আল্লাহর সাথে মানবজাতির অঙ্গীকার

Author Topic: আল্লাহর সাথে মানবজাতির অঙ্গীকার  (Read 264 times)

Offline ashraful.diss

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 123
  • 'শীঘ্রই রব তোমাকে এত দিবেন যে তুমি খুশি হয়ে যাবে'
    • View Profile
আল্লাহর সাথে মানবজাতির অঙ্গীকার

আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তালা একবার আদম (আঃ) এর পেছন বুলিয়ে সেখান থেকে তার বংশধরদের রূহ/আত্মা বের করে জিজ্ঞেস করেছিলঃ “আমি কি তোমাদের রব নই?” তাদের মধ্যে আমরা সহ, এই পৃথিবীতে এই পর্যন্ত যত মানুষ এসেছে এবং আসবে সবার রূহ উপস্থিত ছিল।

তখন, আমরা আল্লাহকেই আমাদের রব/প্রভু বলে সাক্ষ্য দিয়ে বলেছিলামঃ “অবশ্যই, আমরা অঙ্গিকার করে বলছি যে আপনি আমাদের পালনকর্তা।”

আমাদের সাক্ষ্য দেয়ার পর আল্লাহ তা’আলা বলেছিলেন, “আশা করি পুনরুত্থানের দিনেও তোমরা এই একই সাক্ষ্য দিতে পারবে।” কিন্তু এই ঘটনাটি আমরা ভূলে গিয়েছি।

তারপর আল্লাহ সুবহানু ওয়াতালা বলেছিল যে, যদি আমরা সক্ষম না হই, তাহলে আমরা যেন নিজের অজ্ঞতা বা নিজেদের বাপ-দাদার প্রথা অনুসরণ করাকে অজুহাত হিসেবে  না পেশ করি – কারণ, আল্লাহ আমাদের কুরআনের সাহায্যে পথনির্দেশনা দিয়ে গিয়েছেন।

وَاِذۡ اَخَذَ رَبُّکَ مِنۡۢ بَنِیۡۤ اٰدَمَ مِنۡ ظُہُوۡرِہِمۡ ذُرِّیَّتَہُمۡ وَاَشۡہَدَہُمۡ عَلٰۤی اَنۡفُسِہِمۡ ۚ  اَلَسۡتُ بِرَبِّکُمۡ ؕ  قَالُوۡا بَلٰی ۚۛ  شَہِدۡنَا ۚۛ  اَنۡ تَقُوۡلُوۡا یَوۡمَ الۡقِیٰمَۃِ اِنَّا کُنَّا عَنۡ ہٰذَا غٰفِلِیۡنَ ۙ  اَوۡ تَقُوۡلُوۡۤا اِنَّمَاۤ اَشۡرَکَ اٰبَآؤُنَا مِنۡ قَبۡلُ وَکُنَّا ذُرِّیَّۃً مِّنۡۢ بَعۡدِہِمۡ ۚ اَفَتُہۡلِکُنَا بِمَا فَعَلَ الۡمُبۡطِلُوۡنَ وَکَذٰلِکَ نُفَصِّلُ الۡاٰیٰتِ وَلَعَلَّہُمۡ یَرۡجِعُوۡنَ

আর যখন তোমার পালনকর্তা বনী আদমের পৃষ্টদেশ থেকে বের করলেন তাদের সন্তানদেরকে এবং নিজের উপর তাদেরকে প্রতিজ্ঞা করালেন, আমি কি তোমাদের পালনকর্তা নই? তারা বলল, অবশ্যই, আমরা অঙ্গীকার করছি। আবার না কেয়ামতের দিন বলতে শুরু কর যে, এ বিষয়টি আমাদের জানা ছিল না। অথবা বলতে শুরু কর যে, অংশীদারিত্বের প্রথা তো আমাদের বাপ-দাদারা উদ্ভাবন করেছিল আমাদের পূর্বেই। আর আমরা হলাম তাদের পশ্চাৎবর্তী সন্তান-সন্ততি। তাহলে কি সে কর্মের জন্য আমাদেরকে ধ্বংস করবেন, যা পথভ্রষ্টরা করেছে? বস্তুতঃ এভাবে আমি বিষয়সমূহ সবিস্তারে বর্ণনা করি, যাতে তারা ফিরে আসে। {সূরা আল-আরাফ: আয়াত ১৭২-১৭৪}

যদিও এই পুরো ঘটনাটি আমরা ভুলে গিয়েছি – কিন্তু আমাদের ভিতর ফিতরা নামে একটি জিনিস আছে যে, জানে যে আল্লাহ আমাদের একমাত্র রব।

فَاَقِمۡ وَجۡہَکَ لِلدِّیۡنِ حَنِیۡفًا ؕ  فِطۡرَتَ اللّٰہِ الَّتِیۡ فَطَرَ النَّاسَ عَلَیۡہَا ؕ  لَا تَبۡدِیۡلَ لِخَلۡقِ اللّٰہِ ؕ  ذٰلِکَ الدِّیۡنُ الۡقَیِّمُ ٭ۙ  وَلٰکِنَّ اَکۡثَرَ النَّاسِ لَا یَعۡلَمُوۡنَ ٭ۙ

তুমি একনিষ্ঠ ভাবে নিজেকে ধর্মের উপর প্রতিষ্ঠিত রাখ। এটাই আল্লাহর প্রকৃতি, যার উপর তিনি মানব সৃষ্টি করেছেন। আল্লাহর সৃষ্টির কোন পরিবর্তন নেই। এটাই সুপ্রতিষ্ঠিত দ্বীন, কিন্তু অধিকাংশ মানুষ জানে না। {সূরা আর-রূম: আয়াত ৩০}

ইবনে কাসির রহমতুল্লাহ বলেছেন, আল্লাহ আদমকে উত্থাপন করে এবং সে সমগ্র মানব জাতীকে দেখতে পায়: তিনি তাদের মধ্যে ধনী-গরীব, সুগঠিত-দুর্বল, ভালো অবস্থা ও খারাপ অবস্থার মানুষ দেখতে পেলো। তারপর আদম (আঃ) বললেন: “হে আল্লাহ! আমি চাই আপনার সকল বান্দারা সমান হোক।” জবাবে আল্লাহ বললেন, “আমি প্রশংসা পছন্দ করি।”  আদম (আঃ) মানবজাতির মধ্যে নবীগণকে আলোকিত প্রদীপের মত দেখতে পেলেন।

Mufti. Mohammad Ashraful Islam
Ethics Education Teacher, DISS
Khatib, Central Mosque, Daffodil Smart City
Ashuli , Savar, Dhaka