প্রাকৃতিক বিপর্যয় থেকে আত্মরক্ষায় যেসব আমল করা যেতে পারে

Author Topic: প্রাকৃতিক বিপর্যয় থেকে আত্মরক্ষায় যেসব আমল করা যেতে পারে  (Read 392 times)

Offline Md. Monir Hossain

  • Newbie
  • *
  • Posts: 22
  • Test
    • View Profile
প্রাকৃতিক বিপর্যয় থেকে আত্মরক্ষায় যেসব আমল করা যেতে পারে: -

করোনাভাইরাস এতদিন সারাবিশ্বের আতঙ্ক থাকলেও এখন বাংলাদেশেও এই ভাইরাসের আস্তিত্ব পাওয়া গেছে। ইতিমধ্যে বাংলাদেশসহ ১০৫টি দেশে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে।

আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৬ হাজার ১৯৮ জন। মারা গেছে সাড়ে তিন হাজারেরও বেশি মানুষ।

আল্লাহ তায়ালা বলেন, জল–স্থলে বিপর্যয় মানুষের কৃতকর্মের ফল। ( সুরা-৩০ রুম, আয়াত: ৪১)। মানুষের গুনাহ ও কৃতকর্মের কারণেই এ ধরনের বিপর্যয় ঘটে থাকে। সমাজে অন্যায়-অনাচার বেড়ে গেলেই প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের বেশি আশঙ্কা থাকে।

তাই বিভিন্ন হাদিসে রাসূল (সা.) প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের অনেক কারণ উল্লেখ করেছেন। রাসূল (সা.) নিজেও উম্মতের ওপর এসব দুর্যোগের ব্যাপারে শঙ্কিত ছিলেন। এই উম্মতকে যেন কোনো গজব বা প্রাকৃতিক দুর্যোগ দিয়ে একসঙ্গে ধ্বংস করা না হয় এ জন্য রাসূল (সা.) আল্লাহর কাছে দোয়া করেছেন।

এ জন্য আমাদের বেশি বেশি গুনাহ থেকে তওবা-ইস্তেগফার করতে হবে। কারণ গুনাহের কারণেই এ জাতীয় মহামারি আসে বলে কোরআনের আয়াত দ্বারা বুঝা যায়।

পাশাপাশি করোনার সংক্রমণ থেকে বাঁচতে সচেতনতা ও সতর্কতার পাশাপাশি কয়েকটি আমল করা যেতে পারে।

১. আয়তুল কুরসী, সূরা ইখলাস, ফালাক ও সূরা নাস তিনবার পড়ে প্রতিবার হাতে ফুঁ দিয়ে পুরো শরীরে মুছলে শরীর যে কোনো বিপদ থেকে নিরাপদ থাকা যায়।

২. নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মহামারি থেকে বাঁচতে বেশি বেশি এই দোয়া পড়তে বলেছেন।

اللَّهُمَّ إِنِّي أَعُوذُ بِكَ مِنَ الْبَرَصِ، وَالْجُنُونِ، وَالْجُذَامِ، وَمِنْ سَيِّئِ الأَسْقَامِ

উচ্চারণ: আল্লহুম্মা ইন্নি আউজুবিকা মিনাল বারাচি, অল জুনুন, অল জুজাম, অ-মিন সাইয়্যিইল আসকম।

৩. إنا لله وإنا إليه راجعون، أللهم أجرني في مصيبني وأخلف لي خيرا منها

উচ্চারণ: ইন্নালিল্লাহি অ-ইন্না- ইলাইহি রজিউন। আল্লাহুম্মা আজিরনী ফী মুসীবাতী অ আখলিফলী খইরান মিনহা।

৪. এই দোয়াটিও পড়া যেতে পারে لااله الا انت سبحانك اني كنت من الظالمين

উচ্চারণ: লা- ইলাহা ইল্লা আনতা সুবহা-নাকা ইন্নি কুনতু মিনাজ জ-লিমীন।

৫. সূরা আহজাবের ১৩ নাম্বার আয়াতের অংশ বিশেষ পাঠ করলেও এ জাতীয় মহামারি থেকে আত্মরক্ষা করা যায়। ياهل يثرب لا مقام لكم فارجعوا

উচ্চারণ: ইয়া- আহলা ইয়াসরিব, লা- মুকামা লাকুম, ফারজিউ।

৬. এই দোয়াটিও বেশি বেশি পড়া যেতে পারে। اللهم إِنِّي أَعُوذُ بِكَ مِن منْكَرَاتِ الأَخلاقِ، والأعْمَالِ والأَهْواءِ والأدواء ) رواهُ الترمذي وقال: حديثُ حَسَنٌ(.

উচ্চারণ: আল্লাহুম্মা ইন্নি আউজুবিকা মিন মুনকারাতিল আখলাক, অল আমাল, অল আহওয়া, অল আদওয়া। (তিরমিযী শরিফ)

তাছাড়া সকাল-সন্ধ্যার আমলগুলোর প্রতি বিশেষভাবে গুরুত্ব দেয়া যেতে পারে। কারণ সকাল-সন্ধ্যার আমলগুলো দ্বারা শরীর হেফাজত হয়।

৭. সকাল-সন্ধ্যা তিনবার করে পড়ুন: بِسْمِ اللَّهِ الَّذِي لَا يَضُرُّ مَعَ اسْمِهِ شَيْءٌ فِي الْأَرْضِ وَلَا فِي السَّمَاءِ وَهُوَ السَّمِيعُ الْعَلِيمُ

উচ্চারণ: বিসমিল্লাহিল্লাজী লা- ইয়া দুররু মাআসমিহী শাইউন ফিল আরদি অলা- ফিসসামা, অহুওয়াস সামীউল আলীম।

৮. তিনবার : أَعُوذُ بِكَلِمَاتِ اللَّهِ التَّامَّاتِ مِنْ شَرِّ مَا خَلَقَ

উচ্চারণ: আউজুবি কালিমা-তিল্লাহিত তা-ম্মাতি মিন শাররি মা খলাক।

একটি বিশেষ সুন্নাহ হলো, আক্রান্ত ব্যক্তি নিজ এলাকা থেকে বের হবে না অন্যান্য ব্যক্তি ঐ এলাকায় যাবে না।

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, যখন কোনো এলাকায় মহামারি (সংক্রামক ব্যাধি) ছড়িয়ে পড়ে তখন যদি তোমরা সেখানে থাকো, তাহলে সেখান থেকে বের হবে না। আর যদি তোমরা বাইরে থাকো তাহলে তোমরা সেই আক্রান্ত এলাকায় যাবে না। (বুখারি ও মুসলিম)

আল্লাহ তায়ালা আমাদের করোনাসহ সব মহামারী ও বিপর্যয় থেকে রক্ষা করুন। আমিন।

Link : www.jugantor.com/islam-life/286776/


Md. Monir Hossain Mozumder
Administrative Officer
Store Management