫ দশমিক ৭২ শতাংশ।

Source : http://www.banglanews24.com/detailsnews.php?nssl=013bd45563a1118fcefcbb1b0f2e3524&nttl=2011100306401261055&toppos=7
Golam Kibria
ID:101-11-1373 (BBA)
Asst.Offic, Bangladesh Skill Development Institute
Ex.Lecturer,SEBGC
Email : golam_1373@diu.edu.bd
http://www.golamkibria.com
Mob:01843674226
Digital University: http://www.daffodilvarsity.edu.bd
Bangladeshi Poems, Novels and history: http://www.trulybangladesh.com

Offline Golam Kibria

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 1127
  • Working for a better life
    • View Profile
    • Golam Kibria
Re: Business News
« Reply #87 on: October 04, 2011, 12:27:25 AM »

বাংলাদেশ ব্যাংককে ১০০ কোটি ডলার দেবে আইএমএফ

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) বাংলাদেশ ব্যাংকে ১০০ কোটি ডলার বা সাত হাজার ৫০০ কোটি টাকার প্রতিশ্রুত ঋণ ছাড়ের আশ্বাস দিয়েছে। বর্ধিত ঋণ সুবিধার (ইসিএফ) আওতায় এই অর্থ দেবে সংস্থাটি। এদিকে চার কিস্তিতে এই অর্থ ছাড় করা হবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্র।

আইএমএফ বার্ষিক সভা শেষে এর নির্বাহীদের সঙ্গে বাংলাদেশের প্রতিনিধিদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত সাম্প্রতিক বৈঠকে এই আশ্বাস দিয়েছে আইএমএফ।

সোমবার সফর থেকে ফিরে বাংলাদেশ ব্যাংক গভর্নর ড. আতিউর রহমান সাংবাদিকদের একথা জানিয়েছেন।

ড. আতিউর রহমানের বরাত দিয়ে তার প্রটোকল অফিসার এএফএম আসাদুজ্জামান জানান, আইএমএফের সঙ্গে ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে। খুব শিগগিরই এ ঋণ পাওয়া যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

আইএমএফের ইসিএফ ঋণের শর্ত না থাকায় এটিকে ‘ভালো ঋণ’ বলে মনে করছে বাংলাদেশ।

তবে তাতে খুব একটা আশার আলো দেখছেন না বাংলাদেশ ব্যাংকের  জ্যেষ্ঠ পরামর্শক আল্লাহ মালিক কাজমী।

তিনি বলেন, আইএমএফ এর এই প্রতিশ্রুতি আগের। দেখার বিষয় কতদ্রুত অর্থ ছাড় হয়। তাছাড়া বড় অংকের টাকা হলেও আইএমএফ তা বাংলাদেশ ব্যাংকে দেবে চার কিস্তিতে। তাই তখন আর এটি বড় অংকে থাকছে না।

তিনি আরও বলেন, তবে যাই হোক এই অর্থ হাতে পেলে ব্যালেন্স অব পেমেন্টে একটু চাপ কমবে। এছাড়া ব্যাংকগুলো থেকে সরকারের ধার কমবে। সে হিসেবে অর্থনীতিতে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে।     

কোনো দেশের লেনদেনে ভারসাম্যহীনতা দেখা দিলে ইসিএফ পাওয়া যায়। এ ঋণ দেশের লেনদেনে ভারসাম্য ঠিক করতে সহায়তা করবে বলেও জানান তিনি।

Source : http://www.banglanews24.com/detailsnews.php?nssl=cefb4b45542b2c02118250c369e627e1&nttl=2011100307240261064&toppos=7
Golam Kibria
ID:101-11-1373 (BBA)
Asst.Offic, Bangladesh Skill Development Institute
Ex.Lecturer,SEBGC
Email : golam_1373@diu.edu.bd
http://www.golamkibria.com
Mob:01843674226
Digital University: http://www.daffodilvarsity.edu.bd
Bangladeshi Poems, Novels and history: http://www.trulybangladesh.com

Offline Golam Kibria

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 1127
  • Working for a better life
    • View Profile
    • Golam Kibria
Re: Business News
« Reply #88 on: October 05, 2011, 12:48:00 AM »
প্রথমবারের মতো চালু হলো ই-টেন্ডারপ্রক্রিয়া

প্রথমবারের মতো দেশে ইলেকট্রনিক টেন্ডার বা ই-টেন্ডারপ্রক্রিয়া চালু হয়েছে। গতকাল সোমবার থেকে চালু হওয়া এ প্রক্রিয়ার উদ্দেশ্য হচ্ছে, ইলেকট্রনিক পদ্ধতিতে সরকারি ক্রয়, অর্থাৎ ইলেকট্রনিক গভর্নমেন্ট প্রকিউরমেন্ট (ই-জিপি) পরিচালনা করা। এ পদ্ধতিতে ইন্টারনেটে বসে সরকারি ক্রয় কার্যক্রমে সহজে অংশ নেওয়া যাবে। ফলে সরকারি কেনাকাটায় স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিত হবে।
ই-জিপি বাস্তবায়নের জন্য পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের অধীনে বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের আওতায় কাজ করছে সেন্ট্রাল প্রকিউরমেন্ট টেকনিক্যাল ইউনিট (সিপিটিইউ)। গতকাল সেন্ট্রাল প্রকিউরমেন্ট টেকনিক্যাল ইউনিটের যোগাযোগ ও সামাজিক সচেতনতা পরামর্শক শফিউল আলম প্রথম আলোকে এসব তথ্য জানান। এ কার্যক্রমের ফলে টেন্ডারে অংশ নেওয়া ঠিকাদারদের আবেদনপত্র ও বাছাইপ্রক্রিয়া অনলাইনেই সম্পন্ন হবে। গত ২ জুন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন ইজিপি পোর্টালের (www.eprocure.gov.bd)। এর পর থেকেই মূলত ঠিকাদার, সরবরাহকারী, পরামর্শক ও ওই চারটি প্রতিষ্ঠানের ক্রয়কারী অফিসগুলোর জন্য নিবন্ধন উন্মুক্ত রয়েছে। গতকাল পর্যন্ত ইজিপি ব্যবস্থায় ২৩৭ জন ঠিকাদার নিবন্ধন করেছেন, যার মধ্যে চারজন বিদেশিও রয়েছেন।
ই-টেন্ডারিংয়ে অংশগ্রহণের জন্য নিবন্ধন করতে প্রথমে ওয়েবসাইটে গিয়ে নিউ ইউজার রেজিস্ট্রেশনে ক্লিক করতে হবে। তারপর যে ওয়েবপেজ খুলবে, সেখানে নিজস্ব ই-মেইল ঠিকানা, পাসওয়ার্ড, জাতীয়তা প্রভৃতি সব তথ্য দিয়ে সঠিকভাবে পূরণ করে পাঠাতে হবে। এরপর অনুমোদিত ব্যাংকের নির্দিষ্ট শাখায় নির্ধারিত ফি জমা দিয়ে তাঁর সংশ্লিষ্ট কাগজপত্র স্ক্যান করে মেইলে পাঠাতে হবে। এরপর সব প্রক্রিয়া শেষে নিবন্ধন সম্পন্ন হবে। নিবন্ধন শেষে আবেদনকারীর মেইলে ও মুঠোফোনে স্বয়ংক্রিয়ভাবে বার্তা পৌঁছে যাবে। এরপর প্রতিবছর শুধু নির্দিষ্ট নবায়ন ফি দিতে হবে। জানা গেছে, বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে পাবলিক প্রকিউরমেন্ট রিফর্ম প্রজেক্ট-২-এর আওতায় সরকার দেশে ই-টেন্ডারিং চালু করেছে। ই-টেন্ডার পদ্ধতি চালুর মাধ্যমে দেশে টেন্ডার নিয়ে নানা ধরনের অনিয়ম কমে গিয়ে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহির নতুন একটি মাইলফলক তৈরি হবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

Source : http://www.prothom-alo.com/detail/date/2011-10-04/news/190956
Golam Kibria
ID:101-11-1373 (BBA)
Asst.Offic, Bangladesh Skill Development Institute
Ex.Lecturer,SEBGC
Email : golam_1373@diu.edu.bd
http://www.golamkibria.com
Mob:01843674226
Digital University: http://www.daffodilvarsity.edu.bd
Bangladeshi Poems, Novels and history: http://www.trulybangladesh.com

Offline goodboy

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 1133
  • "Find your ways, Built your inspiration."
    • View Profile
Re: Business News
« Reply #89 on: October 05, 2011, 08:56:08 PM »
স্যামসাং: মডেল করপোরেট প্রতিষ্ঠানের প্রতিরূপ
এককালে নুডলস তৈরি করত স্যামসাং। ১৯৩৮ সালে যাত্রা শুরু হয় প্রতিষ্ঠানটির। তখন কেউ কি বুঝতে পেরেছিল যে এই স্যামসাংই এক সময় পৃথিবীর অন্যতম বিখ্যাত প্রতিষ্ঠানে পরিণত হবে? হয়ে উঠবে পৃথিবীর অন্যতম শ্রেষ্ঠ ব্র্যান্ডের নাম?
এমন অনেক স্বপ্ন হয়তো দেখেছিলেন স্যামসাংয়ের প্রতিষ্ঠাতা লি বিউং চুল। চুলের সেসব স্বপ্ন যে ৭০ বছরের একটু বেশি সময়ের মধ্যে এতটা বাস্তবে রূপ নেবে, সেটাই-বা কজন ভেবেছিলেন।
আজ ২০১১ সালে স্যামসাং পরিণত হয়েছে পৃথিবীর অন্যতম সেরা, পরিচিত একটি করপোরেট প্রতিষ্ঠানে। এশিয়ার অন্যতম অর্থনৈতিক শক্তি দক্ষিণ কোরিয়ার মোট রপ্তানির ১৩ শতাংশ নিয়ন্ত্রণকারী এ প্রতিষ্ঠানটির বার্ষিক রাজস্বের পরিমাণ চার হাজার কোটি মার্কিন ডলার। স্যামসাং ইলেকট্রনিকস বর্তমানে বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ইলেকট্রনিক পণ্য তৈরির প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, প্রতিষ্ঠানটি অল্প কিছুদিনের মধ্যে টেলিযোগাযোগ প্রযুক্তি-শিল্পে বিশ্বের অনেক বড় প্রতিষ্ঠানকে টপকে যাবে।
স্যামসাং ইলেকট্রনিকস স্যামসাং গ্রুপের একটি স্বতন্ত্র প্রতিষ্ঠান। মূলত এই স্যামসাং ইলেকট্রনিকসই স্যামসাং নামটিকে বিশ্বব্যাপী পরিচিতি দিয়েছে। স্যামসাং ইলেকট্রনিকস ও প্রযুক্তি ব্যবসা ছাড়াও আরও ৮২টি ক্ষেত্রে বিনিয়োগ করেছে। কিন্তু এতগুলো ব্যবসার পরও স্যামসাং ইলেকট্রনিকসই কিন্তু স্যামসাংকে বিখ্যাত প্রতিষ্ঠানে পরিণত করার সবচেয়ে বড় অনুষঙ্গ হয়ে উঠেছে।
স্যামসাং গ্রুপ যেমন খাবার নুডলস তৈরি করার মধ্য দিয়ে বাণিজ্যের জগতে প্রবেশ করেছিল, ঠিক তেমনি স্যামসাং ইলেকট্রনিকসের যাত্রা শুরু হয়েছিল ছোট্ট, কমদামি ট্রানজিস্টার তৈরির মধ্য দিয়ে। সেখান থেকে আজ স্যামসাং কোথায় পৌঁছে গেছে। টেলিভিশনের যে নানা প্রযুক্তি আমরা বর্তমান দুনিয়ায় দেখে থাকি, তাকেও এক অন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছে এই প্রতিষ্ঠানটি। অ্যাপল ও নকিয়ার মতো প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে পাল্লা দিয়ে স্যামসাং ইলেকট্রনিকস টেলিযোগাযোগ প্রযুক্তি-শিল্পে এনেছে নতুনত্বের ছোঁয়া।
বিশ্লেষকেরা ধারণা করছেন, স্যামসাংয়ের বিভিন্ন স্মার্টফোন, অন্যান্য টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিপণ্য অচিরেই অনেক বড় প্রতিষ্ঠানের রাজত্বে ভাগ বসাবে এবং তা কেবলই সময়ের ব্যাপার।
স্যামসাংয়ের লক্ষণীয় যে ব্যাপারটি বিদ্যমান, তা হল প্রতিষ্ঠানটি স্বল্পমেয়াদি লাভ-ক্ষতির তোয়াক্কা করে না। তাদের একমাত্র লক্ষ্য দীর্ঘমেয়াদে নির্দিষ্ট ব্যবসায়ে শ্রেষ্ঠত্বের আসনটি দখল করা। এ ধরনের লক্ষ্য নিয়ে কাজ শুরু করে তারা এখন সফল। দীর্ঘমেয়াদি লাভালাভের অর্থ এখন তারা বিনিয়োগ করছে নতুন নতুন শিল্পে। সঠিক পরিকল্পনা ও দৃঢ় প্রতিজ্ঞার মধ্য দিয়ে স্যামসাং এই নতুন খাতগুলোতেও সফল হবে—এটা বলাই যায়। স্যামসাংয়ের এখন লক্ষ্য নবায়নযোগ্য জ্বালানি এবং পরিবেশ উপযোগী পণ্যসামগ্রী খাতে বিনিয়োগ করা। তারা পরিকল্পনা চূড়ান্ত করেছে বৈদ্যুতিক গাড়ি ও এলইডি বাতি তৈরি করার। এ ছাড়া চিকিত্সা যন্ত্রপাতি ও ওষুধ-শিল্পে স্যামসাং রাখতে চায় তাদের দৃঢ় পদচিহ্ন। প্রতিষ্ঠানটি মনে করছে, সুষ্ঠু পরিকল্পনার মাধ্যমে নতুন এ ক্ষেত্রগুলো থেকে তাদের বার্ষিক আয় আসবে প্রায় ৫০০ কোটি ডলার। এ লাভ যুক্ত হলে স্যামসাং গ্রুপের বার্ষিক রাজস্ব কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে—সেটা নতুন করে না বললেও চলে।
ভবিষ্যতের স্যামসাং, জেনারেল ইলেকট্রিক না দাইয়ু?
দক্ষিণ কোরিয়ার শিল্পায়নে বিভিন্ন করপোরেট প্রতিষ্ঠানগুলো অতীতে সরকারের কাছ থেকে দারুণ সহযোগিতা পেয়েছে। তাদের জন্য ব্যাংকিং সেক্টর ছিল রীতিমতো খোলা। যখন যা ইচ্ছা তেমন করেই তারা বিভিন্ন ব্যবসা সম্প্রসারণের জন্য ঋণ নিয়েছে। এতে সরকারেরও ছিল প্রচ্ছন্ন সমর্থন। স্যামসাং, হাইউন্দাই, দাইয়ুর মতো প্রতিষ্ঠানগুলো দুই হাতে ঋণ নিয়ে ব্যবসা সম্প্রসারণ করেছে। তবে এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে স্যামসাং ব্যবসা সম্প্রসারণের ব্যাপারে কিছুটা রক্ষণশীল ভূমিকায় ছিল। সে কারণে ১৯৯৭-৯৮ সালে যখন কোরিয়ার আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে বিপর্যয় দেখা দিয়েছিল। ওই সময় নানা সমস্যা জর্জরিত প্রায় ৩০টি করপোরেট প্রতিষ্ঠান পথে বসলেও স্যামসাং নিজেদেরকে সেই সংকট থেকে দূরে রাখতে পেরেছিল। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটির হাতে প্রচুর নগদ পুুঁজি থাকায় তারা খুব দ্রুত ব্যবসা সম্প্রসারণের দিকে নজর দিয়েছে। অর্থনৈতিক বিশ্লেষকেরা স্যামসাংয়ের বর্তমান নীতিকে কিছুটা আশঙ্কার চোখে দেখছেন। কারণ, সাম্প্রতিক সাফল্যে উদ্দীপ্ত স্যামসাং সম্প্রসারণের নেশায় না আবার কোনো ভুল করে বসে। অতীতে তাদের অনেক ব্যবসায়িক ভুল ছিল। একসময় অনেক ঢাকঢোল পিটিয়ে বাজারে আসা স্যামসাং ব্র্যান্ডের গাড়ির নাম এখন আর শোনা যায় না।
অনেকেই এখন স্যামসাংকে বিশ্বখ্যাত জেনারেল ইলেকট্রিক কোম্পানির (জিই) সঙ্গে তুলনা করছেন। প্রতিষ্ঠানটি পরিকল্পনায়, নীতি ও সাফল্যে তেমনই একটি ইমেজ প্রতিষ্ঠিত করতে পেরেছে। কিন্তু অতিরিক্ত সম্প্রসারণশীল নীতিতে বিশ্বাস করে নব্বইয়ের দশকের শেষ দিকে দাইয়ু যেমন নিজেদের বিপদ ডেকে এনেছিল, স্যামসাং না আবার তেমন কোনো সমস্যায় পড়ে, বিশ্লেষকরা এখন সে আশঙ্কাই করছেন।
Source: http://www.prothom-alo.com/detail/date/2011-10-05/news/191417
Md. Abul Hossain Shajib.
101-11-1375
Department of BBA, Sec:B.
25th Batch.
Daffodil International University.
Email: shajib_1375@diu.edu.bd
Admin Executive
creative.bd