নিদাহাসের আত্মবিশ্বাসেই পুড়বে আফগানিস্তান!

Author Topic: নিদাহাসের আত্মবিশ্বাসেই পুড়বে আফগানিস্তান!  (Read 268 times)

Offline shafeisnine

  • Newbie
  • *
  • Posts: 19
  • Test
    • View Profile
টি-টোয়েন্টি এমন এক ফরম্যাট, যেখানে বাংলাদেশ আনুষ্ঠানিকভাবে আফগানিস্তানের চেয়ে পিছিয়ে। সব শেষ প্রকাশিত আইসিসির টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিং তা-ই বলছে। সেখানে ১০ নম্বরে থাকা বাংলাদেশের চেয়ে দুই ধাপ ওপরের আফগানদের অবস্থান ৮ নম্বরে। জুনের প্রথম সপ্তাহে উত্তরাখণ্ডের দেরাদুনে অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের আগে এই পিছিয়ে থাকাটা তাহলে কী বার্তা দিচ্ছে?

নানাজনের বক্তব্যে যদিও মনে হচ্ছে সেটি একেকজন একেকভাবে নিচ্ছে। কারো কাছে মনে হচ্ছে র‌্যাংকিংয়ে এগিয়ে থাকা দলের সামনে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে বাংলাদেশকে। আবার অনেকের মতে র‌্যাংকিংয়ের অবস্থান নিয়ে ভাবনার অত কিছু অন্তত নেই। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান প্রথম মতের অনুসারী। তবে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন পরের মত প্রতিষ্ঠায় দেখাচ্ছেন অনেক যুক্তিও।

এ সফর যখন চূড়ান্ত হয়নি, তখন এই রকম একটি আলোচনা শোনা গিয়েছিল যে আফগানদের বিপক্ষে পুরো শক্তির দল পাঠাবে না বাংলাদেশ। পরে অবশ্য সেই অবস্থান থেকে সরে এসে পুরো শক্তির দলই এখন পাঠানোর অপেক্ষা। সেই সিরিজের দল ঘোষণার আগে ১৩ মে থেকে ৩১ জন ক্রিকেটারকে নিয়ে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের অনুশীলন শিবিরও শুরু হয়ে যাচ্ছে। এখান থেকেই প্রতিপক্ষের শক্তিমত্তা ও দুর্বলতা বুঝে দল গড়বেন নির্বাচকরা। কিন্তু যে দলই তাঁরা গড়ুন না কেন, সেই দলের পক্ষে আফগানদের সামলানো কঠিন হবে বলে গত পরশু এক অনুষ্ঠানে মন্তব্য করেছেন বিসিবি সভাপতি, ‘টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়ে কিন্তু আফগানিস্তান আমাদের চেয়ে এগিয়ে। কাজেই আমাদের পুরো শক্তির দলের জন্যও ওদের বিপক্ষে জেতাটা চ্যালেঞ্জিং হবে।’

সংক্ষিপ্ততম ফরম্যাটের খেলায় ছোট দলেরও যখন-তখন বড় দলকে ঝামেলায় ফেলার অসংখ্য নজির আছে, তখন কেউ চ্যালেঞ্জটি অস্বীকার করেন কী করে? করছেন না মিনহাজুলও। তাই বলে র‌্যাংকিংয়ে এগিয়ে থাকার সুবাদে আফগানদের নিরঙ্কুশ প্রাধান্য দেওয়ার পক্ষপাতীও তিনি নন। তাঁর যুক্তি, ‘এটাও মানতে হবে যে আফগানিস্তান টি-টোয়েন্টি কিন্তু টেস্ট খেলুড়ে দেশের সঙ্গে বেশি খেলেনি। ওরা নিচু সারির দলের সঙ্গে প্রচুর ম্যাচ খেলেছে। এই যেমন নেদারল্যান্ডস, ইউএই বা এ ধরনের দলের সঙ্গে। ওদের সঙ্গে জিতেই ওরা র‌্যাংকিংয়ে কিছুটা এগিয়ে গেছে। আমার মতে এই র‌্যাংকিং নিয়ে অন্তত ভাবিত হওয়ার খুব বেশি কিছু নেই। আমরা আমাদের দিক থেকে সেরাটাই দিতে যাব।’

আর এমন সময়ে সাকিব আল হাসানরা আফগানিস্তানের মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন, যখন পেছনে আছে শ্রীলঙ্কায় স্বাগতিকদের বিদায় করে ভারতের বিপক্ষে নিদাহাস ট্রফির ফাইনাল খেলে আসার টাটকা স্মৃতিও। ওই আসরের আগ পর্যন্ত নিজেদের টি-টোয়েন্টি সামর্থ্য নিয়ে পরিষ্কার কোনো ধারণা ছিল না এমনকি বাংলাদেশ শিবিরেরও। সে জন্যই নিদাহাস ট্রফি খেলতে যাওয়ার আগে একাধিক ক্রিকেটারের মুখেই শোনা গেছে যে ওই টুর্নামেন্টের মাধ্যমে একটা বার্তা তাঁরা দিয়ে আসতে চান। ফাইনাল খেলার মাধ্যমে সেটি দেওয়া গেছেও। এমনকি লঙ্কানদের বিপক্ষে ২১৪ রান তাড়া করে জেতার অবিশ্বাস্য ঘটনাও আছে। সব মিলিয়েই সংশ্লিষ্টদের মধ্যে টি-টোয়েন্টি নিয়ে বিশ্বাসও বেড়েছে। সে কথা স্বীকারে দ্বিধা নেই মিনহাজুলেরও, ‘এটা সত্যি যে নিদাহাস ট্রফি টি-টোয়েন্টি নিয়ে আমাদের বিশ্বাস বাড়িয়ে দিয়েছে বহুগুণ।’

তাই জুনে দেরাদুনের প্রচণ্ড গরমও খুব একটা ভাবাচ্ছে না সংশ্লিষ্টদের। ওই সময় সেখানকার তাপমাত্রা থাকবে ৩৬-৩৮ ডিগ্রির মধ্যে। তবে খেলা যে সময় হবে, তখন তাপমাত্রাও নেমে যাওয়ার কথা। কারণ রোজার মাসে রাত সাড়ে ৮টায় খেলা শুরুর সময় নির্ধারিত হয়েছে বলে জানা গেছে। মিনহাজুল তাই অন্য কিছু নিয়ে না ভেবে থাকতে চান নিদাহাস ট্রফির ইতিবাচক দিকগুলো নিয়েই, ‘নিদাহাস ট্রফি প্রত্যাশা বাড়িয়ে দিয়েছে। আমাদের খেলোয়াড়রা এখন ভালোমতোই আয়ত্ত করতে পেরেছে ফরম্যাটটি। ডেথ ওভারে রান করা, শুরুর ওভারগুলোতে উইকেট বাঁচানো...এগুলোতে আগের সমস্যা কাটিয়ে উঠেছে অনেকটাই।’

তাই র‌্যাংকিংয়ে এগিয়ে থেকেও আফগানিস্তান আসলে তেমন এগিয়ে নয়!
Source: http://www.kalerkantho.com/print-edition/sports/2018/05/09/634068