ঘুরে আসুন আমিয়া খুম,নাফা খুম, সাতভাই খুম ও রাইক্ষ্যং মুখ থেকে।

Author Topic: ঘুরে আসুন আমিয়া খুম,নাফা খুম, সাতভাই খুম ও রাইক্ষ্যং মুখ থেকে।  (Read 808 times)

Offline Shakil Ahmad

  • Sr. Member
  • ****
  • Posts: 374
  • Test
    • View Profile
 মাত্র ৩৬৭২ টাকায় ৫ রাত ৪ দিনের এক ট্যূরে ঘুরে আসুন আমিয়া খুম,নাফা খুম, সাতভাই খুম ও রাইক্ষ্যং মুখ থেকে।

বুধবার রাতে ঢাকা থেকে ডলফিন বাসে রওয়ানা, বৃহস্পতিবার বান্দরবান নেমে ৬ য় জন মুরগি দিয়ে সকালের নাস্তা। ১০ টার লোকাল বাসে যাত্রা, ভাড়া:-২০০ টাকা। বাসে ২ বার ও বিকেলে ১ বার হালকা নাস্তা করার দরুন দুপুরবেলা ভাত খাইনি, বিকেল ৪ টায় ডিম পাথর দেখতে বের হয়ে সন্ধায় ফিরে গরুর গোশত দিয়ে ভাত খেয়ে, মায়া রেষ্ট হাউজে(হোটেলে) রাত্রি যাপন। ১ রুম ২ বেডে ৬ য় জন ছিলাম, ভাড়া:-৬৫০ টাকা, হোটেলটি এক কথায় চমৎকার।
রাতেই এলাকার এক লোকাল গাইড ঠিক করলাম দৈনিক ৫০০ টাকায় , ৩ দিনে ১৫ শত টাকা।
পরদিন শুক্রবার সকালে বিজিবির কাছে নাম না লিখিয়েই থুইসা পাড়ার উদ্দেশ্যে অভিযান শুরু।
ট্রেইলটা এরুপ ছিল:- বাংগালি পাড়া >সাদাক পাড়া>তংক্ষ্যং পাড়া > চোরং পাড়া > হেডম্যাম পাড়া> হরিচন্দ্র পাড়া>থুইসা পাড়া।
দুপুরবেলা হরিচন্দ্র পাড়ায় মুরগি না পাওয়ায় শুধু আলু দিয়ে খাওয়া।
তেল আলু মসলা আমাদের, তবুও খরচ ৪০০ টাকা!
চ্যাগায়া চ্যাগায়া হাইটা হাইটা ৬ টার মধ্যেই থুইসা পাড়ায় গমন।
রাতে ৩৫০ টাকা দরে অারাই কেজি মুরগি কিনে রাতে ও সকালে তা দিয়ে ভোজন। শনিবার সকাল ৮ টায় থুইসা পাড়া থেকে ওদের এলাকার একজন কে ৫০০ টাকা দিয়ে নিতে বাধ্য হলাম। কি আর করার, নিয়ম বলে কথা।
৯ টা ৫০ মিনিটে আমিয়া খুমকে চাক্ষুস দেখার সৈাভাগ্য। ওখানে ভেলা পাওয়া যায় প্রতি দলের জন্য ২০০ টাকায়। একসাথে অনায়েসে ৪ জন বসা যায়। বিকেল ৩ টায় থুইসা পাড়া থেকে ডিম ভাজি ও আলু ভরতা দিয়ে ভাত খেয়ে রাইডংক্ষ্যং পাড়ার উদ্দেশ্য যাত্রা।
৬ টা নাগাদ পৈাছে গেলাম চ্যাগায়া চ্যাগায়া হাটতে হাটতে।
রাতে এখানে মুরগি দিয়ে খেলাম ও থাকলাম। মুরগির কেজি ৩০০ টাকা।
রোববার সকালে নাফাখুমের উদ্দেশ্যে যাত্রা। রাইডংক্ষ্যং পাড়া থেকে ১৫ মিমিট লাগলো নাফাখুম পৈাছতে।
নাফাখুম থেকে রেমাক্রি পৈাছাতে লাগলো দের ঘনটা। রিজার্ভ বোডে থানচি। ভাড়া ':-৩০০০ টাকা। লোকাল নৈাকা পেলাম না। লোকাল নৈাকায় ভাড়া ৩০০ টাকা। রেমাক্রি থেকে থানচি ফেরার পথে মুরগির গোশত দিয়ে ভাত খেলাম দুপুর ১২ টায়, মাঝে নাস্তা খেয়েছিলাম।
থানচি ফিরে লোকাল বাসে বান্দরবান। তার পর ঢাকা।

থুইসা পাড়ায় প্রতি রাতে থাকার জন্য ১৫০ টাকা রাখে, সো দামাদামি করে রাখবেন।

এই ট্যূরটা সাক্সেস হয়েছে হাদি মুন ও হারন ভাই এর কারনে, হারুন যিনি থানচির গাইড। সো আপনারা হারুন কে নিয়ে যান, ও আসলেই ওনেক ভালো মনের মানুষ।

থানচির গাইডগুলো জল্লাদ ও ভয়ংকর অভদ্র, ওরা ভয় দেখালেও ভয় পাবেন না। এনট্রি না করেও আমরা ঘুরে এলাম সো আপনারাও পারবেন।