Mental Health Awareness ( সাইকোলজিস্টরা যেভাবে মুখ দেখে মনের কথা বলে)

Author Topic: Mental Health Awareness ( সাইকোলজিস্টরা যেভাবে মুখ দেখে মনের কথা বলে)  (Read 839 times)

Offline Abu Tareque

  • Newbie
  • *
  • Posts: 10
    • View Profile
                                                               সাইকোলজিস্টরা যেভাবে মুখ দেখে মনের কথা বলে

       

সাইকোলজিস্টরা যেভাবে মুখ দেখে মনের কথা বলে তা জানার আগে একটি গল্প জানা যাক। আছফিয়া তার বান্ধবীর সাথে সাইকোলজিস্টের চেম্বারের বাহিরে সিরিয়ালের জন্য অপেক্ষা করছে। সম্প্রতি তার ছেলেবন্ধু তাদের সম্পর্কের ইতি টেনেছে, যা সে কোনভাবেই মেনে নিতে  পারছে না। তাই তার এখানে আসা। তার বান্ধবীর সাথে কথা বলার সময় সে আছফিয়াকে একটি প্রশ্ন করলো যে, সাইকোলজিস্টরা নাকি মুখ দেখেই মনের কথা বলতে পারে, এ ব্যাপারে তুই কি কিছু জানিস? আছফিয়া বলল সে  নিশ্চিত নয়, তবে এমন কথা সেও শুনেছে।   

আছফিয়ার বান্ধবীর ওই প্রশ্ন আমাদের অনেকের মনেই আসে। বিশেষ করে যখন কোন সাইকোলজিস্ট বা সাইকোলজির শিক্ষার্থীর সাথে আমাদের দেখা হয়, তখন তো নিশ্চিতভাবেই আসে।  যাইহোক, সাইকোলজিস্ট যে মুখ দেখে মনের কথা বলতে পারবে, এমন ধারণা নিয়ে আছফিয়া সাইকোলজিস্টের রুমে প্রবেশ করল।  সে তার ঘটনা শেয়ার করার সময় সাইকোলজিস্ট তার কথাগুলো খুব মনোযোগ সহকারে শুনেন। তার প্রতি নন-জাজমেন্টাল বা নিরপেক্ষ থাকেন। তার প্রতি সহমর্মিতা প্রদর্শন করেন এবং তার সকল কথা শতভাগ গোপন রাখার প্রতিশ্রুতি প্রদান করেন যাতে আছফিয়া তার মনের কথা বলার জন্য আদর্শ পরিবেশ পায়। সে যখন তার কষ্টের কথাগুলো শেয়ার করছিল তখন সাইকোলজিস্ট আছফিয়ার মনের মধ্যে যেসব অনুভূতি তৈরী হতে পারে তা প্রকাশ করছিলেন। মাঝে মাঝে ঘটনাগুলোকে খুব সংক্ষেপে বলার পর আছফিয়ার কাছে জানতে চেয়েছিলেন যে তিনি ঠিক বলেছেন কিনা? আছফিয়া সাইকোলজিস্ট এর সাথে একমত পোষণ করে বলে যে, হ্যাঁ আপনি একদম ঠিক বলেছেন। সত্যিই আপনি আমার মনের কষ্টগুলো বুঝতে পেরেছেন। সত্য কথা বলতে কি, আসলে কেউ আমাকে বোঝে না। আমার কথাগুলি কেউ শুনেনা। সবাই আমাকে দোষারোপ করে বলে সব ভুল নাকি আমার! বলতে বলতে আছফিয়া অনেক কান্না করল। তারপর আরও অনেক কথা শেয়ার হলো। কাউন্সেলিং সেশন শেষ করে আছফিয়া তার বান্ধবীকে বললেন সত্যিই সাইকোলজিস্টরা মুখ দেখে মনের কথা বলতে পারে।  একথা আরও অনেকের কানে পৌঁছে গেল। আপনার কানেও আসলো। এরপর থেকে আপনি সাইকোলজিস্টদেরকে দেখলে আপনার মনের মধ্যে এখন কি কথা চলছে তা জানতে চেয়ে প্রশ্ন করতে ভুলে যান না।

এবার জানা যাক সাইকোলজিস্টরা কিভাবে মুখ দেখে মনের কথা বলেন? আসলে যারা সাইকোলজিস্ট হিসেবে কাজ করেন, তাদের সাইকোলজির কোন ফলিত শাখায় একটি ডিগ্রী এবং বাস্তবিক কাজের অভিজ্ঞতা থাকে। তাদের চেম্বারে যাতে যে কেউ মন খুলে কথা বলতে পারে এমন একটি পরিবেশ থাকে। তারা সেবা গ্রহীতাদের সাথে প্রথমেই তাদের পেশাগত দক্ষতা কাজে লাগিয়ে একটি সুন্দর পেশাগত সম্পর্ক স্থাপন করেন। সাইকোলজিস্টরা সাধারণত সেবা গ্রহীতার ফোন কল থেকে শুরু করে কাউন্সেলিং সেশন পর্যন্ত  কাউন্সেলিং সেবার স্বার্থে বিভিন্ন বিষয়ের দিকে সচেতন নজর রাখেন। কাউন্সেলিং সেশনেও তারা সেবা গ্রহীতাদের বিভিন্ন বিষয়ে নজর রাখেন। যেমন- সেবা গ্রহীতার বয়স, লিঙ্গ, জাতি, শারীরিক গঠন ও দেহ ভঙ্গিমা,চোখের যোগাযোগ, পোশাক, সাজসজ্জা, ম্যানার, মনোযোগ, ফেসিয়াল এক্সপ্রেশন, অস্বাভাবিক গতিবিধি, কথার হার ও ছন্দ, কণ্ঠস্বর, কথার স্বতঃস্ফূর্ততা, আবেগের স্থায়িত্ব, আবেগের যথাযোগ্যতা  এবং তীব্রতা। চিন্তার বিষয়বস্তুর মধ্যে আত্মহত্যার চিন্তা, মৃত্যু কামনা, হতাশাবোধ, সন্দেহ প্রবণতা, হ্যালুসিনেশন, যুক্তি ইত্যাদি। এছাড়া সেবা গ্রহীতার নিজের অসুস্থতা, স্থান, কাল এবং  পাত্র বিষয়ে সচেতনতার উপস্থিতি সহ  বিভিন্ন বিষয়ের দিকে তারা নজর রাখেন।

তারা সেবা গ্রহীতার প্রধান প্রধান অসুবিধার কথা, ডেভলপমেন্টাল তথ্য, পারিবারিক তথ্য, পরিবারের সদস্যদের সাথে সম্পর্ক, অতীত শারীরিক ও মানসিক রোগের ইতিহাস সহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য নিয়ে থাকেন। যা একজন সেবা গ্রহীতার মনের অবস্থা বোঝার জন্য সম্পূরক উপাদান হিসাবে কাজ করে। এই তথ্যগুলো থেকে সাইকোলজিস্ট একজন  ব্যক্তির ব্যক্তিত্ব সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা পেয়ে থাকেন। যে সেবা গ্রহণ করতে আসেন সে তার ঘটনাগুলো ধারাবাহিকভাবে বলতে থাকেন কিন্তু তার মনের অনুভূতি সাধারণত কম প্রকাশ করেন। সেবা গ্রহীতা যখন তার কষ্টের কথা শেয়ার করেন তখন  সাইকোলজিস্ট সেবা গ্রহীতার মনের প্রকৃত অনুভূতি কেমন হতে পারে তা জানার জন্য প্রথমে নিজেকে তার স্থানে বসিয়ে তার মতো করে অনুভব করার চেষ্টা করেন। পরে সেবা গ্রহীতার কাছে সেই অনুভূতি  প্রকাশ করেন যাতে সে তার মনের অনুভূতি বুঝতে পারেন। সেবা গ্রহীতা তখন সাইকোলজিস্টের সাথে একত্ব বোধ করেন এবং  বলে থাকেন যে আপনি সত্যিই আমার মনের অবস্থা বুঝতে পেরেছেন। আর এসব করতে সাইকোলজিস্টরা তাদের প্রশিক্ষণ কাজে লাগানো ব্যতীত কোন মেকি আচরণের আশ্রয় গ্রহণ করেননা।

সাইকোলজিস্ট আপনার মুখ দেখে মনের কথা না বরং আপনাকে দেখে তাদের পেশাগত দক্ষতা দিয়ে আপনার মনের আবেগীয় অবস্থা বলতে পারেন।

লেখক: মোঃ আবু তারেক, সাইকোলজিস্ট, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি।











Reference:
Hill, C. E. (2009). Helping skills: Facilitating, exploration, insight, and action.(3rd ed.). American
       Psychological Association, pp: 77-184
« Last Edit: July 15, 2021, 02:14:39 PM by Abu Tareque »