‘গোল্ডম্যান এনভায়রনমেন্টাল প্রাইজ-২০১৮’-তে নারীদের জয়জয়কার

Author Topic: ‘গোল্ডম্যান এনভায়রনমেন্টাল প্রাইজ-২০১৮’-তে নারীদের জয়জয়কার  (Read 587 times)

Offline Monir Hossan

  • Sr. Member
  • ****
  • Posts: 343
  • Remain honest in every sphere of life!
    • View Profile
    • Daffodil International University
পরিবেশবিষয়ক বিশ্বের সবচেয়ে বড় পুরস্কার ‘গোল্ডম্যান এনভায়রনমেন্টাল প্রাইজ-২০১৮’-তে এবার নারীদের জয়জয়কার। ছয়জনকে এই পুরস্কার প্রদান করা হয়েছে, তাঁদের মধ্যে পাঁচজনই হলেন নারী। পরিবেশ রক্ষায় তৃণমূল পর্যায়ে তাঁরা কাজ করেছেন।

গোল্ডম্যান এনভায়রনমেন্টাল প্রাইজ কর্তৃপক্ষ বলছে, সুন্দর বিশ্বের জন্য আমাদের সংগ্রাম কখনো কখনো পরাজিত হলেও এই বছর পরিবেশ সুরক্ষায় ছয়টি অসাধারণ উদ্যোগ খুঁজে পাওয়া গেছে। যার মধ্যে পাঁচটির রূপকারই নারী।

গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গতকাল রোববার যুক্তরাষ্ট্রে এই পুরস্কার ঘোষণা করা হয়। পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন ল্যাটিন আমেরিকার পরিবেশবাদী কর্মী ফ্রান্সিয়া মার্কেজ, দক্ষিণ আফ্রিকার নিউক্লিয়ারবিরোধী আন্দোলনকারী মাকোমা লেকালাকালা ও লিজ ম্যাকডাইড, ভিয়েতনামের ক্লিন এনার্জি আইনজীবী নুউ থি খানহ, যুক্তরাষ্ট্রের পরিষ্কার পানি আন্দোলনকারী লিঅ্যান ওয়াল্টস ও ফরাসি সামুদ্রিক পরিবেশ রক্ষার কর্মী ক্লেয়ার নুভিয়ান। একমাত্র পুরস্কার বিজয়ী পুরুষ হলেন ফিলিপাইনের সিসাবিরোধী ক্যাম্পেইনার মানি কালোঞ্জো।

আফ্রিকান-কলাম্বিয়ান কমিউনিটির নেতা ফ্রান্সিয়া মার্কেজ বলেন, নিরাপত্তাহীনতা তার প্রচারাভিযানের একটি অবিচ্ছেদ্য সত্য। ফ্রান্সিয়া মার্কেজের পরিবেশবাদী আন্দোলনের কারণে নদীতীরবর্তী অঞ্চলে অবৈধ খনিমালিকদের অপসারণের জন্য সেনা প্রেরণ করে সরকার। অবৈধ ওই খনি খননের জন্য আশপাশের নদীগুলোতে বিষাক্ত সায়ানাইড ও পারদ ছড়িয়ে পড়ছিল।

পরিবেশবাদী আন্দোলন খুব সহজ কোনো বিষয় নয়। আন্দোলন করতে গিয়ে বহু সময় বহুজন প্রাণ দিয়েছেন। এমনকি এখন পর্যন্ত গোল্ডম্যান এনভায়রনমেন্টাল প্রাইজ বিজয়ী দুজন প্রাণ হারিয়েছেন। ২০১৬ সালের ২ মার্চ পরিবেশ আন্দোলনকর্মী কাসেরেসকে তাঁর নিজ বাড়ির ভেতরে গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল। কাসেরেস একটি বাঁধ নির্মাণ প্রকল্পের বিরুদ্ধে গড়ে ওঠা আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। ২০০৫ সালে পুরস্কার বিজয়ের মাত্র নয় মাস পর প্রাণ হারান ম্যাক্সিকান পরিবেশবাদী কর্মী ইসিদো বালদিনিগ্রো লোপেজ। তাঁকে গুলি করে হত্যা করা হয়।

Source: http://www.prothomalo.com/international/article/1475506/%E2%80%98%E0%A6%97%E0%A7%8B%E0%A6%B2%E0%A7%8D%E0%A6%A1%E0%A6%AE%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%A8-%E0%A6%8F%E0%A6%A8%E0%A6%AD%E0%A6%BE%E0%A7%9F%E0%A6%B0%E0%A6%A8%E0%A6%AE%E0%A7%87%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%9F%E0%A6%BE%E0%A6%B2-%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%87%E0%A6%9C-%E0%A7%A8%E0%A7%A6%E0%A7%A7%E0%A7%AE%E2%80%99-%E0%A6%A4%E0%A7%87-%E0%A6%A8%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%80%E0%A6%A6%E0%A7%87%E0%A6%B0
Mohammad Monir Hossan
Senior Assistant Director (Division of Research)
E-mail: monirhossain@daffodilvarsity.edu.bd