Show Posts

This section allows you to view all posts made by this member. Note that you can only see posts made in areas you currently have access to.


Topics - Jasia.bba

Pages: [1] 2 3 ... 7
1
Life Style / করোনাভাইরাস
« on: February 28, 2020, 08:15:17 PM »
২০১৯-২০ সালে উহানে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব সম্পর্কিত নিবন্ধের জন্য, উহান করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব (২০১৯-২০২০) দেখুন।
করোনাভাইরাস
Coronaviruses 004 lores.jpg
ভাইরাসের শ্রেণীবিন্যাস
গ্রুপ:   ৪র্থ গ্রুপ ((+)ssRNA)
বর্গ:   নিদুভাইরাস
পরিবার:   করোনাভাইরদা
উপপরিবার:   করোনাভাইরিনা
গণ:   
আলফাকরোনাভাইরাস
বেটাকরোনাভাইরাস
ডেল্টাকরোনাভাইরাস
গামাকরোনাভাইরাস
আদর্শ প্রজাতি
করোনাভাইরাস
করোনাভাইরাস হলো নিদুভাইরাস শ্রেণীর করোনাভাইরদা পরিবারভুক্ত করোনাভাইরিনা উপগোত্রের একটি সংক্রমণ ভাইরাস প্রজাতি।[১][২] এ ভাইরাসের জিনোম নিজস্ব আরএনএ দিয়ে গঠিত। এর জিনোমের আকার সাধারণত ২৬ থেকে ৩২ কিলো বেস পেয়ার (kilo base-pair) এর মধ্যে হয়ে থাকে যা এ ধরনের আরএনএ ভাইরাসের মধ্যে সর্ববৃহৎ। করোনাভাইরাস শব্দটি ল্যাটিন করোনা থেকে নেওয়া হয়েছে যার অর্থ মুকুট। কারণ ইলেকট্রন অণুবীক্ষণ যন্ত্রে ভাইরাসটি দেখতে অনেকটা মুকুটের মত। ভাইরাসের উপরিভাগে প্রোটিন সমৃদ্ধ থাকে যা ভাইরাল স্পাইক পেপলোমার দ্বারা এর অঙ্গসংস্থান গঠন করে। এ প্রোটিন সংক্রামিত হওয়া টিস্যু বিনষ্ট করে। সকল প্রজাতির করোনাভাইরাসে সাধারণত স্পাইক (এস), এনভেলপ (ই), মেমব্রেন (এম) এবং নিউক্লিওক্যাপসিড (এন) নামক চার ধরনের প্রেটিন দেখা যায়।[৩]


পরিচ্ছেদসমূহ
১   ইতিহাস
১.১   করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তির প্রাথমিক লক্ষণ
১.২   করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব (২০১৯-২০২০)
২   তথ্যসূত্র
ইতিহাস
করোনাভাইরাস ১৯৬০-এর দশকে প্রথম আবিষ্কৃত হয়। প্রথমদিকে মুরগির মধ্যে সংক্রামক ব্রঙ্কাইটিস ভাইরাস হিসেবে এটি প্রথম দেখা যায়। পরে সাধারণ সর্দিকাশিতে আক্রন্ত রোগীদের মধ্যে এরকম দুই ধরনের ভাইরাস পাওয়া যায়। মানুষের মধ্যে পাওয়া ভাইরাস দুটি ‘মনুষ্য করোনাভাইরাস ২২৯ই’ এবং ‘মনুষ্য করোনাভাইরাস ওসি৪৩’ নামে নামকরণ করা হয়।[৪] এরপর থেকে বিভন্ন সময় ভাইরাসটির আরো বেশ কিছু প্রজাতি পাওয়া যায় যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো ২০০৩ সালে ‘এসএআরএস-সিওভি’, ২০০৪ সালে ‘এইচসিওভি এনএল৬৩’, ২০০৫ সালে ‘এইচকেইউ১’, ২০১২ সালে ‘এমইআরএস-সিওভি’ এবং সর্বশেষ ২০১৯ সাল চীনে ‘নোভেল করোনাভাইরাস’। এগুলোর মধ্যে অধিকাংশ ভাইরাসের ফলে শ্বাসকষ্টের গুরুতর সংক্রমণ দেখা দেয়।[৫]

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তির প্রাথমিক লক্ষণ
জ্বর
অবসাদ
শুষ্ক কাশি
শ্বাস কষ্ট
গলা ব্যাথা
কিছু রোগীর ক্ষেত্রে উপরোক্ত সকল উপসর্গ দেখা গেলেও জ্বর থাকেনা।[৬]
করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব (২০১৯-২০২০)
মূল নিবন্ধসমূহ: উহান করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব (২০১৯-২০২০) এবং দেশ অনুযায়ী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব (২০১৯-২০২০)
২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বরে চীনের১১ উহান শহরে করোনাভাইরাসের একটি প্রজাতির সংক্রামণ দেখা দেয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ভাইরাসটিকে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে ‘২০১৯-এনসিওভি’ নামকরণ করে। ২০২০ সালের ২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চীনের সাথে সাথে ১২টি দেশে সংক্রমণের খবর পাওয়া যায় যাতে ১১১৮ জনের বেশি মানুষ মৃত্যুবরণ করে।[৭][৮][৯] নিশ্চিতভাবে বিভিন্ন দেশে আরো ৪৫০০০ রোগী এ ভাইরাসে আক্রন্ত হয়েছে বলে সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। উহানে দেখা দেওয়া ভাইরাস প্রজাতিটি ‘এসএআরএস-সিওভি’ প্রজাতির সাথে ~৭০% জিনগত মিল পাওয়া যায়।[১০] অনেকেই অনুমান করছেন নতুন এ প্রজাতিটি সাপ থেকে এসেছে যদিও অনেক গবেষক এ মতের বিরোধীতা করেন।

2
Life Style / vitamin D
« on: February 28, 2020, 08:12:35 PM »
Vitamin D is a fat-soluble vitamin that is naturally present in very few foods, added to others, and available as a dietary supplement. It is also produced endogenously when ultraviolet rays from sunlight strike the skin and trigger vitamin D synthesis. Vitamin D obtained from sun exposure, food, and supplements is biologically inert and must undergo two hydroxylations in the body for activation. The first occurs in the liver and converts vitamin D to 25-hydroxyvitamin D [25(OH)D], also known as calcidiol. The second occurs primarily in the kidney and forms the physiologically active 1,25-dihydroxyvitamin D [1,25(OH)2D], also known as calcitriol [1].

Vitamin D promotes calcium absorption in the gut and maintains adequate serum calcium and phosphate concentrations to enable normal mineralization of bone and to prevent hypocalcemic tetany. It is also needed for bone growth and bone remodeling by osteoblasts and osteoclasts [1,2]. Without sufficient vitamin D, bones can become thin, brittle, or misshapen. Vitamin D sufficiency prevents rickets in children and osteomalacia in adults [1]. Together with calcium, vitamin D also helps protect older adults from osteoporosis.

Vitamin D has other roles in the body, including modulation of cell growth, neuromuscular and immune function, and reduction of inflammation [1,3,4]. Many genes encoding proteins that regulate cell proliferation, differentiation, and apoptosis are modulated in part by vitamin D [1]. Many cells have vitamin D receptors, and some convert 25(OH)D to 1,25(OH)2D.

Serum concentration of 25(OH)D is the best indicator of vitamin D status. It reflects vitamin D produced cutaneously and that obtained from food and supplements [1] and has a fairly long circulating half-life of 15 days [5]. 25(OH)D functions as a biomarker of exposure, but it is not clear to what extent 25(OH)D levels also serve as a biomarker of effect (i.e., relating to health status or outcomes) [1]. Serum 25(OH)D levels do not indicate the amount of vitamin D stored in body tissues.

In contrast to 25(OH)D, circulating 1,25(OH)2D is generally not a good indicator of vitamin D status because it has a short half-life of 15 hours and serum concentrations are closely regulated by parathyroid hormone, calcium, and phosphate [5]. Levels of 1,25(OH)2D do not typically decrease until vitamin D deficiency is severe [2,6].

There is considerable discussion of the serum concentrations of 25(OH)D associated with deficiency (e.g., rickets), adequacy for bone health, and optimal overall health, and cut points have not been developed by a scientific consensus process. Based on its review of data of vitamin D needs, a committee of the Institute of Medicine concluded that persons are at risk of vitamin D deficiency at serum 25(OH)D concentrations <30 nmol/L (<12 ng/mL). Some are potentially at risk for inadequacy at levels ranging from 30–50 nmol/L (12–20 ng/mL). Practically all people are sufficient at levels ≥50 nmol/L (≥20 ng/mL); the committee stated that 50 nmol/L is the serum 25(OH)D level that covers the needs of 97.5% of the population. Serum concentrations >125 nmol/L (>50 ng/mL) are associated with potential adverse effects

3
Life Style / 7 Impressive Ways Vitamin C Benefits Your Body
« on: February 28, 2020, 08:11:26 PM »
Vitamin C is an essential vitamin, meaning your body can’t produce it. Yet, it has many roles and has been linked to impressive health benefits.

It’s water-soluble and found in many fruits and vegetables, including oranges, strawberries, kiwi fruit, bell peppers, broccoli, kale, and spinach.

The recommended daily intake for vitamin C is 75 mg for women and 90 mg for men (1).

While it’s commonly advised to get your vitamin C intake from foods, many people turn to supplements to meet their needs.

Here are 7 scientifically proven benefits of taking a vitamin C supplement.

1. May reduce your risk of chronic disease
Vitamin C is a powerful antioxidant that can strengthen your body’s natural defenses (2).

Antioxidants are molecules that boost the immune system. They do so by protecting cells from harmful molecules called free radicals.

When free radicals accumulate, they can promote a state known as oxidative stress, which has been linked to many chronic diseases (3Trusted Source).

Studies show that consuming more vitamin C can increase your blood antioxidant levels by up to 30%. This helps the body’s natural defenses fight inflammation (4Trusted Source, 5).

SUMMARY
Vitamin C is a strong antioxidant that can boost your blood antioxidant levels. This may help reduce the risk of chronic diseases like heart disease.

2. May help manage high blood pressure
Approximately one-third of American adults have high blood pressure (6Trusted Source).

High blood pressure puts you at risk of heart disease, the leading cause of death globally (7Trusted Source).

Studies have shown that vitamin C may help lower blood pressure in both those with and without high blood pressure.

An animal study found that taking a vitamin C supplement helped relax the blood vessels that carry blood from the heart, which helped reduce blood pressure levels (8Trusted Source).

Moreover, an analysis of 29 human studies found that taking a vitamin C supplement reduced systolic blood pressure (the upper value) by 3.8 mmHg and diastolic blood pressure (the lower value) by 1.5 mmHg, on average, in healthy adults.

In adults with high blood pressure, vitamin C supplements reduced systolic blood pressure by 4.9 mmHg and diastolic blood pressure by 1.7 mmHg, on average (9Trusted Source).

While these results are promising, it’s not clear whether the effects on blood pressure are long term. Moreover, people with high blood pressure should not rely on vitamin C alone for treatment.

SUMMARY
Vitamin C supplements have been found to lower blood pressure in both healthy adults and those with high blood pressure.


3. May lower your risk of heart disease
Heart disease is the leading cause of death worldwide (7Trusted Source).

Many factors increase the risk of heart disease, including high blood pressure, high triglyceride or LDL (bad) cholesterol levels, and low levels of HDL (good) cholesterol.

Vitamin C may help reduce these risk factors, which may reduce heart disease risk.

For example, an analysis of 9 studies with a combined 293,172 participants found that after 10 years, people who took at least 700 mg of vitamin C daily had a 25% lower risk of heart disease than those who did not take a vitamin C supplement (10Trusted Source).

Interestingly, another analysis of 15 studies found that consuming vitamin C from foods — not supplements — was linked to a lower risk of heart disease.

However, scientists were unsure whether people who consumed vitamin-C-rich foods also followed a healthier lifestyle than people who took a supplement. Thus, it remains unclear whether the differences were due to vitamin C or other aspects of their diet (11Trusted Source).

Another analysis of 13 studies looked at the effects of taking at least 500 mg of vitamin C daily on risk factors for heart disease, such as blood cholesterol and triglyceride levels.

The analysis found that taking a vitamin C supplement significantly reduced LDL (bad) cholesterol by approximately 7.9 mg/dL and blood triglycerides by 20.1 mg/dL (12Trusted Source).

In short, it seems that taking or consuming at least 500 mg of vitamin C daily may reduce the risk of heart disease. However, if you already consume a vitamin-C-rich diet, then supplements may not provide additional heart health benefits.

SUMMARY
Vitamin C supplements have been linked to a reduced risk of heart disease. These supplements may lower heart disease risk factors, including high blood levels of LDL (bad) cholesterol and triglycerides.

4. May reduce blood uric acid levels and help prevent gout attacks
Gout is a type of arthritis that affects approximately 4% of American adults (13Trusted Source).

It’s incredibly painful and involves inflammation of the joints, especially those of the big toes. People with gout experience swelling and sudden, severe attacks of pain (14Trusted Source).

Gout symptoms appear when there is too much uric acid in the blood. Uric acid is a waste product produced by the body. At high levels, it may crystallize and deposit in the joints.

Interestingly, several studies have shown that vitamin C may help reduce uric acid in the blood and, as a result, protect against gout attacks.

For example, a study including 1,387 men found that those who consumed the most vitamin C had significantly lower blood levels of uric acid than those who consumed the least (15Trusted Source).

Another study followed 46,994 healthy men over 20 years to determine whether vitamin C intake was linked to developing gout. It found that people who took a vitamin C supplement had a 44% lower gout risk (16Trusted Source).

Additionally, an analysis of 13 studies found that taking a vitamin C supplement over 30 days significantly reduced blood uric acid, compared with a placebo (17Trusted Source).

While there appears to be a strong link between vitamin C intake and uric acid levels, more studies on the effects of vitamin C on gout are needed.

SUMMARY
Vitamin-C-rich foods and supplements have been linked to reduced blood uric acid levels and lower risk of gout.

5. Helps prevent iron deficiency
Iron is an important nutrient that has a variety of functions in the body. It’s essential for making red blood cells and transporting oxygen throughout the body.

Vitamin C supplements can help improve the absorption of iron from the diet. Vitamin C assists in converting iron that is poorly absorbed, such as plant-based sources of iron, into a form that is easier to absorb (18Trusted Source).

This is especially useful for people on a meat-free diet, as meat is a major source of iron.

In fact, simply consuming 100 mg of vitamin C may improve iron absorption by 67% (19Trusted Source).

As a result, vitamin C may help reduce the risk of anemia among people prone to iron deficiency.

In one study, 65 children with mild iron deficiency anemia were given a vitamin C supplement. Researchers found that the supplement alone helped control their anemia (20Trusted Source).

If you suffer from low iron levels, consuming more vitamin-C-rich foods or taking a vitamin C supplement may help improve your blood iron levels.

SUMMARY
Vitamin C can improve the absorption of iron that is poorly absorbed, such as iron from meat-free sources. It may also reduce the risk of iron deficiency.

6. Boosts immunity
One of the main reasons people take vitamin C supplements is to boost their immunity, as vitamin C is involved in many parts of the immune system.

First, vitamin C helps encourage the production of white blood cells known as lymphocytes and phagocytes, which help protect the body against infection (21Trusted Source).

Second, vitamin C helps these white blood cells function more effectively while protecting them from damage by potentially harmful molecules, such as free radicals.

Third, vitamin C is an essential part of the skin’s defense system. It’s actively transported to the skin, where it can act as an antioxidant and help strengthen the skin’s barriers (22).

Studies have also shown that taking vitamin C may shorten wound healing time (23Trusted Source, 24Trusted Source).

What’s more, low vitamin C levels have been linked to poor health outcomes.

For example, people who suffer from pneumonia tend to have lower vitamin C levels, and vitamin C supplements have been shown to shorten the recovery time (25Trusted Source, 26).

SUMMARY
Vitamin C may boost immunity by helping white blood cells function more effectively, strengthening your skin’s defense system, and helping wounds heal faster.

7. Protects your memory and thinking as you age
Dementia is a broad term used to describe symptoms of poor thinking and memory.

It affects over 35 million people worldwide and typically occurs among older adults (27Trusted Source).

Studies suggest that oxidative stress and inflammation near the brain, spine, and nerves (altogether known as the central nervous system) can increase the risk of dementia (28Trusted Source).

Vitamin C is a strong antioxidant. Low levels of this vitamin have been linked to an impaired ability to think and remember (29Trusted Source, 30Trusted Source).

Moreover, several studies have shown that people with dementia may have lower blood levels of vitamin C (31Trusted Source, 32Trusted Source).

Furthermore, high vitamin C intake from food or supplements has been shown to have a protective effect on thinking and memory as you age (33Trusted Source, 34Trusted Source, 35Trusted Source).

Vitamin C supplements may aid against conditions like dementia if you don’t get enough vitamin C from your diet. However, additional human studies are needed to understand the effects of vitamin C supplements on nervous system health (36Trusted Source).

SUMMARY
Low vitamin C levels have been linked to an increased risk of memory and thinking disorders like dementia, while a high intake of vitamin C from foods and supplements has been shown to have a protective effect.

4
Life Style / vitamin-B
« on: February 28, 2020, 08:08:49 PM »
B vitamins are a class of water-soluble vitamins that play important roles in cell metabolism. Though these vitamins share similar names, they are chemically distinct compounds that often coexist in the same foods. In general, dietary supplements containing all eight are referred to as a vitamin B complex. Individual B vitamin supplements are referred to by the specific number or name of each vitamin: B1 = thiamine, B2 = riboflavin, B3 = niacin, etc. Some are better known by name than number: niacin, pantothenic acid, biotin and folate.

Each B vitamin is either a cofactor (generally a coenzyme) for key metabolic processes or is a precursor needed to make one.

5
Life Style / vitamin -A
« on: February 28, 2020, 08:07:44 PM »
Vitamin A is a group of unsaturated nutritional organic compounds that includes retinol, retinal, retinoic acid, and several provitamin A carotenoids (most notably beta-carotene).[1][2] Vitamin A has multiple functions: it is important for growth and development, for the maintenance of the immune system, and for good vision.[3][4] Vitamin A is needed by the retina of the eye in the form of retinal, which combines with protein opsin to form rhodopsin, the light-absorbing molecule[5] necessary for both low-light (scotopic vision) and color vision.[6] Vitamin A also functions in a very different role as retinoic acid (an irreversibly oxidized form of retinol), which is an important hormone-like growth factor for epithelial and other cells.[4][7]

In foods of animal origin, the major form of vitamin A is an ester, primarily retinyl palmitate, which is converted to retinol (chemically an alcohol) in the small intestine. The retinol form functions as a storage form of the vitamin, and can be converted to and from its visually active aldehyde form, retinal.

All forms of vitamin A have a beta-ionone ring to which an isoprenoid chain is attached, called a retinyl group.[1] Both structural features are essential for vitamin activity.[8] The orange pigment of carrots (beta-carotene) can be represented as two connected retinyl groups, which are used in the body to contribute to vitamin A levels. Alpha-carotene and gamma-carotene also have a single retinyl group, which give them some vitamin activity. None of the other carotenes have vitamin activity. The carotenoid beta-cryptoxanthin possesses an ionone group and has vitamin activity in humans.

Vitamin A can be found in two principal forms in foods:

Retinol, the form of vitamin A absorbed when eating animal food sources, is a yellow, fat-soluble substance. Since the pure alcohol form is unstable, the vitamin is found in tissues in a form of retinyl ester. It is also commercially produced and administered as esters such as retinyl acetate or palmitate.[9]
The carotenes alpha-carotene, beta-carotene, gamma-carotene; and the xanthophyll beta-cryptoxanthin (all of which contain beta-ionone rings), but no other carotenoids, function as provitamin A in herbivores and omnivore animals, which possess the enzyme beta-carotene 15,15'-dioxygenase which cleaves beta-carotene in the intestinal mucosa and converts it to retinol.[10]


6
Photography / photography
« on: February 28, 2020, 08:05:25 PM »
Lifestyle photography is a kind of photography that mainly aims to capture portrait/people in situations, real-life events or milestones in an artistic manner and the art of the everyday. The primary goal is to tell stories about people's lives or to inspire people in different times. Thus, it covers multidisciplinary types of photography together. A lifestyle photographer is not only a portrait or people photographer and loves/enjoys photography as art in everyday life but is believed to be talented in photography that can also do well in other many disciplines of photography at a time such as landscape, street photography, fashion, wedding and even wildlife with one's unique vision to inspire people's lives.

Lifestyle photography is "posed" in a way that the photographer gives some direction and then documents the natural responses after. The goal of photography is always to put the subject in the best light, photography means painting with light after all. So, a little direction toward the best possible light is always the goal.

Lifestyle photography is about telling a story through the lens. It's about the legacy that is left behind because of it.

8
Mind Mapping / mind mapping 2
« on: February 28, 2020, 01:32:10 PM »

9
Mind Mapping / mind mapping
« on: February 28, 2020, 01:31:30 PM »

14
Coming Out of the BOX / out of box
« on: February 27, 2020, 12:29:21 PM »

15


খুন, ধর্ষণ, লুটপাট ইত্যাদি নেতিবাচক খবর শুনতে শুনতে আমাদের মনের ওপর যখন চাপ বাড়তে থাকে, যখন আমরা ভাবতে থাকি সমাজটা গেল রসাতলে, তখনই কোথাও না কোথাও কোনো না কোনো মানুষ প্রমাণ করেন, আসলে মানুষ মানুষেরই জন্য। তখন আবার ভরসা জাগে মানুষের ওপর। তেমনি একজন ভরসা–জাগানিয়া মানুষ থাকেন খুলনার ডুমুরিয়ায়। তিনি ছোট্ট একটি ব্যবসা করেন। তাঁর নাম তাপস রাহা।

‘এই দোকান থেকে প্রতি মাসে ৩০ জন গরিব মেধাবী ছাত্রছাত্রীর জন্য তিনটি খাতা, একটি করে কলম ফ্রিতে দেওয়া হয়।’ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রথম একটি ব্যানারের ছবিতে চোখ আটকে গিয়েছিল। এরপর খুলনা গিয়ে ব্যানারে থাকা নাম ও ফোন নম্বরে যোগাযোগ করে দেখা করতে গিয়েছি ডুমুরিয়া বাজারে, তাপস কুমার রাহার কর্মস্থলে। এক সন্তানের জনক তাপস মূলত বেকারির মালিক। মালিক হলেও শ্রমিকদের সঙ্গে হাতে হাত লাগিয়ে ময়দা মাখেন, গরম চুল্লিতে থরে থরে ট্রে সাজিয়ে কেক ও বিস্কুট তৈরি করেন, নকশা ফুটিয়ে তোলেন কেকের ওপর। সেই সঙ্গে বেকারির কর্মচারীদের সুখ–দুঃখের কথা শোনেন। তাঁর বেকারির সামনের টেবিলে থরে থরে সাজানো খাতা–কলম। এগুলো বিক্রির জন্য নয়, উপহার দেওয়ার জন্য।

শুরুটা ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাস থেকে। সে বছর থেকে ৩০ জন দরিদ্র শিক্ষার্থীকে প্রতি মাসে একটি করে বাংলা, ইংরেজি, অঙ্ক খাতা ও একটি কলম দেওয়া শুরু করেন তিনি। সুবিধাবঞ্চিত শিশুরা যেন নতুন খাতার সাদা চকচকে পাতায় আনন্দের সঙ্গে লিখতে পারে, এই ছিল ভাবনা। স্থানীয় শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলে তাপস খুঁজে বের করেন দরিদ্র পরিবারের শিশুদের। দরিদ্র শিক্ষার্থীর অভিভাবকেরাও যোগাযোগ করেন তাঁর সঙ্গে। এভাবে ২০১৫ সাল থেকে ২০১৯ সালের শুরুতে উপকরণের সংখ্যা বেড়ে যায়, উপহার পাওয়া শিশুর সংখ্যাও বেড়ে দাঁড়ায় ৩০ থেকে ৫০ জনে।

দারিদ্র্যের সঙ্গে বসতি ছিল তাপস রাহার পরিবারের। টাকাপয়সার ঘাটতি মেটাতে বিভিন্ন কাজ করতে হয়েছে তাঁর বাবা শান্তিপদ রাহাকে। অবশেষে ডুমুরিয়া বাজারে মায়ের দেওয়া জমিতে তিনি গড়ে তুলেছিলেন ‘মায়ের দান’ নামের একটি ছোট্ট বেকারি। সেখানে শুধুই বিস্কুট বানানো হতো। অংশীদারি ভিত্তিতে তিনি এ ব্যবসা চালাতেন। এ কারখানার সামনে কিছুটা বাড়তি উপার্জন করে বাবাকে সহায়তা করার জন্য তাপস রাহা বিভিন্ন বেকারি থেকে ভাঙা বিস্কুট কম দামে কিনে এনে বিক্রি করতেন, স্কুলের পরে। কিন্তু ২০০০ সালের দিকে অংশীদারের বিশ্বাসঘাতকতায় নিজের অংশীদারি ব্যবসায় শান্তিপদ রাহা মার খেলে পরিবারে অর্থনৈতিক বিপর্যয় নেমে আসে চরমভাবে এবং কারখানাটি বন্ধ করতে বাধ্য হন তিনি। এরপর কখনো খেয়ে, কখনো না খেয়ে দিন কাটতে থাকে শান্তিপদ রাহার আট সদস্যের পরিবারটির। এ সময় তাপস রাহা টেস্ট পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করলেও পরিবারের অর্থনৈতিক দুর্দশার কারণে পড়াশোনা বন্ধ করার কথা ভাবেন নিজেই। পরিবারকে সহায়তা করার জন্য তিনি ব্যবসা শুরু করেন বাবার বন্ধ হয়ে যাওয়া দোকান খুলে। মূলত বিভিন্ন বেকারি থেকে ভাঙা বিস্কুট কম দামে কিনে এনে বিক্রি করতে থাকেন তাপস। এরপর এক দশকের বেশি সময় ধীরে ধীরে শ্রম দিয়ে দাঁড় করিয়ে ফেলেন নিজের ছোট্ট বেকারি। বাবার দেওয়া নামটি পরিবর্তন করেননি দোকানের। চার ভাইয়ের মধ্য মেজ ভাই ছাড়া বাকি সবাই তাঁকে সহায়তা করেন। তবে বড় ভাই এবং তাপস রাহা নিজে লেখাপড়া করার সুযোগ না পেলেও ছোট ভাইকে লেখাপড়া করিয়েছেন। তিনি এখন ঢাকায় চাকরি করেন।

শিশুকাল থেকেই লেখাপড়া করতে ভালোবাসতেন তাপস। বছরের শুরুতে যখন নতুন বই দেওয়ার সময়, তখন কোনো একবার স্কুল থেকে জানানো হয়েছিল, টাকা দিলে নতুন বই দেওয়া হবে, না দিতে পারলে পুরোনো বই দিয়ে লেখাপড়া করতে হবে। দারিদ্র্যের কারণে বাবাও করতে পারেননি অর্থের ব্যবস্থা। স্মৃতি হাতড়ে তাপস জানান, সম্ভবত ৫০ টাকা না দিতে পারায় পুরোনো বই বুকে জড়িয়ে কাঁদতে কাঁদতে বাড়ির পথে ছুটে এসেছিলেন ১০–১২ বছরের তাপস। কিশোর তাপসের মনে গভীর রেখাপাত করেছিল সেই ঘটনা। দারিদ্র্যকে হার মানিয়ে যখন কিছুটা স্বাবলম্বী হলেন অর্থনৈতিকভাবে, তখন ভাবলেন, এবার কিছু করা যাক। অনেকে মানুষের জন্য অনেক কিছু করলেও তিনি বেছে নিলেন শিশুদের শিক্ষা উপকরণ দেওয়ার পথ। নিজের অতীতের কথা ভেবেই হয়তো। সিদ্ধান্ত নিলেন, হঠাৎ হঠাৎ দু–একজনকে একটু সহায়তা করে কিছু হবে না। সহায়তা হতে হবে ধারাবাহিক। তাতে অনেক মানুষের উপকার করা না গেলেও সমস্যা নেই। সে কারণেই ছোট পরিসরে শুরু করলেন প্রথমে।

এ জন্য নিজেই কৃচ্ছ্রসাধন শুরু করেন তাপস। হাতখরচের টাকা বাঁচাতে থাকেন তিনি। নিজের একান্ত প্রয়োজন আর শরীরচর্চা ছাড়া কোনো কিছুতে টাকা খরচ করেন না তিনি। সেই টাকা বাঁচিয়ে প্রতি মাসে গরিব শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেন খাতা-কলম। খোঁজ নেন লেখাপড়ার। কেউ ভালো ফল করলে একটু বেশি টাকা খরচ করে উৎসাহ দিতে স্কুলের পোশাক, ব্যাগ, ফাইলসহ নানা ধরনের শিক্ষা উপকরণও দেন তিনি উপহার হিসেবে। আর নিজের বেকারি থাকায় বিস্কুট খেতে দেন একেবারে ফ্রিতে। তাতে শিশুরা খুশি হয়, লেখাপড়ায় মনোযোগী হয় বলে জানান তাপস। আর্থিক অনটনে না পড়লে বছরখানেকের মধ্যে খাতা–কলম দেওয়া ছাত্রছাত্রীর সংখ্যায় সেঞ্চুরি করতে চান তিনি।

আমারও একটি ছেলে আছে
‘আমার বাবাকে সবাই ভালো মানুষ বলে।’ খুলনার আঞ্চলিক টানে বললেন তাপস। জানালেন, অন্য লোকে তাঁর বাবাকে ‘ভালো মানুষ’ বললে বড় আনন্দ হয় তাঁর। নিজেরও একটি ছেলে আছে তাপসের। কথার ফাঁকে হা হা করে হেসে উঠে তিনি জানালেন, তাঁর ছেলেও যেন মানুষের কাছে শোনে ‘তার বাবা ভালো মানুষ ছিলেন।’

শুধু শিশুদের শিক্ষা উপকরণ দেওয়াই নয়, কেউ অসুস্থ হলে ডাক্তার ডাকতে, কারও রক্তের প্রয়োজন হলে নিজে রক্ত দিতে কিংবা রক্তদাতা খুঁজে দিতে, মৃতের সৎকার করতে বা মৃতদেহ বইয়ে নেওয়ার কাজে নেতৃত্ব দিতে সবার আগে ডাক পড়ে তাপসের। তিনি নিজেও রাত–দিন উপেক্ষা করে এসব কাজ করতে দ্বিধা করেন না।


বিস্তর আড্ডার পর যখন উঠতে যাব, তখন বেকারিতে এল তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া আলপনা রানি। গত দুই বছর থেকে তাপসের কাছ থেকে খাতা-কলম উপহার পাচ্ছে সে। আলপনার বাবা মাছের ঘেরে পাহারাদার হিসেবে কাজ করেন। শুধু আলপনা নয়, ভ্যানচালক ছদরুলের ছেলে ও তাঁর বড় ভাইয়ের মেয়ে দুজনই তাপসের কাছ থেকে খাতা–কলম পেয়ে আসছে নিয়মিত। এ রকম আরও আরও অনেক মানস বৈরাগী, কুমারেশ, মোজাফফরের মতো মানুষের ভরসার জায়গা হয়ে উঠেছেন তাপস রাহা।

Pages: [1] 2 3 ... 7