Show Posts

This section allows you to view all posts made by this member. Note that you can only see posts made in areas you currently have access to.


Topics - Farhana Israt Jahan

Pages: 1 2 3 [4] 5 6 ... 17
46
বসবাসের “অযোগ্য” ১০টি শহর...!

‘দ্য টেলিগ্রাফ’ পত্রিকা প্রকাশ করেছে বিশ্বের বসবাসের অযোগ্য শীর্ষ ১০ শহরের তালিকা। Economist Intelligence Unit এর global “liveability” study মূলত বিশ্বের বিভিন্ন শহরের অপরাধ মাত্রা, সংঘর্ষের আশঙ্কা, চিকিৎসা ব্যবস্থার মান, গণমাধ্যমের উপর নিয়ন্ত্রণ, তাপমাত্রা, স্কুল ও যাতায়াত ব্যবস্থার উপর ভিত্তি করে পরিচালিত হয়েছে। আর এর মাধ্যমেই উঠে আসে একটি শহর কতটুকু বসবাসের যোগ্য কিংবা অযোগ্য সেই তথ্যটি। তালিকায় প্রথম অবস্থানটি দখল করে আছে আমাদের রাজধানী ঢাকা!

(১)ঢাকা, বাংলাদেশঃ
বিশ্বের বসবাসের অযোগ্য শীর্ষ ১০ শহরের প্রথম স্থানে আছে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা। ডেইলি টেলিগ্রাফের প্রতিবেদন অনুযায়ী ঢাকার স্কোর ১০০ তে ৩৮.৭।

(২)পোর্ট মরেসবে, পাপুয়া নিউ গিনিঃ
দ্বিতীয় অবস্থানে আছে পাপুয়া নিউ গিনির শহর পোর্ট মরেসবে। এ শহরের স্কোর ১০০ তে ৩৮.৯।

(৩)লাগোস,নাইজেরিয়াঃ
তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে নাইজেরিয়ার লাগোস শহর। শহরটির স্কোর ৩৯.০।

(৪)হারারে,জিম্বাবুয়েঃ
জিম্বাবুয়ের রাজধানী এ শহরটি নেমে এসেছে তালিকার চার নম্বরে, স্কোর ৩৯.৪।

(৫)আলজিয়ার্স,আলজেরিয়াঃ

৪০.৯ স্কোর নিয়ে আলজেরিয়ার রাজধানী আলজিয়ার্স রয়েছে ৫ম অবস্থানে।

(৬)করাচী,পাকিস্তানঃ
পাকিস্তানের এ শহর রয়েছে তালিকার ৬ষ্ঠ অবস্থানে। স্কোর- ৪০.৯।

(৭)ত্রিপোলি,লিবিয়াঃ
গাদ্দাফি পরবর্তী যুগে লিবিয়ার রাজধানী এ শহরটির স্কোর ৪২.৮। -অবস্থান সপ্তম।

(৮)Douala,ক্যামেরুনঃ
৪৩.৩ স্কোর নিয়ে অষ্টম অবস্থানে আছে ক্যামেরুনের এ শহর।

(৯)তেহরান,ইরানঃ

ইরানের রাজধানী তেহরান রয়েছে তালিকার নবম অবস্থানে। স্কোর ৪৫.৮।

(১০)আবিদজান,আইভরি কোস্টঃ
তালিকার দশম অবস্থানে রয়েছে আবিদজান। ১০০তে এ শহরের স্কোর ৪৫.৯।

47
বিভিন্ন জেলার বিখ্যাত খাবার/বস্তুর নাম............

০১) নাটোর – —- কাঁচাগোল্লা, বনলতা সেন
০২) রাজশাহী – — আম, রাজশাহী সিল্ক শাড়ী
০৩) টাঙ্গাইল – —- চমচম, টাংগাইল শাড়ি
০৪) দিনাজপুর —- লিচু, কাটারিভোগ চাল, চিড়া, পাপড়
০৫) বগুড়া – —- দই
০৬) ঢাকা—— বেনারসী শাড়ি, বাকরখানি
০৭) কুমিল্লা —– রসমালাই, খদ্দর (খাদী)
০৮) চট্রগ্রাম —– মেজবান , শুটকি
০৯) খাগড়াছড়ি—- হলুদ
১০) বরিশাল —– আমড়া
১১) খুলনা —— সুন্দরবন, সন্দেশ, নারিকেল, গলদা চিংড়ি
১২) সিলেট – —- কমলালেবু, চা, সাতকড়ার আচার
১৩) নোয়াখালী—- নারকেল নাড়, ম্যাড়া পিঠা (?)
১৪) রংপুর – —– তামাক, ইক্ষু
১৫) গাইবান্ধা – — রসমঞ্জরী
১৬) চাঁপাইনবাবগঞ্জ — আম, শিবগঞ্জের চমচম, কলাইয়ের রুটি
১৭) পাবনা – —- -ঘি, লুঙ্গি, পাগলাগারদ
১৮) সিরাজগঞ্জ – — পানিতোয়া, ধানসিড়িঁর দই
১৯) গাজীপুর – —- কাঁঠাল, পেয়ারা
২০) ময়মনসিংহ – — মুক্তা-গাছার মন্ডা
২১) কিশোরগঞ্জ – — বালিশ মিষ্টি
২২) জামালপুর – — ছানার পোলাও, ছানার পায়েস
২৩) শেরপুর – —- – ছানার পায়েস, ছানার চপ
২৪) মুন্সীগঞ্জ—— ভাগ্যকুলের মিষ্টি
২৫) নেত্রকোনা —- – বালিশ মিষ্টি
২৬) ফরিদপুর – — খেজুরের গুড়
২৭) রাজবাড়ী —- – চমচম, খেজুরের গুড়
২৮) মাদারীপুর —- খেজুর গুড়, রসগোল্লা
২৯) সাতক্ষীরা – —- সন্দেশ
৩০) বাগেরহাট —–চিংড়ি, ষাটগম্বুজ মসজিদ, সুপারি
৩১) যশোর – —– খই, খেজুর গুড়, জামতলার মিষ্টি
৩২) মাগুরা – —– রসমালাই
৩৩) নড়াইল —– পেড়ো সন্দেশ, খেজুর গুড়, খেজুর রস
৩৪) কুষ্টিয়া – —- তিলের খাজা, কুলফি আইসক্রিম
৩৫) মেহেরপুর – — মিষ্টি সাবিত্রি, রসকদম্ব
৩৬) চুয়াডাঙ্গা —– পান, তামাক, ভুট্টা
৩৭) ঝালকাঠি —– লবন, আটা
৩৮) ভোলা —— নারিকেল, মহিষের দুধের দই
৩৯) পটুয়াখালী —- কুয়াকাটা
৪০) পিরোজপুর —– পেয়ারা, নারিকেল, সুপারি, আমড়া
৪১) নরসিংদী—— সাগর কলা
৪২) নারায়নগঞ্জ- — আইভি আফা
৪৩) নওগাঁ – —– চাল, সন্দেশ
৪৪) মানিকগঞ্জ—– খেজুর গুড়
৪৫) রাঙ্গামাটি—– আনারস, কাঠাল, কলা
৪৬) কক্সবাজার —- মিষ্টিপান
৪৭) বান্দরবান—– হিল জুস, তামাক
৪৮) ফেনী —— মহিশের দুধের ঘি, সেগুন কাঠ, খন্ডলের মিষ্টি
৪৯) লক্ষীপুর —— সুপারি
৫০) চাঁদপুর —— ইলিশ
৫১) ব্রাহ্মণবাড়িয়া—- তালের বড়া, ছানামুখী,রসমালাই
৫২) মৌলভিবাজার — ম্যানেজার স্টোরের রসগোল্লা

48
Hair Loss / Hair Maintenance / Home remedies to cure dandruff
« on: February 09, 2014, 03:48:34 PM »
Home remedies to cure dandruff

Dandruff is a common complaint, especially in the winters.

Since most people wash their hair with warm water during the winter season, this often causes the scalp to become dryn and flaky. Here are a few home remedies you could try to get rid of dry as well as sticky dandruff:

-Soak two tablespoons of fenugreek (methi) seeds in water overnight. Grind into a fine paste in the morning, apply on the scalp and leave for half an hour. Wash off, preferably with a soap-nut (ritha) solution. Use the water in which the seeds were soaked as an after-shower hair tonic. Follow this regimen twice a week for the first two weeks and once a week for another two weeks.

-Squeeze a teaspoon of fresh lime juice into the last rinse while washing your hair.

-Make a paste of lemon juice and fuller’s earth and apply this mixture to the scalp once a week.

-Keep curd in the open for three days and massage your hair with it for half an hour before washing.

-Mix cider vinegar with equal quantities of water and dab onto the scalp with cotton wool before washing.

49
Health Tips / 10 Glasses of water a day to cut fat
« on: February 09, 2014, 03:45:59 PM »
10 Glasses of water a day to cut fat

We have all heard this advice innumerable times. Drink eight to 10 glass of water a day. Experts say that if you are overweight or tend to get most of your calories from processed and salty food, eight to 10 glass of water could actually help you reduce your weight.


Water could lower your BMI. If you drink eight to 10 glass of water everyday you will end up eating less and also drink fewer calorie-laden beverages. Drinking about 500 ml of water before meal can cut the calories and help in losing weight and as a result lower body mass index (BMI). Water helps in burning fat. You can burn about 50 per cent more fat after drinking water compared with a higher calorie beverage, reports the TOI.

Water helps you play your sports better. Sweating away just two per cent of your body’s water content affects the performance of a sportsperson to a great extent. Drinking enough water can improve your game and save you from the risk of dehydration.

Water can fight hangovers. Being adequately hydrated is the best way not to feel lousy and grouchy after a late night party. Drink a couple of glasses of water hours before the event. Even when you are flying a long distance flight, staying hydrated helps you fight hangover.

50
Stroke / Strokes: Women sufferers ‘have poorer life quality than men’
« on: February 09, 2014, 03:41:09 PM »
Strokes: Women sufferers ‘have poorer life quality than men’

Women have a poorer quality of life after a stroke than men, a study has found.

The US research, published in Neurology, assessed the mental and physical health of 1,370 patients three months and a year after a stroke.Women had more depression and anxiety, pain and discomfort, and more restricted mobility.

UK experts said women tended to have strokes later, and might therefore need more support, reports the BBC.But the study did say more people survive a stroke now than 10 years ago because of improved treatment and prevention.

The researchers at Wake Forest Baptist Medical Center, North Carolina, looked at patients who had had a stroke or transient ischaemic attack (TIA), also known as a mini-stroke.

Quality of life is calculated using a formula that assesses mobility, self-care, everyday activities, depression/anxiety and pain.

At three months, women were more likely than men to report problems with mobility, pain and discomfort, anxiety and depression, but the difference was greatest in those aged over 75.

After a year, women still had lower quality-of-life scores overall than men but the difference between them was smaller.

Prof Cheryl Bushnell, who led the study, said: “We found that women had a worse quality of life than men up to 12 months following a stroke.” She said mood, ability to move about, and having pain or discomfort may contribute to the poorer quality of life for women. She suggested that women may have less muscle mass than men before their strokes, making it harder to recover. She also added: “As more people survive strokes, physicians and other healthcare providers should pay attention to quality-of-life issues and work to develop better interventions, even gender-specific screening tools, to improve these patients’ lives.”

Dr Madina Kara, a neuroscientist at the UK Stroke Association, said: “This study shows that women fare worse after stroke compared to men. However, the reasons for this are not entirely clear. It also shows that women over 65 are more likely to be living alone, which could be a contributing factor to their reduced quality of life, as they have inadequate support.”
She added: “We already know that women tend to have strokes at a later age than men, which lowers their chances of natural recovery post-stroke. What this study highlights is that women may not be getting the support they need to improve their quality of life after stroke. It is essential that all stroke survivors receive the best care and support from health and social services to make their best possible recovery.”

51
কর্মক্ষেত্রে যে ৫টি কাজ নষ্ট করে দেয় আপনার "ইমেজ"

কর্মক্ষেত্রে অনেকেই বেশ বিরক্তিকর আচরণ করেন নিজের অজান্তেই। আর এই কিছু মানুষের বিরক্তিকর আচরণের কারণে অন্য সহকর্মীদেরকে পড়তে হয় বেশ বিপাকে। একজনের বিরক্তিকর আচরণই যথেষ্ট কর্মক্ষেত্রের পরিবেশ নষ্ট করার জন্য। আসুন জেনে নেয়া যাক ৫টি কাজ সম্পর্কে যেগুলো কর্মক্ষেত্রে করা একেবারেই উচিত নয়। কেননা এই ৫টি কাজ অন্যদের মনে আপনার প্রতি বিরক্তি তৈরি করে একেবারেই ধ্বংস করে দেয় আপনার ইমেজ।

জোরে কথা বলা

কর্ম ক্ষেত্রে উচ্চ স্বরে কথা বলা উচিত নয়। সহকর্মীর সাথে, জুনিয়রদের সাথে অথবা ফোনে কথা বলার সময় গলার স্বর নিয়ন্ত্রণ করুন। অনেকেই অফিসে অনেক জোরে জোরে ফোনে কথা বলেন। ফোনের অপর পাশ থেকে আপনার কথা শুনতে না পাওয়া গেলে অফিসের বাইরে গিয়ে কথা বলুন। কিন্তু অফিসের ভেতরে জোরে কথা বলে সহকর্মীদেরকে বিরক্ত করবেন না।

অন্যের কম্পিউটার চালানো

অফিসে আপনার নিজের কম্পিউটার থাকলে অন্যের কম্পিউটার ব্যবহার করা উচিত নয়। প্রত্যেকের অফিসের কম্পিউটারে নিজস্ব কিছু তথ্য ও কাজ থাকে। তাই অন্যের কম্পিউটার ব্যবহার না করাই ভালো। একেবারেই যদি নিরুপায় হয়ে অন্যের কম্পিউটার ব্যবহার করতেই হয় তাহলে ফাইল, ফোল্ডারে কোনো পরিবর্তন করবেন না।

বেতন নিয়ে আলোচনা করা

অফিসের সহকর্মী আপনার যত কাছের মানুষই হোক না কেন, তার সাথে বেতন নিয়ে আলোচনা করা উচিত না একেবারেই। আপনার সহকর্মীরদের বেতন কত সেই বিষয়টিও অফিসে কাউকে জিজ্ঞেস করা উচিত নয়।

অন্যের সমালোচনা
অফিসে একে অপরের সমালোচনা করবেন না। সহকর্মীদের সাথে মিলেমিশে থাকুন সব সময়। অন্যের নামে সমালোচনা করলে আপনার নিজেরই সুনাম ক্ষুন্ন হবে। তাই সহকর্মীর নামে সমালোচনা করা থেকে বিরত থাকুন।

দীর্ঘ সময় অফিসের ফোনে কথা বলা

অনেকেই অফিসের ফোনে ঘন্টার পর ঘন্টা কথা বলে কাটিয়ে দেন যা মোটেও উচিত নয়। অফিসের ফোন রাখা হয়েছে কাজের সময় ব্যবহার করার জন্য। আপনি দীর্ঘ সময় ধরে ফোন ব্যস্ত করে রাখলে অফিসের অন্যদের কাজের ক্ষতি হতে পারে। তাই অফিসের ফোন শুধু মাত্র অফিসের কাজে ব্যবহার করুন।

52
ব্যতিক্রমি সৌন্দর্যের আধার যে স্থানগুলো

আমাদের কক্সবাজারের বিশাল সমুদ্র সৈকতের বুকে ক্রুদ্ধ গর্জন করে ছুটে আসা ঢেউ যখন অভিমানী প্রেমিকার মতন আলতো করে ভেঙ্গে পড়ে, কিংবা যখন বা নীলগিরির কঠিন সব পর্বতের বুক ছুঁয়ে বয়ে যায় শুভ্র তুলোর মতন মেঘ- কি সুন্দর দৃশ্যেরই না অবতারণা হয়। দেখে মনে হয় এসব স্থান যেন সৃষ্টিকর্তা নিজ হাতে সুন্দর করে সাজিয়ে দিয়েছেন। শুধু আমাদের দেশ নয়, এমন অতিপ্রাকৃত সৌন্দর্যের খোঁজ মিলবে পৃথিবীর নানা স্থান জুড়েই। কোনটা অদ্ভুতুড়ে পাহাড়, আবার কোথাও বরফ হয়ে জমে থাকে বিশালাকার ঢেউ। আবার হয়ত কোন স্থান দেখলে মনে হবে তা আসল নয় মোটেই, একদম রুপকথার জগৎ। এমন সব স্থানের সংখ্যা পৃথিবী জুড়ে কম নয় মোটেও। এর মাঝে থেকেই আসুন জেনে নেই ভিন্ন ধরনের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর অপরূপ কিছু স্থান সম্পর্কে।-

নীলগিরি, বান্দরবান, বাংলাদেশঃ

নীলগিরির অবস্থান বাংলাদেশের বান্দরবান জেলায়। বান্দরবানের পাহাড়চূড়ায় অবস্থিত এই স্থানটি বাংলাদেশের একটি জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্র। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ২২০০ ফিট উচ্চতায় অবস্থানের কারণে এই স্থানটি মেঘমন্ডিত হয়ে থাকে সব সময়। এই এলাকার পাহাড়চূড়া অন্য সব এলাকার পাহাড়ের মত রুক্ষ-শুষ্ক নয় বরং চারিদিকে রয়েছে সবুজের বিশাল সমারোহ।

ছোট একটি শহর আছে বান্দরবানে, তবে তা খুব একটা গোছানো নয়। অবশ্য তাতে খুব একটা সমস্যাও হয়না, কারণ এলাকার মুল আকর্ষণ এর শহর নয় বরং এর প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে আছে নানা আকারের ঢেউ খেলানো পাহাড়, যার পুরোটাই ছেয়ে আছে নানান ধরণের পাহাড়ি লতাপাতা ও গাছগাছালিতে। সেই সাথে এখানে দেখা মিলবে নানা প্রজাতির পশু পাখির। তবে নীলগিরিকে আর সব এলাকা থেকে যা আলাদা করে ফেলে তা হলো পাহাড়ের বুকের মাঝ দিয়ে জায়গা করে নিয়ে বয়ে চলা সারি সারি শুভ্র মেঘের দল। আকাশের মেঘ ছুঁয়ে দিতে চাওয়ার যে সুপ্ত বাসনা সবার মনে থাকে তা পুরণ করতে চাইলে ছুটে যেতে পারেন এখানে। পাহাড়ের পাশাপাশি আপনাকেও ছুঁয়ে দিবে মেঘমালার দল।

পিঙ্ক লেক, অস্ট্রেলিয়াঃ
বাংলাদেশ থেকে এবার চলুন ঘুরে আসি অস্ত্রেলিয়া থেকে। 'পিঙ্ক লেক' নামটি শুনেই নিশ্চয় বুঝতে পেরেছেন যে এই লেকের পানি আর সব সাধারন লেকের মত নয়, বরং সুন্দর গোলাপি রঙের পানির লেক এটি। এর অবস্থান পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার Goldfields-Esperance প্রদেশে। তবে যদি ভেবে থাকেন মিষ্টি রঙের পানি এই লেকের পানির স্বাদও মিষ্টি হবে, তাহলে কিন্তু ভুল ভাবছেন একদম। এটি একটি লবনাক্ত পানির লেক।
এই লেকের পানি যে সব সময় গোলাপি রঙ ধারন করে থাকে তা কিন্তু নয়। পানিতে যখন এক ধরণের বিশেষ green alga অথবা halobacterium এর পরিমাণ বেড়ে যায় তখন পানির রঙ পরিবর্তন হয়। আবার অনেক সময় পানিতে brine prawn নামে এক জাতীয় মাছের পরিমাণ বেড়ে গেলেও পরিবর্তিত হয় এই লেকের পানির রঙ। তবে শুধু পানির রঙের জন্য বিখ্যাত এই লেকটি তা কিন্তু নয়। এই লেকটিতে দেখতে পাওয়া যায় হরেক রকমের পাখির আনাগোনাও।

গ্লেন ব্রিটল, স্কটল্যান্ডঃ
অদ্ভুত পানির লেক তো দেখলেন এবার আসুন দেখে নেই অদ্ভুত সুন্দর ও দুর্লভ সব উদ্ভিদরাজির সমারোহ নিয়ে বয়ে চলা গভীর পানির লেক গ্লেন ব্রিটলকে। এই লেকটি দক্ষিন স্কটল্যান্ডের Skye এর তীর ঘেঁষে বয়ে চলেছে দীর্ঘ পরিসরে। যদিও নামে লেক তবে একে উল্লেখ করা যায় পাহাড়ি উপনদী হিসেবেই। খরস্রোতা এই উপনদী প্রবল বেগে দক্ষিণ থেকে উত্তর দিকে ধাবিত হয়ে ব্রিটল নদীতে গিয়ে মিশেছে। শুধু পাহাড় চিড়ে এই উপনদী সমান পথে বেয়ে চলেছে তা কিন্তু নয়। এর চলার পথে আছে চড়াই উৎরাই, আছে একটি রুপকথার মত সুন্দর পাহাড়ি ঝর্না যা গিয়ে পতিত হয়েছে ফেয়ারি পুলে। এই ঝর্না ও ফেয়ারি পুল তাদের নামের মতই জাদুকরী। শুধু টলটলে পানির বয়ে চলা নয় এই গ্লেন ব্রিটল বিখ্যাত তার নানা অদ্ভুতুড়ে ও দুর্লভ সব গাছপালার জন্য। নদী ঘিরে মাইলের পর মাইল কোথাও ছেয়ে আছে বেগুনি আবার কোথাও হলুদ, সবুজ উদ্ভিদের বনভূমি যা কিনা এই স্থানটিকে করে তুলেছে প্রকৃতির বিরল ও মূল্যবান এক সম্পদে।

ফ্রোজেন ওয়েভ, অ্যান্টার্কটিকাঃ
খরস্রোতা নদী তো দেখা হলো। একবার ভাবুনতো এই নদীর সব ঢেউ যদি এক মুহূর্তে জমাট বরফে পরিণত হয় তবে কেমন লাগবে? ভাবছেন তাও কি কখনো হয় নাকি? পানি না হয় বরফে পরিণত হবে তাই বলে কি ঢেউ জমে যাবে নিজের আকৃতি ঠিক রেখেই? যদি বলি এমনটা সম্ভব তবে হয়ত আমার কথা পাগলের প্রলাপ বলেই মনে হবে আপনার। কিন্তু পাগলের প্রলাপে নয়, এমন জমাটবাঁধা ঢেউ কিন্তু বাস্তবেই আছে। তবে সচক্ষে এর দেখা পেতে হলে আপনাকে যেতে হবে অ্যান্টার্কটিকা। তার আগে আসুন এখানে জেনে নেই এই ফ্রোজেন ওয়েভ বা জমাটবাধা ঢেউ সম্পর্কে।

নামে ফ্রোজেন ওয়েভ হলেও অতিরিক্ত ঠাণ্ডায় বরফে পরিণত হয়েছে পানির ঢেউগুলো তা কিন্তু নয়। মজার ব্যাপার হল আসল কারণ ঠিক এর উল্টোটা। বরফ জমে নয় বরং গ্রিন হাউস ইফেক্টের কারণে জমাট বাঁধা বরফ গলতে শুরু করার কারণে তৈরি হয়েছে এইসব ফ্রোজেন ওয়েভ। বরফ গলে তৈরি হয়েছে এইসব মজাদার আকৃতির যা দেখতে ঠিক বড় বড় ঢেউ এর মতই। কারণ যেটাই হোক, প্রকৃতির অদ্ভুত খেয়াল থেকে জন্ম নিয়েছে অস্বাভাবিক সুন্দর এই দৃশ্যের তা অস্বীকার করার উপায় কিন্তু নেই কোনভাবেই।

ক্রিসেন্ট লেক, চায়নাঃ
পাহাড়-পর্বত, নদী, লেক, সবই তো হলো। এবার একটু মরুভূমির দিকে নজর দেয়া যাক। তবে আরবের তপ্ত মরুভুমি নয়, বরং সুদূর চীনের মরুভূমির দিকে চোখ ফেরানো যাক। চায়নার Gansu Province এর Dunhuang শহর থেকে ৬ কিলোমিটার দক্ষিণে মরুভূমির মধ্যে অবস্থিত এই ক্রিসেন্ট লেকটি।

লেকটির নাম ক্রিসেন্ট রাখা হয়েছে এর আকৃতির কারণে। প্রায় ২০০০ বছরের প্রাচীন এই মরূদ্যান এখন পৃথিবীব্যাপী এতটাই জনপ্রিয় যে দানহুয়াং শহরের মুল চালিকাশক্তিতে পরিণত হয়েছে তা। বাঁকা চাদের আকৃতির ছোট এই লেকটিকে ঘিরে আছে একই আকৃতির সুন্দর মরূদ্যান যা প্রকৃতির অপরূপ নিদর্শন বলেই বিবেচিত হয় সবার কাছে। এমনিতেই এই লেকের গভীরতা খুব একটা বেশি নয়, সেই সাথে খুব একটা চওড়াও নয় প্রস্থে, কিন্তু ১৯৬০ সালের পর থেকে তা ধীরে ধীরে আরও কমতে শুরু করে। সর্বশেষ চীন সরকারের তত্তাবধানে ২০০৬ সালে নতুন করে পানি সংযোজোন করা হয় এই লেকে। এখন এর আকৃতি আগের থেকে দীর্ঘ হয়েছে সেই সাথে বেড়েছে এর গভীরতাও।

53
নিখুঁত সুন্দর ও উজ্জ্বল ত্বক পাওয়ার ৭টি আয়ুর্বেদিক উপায়!

প্রাচীনকালে এত ধরনের প্রসাধন সামগ্রী কিংবা সৌন্দর্যবর্ধক ক্রিম বা লোশন ইত্যাদি কিছুই কিন্তু ছিল না। কিন্তু তারপরেও তারা ছিলেন প্রাকৃতিক ভাবেই সুন্দর। লক্ষ্য করলে দেখবেন যে কারো সৌন্দর্যের উপমা দেয়ার সময় প্রাচীনকালের দেবীদের সাথে তুলনা করা হয় এখনো। প্রাচীনকালের ছিল আয়ুর্বেদিক পদ্ধতি যা ত্বককে প্রাকৃতিক ভাবে করে তুলতো সুন্দর ও ঝলমলে। কোনো ধরনের ক্ষতিকর পদার্থ ব্যবহার করা হতো না রূপচর্চায়। সেই সব আয়ুর্বেদিক পদ্ধতির চর্চা এখনো রয়েছে। দরকার শুধু আপনার সুনজর ও একটুখানি সময়। আপনিও এইসব আয়ুর্বেদিক পদ্ধতি ব্যবহার করে ত্বককে প্রাকৃতিক ভাবে সুন্দর করে তুলতে পারবেন।

ত্বক পরিস্কারের জন্য কাঁচা দুধ:
মুখের ত্বকের উপরিভাগ ও রোমকূপের গোড়া পরিস্কার করার সব চাইতে প্রাচীন পদ্ধতি হলো কাঁচা দুধ। ত্বকের উপরিভাগ ও রোমকূপের গোড়ার ময়লা যা চোখে ধরা পড়ে না এবং ফেসওয়াস দিয়েও পরিষ্কার করা যায় না, তা দূর করতে কাঁচা দুধের তুলনা হয় না। এছাড়াও দুধ প্রাকৃতিক উপায়ে ত্বককে ময়েচারাইজ ও উজ্জ্বল করে তোলে। বাসায় ফিরে মুখ ধোয়ার পর একটি তুলোর বল দুধে ভিজিয়ে মুখে বুলিয়ে নিন প্রতিদিন। এক সপ্তাহের মধ্যেই ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি ও অন্যান্য সমস্যা দূর হতে দেখতে পাবেন।

ত্বকের উজ্জলতা ও বয়সের ছাপ রোধে কমলালেবুর রস:

কমলালেবুর রস ত্বকের উজ্জলতা বাড়ায়। এবং কমলালেবুর রসের ভিটামিন সি-এর অ্যান্টিএইজিং উপাদান ত্বকে বয়সের ছাপ রোধে সহায়তা করে। এর জন্য আপনার লাগবে তাজা কমলালেবুর রস। একটি তাজা কমলা লেবুর রস বের করে মুখে লাগিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট। তারপর কুসুম গরম পানিতে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২/৩ বার ব্যাবহারে ত্বকের উজ্জলতা বাড়বে। এর সাথে দূর হবে ত্বকের বয়সের ছাপ।

ব্রণের সমস্যা সমাধানে অ্যালোভেরা:

অ্যালোভেরা সবচাইতে প্রাচীন ও ভালো প্রাকৃতিক উপায় ব্রণের সমস্যা সমাধানে। অ্যালোভেরার অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি উপাদান ত্বকের সকল ধরনের ব্রন ও ইনফেকশনের সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে। এটা ব্রন দূর করে না কিন্তু ব্রণের কারণগুলো দূর করতে সহায়তা করে। আর এর জন্য আপনার শুধুমাত্র অ্যালোভেরার পাতা লাগবে। একটি অ্যালোভেরার পাতা ভেঙে এর ভেতরের রস বের করে নিন। এই রস সরাসরি ত্বকে লাগান। শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে প্রতিদিন করুন। এক সপ্তাহের মধ্যে ত্বকের পরিবর্তন টের পাবেন।

ত্বকের রিঙ্কেল, পিগমেনটেশন, দাগ দূর করতে আলু:
আলু অন্যতম সেরা প্রাকৃতিক একটি উপাদান যা ত্বক থেকে সব ধরনের দাগ ও ছোপ দূর করতে সাহায্য করে থাকে। শুধুমাত্র একটুকরো আলু ত্বকে ঘষে নিলেই এই ধরনের সমস্যার সমাধান হবে। প্রতিদিন একটুকরো আলু মুখের ত্বকে ঘষে নিন। সপ্তাহখানেকের মধ্যেই ত্বক থেকে দাগ উধাও হবে ১০০ ভাগ গ্যারান্টি।

ত্বকের কোমলতায় ও মসৃণতায় মধু:

মধুতে রয়েছে হিউম্যাকটেন্ট যা ত্বকের রুক্ষতা দূর করে কোমল করে তুলতে সাহায্য করে। এবং ত্বকের ব্রণের সমস্যায় তৈরি ক্ষুদ্র গর্তগুলো দূর করে ত্বককে করে তোলে মসৃণ। হাত ও মুখ ভালো মতো ধুয়ে এক টেবিল চামচ মধু নিয়ে মুখে ম্যাসাজ করুন ২০/২৫ মিনিট। প্রতিদিন ব্যাবহারে বেশ ভালো ফল পাবেন।

-কানিজ দিয়া

54
রান্নাঘরের উপাদানেই দারুণ ৭টি শীতকালীন চিকিৎসা

বড় থেকে শুরু করে ছোটখাটো সব ধরনের অসুখেই আমরা ওষুধ খেয়ে থাকি। সুদূর অতীতে যখন এখনকার মতো ওষুধপত্র ছিল না, তখন মানুষের সকল সমস্যার সমাধান করতো তখন প্রকৃতি। প্রাকৃতিক উপাদানই ছিল তখনকার মানুষের একমাত্র ভরসা।

সুপ্রাচীনকাল থেকেই মানবজাতি সব সময় প্রকৃতির শরণাপন্ন হয়েছে। খাদ্য, বাসস্থানের সংস্থান যেমন প্রকৃতি থেকে এসেছে তেমনি রোগ সারানোর উপকরণও তারা প্রকৃতি থেকেই সংগ্রহ করেছে। প্রাচীন ভারতে ভেষজ চিকিত্‍সার বিশেষ বিদ্যাও প্রচলিত ছিল, আর তা হলো আয়ুর্বেদশাস্ত্র। প্রাকৃতিক উপাদানে প্রায় সকল ধরনের রোগের চিকিত্‍সার উপায় বাতলানো ছিল সেখানে। এখনো ভেষজ চিকিত্‍সার অন্যতম মাধ্যম হলো প্রাকৃতিক উপাদান। এসব উপাদানে থাকে কৃত্রিম ওষুধের মতো কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া।

রসুন :

রসুন রান্নায় ব্যবহৃত অন্যমত মসলাগুলোর মধ্যে একটি। রসুনের রয়েছে অনেক গুণাগুণ। কিছু সমস্যা দূরীকরণে রসুনের আছে অতুলনীয় ভূমিকা।

    ১)রসুনের রয়েছে অসাধারণ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। প্রতিদিন এক কোয়া কাঁচা রসুন খান। এতে রোগবালাই আপনার কাছ থেকে থাকবে দূরে। বিশেষ করে পেটের সমস্যা, হৃদরোগ, মাইগ্রেন ও ঠান্ডাজনিত সমস্যা দূরে রাখতে কাঁচা রসুন সহায়তা করে।

    ২)ঠান্ডাজনিত সমস্যা দূর করতেও রসুন খুবই উপকারী। ঠান্ডার কারণে বুকে কফ জমে গেলে বা নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হলে এ সময় খুব ভালো কাজ দেবে রসুন। একটা আস্ত রসুন থেঁতো করেন নিন। তারপর একটি স্টিলের পাত্রে দুই টেবিল চামচ সরিষার তেল ও রসুন গরম করুন। তেল ফুটে উঠলে নামিয়ে ফেলুন। এই তেল কুসুম কুসুম গরম অবস্থায় গলা, বুকে ও পিঠে মালিশ করুন। দ্রুত উপকার পাবেন।

সরিষার তেল :
বাঙালির ঘরে ঘরে সরিষার তেল একটি নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস। বিশেষ করে সরিষার তেল ছাড়া ভর্তা অকল্পনীয়। সরিষার তেল সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয় আচার তৈরিতে। এছাড়া রান্নার কাজেও ব্যবহার হয় সরিষার তেল। সরিষার তেলেরও রয়েছে অনেক ঔষধি গুণ। যেমন -

    ৩)সর্দি লাগলে অনেক সময় নাক বন্ধ হয়ে যায় এবং অস্বস্তি হতে থাকে ভীষণ রকমের। এ অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে হলে আঙুলের ডগায় একটুখানি সরিষার তেল লাগিয়ে নিয়ে নাকের ছিদ্রে ঘষতে থাকুন এবং ঘন ঘন শ্বাস টানুন। নিঃশ্বাস-প্রশ্বাস অবিলম্বে স্বাভাবিক হয়ে আসবে।

    ৪)প্রতিদিন এক চা চামচ খাঁটি সরিষার তেল খাবার অভ্যাস করুন। এতে সকল ঠান্ডাজনিত সমস্যা থাকবে দূরে। সরিষার তেলে রয়েছে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান, যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এছাড়া সরিষার তেল রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে, ফলে হৃদরোগের সম্ভাবনাও কমে যায়। জ্বর হলে বা খুব বেশি ঠান্ডা লেগে গেলে খাবারে অরুচি আসে। সরিষার তেল মুখের রুচি ফিরিয়ে আনে এবং ক্ষুধাবর্ধক হিসেবে কাজ করে।

    ৫)সারা বছর খুশকির সমস্যা থাকুক আর না থাকুক, কিন্তু শীতকালে অনেকেরই খুশকির সমস্যা প্রকট আকার ধারণ করে। সরিষার তেল দিয়ে এ সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। সপ্তাহে ২ বার চুলের গোড়ায় সরিষার তেল লাগান। এতে খুশকি ও মাথার চুলকানি তো দূর হবেই, চুল পড়াও কমে যাবে।

আদা :
আদা হলো এমন একটি মসলা যা খাবারের স্বাদ ও গুণাগুণ বৃদ্ধি করে বহুগুণ। এছাড়া ঘরোয়া চিকিত্‍সার কাজেও আদা অতুলনীয়। যেমন -

    ৬)জ্বর, ঠান্ডা লাগা, গলা ব্যথায় দূর করতে আদা উপকারী ভূমিকা রাখে। কারণ আদায় এমন কিছু উপাদান রয়েছে, যা শরীরের তাপমাত্রার ভারসাম্য বজায় রাখতে সাহায্য করে। শীতকালে ঠান্ডার সময় তাই আদা চা খেতে পারেন নিয়মিত। সর্দি কিংবা খুসখুসে কাশিতে আক্রান্ত হলে আদার রস ও মধু একত্রে মিশিয়ে হালকা গরম করে দিনে তিনবার খান। অবশ্যই উপকার পাবেন।

    ৭)ঋতু পরিবর্তনের সময় শ্বাসকষ্ট, মাইগ্রেনের মতো সমস্যা প্রায়ই দেখা দেয়। তাই রোজকার খাদ্যতালিকায় রাখুন একটুখানি কাঁচা আদা। এতে উপকার পাবেন এবং এসব সমস্যা প্রতিরোধে আদা সাহায্য করবে।

55
New genetic clues for rheumatoid arthritis ‘cure’

An international team of researchers has found more than 40 new areas in DNA that increase the risk of rheumatoid arthritis.

The work is the largest genetic study ever carried out, involving nearly 30,000 patients.

The investigators believe new drugs could be developed to target these areas that could one day provide a cure for the disease, reports BBC.

The findings are published in the Journal Nature.

The research team compared the DNA of arthritis patients with those without the disease and found 42 ‘faulty’ areas that were linked with the disease. The hope is that drugs can be developed to compensate for these faults.

The lead researcher Professor Robert Plenge of Harvard Medical School found that one of these areas produced a weakness that was treated by an existing drug that was developed by trial and error, rather than specifically made to correct the genetic problem.

"This finding shows such discoveries could be used to design new drugs.What this offers in the future is an opportunity to use genetics to discover new medicines for complex diseases like rheumatoid arthritis to treat or even cure the disease,” he said.

Some have argued identifying genetic weak areas for complex diseases – known as single nucleotide polymorphisms (SNPs) – is not useful. There is little or no evidence, they argue, that “silencing the SNPs” with drugs will relieve any symptoms.

But Dr Plenge says the fact that he has found an established drug that treats the symptoms that arise from a particular SNP for rheumatoid arthritis validates this genetic approach.

“It offers tremendous potential. This approach could be used to identify drug targets for complex diseases, nut just rheumatoid arthritis, but diabetes, Alzheimer’s and coronary heart disease”

The study also found SNPs in the rheumatoid arthritis patients that also occur in patients with types of blood cancer.

According to Prof Jane Worthington, director of the centre for genetics in Manchester, this observation suggests that drugs that are being used to treat the cancer could be effective against rheumatoid arthritis and so should be fast tracked into clinical trials.

“There are already therapies that have been designed in the cancer field that might open up new opportunities for retargeting drugs,” she told BBC News.

“It might allow us a straightforward way to add therapies we have to treat patients with rheumatoid arthritis”.

-BBC

56
Reduce Fat /Weight Loss / Diet Plan to Lose 8 kg weight in 7 days
« on: December 31, 2013, 01:36:23 PM »
Diet Plan to Lose 8 kg weight in 7 days

Are you looking for fastest way to lose fat?If you have any parties or functions in a couple of days.What ever reason will be but you should follow right kind of weight reduction diet.To acquire  the flat tummy we have to take the right kind of weight reduction diet is important.Follow this diet plan you can easily reduce your body weight 6 to 8 kg in 7 days.

Day 1: First day is very important, you are going to flush out the toxins and waste from your body.It means you are getting ready for the diet.Consume fruits which have more water percentage such as watermelon,muskmelon,grapes,papaya etc..(Avoid banana). Remember that drink 6 to 8 glasses of water daily is very important in this diet plan.


Day 2: Day two offers you vegetables whole day.You can take the vegetables in raw state and boiled state.Note don't add oil in the vegetables while cooking.Take vegetables such as broccoli, carrot, beans cucumber, cabbage,etc.It is preferable to avoid potatoes.If you want try it boiled potatoes are preferable in the morning.


Day 3: Third day allows you to take both vegetables and fruits.Make sure that don't add potatoes in your diet through out the day.Take them alternately fruits in the morning and vegetables in the afternoon and repeat fruit diet in the evening.At night follow both vegetables and fruit diet.


Day 4: Day 4 is filled with banana and milk diet.You need to take 6 to 8 bananas through out the day and 3 glasses of milk is allowed.You should divide banana and milk properly.Take banana and glass of milk in the morning and take 2 more bananas between lunch.You can take 2 bananas and glass of milk for lunch.Take 2 to 3 bananas in the evening and then take couple of banana and glass of milk at night.


Day 5: Day 5 is filled with tomatoes and cup of rice.Take 7 to 10 tomatoes through out the day it produces a lot of uric acid in the body.Take a cup of rice for lunch and also increase water level from 8 glasses to 12 glasses.


Day 6: Take a cup of rice for lunch and eat vegetables through out the day.take 8 to 12 glasses of water and stick on to vegetables whole day.


Day 7: This is the last day of diet plan at this day you are allowed to take all vegetables and fruit juices along with cup of rice for lunch.No doubt now you will recognize that improved digestive system and increased face glow.Your weight will be reduced to 4-6 kg,even more it depends on how strictly you are followed the diet.

Source: way2medicare.blogspot.com

57
Liver / Foods That Cleanse Liver
« on: December 31, 2013, 01:30:48 PM »
Foods That Cleanse Liver

Garlic:
It helps to activate enzymes which can flush out the toxins.The two most natural compounds selenium and allicin that aid in liver cleaning and protect liver from damage.

Grape fruits:
Grape fruits are well known for high anti oxidant properties and vitamin C present in it.By eating or drinking the juice of grape fruit can flush out the carcinogens and toxins.

Leafy greens:
Leafy greens such as spinach can control the chemicals,pesticides that may be contain in your food.It protects the mechanism for the liver.

Green tea:
It is rich in anti oxidants which will improves your liver function and cleaning.

Turmeric: We know that turmeric is well known for digestion of fat and maintain the production of bile.
It also cleanse the liver and help in the functioning of  liver.

Walnuts:
Walnuts are good source of glutathione and also for omega-3 fatty acids.These can helps to liver in cleansing process.

Avocado:
Adding avocado to your diet is good choice it can cleanse the toxins and helps to filter out the unwanted materials from liver.

58
Teeth / How To Get Rid Of Toothache Without Dentist
« on: December 31, 2013, 01:27:16 PM »
How To Get Rid Of Toothache Without Dentist

The teeth are an amazing balance of form and function,aesthetic beauty and engineering.Good teeth are an important part of one,s health and appearance.

The main cause of toothache is tooth decay which results from a faulty diet.Perhaps the greatest curse and cause of tooth decay is the consumption of candy,soft drinks,pastries,refined carbohydrates and sugar in all forms.

Bacteria in the mouth break sugar down into acids,which combine with the calcium in the enamel to cause decay or erosion.


Home remedies to get rid of tooth decay:


Garlic: Garlic is one of the best home remedy for toothaches.A clove of garlic with a little rock salt should be placed on the affected tooth.It will relieve the pain.A clove should be chewed in the morning daily.It will makes the teeth strong and healthy.


Onion:If a person consumes one raw onion everyday,he will be protected from a host of tooth disorders.Chewing raw onion for 3 minutes is sufficient to kill all germs in the mouth.


Lime: It has a rich source of vitamin C.It will helps to maintain the health of the teeth and other bones of the  body in good condition.It prevents decay and  loosening of the teeth.


Clove: It has rich source of antiseptic properties which can helps to reduce the pain and decrease the infection.


Pepper: A mixture of a pinch of  pepper  powder and a quarter teaspoon of common salt is an excellent remedy for toothaches,foul breath,bleeding from the gums,painful gums.....


Bay Berry: Bay berry paste is very helpful in the treatment of toothaches and also be beneficial on the gums for strengthening them.


Wheat Grass:
Wheat grass juice is also beneficial in the treatment of toothaches.It can flush out the toxins from the gums.It considered as best mouthwash for tooth decay and toothache.

59
Beauty Tips / Natural Ways To Lighten Dark Lips
« on: December 31, 2013, 01:24:52 PM »
Natural Ways To Lighten Dark Lips..

Lips are most sensitive part on our face.Every one wants their lips charm.No doubt pink and rosy lips look beautiful.All people don't have time to use lipsticks and other guards.Dark lips are  the most common problem in all age groups.To cover this problem so many people use lipsticks,makeups....that color is not permanent once you wash it color just go off.

Dark lips are caused by drinking caffeine daily,smoking,direct sunlight(u.v rays).being in polluted areas long time..whatever the causes are  I have some risk free natural ways to overcome the dark lips.

Natural ways to lighten dark lips:


Sugar scrub:
Sugar scrub is very beneficial in the treatment of dark lips.Take 3-4 table spoons of sugar powder and add butter to it.mix it to form a thick paste and apply it on lips.Sugar works as a exfoliate and remove dead cells on the lips.Butter helps to increase the moisture and color.


Beetroot: Natural agents present in the beetroot helps to remove the dead cells and gradually reduce the darkness.


Olive oil:
Olive oil has so many essential nutrients that will helps to reduce the darkness of lips.Retain few drops of olive oil and scrub it.


Rose petals: Prepare paste from rose petals by adding butter to it.Apply the mixture on lips rose petals helps to lighten the dark lips try to make it twice in a week for better noticeable results.


Berries: Berries are very helpful to lighten the dark lips.Prepare the paste from raspberries or strawberries and mix it up with aloevera gel and honey.Apply the mixture on lips and scrub it.Wash it off thoroughly after 10 minutes.


Petroleum jelly: Take two tablespoons of petroleum jelly and add 1/2 tablespoon of strawaberry paste mix it well.Use it as a daily lip balm.


Pomegranate:
Separate the pomegranate seeds and add butter.Blend it properly to make a paste.Apply this mixture over the lips and scrub it.This is one of the best natural home made remedy to get clear pink lips.


Salt: Mix pinch of table salt in tablespoon of milk and apply this mixture over the lips and scrub it gently.Wash it off after 10-15 minutes.


Aloevera:
Aloevera gel is one of the best natural way to restore the  original color of lips.Apply aloevera gel over the lips and scrub it.


Banana: Prepare a paste with banana and milk cream along with this add honey.Apply this mixture daily for a noticeable results.

60
Hair Loss / Hair Maintenance / Home Remedies For Hair Growth
« on: December 31, 2013, 01:20:03 PM »
Home Remedies For Hair Growth

Although hair is not essential to life,it is of sufficient cosmetic concern to provoke in anyone when it starts thinning,falling.To a woman ,the sight of a comb or brush covered with lost hair can cause mental strain..

Hair is formed in minute pockets in the skin called follicles.An up growth at the base of the follicle called papilla,actually produces hair when a special group of cells turn amino acids into keratin(type of protein which hair is made).The rate of these protein 'building blocks' determines hair growth.The average growth rate is about 1.2 cm per month,growing fastest on women between 15-30 years....


5 Home remedies for hair growth:


Coconut milk:
Coconut milk is very beneficial to promote the hair growth.Applying coconut milk all over the scalp and massaging it into the hair roots.Coconut milk is prepared by grinding coconut shavings and squeeze them well.

lettuce: A mixture of lettuce and spinach juice is found beneficial to help the growth of hair,if taken to the extent to 1/2 liter daily.

Mustard oil & henna leaves:
mustard oil boiled with henna leaves,is useful for healthy growth of hair.About 250 ml of mustard oil should be boiled in a tin basin.About 60 grams of henna leaves should be gradually put in this oil till they are burnt in the oil.Oil should be filtered through a cloth and stored in a bottle.Regular massage with this oil will produce abundant hair.

Indian gooseberry:
Gooseberry oil is prepared by boiling dry pieces of gooseberry in coconut oil,is considered as valuable hair tonic for enriching hair growth.

Onion: Onion is also found beneficial in the treatment of patchy baldness.It boosts the production of collagen tissues and thus help in the re-growth of hair..

Pages: 1 2 3 [4] 5 6 ... 17