আল্লাহ (সুবহানাহু ওয়া তা’আলা) এর অবাধ্যতা আমাদের কেবল ক্ষতিই করবে

Author Topic: আল্লাহ (সুবহানাহু ওয়া তা’আলা) এর অবাধ্যতা আমাদের কেবল ক্ষতিই করবে  (Read 313 times)

Offline ashraful.diss

  • Full Member
  • ***
  • Posts: 119
  • 'শীঘ্রই রব তোমাকে এত দিবেন যে তুমি খুশি হয়ে যাবে'
    • View Profile
আল্লাহ (সুবহানাহু ওয়া তা’আলা) এর অবাধ্যতা আমাদের কেবল ক্ষতিই করবে

আদম (আঃ) কে আগে থেকেই সতর্ক করা হয়েছিল যে, শয়তান হচ্ছে তার একমাত্র শত্রু। কিন্তু সে এই কথা ভুলে গিয়েছিল, তাই শয়তান তাকে সহজেই ধোঁকা দিয়ে মহান আল্লাহর অবাধ্যতা করাতে সক্ষম হয়েছিল। তবে, পরবর্তীতে তওবা করার জন্য তাকে ক্ষমা করে দেয়া হয়; এবং আল্লাহ তা’আলা পুনরায় তাকে পথনির্দেশনা দেন।

আদম (আঃ) ও তার স্ত্রীকে পৃথিবীতে প্রেরণ করা হয়। তাকে অবহিত করা হয় যে, তার বংশধরের কেউ যদি আল্লাহর নির্দেশনা গ্রহণ ও মান্য করে; তবে সে পথভ্রষ্ট হবে না এবং কষ্টে পতিত হবে না। কিন্তু যে অবজ্ঞা করবে, তাকে অসুখী জীবন পার করতে হবে এবং কেয়ামতের দিন তাকে অন্ধ করে পুনরুত্থান করা হবে কারণ দুনিয়াতে আল্লাহর আয়াতসমূহ এর ব্যাপারে তারাও অন্ধ বা বেখেয়াল ছিল।

আমি ইতিপূর্বে আদমকে নির্দেশ দিয়েছিলাম। অতঃপর সে ভুলে গিয়েছিল এবং আমি তার মধ্যে দৃঢ়তা পাইনি। যখন আমি ফেরেশতাদেরকে বললামঃ তোমরা আদমকে সেজদা কর, তখন ইবলীস ব্যতীত সবাই সেজদা করল। সে অমান্য করল। অতঃপর আমি বললামঃ হে আদম, এ তোমার ও তোমার স্ত্রীর শত্রু, সুতরাং সে যেন বের করে না দেয় তোমাদের জান্নাত থেকে। তাহলে তোমরা কষ্টে পতিত হবে। তোমাকে এই দেয়া হল যে, তুমি এতে ক্ষুধার্ত হবে না এবং বস্ত্রহীণ হবে না। এবং তোমার পিপাসাও হবে না এবং রৌদ্রেও কষ্ট পাবে না। অতঃপর শয়তান তাকে কুমন্ত্রনা দিল, বললঃ হে আদম, আমি কি তোমাকে বলে দিব অনন্তকাল জীবিত থাকার বৃক্ষের কথা এবং অবিনশ্বর রাজত্বের কথা? অতঃপর তারা উভয়েই এর ফল ভক্ষণ করল, তখন তাদের সামনে তাদের লজ্জাস্থান খুলে গেল এবং তারা জান্নাতের বৃক্ষ-পত্র দ্বারা নিজেদেরকে আবৃত করতে শুরু করল। আদম তার পালনকর্তার অবাধ্যতা করল, ফলে সে পথ ভ্রষ্ঠ হয়ে গেল। এরপর তার পালনকর্তা তাকে মনোনীত করলেন, তার প্রতি মনোযোগী হলেন এবং তাকে সুপথে আনয়ন করলেন। তিনি বললেনঃ তোমরা উভয়েই এখান থেকে এক সঙ্গে নেমে যাও। তোমরা একে অপরের শত্রু।

এরপর যদি আমার পক্ষ থেকে তোমাদের কাছে হেদায়েত আসে, তখন যে আমার বর্ণিত পথ অনুসরণ করবে, সে পথভ্রষ্ঠ হবে না এবং কষ্টে পতিত হবে না। এবং যে আমার স্মরণ থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে, তার জীবিকা সংকীর্ণ হবে এবং আমি তাকে কেয়ামতের দিন অন্ধ অবস্থায় উত্থিত করব। সে বলবেঃ হে আমার পালনকর্তা আমাকে কেন অন্ধ অবস্থায় উত্থিত করলেন? আমি তো চক্ষুমান ছিলাম। আল্লাহ বলবেনঃ এমনিভাবে তোমার কাছে আমার আয়াতসমূহ এসেছিল, অতঃপর তুমি সেগুলো ভুলে গিয়েছিলে। তেমনিভাবে আজ তোমাকে ভুলে যাব। এমনিভাবে আমি তাকে প্রতিফল দেব, যে সীমালঙ্ঘন করে এবং পালনকর্তার কথায় বিশ্বাস স্থাপন না করে। তার পরকালের শাস্তি কঠোরতর এবং অনেক স্থায়ী। {সূরা ত্বোহা: আয়াত ১১৫-১২৭}

Mufti. Mohammad Ashraful Islam
Ethics Education Teacher, DISS
Khatib, Central Mosque, Daffodil Smart City
Ashuli , Savar, Dhaka