চেন্নাই সিটি বা ভেলরে চিকিৎসা

Author Topic: চেন্নাই সিটি বা ভেলরে চিকিৎসা  (Read 1050 times)

Offline Md. Azizul Hakim

  • Jr. Member
  • **
  • Posts: 93
  • Respect is everything.
    • View Profile
অনেকে চিকিৎসার জন্য চেন্নাই সিটি বা ভেলরে আসতে চান Apollo hospital, CMC hospital & Sangkara Nethralaya তে ---- এই পোস্টে কিছু হেল্প পেতে পারেন।

Tamil Nadu রাজ্যের আয়তন ১ লক্ষ ৩০ হাজার ব:কি এবং লোক সংখ্যা ৭ কোটি ৫০ লাখের মতো আর জেলা ৩২ টি তার মধ্যে চেন্নাই সিটি হচ্ছে রাজধানী ( পুরাতন মাদ্রাজ )। এখানে শীত নেই, সারা বছর প্রায় এক ই রকম। আয়তনে প্রায় বাংলাদেশের সমান।

চেন্নাই সিটি" এই এলাকা চরম ভাবে ব্যস্ত থাকে কারণ পাশেই আছে Apollo মেইন হাসপাতাল এবং ১ কি.মি. দুরেই আছে চোখের নাম করা Sangkara Nethralaya হাসপাতাল।

চোখের চিকিৎসার জন্য Sangkara Nethralaya ই সব চেয়ে ভালো এশিয়া মহাদেশের মধ্যে। এখানে এক চোখের জন্য প্রায় ১২০ + ডা: আছে যারা খুবই অভিজ্ঞ এবং চোখের ডিপার্টমেন্ট ই আছে ২২ টি।

আর আশেপাশে গড়ে উঠেছে ১৫০ এর মত আবাসিক হোটেল। এখানে বাজার, খাবার হোটেল, আবাসিক হোটেল, মেডিসিন শপ ও ট্যুরস এজেন্ট আছে প্রচুর পরিমাণে। আর তাই প্রতি বছর ১ মিলিয়নের ও বেশি সংখ্যক রোগি আসে শুধু বাংলাদেশ ও কলকাতা থেকে এই স্থানে।

আর অন্যদেশ থেকেও প্রচুর আসে যেমন ওমান, কুয়েত, তুরস্ক, শ্রীলংকা, দুবাই ইত্যাদি।

চোখের হাসপাতাল আর আ্যপোলোর জন্যই মুলত চেন্নাই ( মাদ্রাজ ) সিটি চরম ভাবে বিখ্যাত এবং বিজি সিটি। এখানকার ৯০ % মানুষ ইংরেজিতে চরম ভাবে এক্সপার্ট। ইংরেজি ভাষা যেন তাদের মায়ের ভাষার মত আর নিজেদের তামিল ভাষাকে খুব ভালবাসে।

হিন্দিকে তেমন পছন্দ করে না। আপনি যদি তাদেরকে জিজ্ঞেস করেন কোন ভাষা সহজ অকপটে বলবে তামিল ভাষা সহজ নট হিন্দি। আমাকে একদিন এক অটোয়ালা ৩০ মিনিটের মত ঘুরিয়ে ছিল আর বিভিন্ন শব্দ শিখিয়েছিল হিন্দিতে কি বলে, সেটা তামিলে কি বলে আর ইংরেজি তে কি বলে। আমার কাছ থেকে এক্সট্রা কোন ভাড়া নেইনি। সে আমাকে গ্যারান্টি দিয়েছিল শুধু এক মাস চেন্নাইতে থেকে গেলে আর ১ ঘণ্টা সময় দিলে সে আমাকে সব শিখিয়ে দিবে যা দিয়ে সারা তামিলে ভাষা সহজে ব্যবহার করে চলতে পারবো। আমি শুনে তো অবাক।

কারণ হিন্দি এবং তামিল কোন ভাষা ইন্ডিয়ার মাতৃভাষা হবে সেটা নিয়ে জল্পনাকল্পনার অবশান ঘটিয়ে "জহরলাল নেহেরু" হিন্দিকেই মাতৃভাষা হিসেবে ঘোষণা দিয়েছিলেন সেই থেকে চেন্নাই এর লোকজন হিন্দিকে মেনে নিতে পারেনি আর তাই নিজেরা সব দিক থেকে সেরা হওয়ার জন্য উঠে পড়ে

সত্যি ভারতের সমস্ত রাজ্যকে পিছে ফেলে আজ চেন্নাই সিটি এশিয়ার মধ্যে অনন্য এক সিটি হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে। বিশেষ করে চিকিৎসা ক্ষেত্রে, গাড়ি উতপাদনে, টেম্পলের জন্য আর ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির আধুনিকতার জন্য চেন্নাই ( মাদ্রাজ ) ব্যাপক পরিচিতি পেয়েছে এছাড়া শিক্ষা দিক্ষায়ও কয়েক ধাপ এগিয়ে আছে

চেন্নাই সিটিতে জ্যাম নেই বললেই চলে কারণ এখানের রাজ্য সরকার জনগণ ও সরকারের সাথে অন্য রকম একটা সম্পর্ক তৈরি করে নিয়েছে

সিটিতে সরকারি বাস ছাড়া প্রাইভেট বাস চলে না। সরকারি বাসের ভাড়া ও কম এবং বাস স্টপ ছাড়া কোথাও থামে না এবং উঠেও না। আপনি যদি ৬ কি.মি. যাত্রা করেন সেক্ষেত্রে বাস ভাড়া মাত্র ৫ রুপি এবং টিকিট ও দিবে আপনাকে। বাসে মেয়েদের কে যথেষ্ট সম্মান করে থাকে। মেয়েদের সিট খালি থাকলে ও আমি কোন ছেলেকে বসতে দেখিনি। একবার সিট খালি ছিল কিন্তু দাঁড়িয়ে ছিলাম একবার ভাবলাম বসে পড়ি আর একবার সাহসে কোলাচ্ছিল না এরকম ভাবতে ভাবতেই মারিনা সি বিস পোর্ট এর ওখানে আসলে নেমে যায়।

চেন্নাই সিটির একটু বাইরে Marina Sea Beach আছে যা শহর এর কাছাকাছি। আ্যপোলো এবং সংকরনেত্রালয় হাসপাতাল থেকে মাত্র ৬ কি.মি. দূরে এই Sea Beach যেখানে প্রতি রবিবার ২০ হাজার এর বেশি লোকের সমাগম হয়ে থাকে তবে কিছুটা নোংরা কারণ এদের বাথরুম এর অভাব মে বি যাইহোক

আর চেন্নাই থেকে ১৩৩ কি.মি. দূরে আর একটা হাসপাতাল আছে সেটাও চরম ভাবে বিখ্যাত। CMC ( Christain Medical 😷Collage Hospital 🏥 এই হাসপাতাল টি মুলত ভেলর সিটিতে অবস্থিত যা তামিল নাড়ুর একটা জেলা। এই হাসপাতালে ও প্রচুর রোগি আসে যেমন প্রতি বছর ২ মিলিয়ন এর উপরে আসে শুধু এই CMC হাসপাতালে কারণ এখানে ১২২ টা ডিপার্টমেন্ট আছে যা এশিয়ার কোন হাসপাতালে আছে কিনা সন্দেহ। এখানে খরচ খুব কম কিন্তু ভিড়ের কারনে সময় লাগে বেশ।

এই CMS HOSPITAL 🏥 মূলত ক্যান্সার নিরাময়, থাইরয়েড, নাক, কান গলার জন্য বিখ্যাত ছিল কিন্তু ধীরে ধীরে এই হাসপাতালে এখন ১২২ টা ডিপার্টমেন্ট এর চিকিৎসা করা হয়ে থাকে। এই হাসপাতাল কে বলা হয় চিকিৎসা শাস্ত্রের এক কারখানা যেখানে এমন কোন রোগ নেই যার চিকিৎসা নেই

আর তাই প্রতি বছর এই হাসপাতালেই আসে ২ মিলিয়ন এর মত রোগী। একবার কল্পনা করুণ তো কি ভাবে সম্ভব এটা? এখানে বাংলাদেশের, কলকাতার, ওমান, কুয়েতের, তুরস্কের, শ্রীলংকা, মায়ানমারের রোগীর সংখ্যা বেশি আসে তবে বিডির রোগীর সংখ্যা বেশি হয়ে থাকে। আর এই জন্য সময় বেশি লাগে। কেউ যদি কোন রোগ দেখানোর জন্য CMS Hospital 🏥 এ আসতে চান তাহলে হাতে মিনিমাম ১৫ দিন নিয়ে আসতে হবে ( আসা + যাওয়ার সময় বাদে) কিন্তু চিকিৎসা ফার্স্ট ক্লাস।

মোট কথা Sangkara nethralaya ( Eye Hospital), Apollo Hospital ( Varieties ) and CMC hospital ( Vellore city) এই তিনটি হাসপাতাল ই চেন্নাই সিটি ও ভেলরে অবস্থিত যা তামিল রাজ্যের রাজধানী ও জেলা। প্রায় ৩ মিলিয়ন লোকজন প্রতি বছর চিকিৎসার জন্য আসেন এই চেন্নাইতে। চেন্নাই থেকে তারপর ভেলরে যেতে হয় যা ১৩৩ কি.মি. দূরে। ভেলরে যেতে ট্রেন ও বাস দুই ভাবে যেতে পারবেন। সময় লাগে ২:৩০ ঘণ্টার মত। "কোয়েমবেডু" হচ্ছে বাস স্ট্যান্ড এর নাম। ১০৫ রুপি করে ভাড়া। সরকারি বাস চলাচল করে আর প্রাইভেট বাস বা পরিবহণ সাধারনত দূরে যাতায়াত করে যেমন চেন্নাই টু কেরালা, বেংগালুর, হাইদ্রাবাদ ইত্যাদি।

আর ট্রেনে করে যেতে চাইলে চেন্নাই ট্রেন থেকে নেমে পাশেই লোকাল ট্রেনের প্লাটফর্ম ও লাল বিল্ডিং আছে ওখান থেকে কাউকে জিজ্ঞেস করলেই দেখিয়ে দিবে টিকিট কাউন্টার। ওখান থেকে ৭০ টাকা দিয়ে টিকিট কেটে নিবেন। সময় ২:৪৫ মি লাগবে ভেলরে পৌঁছাতে। ট্রেন থেকে নেমে অটো নিয়ে সরাসরি CMC হাসপাতাল গেট।

ভারতের ২৯ টি রাজ্যের মধ্যে সাউথ ইন্ডিয়ার দিকে পড়েছে পাঁচটি রাজ্য যার প্রথম টা টামিল নাড়ু ( চেন্নাই রাজধানী) তারপর কেরালা, করনকটা ( বেংগালুর রাজধানী), হাইদ্রাবাদ সিটি ইত্যাদি তারমানে উন্নত ও বিখ্যাত শহর এই দক্ষিন ভারতে অবস্থিত। আর এই ৫ রাজ্যের মোড়ল বলা হয়ে থাকে Tamil Nadu কে।

আর তাই দিল্লি, মুম্বাই ভারতের যতই উন্নত শহর ও রাজধানী হোক না কেন তামিল নাড়ু কে বাদ দিয়ে কোন বড় ধরনের ডিসিশন নিতে পারে না কারণ তামিল নাড়ু রাজ্যের যিনি মুখ্যমন্ত্রী হয়ে থাকেন তিনি ২৯ টি রাজ্যের মধ্যে অন্যতম ও ক্ষমতাবান নেতা হয়ে থাকেন।
-----------------------------------------------------

@চেন্নাইয়ের কিছু হোটেলের নাম ও ঠিকানা:
১। Royal Residency
সুবিধা: ছোট করে রান্নাঘর, বারান্দা, টিভি, এটাস্ট বাথরুম তবে এসি চালালে ৪০০ রুপি এক্সট্রা দিতে হবে আর না চালালে দেওয়া লাগবে না।

ঠিকানা: Greams Road, Opposite of Apollo Hospital, Chennai ( Begum Sahib Street/Bazar)
Hotel এর ফোন নম্বর: ৯১০৪৪২৮২৯১৭৮৬

যাওয়ার আগে ফোন করে রুম বুক দিতে পারবেন তবে ট্রেনের / প্লেনের টিকিট কাটার পর ফোন দিলে ওরা রেখে দিবে যদি ১০০% নিশ্চিত দিতে পারেন। আর জানাবেন কখন চেন্নাইতে পৌছাবেন।

২। Classical Residency

Same address পাশাপাশি হোটেল এবং সুবিধা ৯৫% সেম তবে এটিতে Lift আছে আর Royal Residency Hotel এ লিফট আছে তবে এখনো চালু হয়নি। তারপর ও Royal Residency আমার কাছে ভালো লেগেছে।

৩। M.K.S Hotel🏩
Thousand Lights ( Beside of Abbas Ali street )
মডেল স্কুল রোড। Beside of Mosjid এই হোটেলে দেখা শুনা করে দুইজন ই বাঙালা জানে কিন্তু হোটেল তেমন ভালো লাগেনি কারণ রুমের মধ্যেই রান্নার ব্যবস্থা যা গরম হয়ে যায় রুম কিন্তু অন্য যে গুলোর কথা বললাম সেখানে ছোট করে আলাদা রান্না ঘর আছে।

৪। Zianth Hotel --- Very luxurious
Rent: 1500 rupee করে। So much Neat and Clean
Location: MKS HOTEL এর পাশেই যে মসজিদ আছে তার পাশেই।

এরকম আরো অনেক হোটেল আছে

৫। বর্ধমান গেস্ট হাউজ --- খুব ই কম রেট
ভাড়া: ২৫০ রুপি
ভেলর সিটি

আপনি ৬০০ থেকে ৮০০ টাকার মধ্যে ভাল রুম পাবেন আর একটু ভাল ভাবে থাকতে চাইলে ১১০০ / ১২০০ টাকার মত খরচ হবে এসি ছাড়া।

হোটেলে উঠার সময় ৩ দিনের আ্যডভান্স ( ২০০০ রুপি) রেখে তারপর আপনার ডিটেইলস খাতায় ইনপুট করে রাখে।

তবে এই আরাম দায়ক ভাবে থাকতে হলে আপনাকে Thousand Lights ( Beside of Abbas ali street--- এই রোড আবার ১,২,৩,৪,৫,৬,৭ নম্বর পর্যন্ত আছে) এ থাকতে হবে কারণ এখানে কিছু হাইফাই হোটেল আছে। রুম ভাড়া ১৫০০ থেকে ২০০০ রুপি ও আছে। আবার ওই এরিয়াতে গ্রিমস রোডের মত হোটেল ও আছে। আর Greams road e ভালো পাবেন মানে পছন্দ হবে কমের মধ্যে অনেক হোটেল তবে আমি ব্যক্তিগত ভাবে পছন্দ করি ( Royal Residency Hotel🏩).

এখানের সমস্ত হোটেলের রুমে রান্না করার ব্যবস্থা আছে। গ্যাসের চুলো, হাড়ি, পাতিল, প্লেট পাবেন শুধু বাজার করবেন আর খাবেন। রুমের সাথে বারান্দা ও পাবেন। আর এসি চালালে ৩০০/৪০০ রুপি এক্সট্রা দিতে হবে না চালালে এসি লাইন অফ করে রাখবে মানে আপনার ইচ্ছা।

তাছাড়া ২/৩ টি বাঙালি খাবার হোটেল আছে যারা বাংলায় কথা বলে। মুরগির কারি মানে তরকারি পাবেন ৬০ রুপি দিয়ে ৪ পিস থাকবে বড় আকারে যা এক প্লেট নিলে দুইজনে খেতে পারবেন, সাদা ভাত প্রতি প্লেট ২০ রুপি করে। কাতলা মাছের কারি ৫০ রুপি, বড় এক পিস মাছ থাকে, কাতলা মাছের মশলা রান্না ৭০ রুপি করে রাখে। উস্তে ভাজির দাম বেশি ৪০ রুপি করে। পানি এক লিটার ২০ রুপি।

আর যদি নিজেরা রান্না করে খেতে চান তাহলে বড় সাইজের কাতলা মাছ যার ওজন ৪/৫ কেজি। গ্রাম হিসেবে বিক্রি করে যেমন কারো ৪০০/৫০০ গ্রাম লাগবে তারা আপনাকে কেটে মেপে আশ ছাড়িয়ে পিস হিসেবে করে দিবে যে কয় পিস আপনার লাগবে। যেমন আমি আগের দিন ৬৫০ গ্রাম মাছ কিনেছিলাম আর আমি ৮ পিস বানিয়ে দিতে বলেছিলাম। ১৯০ টাকা দাম রেখেছিল।

আর প্রতি কেজি কাতলা মাছ বিক্রি করে থাকে ২৪০ রুপি, ২৮০ রুপি মাঝে মাঝে ৩০০ রুপি করে। মানে আপনি সকাল ৭ থেকে ১১ টা পর্যন্ত মাছ পাবেন এমনকি তাজা শিং মাছ ও পাবেন, আপনার যত টুকু দরকার ততোটুকু দিবে। এই সব কিছুই পাবেন Greams road যেখানে প্রচুর হোটেল আর বাজার, দোকান গড়ে উঠেছে।

চেন্নাইয়ের ট্রেন থেকে নেমে অটো নিয়ে সরাসরি এই ঠিকানা বরাবর চলে আসতে সময় লাগে ১৫/২০ মি আর অটো ভাড়া ১৩০/১৫০ রুপি। অটোওয়ালে কে বলবেন--- I want to go to greams road, opposite of Apollo hospital, There are available Hotel, Have u understood ?? After getting green signal from auto Driver then জিজ্ঞাসা করবেন -- কিতনা রুপি (১৩০/১৫০) এর বেশি নয়।

পরামর্শ : কেউ চেন্নাইতে চিকিৎসার জন্য আসলে Greams Road ( Begum Sahib Bazar) এসে উঠা ভালো হবে সব কিছুই হাতের কাছে পাবেন যা চান।

আর শপিং করতে চাইলে T.Nagar এ যাবেন যেখানে শত শত শপিং মল, শোরুম। কম দামের মার্কেট ও আছে তবে Pondy Bazar ( পন্ডি বাজার ) থেকে শুরু করে কয়েক কি.মি. শুধু শোরুম ও শপিং মলে ভরা আছে। Greams road মানে আপনার হোটেল থেকে অটো ভাড়া ১০০/১২০ টাকা ভাড়া যদি দুপুরে, বিকেলে বের হন কিন্তু আসার সময় ১৩০ টাকার নিচে পাওয়া একটু কঠিন থাকে। আর যদি বাসে যেতে চান তাহলে যেতে ৫ রুপি আর আসতে ৫ রুপি প্রতি জন। তবে নতুন অবস্থায় বাসে গেলে বুঝে উঠতে সময় লাগবে।

পরিশেষে বলতে চাচ্ছি চোখের কোন সমস্যা হলে মানে চোখ সংক্রান্ত সমস্যার জন্য সংকার নেত্রালয় হাসপাতাল ই বেস্ট সারা ভারতের মধ্যে। শুধু ভারত না, এশিয়ার অনেক দেশ থেকে এই হাসপাতালে রোগী আসে তাদের চোখ দেখাতে। এটি চেন্নাইতে অবস্থিত আর পাশেই এ্যাপোলো হাসপাতাল।

আর আমাদের বিডিতে ব্যাঙেরছাতা যেমন দেখেন তেমনি চেন্নাইতে তার থেকেও বেশি অলি গলি রাস্তাতে কার, মটর বাইক রাতে পড়ে থাকে। সকালে যার যেটা সেটা নিয়েই বেরিয়ে পড়ে ওই যায়গা থেকে। চুরির কোন প্রশ্ন ই আসে না।

আর এখানকার একটা কমন চিত্র হলো মেয়েরা অহরহ বাইক চালায় যা নরমাল ভাবেই দেখে এমনকি আপনি ৬০ বছরের অধিক বয়স্ক মহিলার পিছে আরেক জনকে নিয়ে বাইক চালাচ্ছে তাও সচারচর দেখতে পারবেন, আমি প্রথম দিন দেখে ফ্যাল ফ্যাল করে অনেক ক্ষন তাকিয়ে দেখছিলাম আর আম্মু দেখে কইছিল একোন জগতে আসলাম।

বি:দ্র: ইন্ডিয়া আসার আগে স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া থেকে ট্রাভেল কার্ড করে নিলে সুবিধা হবে তাহলে ৭০% রুপি কার্ডে লোড দিয়ে বাকি রুপি কাছে রাখলেন। কার্ড ১০০% নিরাপদ। এই কার্ড দিয়ে হাসপাতাল যে কোন বিল, কেনাকাটা করার বিল, বুথ থেকে রুপিও উঠাতে পারবেন। কারণ ইন্ডিয়াতে ম্যাক্সিমাম যায়গা কার্ড Accepted। প্রতি কার্ড ১৩৫০ টাকা ফি কেটে রাখবে একবার ই, কার্ড এর মেয়াদ ৫ বছর। কার্ড এর মজা পেয়ে গেলে আর নগদ তেমন আনতে ই মন চাইবে না। নগদ ২০০০০ রুপির মত কাছে রাখলেই হবে।

@ কিভাবে ট্রাভেল কার্ড করবেন ?
.............................................
১। পাসপোর্ট এর প্রথম ও মেইন পেজ এবং পরের পেজের ফটোকপি
২। আপনার ন্যাশনাল আইডির ফটোকপি
৩। আপনার পাসপোর্ট সাইজের ১ কপি ছবি
৪। মেইন পাসপোর্ট বই
৫। মিনিমাম ১৫০ ডলার সম পরিমাণ টাকা যেমন ১ ডলার = ৮০ টাকা হয় তাহলে ১৫০*৮০ = ১২,০০০ টাকা + কার্ড ফি ১৩৫০ টাকা = ১৩,৩৫০ টাকা

@ কোথা থেকে করবেন?
....................................
ব্যংকঃ বাংলাদেশের যে কোন প্রাইভেট ব্যাংক যেমন ডাচ বাংলা ব্যাংক, ব্রাক ব্যাংক ইত্যাদি তবে ইন্ডিয়া যেহেতু ইন্ডিয়া যেতে চান সেক্ষেত্রে স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া থেকে করানো বেটার এতে ভিসা পেতে অনেক সুবিধা হবে। প্রতি বিভাগে এখন স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া শাখা আছে। আপনি সমস্ত ডকুমেন্টস নিয়ে যাবেন যা উপরে উল্লেখ করেছি আর সেই সাথে টাকা। এবার ব্যাংকে গিয়ে বলবেন যে ডলার ইন্ডোর্সমেন্ট করবেন তারপর তারা আপনাকে জিজ্ঞেস করবে কত ডলার করবেন আপনি যদি ১৫০ ডলার করতে চান তাহলে তাই বলবেন আর যদি ৫০০ ডলার করতে চান তাহলে সেই পরিমাণ টাকা নিয়েই ব্যাংকে যাবেন। ৮০ টাকা হিসেব করে নিয়ে যাবেন বা কিছু বেশি তারপর ঔ দিন যে রেট থাকবে তা আপনাকে জানিয়ে দিবে।

এরপর একটা ফর্ম দিবে যা আপনাকে ৩/৪ যায়গায় সাইন করতে হবে তারপর একটা কম্পিউটার বেজড ডলারের স্লিপ দিবে আর টাকা জমা দিতে বলবে ক্যাশ কাউন্টারে। আপনি টাকা জমা দেয়ার পর কিছু সময় অপেক্ষা করে আপনার ট্রাভেল কার্ড টি নিয়ে নিবেন মানে ওরাই আপনাকে সব কিছু বুঝিয়ে দিবে। আর এই কার্ড দিয়েই ইন্ডিয়া বা অন্য দেশে ইউজ করতে পারবেন যে কোন বিল পরিশোধ করার জন্য। এটি ১০০% নিরাপদ।

আর একটা কথা "মারিনা সি বিচ ছোট এক বালুর পাহাড় আছে। অস্থির লাগে যখন উপরে উঠে সমুদ্র দেখা হয়।
Lecturer,
Department of CSE
azizul.cse@diu.edu.bd

Offline nusratjahan

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 148
  • Nusrat Jahan(NJ)
    • View Profile
Informative
Nusrat Jahan
Senior Lecturer
Dept. of CSE
Daffodil International University

Offline Raihana Zannat

  • Sr. Member
  • ****
  • Posts: 392
  • Test
    • View Profile
Nice.
Raihana Zannat
Senior Lecturer
Dept. of Software Engineering
Daffodil International University
Dhaka, Bangladesh

Offline safayet

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 168
  • Test
    • View Profile
Thanks for the info...

Offline Mousumi Rahaman

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 827
  • Only u can change ur life,No one can do it for u..
    • View Profile
Mousumi Rahaman
Senior Lecturer
Dept. Textile Engineering
Faculty of Engineering
Daffodil International University

Offline Mousumi Rahaman

  • Hero Member
  • *****
  • Posts: 827
  • Only u can change ur life,No one can do it for u..
    • View Profile
Mousumi Rahaman
Senior Lecturer
Dept. Textile Engineering
Faculty of Engineering
Daffodil International University

Offline mosfiqur.ns

  • Sr. Member
  • ****
  • Posts: 295
  • Test
    • View Profile
Md. Mosfiqur Rahman
Sr.Lecturer in Mathematics
Dept. of GED

Offline Nusrat Jahan Bristy

  • Sr. Member
  • ****
  • Posts: 482
  • Test
    • View Profile
Lecturer in GED