ভিআইপিদের অনুষ্ঠানে মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ

Author Topic: ভিআইপিদের অনুষ্ঠানে মোবাইল ফোন নিষিদ্ধ  (Read 716 times)

Offline Md. Khairul Bashar

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 203
  • Test
    • View Profile
Help Your Kids
« on: December 05, 2012, 09:44:58 AM »
আমার বড় ভাইকে নিয়ে ছেলেবেলার যত স্মৃতি মনে পড়ে সবটুকুতেই তিনি হয় পুশ চেয়ারে, না হয় হুইলচেয়ারে বসা। ছোটবেলায় আমি একে না বুঝেও অস্বাভাবিক মনে করতাম। আমার ভাই ১৯৯৯ সালে ৫৫ বছর বয়সে মারা যান। তিনি ডন’স সিনড্রোম নামের মানসিক রোগে আক্রান্ত ছিলেন। আমার ভাইয়ের বয়স যখন ছয় বছর, তখন তিনি প্রথম হাঁটতে শেখেন। কিন্তু তিনি কথা বলতে পারতেন না। আমি তাঁর সুস্থির মানসিক শক্তি ও চারিত্রিক দৃঢ়তার গুরুত্ব দিতে চাই। তাঁর চারপাশের সেই পরিবেশের ওপর গুরুত্ব দিতে চাই; যেখানে তিনি নিজেকে মনে করতেন সেই সমাজেরই একটি অংশ হিসেবে। যে সমাজ তাঁকে গুরুত্ব দিত এবং তাঁকে সাহায্যকারী হিসেবে অন্য দশজনের একজনই মনে করত।

আমাদের বড় ছেলে নীলও মানসিকভাবে স্বাভাবিক মানুষের মতো সক্ষম নয়। ১৯৭৫ সালে নয়াদিল্লিতে নীলের জন্মের এক বছরের মধ্যে চিকিৎসক তার সমস্যাগুলো খুঁজে পায়। ভারত ও যুক্তরাজ্য—দুই জায়গার চিকিৎসকেরাই আমাদের জানায়, নীল হয়তো বা কখনোই কথা বলতে পারবে না এবং পাঁচ থেকে ছয় বছর বয়সে হাঁটতে শিখবে। বাবা-মা হিসেবে আমাদের কাছে এর থেকে বেশি হতাশার কী-ই বা হতে পারে? আমি ও আমার স্ত্রী পুরোপুরি হতাশ ও দিগিবদিকশূন্য হয়ে পড়েছিলাম। তার পরও আমরা চিকিৎসার সব সম্ভাব্য উপায় খুঁজতে লাগলাম। আমরা ভারতীয় সব ধরনের চিকিৎসাপদ্ধতির চেষ্টা করলাম। আমার স্ত্রী স্রষ্টার কাছে প্রার্থনায় বেশি করে সময় দিতে শুরু করল। ফলে সেই পরিস্থিতিকে মোকাবিলা করতে প্রার্থনা আমার স্ত্রীকে আত্মিক শান্তি ও স্থির করতে সহায়তা করে। আমরা আমাদের ছেলেকে পেশি-উদ্দীপক সব ধরনের ওষুধ চিকিৎসার মাধ্যমে প্রদান করতে শুরু করলাম; ফলে সে মাত্র দুই বছর বয়সে হাঁটা শুরু করে। এখন তার বয়স ৩৭। সে খুব সহজেই বিভিন্ন আলাপচারিতায় অংশ নিতে পারে। যদিও বাস্তবে সে পরিপূর্ণ স্বাধীনভাবে চলাফেরা করতে পারে না। আমরা সব সময় আমাদের ছেলে নীল ও তার ছোট ভাই ৩১ বছর বয়স্ক রোহিনকে (এখন হূদেরাগবিশেষজ্ঞ) বোঝানোর চেষ্টা করতাম ইংরেজি ভাষার অভিধানে, ‘আমি পারি না’ এই শব্দগুচ্ছের অস্তিত্ব নেই। কয়েক বছরের মধ্যে নীল খুব স্বাভাবিকভাবে আমাদের সঙ্গে মিশতে শুরু করে। হাস্যোজ্জ্বল নীল পরিবারের অন্য সদস্যদের মতোই রান্নাঘরের কাজে হাত লাগাত, কখনো কখনো সে আমাদের জন্য খাবার টেবিলে খাবার এনে সাজিয়ে দিত, গাড়ি ধুয়ে দিত বা লনের ঘাস মাড়িয়ে দিত। যদি তাকে অংশগ্রহণের উৎসাহ না দেওয়া হতো, তাহলে সে অন্যদের মতোই টেলিভিশনের সামনে বসে থাকত। ব্রিটিশ টেলিভিশনে খেলা দেখে সময় কাটাত।

প্রতিবন্ধী হিসেবে নীলের অসম্ভব ভালো স্মৃতিশক্তি ছিল এবং অন্যদের দ্বারা পরিচালিত হওয়ার দৃঢ় চেতনা ছিল। নিয়মিত ওষুধ গ্রহণের কারণে পরিবারের যে কেউ কখনো অসুস্থ হয়ে পড়লে সচেতন নীল সময়মতো ওষুধ গ্রহণের কথা মনে করিয়ে দিত।দৈনন্দিন কাজকর্মে নীলকে স্বাভাবিক মানুষের মতো দেখালেও তার পক্ষে পুরোপুরি স্বাধীনভাবে বেড়ে ওঠা ছিল অসম্ভব। তার আবেগ-অনুভূতি আমাকে যেমন নাড়া দিত, তেমনি দিতে পারত আপনাকে। নিজের ওপর খুশি ছিল সে। নীল যে পরিবেশে বেড়ে উঠেছে, তা বাংলাদেশের প্রতিবন্ধী শিশুদের পক্ষে অসম্ভব। বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলের শিশুদের জন্য তা অকল্পনীয়। যদিও বাংলাদেশে আমার খুব স্বল্পসময়ের ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে আমি এই মন্তব্য করছি। তার পরও আমার ধারণা, অন্যরা এর থেকে উৎসাহ পাবেন, যাঁরা তাঁদের প্রতিবন্ধী শিশুকে নিয়ে হতাশ।

বাংলাদেশের মা-বাবাদের তাঁদের বিশেষভাবে সক্ষম বা প্রতিবন্ধী শিশুকে নিয়ে লজ্জা বা বিব্রত হওয়ার কিছু নেই। মা-বাবা হিসেবে তাঁদের সব শিশুকে সমানভাবে ভালোবাসতে হবে, যদি শিশুরা কথা বলতে না পারে, দেখতে না পায় বা শুনতে না পায়, তার পরও তাদের সঙ্গে মিশতে হবে, আনন্দ করতে হবে। যখন আমাদের নীল বড় হয়ে ওঠে, তখন আমি তার সঙ্গে বেশির ভাগ সময় পুল খেলতাম। বাংলাদেশের মা-বাবারাও তাঁদের এমন সন্তানের সঙ্গে সময় কাটাতে হবে, আনন্দে ভরে তুলতে হবে শিশুটির সঙ্গে মেশার সময়কে। শিশুকে হাসাতে হবে, হাসিই পারে আপনার শিশুকে সুস্থ করে তুলতে। তার সঙ্গে সময় কাটান, তাকে সময় দিন, গুরুত্ব দিন। সব কাজ একদিকে রেখে আরেক দিকে আপনার সন্তানকে গুরুত্ব দিয়ে আনন্দে মেতে উঠুন।
(জুলিয়ান ফ্রান্সিসের বাংলাদেশে অনেক বন্ধু আছে, যাদের বিভিন্ন প্রতিবন্ধতা-সম্পর্কিত সমস্যা আছে। তিনি মনে করেন, এসব বন্ধুই তাঁর জীবনকে অনেক বছর ধরে পরিতৃপ্ত করছে।)
ইংরেজি থেকে অনূদিত
জুুলিয়ান ফ্রান্সিস: উন্নয়ন পরামর্শক। মুক্তিযুদ্ধের সময় থেকে বাংলাদেশের উন্নয়নকাজে যুক্ত রয়েছেন। ‘মুক্তিযুদ্ধের বন্ধু’ পুরস্কারে ভূষিত। যুক্তরাজ্যের নাগরিক।



সূত্রঃ http://www.prothom-alo.com/detail/date/2012-12-04/news/310441
« Last Edit: December 05, 2012, 04:42:47 PM by Shamim Ansary »

Offline akm_haque

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 140
    • View Profile
    • Academic Profile
Wiley Online Library-One of the top most places for researchers
« Reply #1 on: December 05, 2012, 10:28:56 AM »
Dear Researchers,
Please read the introductory of Wiley inter science directory in the following.

"Wiley-Blackwell is the international scientific, technical, medical, and scholarly publishing business of John Wiley & Sons, with strengths in every major academic and professional field and partnerships with many of the world's leading societies. Wiley-Blackwell publishes nearly 1,500 peer-reviewed journals and 1,500+ new books annually in print and online, as well as databases, major reference works and laboratory protocols. For more information, please visit www.wileyblackwell.com.

Wiley Online Library hosts the world's broadest and deepest multidisciplinary collection of online resources covering life, health and physical sciences, social science, and the humanities. It delivers seamless integrated access to over 4 million articles from 1500 journals, over 11,500 online books, and hundreds of reference works, laboratory protocols and databases".
Professor Dr. A.K.M Fazlul Haque
Associate Dean, Faculty of Engineeirng
&
Director, IQAC, DIU

Offline arefin

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 1173
  • Associate Professor, Dept. of ETE, FE
    • View Profile
রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও ভিআইপি ঘোষিত দেশি-বিদেশি অতিথিদের অনুষ্ঠানে মোবাইল ফোন বহন ও ব্যবহার করা যাবে না। সরকারের সচিব বা সংশ্লিষ্ট অনুষ্ঠানের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এবং আমন্ত্রিত ভিআইপি অতিথিরাও এর আওতাভুক্ত। এসব অনুষ্ঠানে মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে হলে অনুষ্ঠানের আগেই ব্যবহারকারীর নাম, মোবাইল নম্বর এবং ব্যবহারের কারণ সম্পর্কে সরকারের বিশেষ ফোর্সকে অবগত করতে হবে। সম্প্রতি এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সচিবদের কাছে পাঠানো হয়েছে বলে একটি সূত্রে জানা গেছে।

জানা গেছে, গত ২৮ নভেম্বর রাজধানীর নয়াপল্টনের ১৮ দলীয় জোটের জনসভা থেকে জামায়াতের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হয়। এ নিয়ে সোমবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মুজিবুর রহমানের বিরুদ্ধে মামলাও হয়। জামায়াত নেতার ওই হুমকির পর সরকারের শীর্ষমহল নড়েচড়ে উঠে। প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতিসহ ভিআইপিদের নিরাপত্তায় নিয়োজিত সরকারের বিশেষ একটি ফোর্সকে এ ব্যাপারে নির্দেশনা দেয়া হয়।

ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির অনুষ্ঠানে মোবাইল ফোন না নিয়ে আসতে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের সচিবদের কাছে চিঠি দেয়াও হয়েছে ওই বাহিনীর পক্ষ থেকে। দেশে মোবাইল সদৃশ পিস্তল দেখা যাচ্ছে উল্লেখ করে ওই চিঠিতে বলা হয়, এ ধরনের পিস্তলের কথা বিভিন্ন গণমাধ্যমে কয়েকদিন ধরে প্রকাশিত হচ্ছে। এটা ভিআইপিদের নিরাপত্তার জন্য হুমকিস্বরূপ। এ ধরনের মোবাইল সদৃশ পিস্তলের কারণে প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতিসহ সরকারের বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তিত হওয়ার যথেষ্ট কারণ রয়েছে বলে মনে করছেন তারা। এসব পিস্তল নিরাপত্তার জন্য হুমকি হতে পারে। তাই বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যথাসম্ভব মোবাইল ফোন আনা থেকে বিরত রাখতে হবে।



চিঠিতে আরো বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী বা রাষ্ট্রপতির অনুষ্ঠানে মোবাইল ফোন নিয়ে প্রবেশ করা একান্তই প্রয়োজন মনে করলে আগে থেকে ফোন ব্যবহারকারীর নাম, মোবাইল নম্বর এবং ব্যবহারের কারণ সম্পর্কে বিশেষ ফোর্সকে জানাতে হবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতিকে অতিথি করে ছাপানো আমন্ত্রণপত্রে বর্তমানে মোবাইল ফোন, ব্যাগসহ বিভিন্ন যন্ত্রপাতি নিয়ে প্রবেশ না করার জন্য অনুরোধ করা হয়। এটা আবার কোন কোন ক্ষেত্রে শিথিলও করা হয়েছে। আয়োজনকারী কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তারা প্রয়োজনে মোবাইল ফোন ব্যবহার করেন। এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বা রাষ্ট্রপতির বিশেষ ফোর্সের সদস্যরা কোন ধরনের বাধা দিতেন না। তবে জামায়াতের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রাণনাশের হুমকি এবং মোবাইল সদৃশ পিস্তলের বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশ হওয়ার পর এ বিষয়ে কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। এখন থেকে কোন অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্রে যাতে বিষয়টি কঠোরভাবে লেখা থাকে এজন্য প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বিশেষ বাহিনীর ওই চিঠিতে।
“Allahumma inni as'aluka 'Ilman naafi'an, wa rizqan tayyiban, wa 'amalan mutaqabbalan”

O Allah! I ask You for knowledge that is of benefit, a good provision and deeds that will be accepted. [Ibne Majah & Others]
.............................
Taslim Arefin
Assistant Professor
Dept. of ETE, FE
DIU

Offline International Desk, DIU

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 162
    • View Profile
Seminar at Russian Center of Science & Culture
« Reply #3 on: December 10, 2012, 03:07:37 PM »
The Russian Center of Science & Culture in Dhaka is going to organize several seminars titled “Teaching & Studying Russian Language Literature & Culture”, “Innovation Technology to Teaching & Studying Russian Language” & “Information Technologies for Teaching Russian Language” for teachers & students.
Teachers from Peoples’ Friendship University of Russia (PFUR) will be conduct the seminar. Teachers from PFUR, Russia are ready to provide all particulars as well as text book and other materials.
 
Seminars will be held from 09 to 13 December 2012 daily 10 a.m. to 04 p.m. at Russian Centre of Science & Culture in Dhaka.

After complete the seminar certificate will be provided.

Who are interested to learn Russian Language are cordially request to join.

Contact:
CULTURAL DEPARTMENT EMBASSY OF THE RUSSIAN FEDERATION IN BANGLADESH
42, Bhasha Shoinik M. A. Matin Road (Road № 7), Dhanmondi R/A, Dhaka-1205
Tel.: 9118531, 9116314, 9117639, fax: 8113026, E-mail: bangladesh@rs-gov.ru

 

Offline akm_haque

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 140
    • View Profile
    • Academic Profile
Re: Wiley Online Library-One of the top most places for researchers
« Reply #4 on: December 15, 2012, 08:50:28 AM »
If you have good enough research work, please share with us.
Professor Dr. A.K.M Fazlul Haque
Associate Dean, Faculty of Engineeirng
&
Director, IQAC, DIU

Offline akm_haque

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 140
    • View Profile
    • Academic Profile
Re: Wiley Online Library-One of the top most places for researchers
« Reply #5 on: December 31, 2012, 11:44:13 AM »
When somebody is involved in research, he is in deep touch. It is interesting for him/her to understand the opponent's query in the class. Answer is focused from the inside. Student then understand the technical detail.
Professor Dr. A.K.M Fazlul Haque
Associate Dean, Faculty of Engineeirng
&
Director, IQAC, DIU

Offline akm_haque

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 140
    • View Profile
    • Academic Profile
Re: Wiley Online Library-One of the top most places for researchers
« Reply #6 on: January 13, 2013, 02:18:27 PM »
In this semester, We are going to do some experimental research work.
Professor Dr. A.K.M Fazlul Haque
Associate Dean, Faculty of Engineeirng
&
Director, IQAC, DIU

Offline akm_haque

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 140
    • View Profile
    • Academic Profile
Re: Wiley Online Library-One of the top most places for researchers
« Reply #7 on: January 13, 2013, 02:20:27 PM »
We need some supports from faculties as well as researchers.
Professor Dr. A.K.M Fazlul Haque
Associate Dean, Faculty of Engineeirng
&
Director, IQAC, DIU