আল্লাহর জন্য ভালোবাসা

Author Topic: আল্লাহর জন্য ভালোবাসা  (Read 20353 times)

Offline Md. Zakaria Khan

  • Sr. Member
  • ****
  • Posts: 336
  • active
    • View Profile
Re: আল্লাহর জন্য ভালোবাসা
« Reply #105 on: September 05, 2021, 06:23:33 PM »
গীবত একটি জঘন্য গুনাহ
ব্যভিচারের চেয়েও জঘন্য,
নবীজি ﷺ গীবত নামক এ জঘন্যতম গুনাহর কথা সাহাবায়েকেরামের সন্মুখে বিভিন্নভাবে প্রকাশ করেছেন। এজন্য এই সুবাদে আলোচনা করতে গিয়ে একটি হাদিস সামনে রাখা প্রয়োজন, যেন এর ভয়াবহতা ও কদর্যতা আমাদের হৃদয়ে বসে যায়। আল্লাহ তাআলা আপন রহমতে গুনাহটির ভয়াবহতা আমাদের অন্তরে বসিয়ে দিন এবং জঘন্য গুনাহটি থেকে বেঁচে থাকার তৌফিক দিন। আমিন।
উল্লেখিত হাদীসের মাধ্যমে গীবতের ভয়াবহতা আপনারা নিশ্চয় অনুধাবন করেছেন যে, গীবতকারী আখেরাতে নিজের মুখমণ্ডল খামচাবে।
অপর এক হাদীসে এসেছে, হাদীসটি সনদের দিক থেকে তেমন মজবুত না হলেও অর্থের দিক থেকে বিশুদ্ধ। রসুলুল্লাহ ﷺ বলেছেন, গীবতের গুনাহ জিনা-ব্যভিচারের গুনাহর চেয়েও মারাত্মক।
প্রশ্ন হল, এর কারণ কী?
উত্তর হল, আল্লাহ না করুন, যদি কেউ ব্যভিচারের গুনাহে লিপ্ত হয়ে যায় তাহলে পরবর্তীতে অনুতপ্ত হয়ে তওবা করে নিলে আল্লাহ চাহে তো গুনাহটি মাফ হয়ে যাবে। পক্ষান্তরে গীবত এমন মারাত্মক গুনাহ যে, গুনাহটির ক্ষমা ততক্ষণ পর্যন্ত পাওয়া যাবে না, যতক্ষণ না যার গীবত করেছে সে ক্ষমা করে দেয়। (মাজমাউজ জাওয়ায়েদ, বাবুল গীবাত খন্ড ৮ পৃষ্ঠা ৯২)

Offline Md. Zakaria Khan

  • Sr. Member
  • ****
  • Posts: 336
  • active
    • View Profile
Re: আল্লাহর জন্য ভালোবাসা
« Reply #106 on: September 28, 2021, 05:35:51 PM »
বৈজ্ঞানিকভাবে তাহাজ্জুদ নামাজ পড়ার উপকারিতা
চিকিৎসা বিজ্ঞানীদের নিকট এই বিষয়টি স্পষ্ট হইয়া গিয়াছে যে,হতাশা, নৈরাশ্য,অনিদ্রা ও মানসিক বিপর্যস্ত প্রভৃতি রোগীদের জন্য তাহাজ্জুদের নামাজ একটি কার্যকর চিকিৎসা।
মানসিক রোগীদের ওপর রাতের শেষভাগে সাময়িক নিদ্রা বর্জন আরপ করিয়া ভালো ফল পাওয়া গিয়েছে।
অভিজ্ঞতার আলোকে দেখা গিয়েছে, রমজান মাসে মুসলমানদের মধ্যে মানসিক রোগীদের সংখ্যা তুলনামূলক কম থাকে।
উহার কারণ অনুসন্ধান করিয়া চিকিৎসা বিজ্ঞানীগণ এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন যে, রমজান মাসে রাতে শেষ অংশে সেহরির জন্য সাময়িক নিদ্রা বর্জনের ফলেই ওই রোগের প্রাদুর্ভাব হ্রাস পায়।
হতাশা ও মানসিক রোগীর যদি নিয়মিত তাহাজ্জুদ তাহাজ্জুদে অভ্যস্থ হয় তবে তাদের এই রোগ উপশম হইবে এবং সুস্থ লোকেরা ওই রোগের আক্রমণ হইতে নিরাপদ থাকবে।
চিকিৎসা বিজ্ঞানীগণ তাহাজ্জুদের নামাজের যেসব উপকারিতার কথা বর্ণনা করিয়াছেন নিম্নে কয়েকটি উল্লেখ করা হইল-
তাহাজ্জুদের নামাজ মানসিক অশান্তি দূরীকরণ ও সুনিদ্রা আনয়নের অন্যতম মহৌষধ।
ইহা হৃদরোগের উত্তম চিকিৎসা।
রোগের খিঁচুনি এবং গ্রন্থি প্রদাহের রোগীদের জন্য উপকারী।
মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞ উন্মাদ রোগের জন্য ইহা শেষ চিকিৎসা বটে।
চক্ষু রোগী বিশেষত যারা একটি বস্তুকে দুইটি দেখেন তাহাজ্জুদের নামাজ তাহাদের জন্য উত্তম চিকিৎসা।
তাহাজ্জুদের নামাজ মানুষের আত্ম প্রশান্তি উদ্দাম কর্মস্পৃহা ও শারীরিক শক্তি সঞ্চয় করে।
বৈজ্ঞানিক আলোকে তাহাজ্জুদ নামাজের উপকারিতা এই কারণে বর্ণনা করা হচ্ছে যে,যেন আমাদের আল্লাহ তায়ালার প্রতি বিশ্বাস আরো বেশি জন্ম নেয়।
তার হুকুম আহকাম এরমধ্যেই আমাদের ইহলোক এবং পরলোক এর সফলতা এবং কামিয়াব রয়েছে।
আল্লাহ তাআলা আমাদের সঠিক বুঝ দান করুন আমিন।
সূত্র: সুন্নত ও আধুনিক বিজ্ঞান

Offline Md. Zakaria Khan

  • Sr. Member
  • ****
  • Posts: 336
  • active
    • View Profile
Re: আল্লাহর জন্য ভালোবাসা
« Reply #107 on: October 14, 2021, 06:24:40 PM »
তোমরা তাদেরকে মন্দ বলো না, যাদের তারা আরাধনা করে আল্লাহকে ছেড়ে। তাহলে তারা ধৃষ্টতা করে অজ্ঞতাবশতঃ আল্লাহকে মন্দ বলবে। এমনিভাবে আমি প্রত্যেক সম্প্রদায়ের দৃষ্টিতে তাদের কাজ কর্ম সুশোভিত করে দিয়েছি। অতঃপর স্বীয় পালনকর্তার কাছে তাদেরকে প্রত্যাবর্তন করতে হবে। তখন তিনি তাদেরকে বলে দেবেন যা কিছু তারা করত।
[সূরা আন-আম, আয়াত-১০৮ ]

Offline Emran Hossain

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 180
    • View Profile
Re: আল্লাহর জন্য ভালোবাসা
« Reply #108 on: November 06, 2021, 11:09:57 PM »

Dear Mr . Zakaria ,

Thanks a Lot for this Valuable Post.

My Best Regards.


Offline Md. Zakaria Khan

  • Sr. Member
  • ****
  • Posts: 336
  • active
    • View Profile
Re: আল্লাহর জন্য ভালোবাসা
« Reply #109 on: March 09, 2022, 03:16:47 PM »
আল্লাহ বলেন,
👉আর আমি তোমাদেরকে অবশ্যই পরিক্ষা করব কিছু ভয়, ক্ষুধা এবং ধন-সম্পদ, জীবন ও ফসলের ক্ষয়ক্ষতি দ্বারা। আর আপনি সুসংবাদ দিন ধৈর্যশীলদেরকে। সূরা বাকারা: ১৫৫

Offline Md. Zakaria Khan

  • Sr. Member
  • ****
  • Posts: 336
  • active
    • View Profile
Re: আল্লাহর জন্য ভালোবাসা
« Reply #110 on: March 21, 2022, 04:44:24 PM »
সরাসরি সাগর থেকে অজু করলেও অজুতে বেশি পানি খরচ করার অনুমতি ইসলাম দেয়নি।🚫🚫
মহান আল্লাহ বলেন, ‘তোমরা আহার করো ও পান করো; কিন্তু অপচয় কোরো না। নিশ্চয়ই আল্লাহ অপচয়কারীকে পছন্দ করেন না।’
(সূরা : আরাফ : আয়াত : ৩১)👈
👉 যারা অপব্যয় করে, তারা তো শয়তানের ভাই। আর শয়তান তার রবের প্রতি অতি অকৃতজ্ঞ।
(সূরা : বনি ইসরাঈল, আয়াত : ২৭)
🚫 পানি ব্যবহারে রয়েছে বিশেষ নির্দেশনা।
রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন,
 ‘তোমরা স্থির পানিতে পেশাব কোরো না, নাপাক বস্তু ফেলো না, কেননা তা তোমরা ব্যবহার করবে।’
(আবু দাউদ, হাদিস : ৬৯, ৭০)
অপ্রয়োজনে পানি নষ্ট করা যেমন পানির অপচয়, তেমনি প্রয়োজন পূরণের সময় প্রয়োজনের অতিরিক্ত পানি খরচ করাও পানির অপচয়। এমনকি সরাসরি সাগর থেকে অজু করলেও অজুতে বেশি পানি খরচ করার অনুমতি ইসলাম দেয়নি।
👉👉আবদুল্লাহ ইবনে ওমর (রা.) সূত্রে বর্ণিত, একবার রাসুল (সা.) সাদ (রা.)-এর পাশ দিয়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় সাদ (রা.) অজু করছিলেন। তাঁর অজুতে পানি বেশি খরচ হচ্ছিল। রাসুল (সা.) তা দেখে বলেন, কেন এই অপচয়? সাদ (রা.) জিজ্ঞেস করেন, অজুতেও কি অপচয় হয়? রাসুল (সা.) বলেন, হ্যাঁ, এমনকি প্রবহমান নদীতে অজু করলেও।’
(ইবনে মাজাহ, হাদিস : ৪২৫)

Offline Md. Zakaria Khan

  • Sr. Member
  • ****
  • Posts: 336
  • active
    • View Profile
Re: আল্লাহর জন্য ভালোবাসা
« Reply #111 on: June 22, 2022, 03:37:02 PM »
আযানের মধ্যে লুকিয়ে আছে অলৌকিক গনিতের খেলা।। আল্লাহর কসম এই আযানের এই তথ্যগুলো পড়ার পর আপনি বাকরুদ্ধ হবেন আর আল্লাহর উপর আপনার ঈমান বৃদ্ধি পাবে ইনশাআল্লাহ।।

১। আযানের ১ম শব্দ হল আল্লাহ এবং শেষ শব্দ ও হল আল্লাহ।। এর মানে আল্লাহই শুরু এবং আল্লাহই শেষ।।

২। আযান শব্দটি পবিত্র কুরআনে সর্বমোট রয়েছে ৫ বার।। আর আমরা প্রতিদিন ৫ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করি।।

৩। আযানের মধ্যে সর্বমোট শব্দ রয়েছে ৫০টি। আর আল্লাহ মিরাজের সময় হযরত মুহাম্মাদ (সঃ) কে সর্বপ্রথম ৫০ওয়াক্ত ফরজ নামাজ দিয়েছিলেন।। পরে তা কমিয়ে ৫ ওয়াক্ত করা হয়।। আর সহীহ হাদিস বলে একজন ব্যাক্তি ৫ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করলে আল্লাহ তাকে ৫০ ওয়াক্তের সাওয়াব দিবেন।।

৪। আযানের মধ্যে সর্বমোট ১৭ টি ভিন্ন অক্ষর রয়েছে।। আর আমাদের প্রতিদিন ফরজ নামাজ হল ১৭ রাকাত।। ফজর ২ + জোহর ৪ + আসর ৪ + মাগরিব ৩ + এশা ৪ = মোট ১৭ রাকাত।।

৫। আযানের মধ্যে সবচেয়ে ব্যবহৃত শব্দ হল (আল্লাহ) আল্লাহ শব্দের আলিফ অক্ষরটি সম্পূর্ণ আযানে আছে মোট ৪৭ বার, লাম অক্ষরটি ৪৫ বার এবং হা অক্ষরটি ২০ বার।। সুতরাং ৪৭+ ৪৫ + ২০ = ১১২।। আর পবিত্র কুরআনের ১১২ নম্বর সূরা হল সূরা ইখলাস।। যে সূরায় আল্লাহ নিজের পরিচয় দিয়েছেন।।"