মানসিক রোগ: ‘বাইপোলার এ্যফেকটিভ ডিজঅর্ডার’

Author Topic: মানসিক রোগ: ‘বাইপোলার এ্যফেকটিভ ডিজঅর্ডার’  (Read 1056 times)

Offline Jannatul Ferdous

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 247
  • Test
    • View Profile
বাইপোলার এ্যফেকটিভ ডিজঅর্ডার’ এমন একটি মানসিক রোগ যা নাম দিয়ে চেনা যায়। ‘বাই’ শব্দের অর্থ দুই, আবার ‘পোলার’ মানে মাথা। অর্থাৎ এই রোগটির দুটি মাথা বা দুটি দিক থাকে। এক দিকে থাকে ডিপ্রেশন (বিষণ্নতা), যখন আক্রান্ত মানুষটি প্রচন্ডভাবে বিষণ্নতায় আক্রান্ত হয়, মন খারাপ থাকে। অন্য দিকে থাকে ম্যানিক কন্ডিশান, অর্থাৎ মানুষটি তখন নিজেকে অনেক বড় মনে করতে থাকে, যখন তখন ক্ষেপে যায়, সব কিছুতেই অতি চঞ্চলতা কাজ করতে থাকে। খাবার দরকার নাই, ঘুম দরকার নাই, যেন সমস্ত শক্তি ও ক্ষমতা এসে লোকটির উপর ভর করে।

দুটি দিক থাকলেও রোগ মূলত: একটিই। নাম ‘বাইপোলার এ্যফেকটিভ ডিজঅর্ডার’। ডিপ্রেশন বা ম্যানিক, এক একটি এপিসোড বা পর্যায়, সাধারনত: দুই থেকে ছয় মাস, কখনো কখনো আরো বেশী সময় ধরে থাকতে পারে। চিকিৎসার ভিতর থাকলে যা কমে আসে।

কেন হয়?

কোন কারন তেমন ভাবে আবিষ্কৃত না হলেও, বংশ পরম্পরায় এই রোগের একটা সম্পর্ক বোঝা গেছে। অর্থাৎ পূর্ববতী নিকট আত্মীয় স্বজনদের মধ্যে কারো এরোগ থাকলে তা পরবর্তী জেনারেশন এর মাঝে হতে পারে।

শান্ত নামের ছেলেটির গল্প

শান্ত ছেলেটি হঠাৎ চঞ্চল হয়ে উঠার একটি বড় কারন হতে পারে, এই ‘বাইপোলার এফেকটিভ ডিজঅর্ডার’। হঠাৎ অবাদ্ধ হয়ে যাওয়া বা বেয়াদব হয়ে যাওয়া নয়, বরং একটি মানসিক রোগে আক্রান্ত হওয়া। কি হচ্ছে, কি হয়, না ভেবে, আচরনে পরিবর্তন আসার সাথে সাথেই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের স্মরণাপন্ন হওয়া উচিত।

রোগীর আত্মীয় স্বজনরদের যা যা মনে রাখা প্রয়োজন

এটি এমন একটি রোগ যা প্রয়োজনীয় চিকিৎসার আওতায় থাকলে সম্পূর্ন স্বাভাবিক জীবন কাটানো সম্ভব। বেশীর ভাগ ক্ষেত্রেই যা না করে সবাই ভুল বুঝে চিকিৎসার ব্যাবস্থা না করে বিভিন্ন উপদেশ দিতে থাকে। মনে রাখতে হবে, উপদেশে কোন রোগ সারে না। শারীরিক রোগ যেমন উপদেশে সারার নয়, তেমনি মানসিক রোগের ক্ষেত্রেও একই কথা মনে রাখতে হবে। স্বাভাবিক আচরনের পরিবর্তন এবং রোগাক্রান্ত অবস্থার পরিবর্তনের মাঝে পার্থক্য থাকে, যা একটু খেয়াল করলেই বোঝা যায়। তবে অবশ্যই উভয় ক্ষেত্রেই বিষয়গুলিকে বিশেষ গুরুত্ব সহকারে দেখতে হবে।

সতর্কতা

‘বাইপোলার এ্যফেকটিভ ডিজঅর্ডার’ রোগটির একটি সমস্যার দিক হলো, এটি একবার হলে, চিকিৎসায় স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসলেও মনে রাখতে হবে এ রোগের সমস্যাগুলি আবার যেকোন সময় ফিরে আসতে পারে। সমস্ত উপসর্গ দূর হয়ে গেলেও এরোগটি আর হবেনা এটি বলা সম্ভব নয়।

লোকে কি বলবে বা কুসংস্কারের ভাবনা না ভেবে বরং চিকিৎসার স্মরণাপন্ন যত দ্রুত হওয়া যাবে ততই মঙ্গল।


ডা. সালাহ্উদ্দিন কাউসার বিপ্লব

সহযোগী অধ্যাপক ও কোঅর্ডিনেটর- সাইকিয়াট্রিক সেক্স ক্লিনিক (পিএসসি) মনোরোগবিদ্যা বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা এবং প্রাক্তন মেন্টাল স্কিল কনসালট্যান্ট, বিসিবি।

Mosammat Jannatul Ferdous Mazumder
Student Counselor (Counseling & Admission)

Offline Jannatul Ferdous

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 247
  • Test
    • View Profile
চিকিৎসার উদ্দেশ্য

মূল উদ্দেশ্য ডিপ্রেশন বা ম্যানিক পর্যায়ের সিম্পটম গুলোকে কমানো হলেও, এই রোগের চিকিৎসার আরো কিছু দিক থাকে। যেমন; রোগটির সমস্যাগুলি যাতে বার বার ফিরে না আসে সেদিকে খেয়াল রাখা, সেই সাথে ডিপ্রেশন কারনে অতি খারাপ মনকে ভালোর দিকে রাখা এবং অতি ভালো থাকা মনকে (ম্যানিক পর্যায়) স্বাভাবিক অবস্থায় রাখাও এরোগের চিকিৎসার উদ্দেশ্য। মনের অবস্থাকে স্বাভাবিক বা মাঝখানে রাখাই চিকিৎসার একটি বড় দিক।

চিকিৎসা

মুড স্টেবিলাইজার; অর্থাৎ মুডকে স্টেবল রাখার জন্য এ ধরনের ওষুধ ব্যাবহার করা হয়। বিষন্নতা বা ম্যানিক পর্যায়, কোনো দিকে যেনো অতিরিক্ত ঝুকে না পরে বরং মনকে মাঝখানে ধরে রাখে এই মুড স্টেবিলাইজার।

এন্টিডিপ্রেশেন্ট; অতিরিক্ত খারাপ হয়ে যাওয়া মন বা ডিপ্রেস্ট মনকে স্বাভাবিক অবস্থায় আনার জন্য এধরনের ওষুধ ব্যবাহার করা হয়।

এন্টিসাইকোটিক; ম্যানিক পর্যায়ের চিকিৎসার জন্য এন্টিসাইকোটিক ওষুধ ব্যবাহার করা হয়।

সেই সাথে প্রয়োজন মতো ঘুম বা অস্থিরতা কমানোর জন্যও কিছু কিছু ওষুধ ব্যাবহার করা হয়।

সাইকোথেরাপী; সাধারনত সিম্পটম যখন বেশী থাকে তখন সাইকোথেরাপী কার্যকরী ভুমিকা রাখতে পারেনা। তবে ফ্যামেলি এডুকেশন বা সাইকোএডুকেশন অত্যন্ত প্রয়োজনীয় দিক। যার মাধ্যমে পরিবারের সদস্যদের রোগটির বিষয়ে প্রয়োজনীয় তথ্য বা নির্দেশনা দিয়ে, কখন কি করতে হবে সেসব বিষয়ে শতর্ক করে তোলা হয়।

ডা. সালাহ্উদ্দিন কাউসার বিপ্লব

সহযোগী অধ্যাপক ও কোঅর্ডিনেটর- সাইকিয়াট্রিক সেক্স ক্লিনিক (পিএসসি) মনোরোগবিদ্যা বিভাগ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা এবং প্রাক্তন মেন্টাল স্কিল কনসালট্যান্ট, বিসিবি।
Mosammat Jannatul Ferdous Mazumder
Student Counselor (Counseling & Admission)